adimage

১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৮
বিকাল ০২:৪৬, রবিবার

এবার ফেসবুকে উন্মুক্ত সমাধানসহ প্রশ্নপত্র

আপডেট  02:59 AM, ফেব্রুয়ারী ০৪ ২০১৮   Posted in : শিক্ষাঙ্গন    

এবারফেসবুকেউন্মুক্তসমাধানসহপ্রশ্নপত্র

ঢাকা, ৪ ফেব্রুয়ারি : এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনের বাংলা প্রথম পত্রের পর এবার বাংলা দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্নও মিলে গেল পরীক্ষার আগে ফেসবুকে দেওয়া প্রশ্নের সঙ্গে। শুধু প্রশ্নই নয়, ছিল সমাধানও।

গতকাল শনিবার বাংলা দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা শুরুর আধাঘণ্টা থেকে ৪৫ মিনিট আগে ফেসবুকের বিভিন্ন আইডি থেকে সমাধানসহ প্রশ্ন সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। বহু নির্বাচনী প্রশ্নের (এমসিকিউ) অংশই শুধু উন্মুক্ত করা দেওয়া হয়েছিল।

এর আগে গত শুক্রবার রাত থেকেই ফেসবুকের বিভিন্ন আইডি থেকে ‘বাংলা দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্ন আছে’ বলে জানানো হচ্ছিল। এ জন্য নানা উপায়ে দুই হাজার টাকা পর্যন্ত চাওয়া হয়। যারা আগ্রহ দেখিয়েছে তাদের ইনবক্সে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

তবে এত কিছুর পরও শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তারা নিশ্চুপ রয়েছেন। গতকালের পরীক্ষার আগে সমাধানসহ প্রশ্নপত্র ফেসবুকে চলে আসার ব্যাপারে কারো বক্তব্য চেয়েও পাওয়া যায়নি।   

ফেসবুকে ‘এসএসসি এক্সাম কোয়েশ্চেন ২০১৮’ নামের আইডিতে গতকাল সকাল ৯টা ১৭ মিনিটে বাংলা দ্বিতীয় পত্রের এমসিকিউ অংশের প্রশ্ন দেওয়া হয়। ‘খ’ সেটের এই প্রশ্নের সঙ্গে পরীক্ষায় আসা মূল প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া যায়। এই আইডি থেকে এর আগে প্রকাশ করা বাংলা প্রথম পত্রের প্রশ্নও মিলে গিয়েছিল। তবে প্রথম দিন এই আইডিতে আগাম প্রশ্নের যোগাযোগের জন্য শুধু একটি মোবাইল নম্বর দেওয়া হয়েছিল। এবার তিনটি মোবাইল নম্বর দেওয়া হয়েছে। সেগুলো হলো ০১৬৪০৭৩৪৩৭৮, ০১৭৬৪৪৩৯১০০ ও ০১৬৪০৫৭০৭৫১।

এ ছাড়া ‘PSC JSC SSC HSC All Exam 100% Common Suggestion & Out Questions’ নামের আইডি থেকে শুক্রবার রাত ৯টা ৪০ মিনিটে একটি পোস্ট দেওয়া হয়েছিল, ‘বাংলা দ্বিতীয় পত্র প্রশ্ন এখন হাতে, কার কার লাগবে যোগাযোগ করো।’ এই আইডি থেকেই গতকাল বিকেল ৪টা ১ মিনিটে আরেকটি পোস্টে বলা হয়েছে, ‘যাদের দিছিলাম সবার কমন আইছে, ইংরেজি আজ রাত ৮টায় দিব, যাদের লাগবে মেসেজ করো।’

তবে এ ধরনের একটি পোস্টেই শ শ মন্তব্য পড়ছে। আগামী সোমবার ইংরেজি প্রথম পত্রের পরীক্ষা। সবাই এই পরীক্ষার প্রশ্নই চাচ্ছে। বেশির ভাগ কমেন্টেই প্রতিউত্তর দিয়ে যোগাযোগের জন্য ইমো, ভাইবারসহ নানা ধরনের নম্বরও দেওয়া হচ্ছে। আগাম প্রশ্নের জন্য চাওয়া হচ্ছে আগাম টাকা।

এ ছাড়া ‘SSC Question Out’, ‘PSC_JSC_SSC_HSC_Degree out question bank.(R)’, ‘SSC Question OuT 100% Common All Board & Rezult Change 2018+19+20 All BD’ ইত্যাদি আইডি থেকেও পরীক্ষার আগে প্রশ্ন দেওয়া হয়। আবার কেউ কেউ এমসিকিউয়ের উত্তরও দিয়ে দিচ্ছে।

প্রশ্ন পাওয়া অভিভাবকদের কাছ থেকে জানা গেছে, আগাম প্রশ্নপত্র পেতে তাঁরা ফেসবুকের ওই সব আইডিতে আগ্রহ প্রকাশ করলে তাঁদের প্রথমে ইনবক্সে যোগাযোগ করতে বলা হয়। সেখানে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল ফোন নম্বর ও হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর দেওয়া হচ্ছে। নিরাপত্তা সংরক্ষণ করার জন্য হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে দেওয়া হচ্ছে প্রশ্নপত্র। কারণ ইন্টারনেটভিত্তিক এই অ্যাপস এখন পর্যন্ত নিরাপদ পথে তথ্য আদান-প্রদান করতে পারে।

ফেসবুক ঘেঁটে দেখা গেছে, এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিন ফেসবুকে দেওয়া প্রশ্ন মিলে যাওয়ায় বাংলা দ্বিতীয় পত্র নিয়ে আগ্রহীদের ভিড় আরো বেড়েছে। ইংরেজি প্রথম পত্রের প্রশ্নের জন্য এ রকম বেশ কিছু ফেসবুক অ্যাডমিনের সঙ্গে ইনবক্সে যোগাযোগ করা হলে তারা একটি মোবাইল ব্যাংকিংয়ের নম্বর ও হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর দেয়। বিকাশ নম্বরে অর্থ দিলে হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র দেওয়া হবে বলেও তারা জানায়।

ফেসবুকে দেওয়া প্রশ্নের সঙ্গে বাংলা দ্বিতীয় পত্রের মূল প্রশ্নও মিলে যাওয়ার বিষয়ে গত রাতে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তপন কুমার সরকারকে একাধিকবার ফোন করলেও তিনি তা ধরেননি।

তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘এসব বিষয়ে আমাদের কমেন্টস করতে নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে।’

গত বৃহস্পতিবার এসএসসি পরীক্ষা শুরুর দিন কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছিলেন, ‘প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকাতে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে প্রমাণ হলে সঙ্গে সঙ্গে পরীক্ষা বাতিল করা হবে।’

প্রশ্নপত্র ফাঁসকারীদের হুঁশিয়ার করে তিনি বলেছিলেন, ‘আমরা খুবই ডেসপারেট, খুবই অ্যাগ্রেসিভ। এ বিষয়ে এবং যদি কোথাও কেউ কোনোভাবে প্রশ্ন ফাঁসের চেষ্টা করেন তিনি কোনোভাবেই রেহাই পাবেন না। কী হবে, আমিও সেটা ধারণা করতে পারি না। চরম একটা ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ -কালের কণ্ঠ

সর্বাধিক পঠিত

Comments

এই পেইজের আরও খবর

মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন

nazrul