adimage

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
সকাল ০১:১৬, শনিবার

বাড্ডায় ডেন্টাল ক্লিনিকে তরুণীর গলাকাটা লাশ

আপডেট  10:10 AM, ফেব্রুয়ারী ০৩ ২০১৮   Posted in : জাতীয়    

বাড্ডায়ডেন্টালক্লিনিকেতরুণীরগলাকাটালাশ

ঢাকা, ৩ ফেব্রুয়ারি : রাজধানীর মধ্য বাড্ডার ‘হায়দার ডিজিটাল ডেন্টাল ক্লিনিক’ থেকে এক তরুণীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতের নাম লিজা আক্তার (২১)। গতকাল শুক্রবার তার  লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত লিজা ওই ক্লিনিকে গত বছরের রমজান মাস থেকে রিসেপশনিস্ট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে রাখা হয়েছে।
 
পুলিশ জানায়, নিহতের শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। তবে কী কারণে তাকে হত্যা বা কারা এ ঘটনায় জড়িত তাত্ক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। এ ঘটনায় ওই ডেন্টাল ক্লিনিকের মালিক ও কেয়ারটেকারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।
 
স্থানীয় সূত্র জানায়, লিজার গ্রামের বাড়ি বরগুনার তালতলী এলাকায়। লিজা তার স্বামী আরাফাত হোসেনের সঙ্গে মধ্যবাড্ডা এলাকায় থাকতেন। মধ্য বাড্ডার বীর উত্তম রফিকুল ইসলাম সরণির হাজী রুস্তম আলী ম্যানশনে হায়দার ডিজিটাল ডেন্টাল ক্লিনিকে গত রমজান মাস থেকে তিনি চাকরি করেন। প্রতিদিনের মতো গতকাল দুপুর ১২টার দিকে তিনি ক্লিনিকে আসেন। বিকাল ৪টার দিকে প্রতিষ্ঠানটিতে চিকিৎসকদের আসার কথা ছিল। তিনি ক্লিনিকে আসলে দুপুরের খাবারের জন্য ক্লিনিকের নিরাপত্তাকর্মী বাইরে চলে যান। তখন তিনি একাই ক্লিনিকে ছিলেন। বেলা ৩টার দিকে ক্লিনিকের দরজার নিচ থেকে রক্ত বের হতে দেখে স্থানীয়রা ঘটনাটি পুলিশকে জানায়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ক্লিনিকের ভেতর থেকে লিজার রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে। পরে সিআইডির একাট ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আলামত সংগ্রহ করে।
 
নিহতের স্বামী আরাফাত হোসেন জানান, গতকাল বেলা ১১টার দিকে স্ত্রীর সঙ্গে তার শেষবার কথা হয়। দুপুরে ক্লিনিকে লিজা একাই ছিলেন। পরে ক্লিনিক থেকে তাকে মৃত্যুর খবরটি জানানো হয়। হত্যার কারণ সম্পর্কে কিছুই ধারণা করতে পারছেন না আরাফাত।
 
পুলিশের বাড্ডা জোনের জ্যেষ্ঠ সহকারী কমিশনার আশরাফুল কবির জানান, কে বা কারা, কেন তাকে হত্যা করেছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে পরকীয়া, ব্যক্তিগত ও কর্মস্থল সংক্রান্ত বিরোধসহ সম্ভাব্য কয়েকটি কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। -ইত্তেফাক

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul