adimage

১৮ অগাস্ট ২০১৯
সকাল ০৭:৩৯, রবিবার

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ীতে নৌযান চলাচল বন্ধে চরম দুর্ভোগ

আপডেট  02:18 AM, অগাস্ট ০৮ ২০১৯   Posted in : জাতীয়    

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ীতেনৌযানচলাচলবন্ধেচরমদুর্ভোগ

ঢাকা, ৮ আগস্ট : বৈরী আবহাওয়ায় পদ্মা নদী উত্তাল হয়ে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি, লঞ্চ, স্পিডবোটসহ সব নৌযান চলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে ঘাট এলাকায় দীর্ঘ যানজটে চরম দুর্ভোগের মুখে আছে যাত্রী ও শ্রমিকরা। ঢাকামুখী গরু বোঝাই অসংখ্য ট্রাকও আটকে পড়ায় অনেক গরু অসুস্থ হয়ে পড়ছে। দীর্ঘ সময় আটকে পড়ায় কাউসার মিয়া নামে এক গরু ব্যবসায়ীর ৬০ হাজার টাকা মূল্যের একটি গরুর মৃত্যু হয়েছে। আরো অনেকের গরুই অসুস্থ হয়ে পড়ছে।

মুন্সীগঞ্জ ও শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি জানান, ঢেউয়ের তোড়ে একটি গরুবাহী ট্রলারের তলা ফেটে গেলে ট্রলারটি একটি চরে নিরাপদে তুলে দেন চালক। তাঁর বুদ্ধিমত্তায় বেঁচে যায় প্রায় ৬০টি গরু। বিআইডাব্লিউটিসিসহ একাধিক সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই বৈরী আবহাওয়ায় শিমুুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটের পদ্মা নদী উত্তাল হয়ে উঠলে নৌযান পারাপারে বিলম্ব হচ্ছিল। ঢেউয়ের তোড়ে শিমুলিয়ার তিনটি ঘাটই ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বুধবার সকাল ৬টা থেকে সীমিত আকারে ফেরি চলাচল শুরু করে। লৌহজং টার্নিংয়ের বিকল্প সরু চ্যানেল দিয়ে পারাপারে দীর্ঘ সময় লাগছিল। কিন্তু নদী ফের উত্তাল হয়ে পড়ায় বুধবার সকাল ১১টা থেকে আবারও সব ফেরি চলাচল বন্ধ করে দেয় বিআইডাব্লিউটিসি। অনেক ব্যবসায়ী গরু নিয়ে বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে ঢাকায় রওনা করেছে। মাগুরার গরু ব্যবসায়ী ইয়াকুব মিয়া বলেন, ‘আমাদের গরুগুলো অসুস্থ হয়ে পড়ছে। আমরা ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি।’

বিআইডাব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের এজিএম নাসির চৌধুরী জানান, পদ্মার স্রোত এতটাই প্রমত্ত হয়ে পড়েছে যে কোনো ফেরি ঘাট থেকে ছাড়ার পর পর তা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলছিল। বৃহস্পতিবার থেকে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের রওনা হওয়ার কথা। তাই এ রকম চলতে থাকলে এখানে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের চরম বিড়ম্বনার শিকার হতে হবে।

মাওয়া ট্রাফিক জোনের টিআই হিলাল উদ্দিন জানিয়েছেন, ফেরিসহ সব নৌযান বন্ধ থাকায় ঘাটের তিনটি পার্কিং ইয়ার্ডই পারাপারের অপেক্ষায় থাকা গাড়িতে পরিপূর্ণ রয়েছে। মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাবিরুল ইসলাম খান দুপুরে শিমুলিয়া ঘাট পরিদর্শন শেষে বলেন, ‘যাত্রীদের দুর্ভোগ হলেও আমরা কোনো ধরনের ঝুঁকি নিতে পারি না। যাত্রীদের জানমালের নিরাপত্তা আগে। নদী নৌযান চলাচলের উপযোগী না হওয়া পর্যন্ত ফেরিসহ সব নৌযান চলাচল বন্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বিআইডাব্লিউটিসি ও বিআইডাব্লিউটিএকে।’ -কালের কণ্ঠ


সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul