adimage

১৮ Jun ২০১৮
বিকাল ০৭:৩১, সোমবার

এই হোটেলে পেটপুরে খান, টাকা না দিলেও চলবে

আপডেট  07:15 PM, মার্চ ০৭ ২০১৮   Posted in : আন্তর্জাতিক    

এইহোটেলেপেটপুরেখান,টাকানাদিলেওচলবে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ৮ মার্চ : গরিবদের উদ্দেশ্যে ৫ টাকা, ১০ টাকায় ভরপেট থালির কথা অনেকেই শুনেছেন। যেমন তামিলনাডুর ইডরে ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রতিদিন অন্তত ৭০ জন মানুষকে এক টাকার কুপনে পেট ভরে খাবার দিচ্ছেন ‘শ্রী এএমভি হোমলি মেস’-এর ভি ভেঙ্কটরমন।

তবে এবার একেবারে বিনা পয়সাই খাবার বিতরনের উদ্যোগ নিয়েছে ভারতের একটি হোটেল। যেখানে নেই কোনও ক্যাশ কাউন্টার। নেই কোনও ক্যাশিয়ারও।

আর যদি পকেট ‘গড়ের মাঠ’ হয়, তবে দিতে হবে না এক পয়সাও। সম্প্রতি কেরলের আলপ্পুঝা জেলাতে ‘জনকীয় ভক্ষণশালা’ নামে এমনই এক হোটেল চালু হয়েছে।

(প্যালিয়েটিভ কেয়ার ইউনিট)-এর আহ্বায়ক আর রিয়াস ‘জীবনথালম’ জানিয়েছেন জেলার সিপিএম পরিচালিত ‘প্যালিয়েটিভ কেয়ার ইউনিট’-এর তত্ত্বাবধানে প্রতিদিন অন্তত এক হাজার মানুষকে ভরপেট খাওয়ানোই এই হোটেলের লক্ষ্যে।

কেরলের স্টেট ফিনান্সিয়াল এন্টারপ্রাইজের সিএসআর ফান্ড-এর সহায়তায় এই হোটেলটি দরিদ্র এবং সাধারণ মানুষের মুখে সুলভে বা প্রয়োজনে বিনামূল্যেই দু’মুঠো খাবার তুলে দেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। জানা গিয়েছে, ১১.২৫ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে এই হোটেল তৈরিতে।

 এই হোটেলের উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন জনকীয় ভক্ষণশালা রাজ্যের অর্থমন্ত্রী থমাস আইজ্যাকেরই। এ ছাড়াও ছিলেন রাজ্যের জলসম্পদ মন্ত্রী ম্যাথু টি থমাস। হোটেল শুরুর দিন নিজের হাতেই খাবার পরিবেশন করেন অর্থমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী জানান, এই হোটেলে কোনও ক্যাশ কাউন্টার নেই। নেই কোনও ক্যাশিয়ারও। পরিবর্তে দরজার সামনে একটি বাক্স রাখা আছে। যেখানে পেটপুরে খেয়ে রেস্তোরাঁ ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়ার আগে খাবারের মূল্য হিসেবে আপনার ইচ্ছে মতো টাকা দিয়ে চলে যেতে পারেন। থমাস আইজ্যাকের কথায়, ‘কারও যদি খাবারের দাম দেওয়ার টাকা না থাকে, সে ক্ষেত্রে তার টাকা না দিলেও চলবে। খিদে পেলে চলে আসুন এখানে।’

জানা গিয়েছে, সরকারি তহবিলের সহায়তা ছাড়াও আলপ্পুঝার অনেক স্থানীয় বাসিন্দা আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। আলপ্পুঝা-চেরথানা ন্যাশনাল হাইওয়ের কাছে এই হেটেলে একটি আধুনিক স্টিম কিচেন রয়েছে। যেখানে অনায়াসে ২০০০ জনের খাবার তৈরি করা যায়।

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul