adimage

১৯ জানুয়ারী ২০১৮
সকাল ০৬:০০, শুক্রবার

খালেদা জিয়াই আদালতকে হেনস্তা করছেন: হাছান

আপডেট  12:14 PM, ডিসেম্বর ৩০ ২০১৭   Posted in : রাজনীতি    

খালেদাজিয়াইআদালতকেহেনস্তাকরছেন:হাছান

ঢাকা, ৩০ ডিসেম্বর : আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, এতিম খানার নামে অর্থ আত্মসাৎ মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিচার এখন শেষ পর্যায়ে। বিএনপি অভিযোগ করছে, বিচারের নামে খালেদা জিয়াকে হেনস্তা করা হচ্ছে। অথচ দেখা যাচ্ছে খালেদা জিয়া বারবার আদালতের কাছ থেকে নানা অজুহাতে সময় নিয়ে আদালতকেই হেনস্তা করছেন।

আজ শনিবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব চত্বরে ‘খালেদা জিয়া ও তার পরিবার কর্তৃক বিদেশে পাচারকৃত অর্থ ফিরিয়ে আনা ও খালেদা জিয়ার বিচার’ দাবিতে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত মানববন্ধনে হাছান মাহমুদ এ কথা বলেন।

সাবেক এই মন্ত্রী অভিযোগ করেন, বিএনপির চেয়ারপারসন ইতিমধ্যে আদালতের কাছ থেকে দেড় শ বার সময় নিয়েছেন। বিচার শেষ পর্যায়ে থাকায় বিচারের রায় ঠেকাতে বিএনপি দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে তিনি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ এবং সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আবদুল আওয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আওয়ালকে মনোনয়ন দেওয়ার কথা শোনা যাচ্ছে। এতে প্রমাণ হয়, ‘মানিকে মানিক চেনে, দুর্নীতিবাজ চেনে দুর্নীতিবাজ’। কেননা আবদুল আওয়াল মিন্টু ও তার ছেলে তাবিথ দুজনেরই বিদেশে অর্থ পাচারকারী হিসেবে পানামা পেপারসে নাম এসেছে। আর খালেদা জিয়াও বিদেশে অর্থ পাচার করে বিভিন্ন দেশে শপিংমল ও বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করেছেন বলে বিশ্ব গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে। খালেদা জিয়া নিজেই একজন দুর্নীতিবাজ, আর নির্বাচনে যাদের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দিচ্ছেন তারাও দুর্নীতিবাজ।

হাছান মাহমুদ বলেন, আগামী ৫ জানুয়ারিকে সামনে রেখে বিএনপি জামায়াত দেশে পরিকল্পিত নৈরাজ্য ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ছক এঁকেছে। বিএনপি জামায়াতের নীল নকশা ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে জনগণের পাশে থেকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের সতর্ক পাহারায় থাকতে হবে।

খালেদা জিয়ার বিদেশে অর্থ পাচারের অভিযোগ তুলে সাবেক পরিবেশ ও বন মন্ত্রী বলেন, আগে জানা গিয়েছিল তারেক রহমান এবং আরাফাত রহমান বিদেশে অর্থ পাচার করে সম্পদের পাহাড় গড়েছেন। এখন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে খালেদা জিয়াও মধ্যপ্রাচ্যে অর্থ পাচার করে শপিং মলসহ বিভিন্ন খাতে বিনিয়োগ করেছেন। সৌদি আরবে ১১ জন যুবরাজ গ্রেপ্তার হয়েছেন। এদের মধ্যে দুজন ইতিমধ্যে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন খালেদা জিয়ার বিনিয়োগ রয়েছে শপিংমলে নির্মাণে। সেখান থেকে প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর খালেদা জিয়া লভ্যাংশ পেয়ে থাকেন।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বখতেয়ার সাঈদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবূ তৈয়বের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক জসিম উদ্দিন শাহ, দক্ষিণ জেলা যুবলীগ সভাপতি আ ন ম টিপু সুলতান প্রমুখ।

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul