adimage

২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
সকাল ১২:১৬, মঙ্গলবার

বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভোগ্যপণ্য প্রদর্শনীতে বাংলাদেশ

আপডেট  08:09 AM, জানুয়ারী ১৪ ২০১৮   Posted in : অর্থ ও বাণিজ্য     

বিশ্বেরসবচেয়েবড়ভোগ্যপণ্যপ্রদর্শনীতেবাংলাদেশ

ঢাকা ১৪ জানুয়ারীএ্যাম্বিয়েন্ট হলো ভোগ্যপণ্যের বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং সবচেয়ে পরিচিত বাণিজ্য মেলাগুলোর আন্তর্জাতিক সংস্থা। এই প্রদর্শনীতে খুব পরিষ্কারভাবে চারটি কাঠামো, যথা ডাইনিং, গিভিং, লিভিং এবং সোর্সিংয়ে তাদের টার্গেট গ্রুপগুলো ভাগ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ গত তিন দশকেরও বেশি সময় ধরে এ্যাম্বিয়েন্টে অংশ নিচ্ছে এবং এই প্রদর্শনী থেকে বেশ কিছু ইন্ডাস্ট্রি যেমন পাট এবং হস্তশিল্পজাত পণ্য তাদের মানোন্নয়নে সক্ষম হয়েছে। ভারতের পরেই বাংলাদেশ হলো এই প্রদর্শনীতে দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় রফতানিকারক দেশ, যাদের পণ্য তালিকা অনেক বিস্তৃত। সিরামিক তৈরি প্রতিষ্ঠান যেমন শাইন পুকুর এ্যাম্বিয়েন্টে আছে হল ছ’য়ে (ডাইনিং), যেখানে অন্যান্য প্রতিষ্ঠান জায়গা পেয়েছে প্রদর্শনীর হল দশে (গিভিং অর লিভিং)। এ্যাম্বিয়েন্টে চার হাজার ৪০০ জনেরও বেশি প্রদর্শক আছে এবং এতে এক লাখ ৪০ হাজারেরও বেশি ক্রেতা আসেন প্রতিবারে। এটি একটি বিখ্যাত প্রদর্শনী যেখানে বাংলাদেশ বিশ্বের বাজারে নিজের পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রির সুযোগ পায় এবং এখানে ১৫৪ টিরও বেশি দেশ থেকে ক্রেতারা অংশ নেয়।

প্রদর্শনীতে শীর্ষ দশ পরিদর্শক দেশ হচ্ছে চীন, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, ইতালি, স্পেন, সুইজারল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, নেদারল্যান্ডস, তুরস্ক এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। চীন, হংকং, তাইওয়ান এবং ভিয়েতনাম থেকে এবারে স্বাভাবিক গড়ের থেকেও বেশি সংখ্যক দর্শনার্থী এসেছে এই অনুষ্ঠানে। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, রাশিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং দক্ষিণ আমেরিকান দেশ যেমন- ব্রাজিল, উরুগুয়ে এবং আর্জেন্টিনা থেকেও প্রচুর দর্শনার্থী আসেন। এক দশকেরও বেশি সময় ধরে অনুষ্ঠিত এ্যাম্বিয়েন্ট ফ্রাঙ্কফুর্টে এ্যাম মেইনে তার দুয়ার উন্মোচন করবে আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি। বাংলাদেশ থেকে এবারে মোট ৩১ প্রদর্শক এ্যাম্বিয়েন্টে অংশ নিচ্ছেন বিভিন্ন পণ্য নিয়ে; যার মধ্যে আছে সিরামিক, পাট এবং অন্যান্য হস্তশিল্পজাত পণ্য। বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে যেসব প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে তাদের মধ্যে আছে- ন্যাচারাল হ্যান্ডিক্রাফটস, প্রকৃতি, কর দা জুট ইত্যাদি। এছাড়াও অন্যান্য প্রতিষ্ঠান অংশ গ্রহণ করে ইপিবির সহায়তা ছাড়া সরাসরিভাবে নিজেদের স্বতন্ত্র স্টল নিয়ে যাদের মধ্যে আছে, আর্টিসান সিরামিকস লিমিটেড, আস্ক হ্যান্ডিক্রাফটস লিমিটেড, কনেক্সপো, ক্রিয়েশন, ফার সিরামিকস, মুন্নু সিরামিকস, প্যারাগন সিরামিকস, পিপলস সিরামিকস, সান ট্রেড এবং শাইন পুকুর সিরামিকস। শাইন পুকুর সিরামিকস এ্যাম্বিয়েন্টে ২৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে অংশ নিচ্ছে। বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রমোশন ব্যুরো (ইপিবি) হস্তশিল্পজাত পণ্য, গৃহসজ্জায় ব্যবহৃত পণ্য, রান্নাঘরের সরঞ্জামাদি, ইত্যাদির রফতানি বাড়াতে ভর্তুকি দিয়ে স্বল্পমূল্যে স্টল বরাদ্দ করে আসছে যেন ক্ষুদ্র ও মাঝারি রফতানিকারকরা বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভোগ্যপণ্য প্রদর্শনীতে অংশ নিতে আরও উৎসাহী হয়। আগামী এ্যাম্বিয়েন্ট অনুষ্ঠিত হবে ২০১৯ সালে। এছাড়াও এ্যাম্বিয়েন্ট ভারত অনুষ্ঠিত হবে আগামী জুন মাসে।


সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul