adimage

২৪ মে ২০১৮
বিকাল ১০:০০, বৃহস্পতিবার

রোহিঙ্গা পুনর্বাসনে ১ কোটি ২৮ লাখ ডলারের প্রতিশ্রুতি

আপডেট  01:45 AM, ফেব্রুয়ারী ০৬ ২০১৮   Posted in : জাতীয়    

রোহিঙ্গাপুনর্বাসনে১কোটি২৮লাখডলারেরপ্রতিশ্রুতি

ঢাকা, ৬ ফেব্রুয়ারি : মিয়ানমারের রাখাইন থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের পুনর্বাসনে ১ কোটি ২৮ লাখ ৪০ হাজার ডলার (১ কোটি ২০ লাখ সুইস ফাঁ) সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সুইজারল্যান্ড। গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট আঁলা বেরসেত এ প্রতিশ্রুতি দেন। বৈঠক শেষে দুই নেতার পক্ষ থেকে পাঠানো যৌথ বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়।

বৈঠকে সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট মিয়ানমারের নিপীড়িত রোহিঙ্গাদের প্রতি মানবিক সহায়তার জন্য শেখ হাসিনা সরকারের প্রশংসা করে এ সমস্যা সমাধানে তার দেশের পক্ষ থেকে পূর্ণ সমর্থনের কথা জানান।

যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যের (এসডিজি) সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন সুইজারল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট। এ ছাড়া বাংলাদেশে বিনিয়োগের বিষয়েও আগ্রহ দেখিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান মিয়ানমারকেই করতে হবে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় তিনি কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নেরও তাগিদ দেন।

বৈঠকে সুইস প্রেসিডেন্ট আঁলা বেরসেত বলেন, অনেক বাধার পরও বাংলাদেশ গণতন্ত্রকে আরও শক্তিশালী করাসহ আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় যে প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে, সুইজারল্যান্ড তাকে গুরুত্ব দেয়। কারণ গণতন্ত্র ও আইনের শাসন দুদেশের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্কের মূলভিত্তি। দুদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক চার দশকেরও বেশি সময় ধরে আছে। এই সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করতে সুইজারল্যান্ড প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। উন্নয়ন ও বাণিজ্য খাতে বাংলাদেশের সঙ্গে আরও গভীর সম্পর্ক গড়তে চাই।

তিনি আরও বলেন, ধারাবাহিক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও দারিদ্র্য বিমোচনে বাংলাদেশ যেভাবে সফলতার সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে, তা প্রসংশনীয়। সবুজ অর্থনীতি তথ্যপ্রযুক্তি খাতসহ একাধিক বিষয়ে দ্বিপক্ষীয় অর্থনৈতিক সম্পর্ক আরও এগিয়ে নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর বেরসেতের সঙ্গে একান্ত বৈঠক করেন শেখ হাসিনা।

বৈঠকে রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে আলোচনার কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, এ সমস্যার মূল মিয়ানমারে। তাই মিয়ানমারকেই এ সমস্যার সমাধান খুঁজে বের করতে হবে। মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের নিরাপদ প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করতে কফি আনান কমিশনের প্রতিবেদন অবিলম্বে বাস্তবায়নের ওপরও গুরুত্ব দেন শেখ হাসিনা। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে সুইজারল্যান্ডের অবস্থানের জন্য বেরসেতকে ধন্যবাদ জানান তিনি। এ ছাড়া জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় প্যারিস চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়নের ওপরও জোর দেন।

গতকাল বিকাল ৩টার দিকে আঁলা বেরসেত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এসে পৌঁছান। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে স্বাগত জানান। চার দিনের সফরে গত রবিবার দুপুরে ঢাকায় পৌঁছান সুইস প্রেসিডেন্ট। তাকে বিমানবন্দরে স্বাগত জানান বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। -আমাদের সময়

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul