adimage

১৬ নভেম্বর ২০১৯
সকাল ০৩:০০, শনিবার

ভুল চিকিৎসায় সংকটাপন্ন বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থীর জীবন

আপডেট  04:13 AM, মে ২৩ ২০১৯   Posted in : শিক্ষাঙ্গন    

ভুলচিকিৎসায়সংকটাপন্নবশেমুরবিপ্রবিশিক্ষার্থীরজীবন

মাইনউদ্দিন পরান, ২৩ মে :  গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) সমাজবিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মরিয়ম সুলতানা মুন্নীর (২০) জীবন এখন সংকটে। মঙ্গলবার (২১ মে)  সকালে গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে অপারেশন থিয়েটারে ভুল করে এনেসথেসিয়া ইনজেকশন প্রয়োগের ফলে এ ঘটনাটি ঘটে।

পরে মুন্নীকে খুলনার শহিদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখার পর তাকে বুধবার এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

শিক্ষার্থীর বাবা মো মোশারফ হোসেন বলেন, পিত্ত-থলিতে পাথরজনিত সমস্যায় মঙ্গলবার (২১ মে) সকালে তাকে অস্ত্রোপচার করার জন্য অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়। সেখানে দায়িত্বরত নার্স শাহনাজ পারভিন গ্যাসের ইনজেকশনের বদলে এনেসথেসিয়া ইনজেকশন প্রয়োগ করে। এতে সে জ্ঞান হারায়। পরে তাকে খুলনা নিয়ে আইসিইউ’তে রাখা হয়। মুন্নীর অবস্থার অবনতি দেখে চিকিৎসকরা ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শ দেন।

গোপালগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের উপ-পরিচালক ড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, ‘ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত। ইতিমধ্যে ড. মাসুদুর রহমানকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে তিন দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। ওই নার্স দোষী সাব্যস্ত হলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

এই ব্যাপারে শিক্ষার্থীর চাচা জাকির হোসেন বাদী হয়ে গোপালগঞ্জ সদর থানায় চিকিৎসক ডা. তপন কুমার মন্ডল ও নার্স শাহনাজ পারভীন এবং কুহেলিকাকে অভিযুক্ত করে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul