July 30, 2014
বিনোদন কেন্দ্রে উপচে পড়া ভিড়

ঢাকা, ৩০ জুলাই : পবিত্র ঈদুল ফিতরের আনন্দ প্রকাশের অন্যতম স্থান রাজধানীর বিনোদন কেন্দ্র, বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নগরীর অধিকাংশ মানুষ বিনোদন কেন্দ্রমুখী হয়েছে। সব বয়সের মানুষ স্রোতের মতো বিনোদন কেন্দ্রের দিকে ছুটেছে। এই ছুটেচলা চলবে আরো সপ্তাহ খানেক।

ঢাকার অন্যতম বিনোদন কেন্দ্র চিড়িয়াখানায় এবং শিশুপার্কে ছিল সবচেয়ে বেশি ভিড়। এখানে সব শ্রেণীর মানুষ তাদের পরিবার, পরিজন এবং ছোটদের নিয়ে ছুটে এসছে। সময় যতোই গড়িয়েছে ভিড়ও বেড়েছে সমানতালে।

এছাড়ও মিরপুরের বোটানিক্যাল গার্ডেনে ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। মঙ্গলবার দুপুরে চিড়িয়াখান গেইটে গিয়ে দেখা গেছে, দীর্ঘ লাইন দিয়ে মানুষ ভেতরে প্রবেশ করছে। টিকিটও নিতে হয় লাইন দিয়ে। কিন্তু তারপরও কোনো ক্লান্তি নাই। ঈদের নামাজ শেষে হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মানুষ চিড়িয়াখানা যাওয়া শুরু করে। একটি বেসকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী একসঙ্গে এসছে মিরপুর চিড়িয়াখানা।

তাদের একজন রাফিয়া নাজনীন জানান, বন্ধুদের সঙ্গে চিড়িয়াখানা এসেছি। অনেকদিন ঢাকায় থাকলেও এখানে বন্ধুদের সঙ্গে কখনো আসা হয়নি। পরিবারের সঙ্গে ছোট বেলায় আসেছি। কিন্তু তখন হই উল্লাহ করতে পারিনি। এবার পরিকল্পনা করে আসেছি মজা করবো।

সরাকরি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা রাজিয়া সুলতানা, তিনি সাভার থেকে পরিবার নিয়ে চিড়িয়াখানায় এসেছেন। তার ছোট ছেলে রায়হান রহমান জানান, হাতি এবং বানর দেখব। অনেক মজা করব তাই চিড়িয়াখান আসছি।

চিড়িয়াখানার ভেতরে হকারদের আনাগোনা এবং কিনতে বাধ্য করার চিত্র চোখে পড়েছে। কোথাও যুগল দেখলে তাদের সামনে নানা ফন্দি করে কিনতে বাধ্য করে। দর্শনার্থীদের এই ভোগান্তি থেকে এবারও রক্ষা করতে পারেনি চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ।

ঢাকা চিড়িয়াখানার ডেপুটি কিউরেটর ড. মাকসুদুল হাসান হাওলাদারের কাছে দর্শনার্থীদের বিষয়ে জানতে চাইলে জানান, আজকে (মঙ্গলবার) ঈদের প্রথম দিন। আজ অনেকেই ব্যস্ত রয়েছে বাসার আপ্পায়নে। তারপরও আশা করছি ৬০ হাজার দর্শনার্থী চিড়িয়াখানা পরিদর্শন করবেন। তবে, ঈদের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিন সবচেয়ে বেশি ভিড় হয়।

মাকসুদুল হাসান আরও জানান, গত বছর (২০১৩) ঈদুল ফিতরের দ্বিতীয় দিনে চিড়িয়াখানার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি (এক লাখ ১২ হাজার) দর্শনার্থী ছিল। এবার সেই সংখ্যা ছাড়িয়ে যেতে পারে। আমার সর্বোচ্চ ভালো পরিবেশ নিশ্চিত করতে সব পদক্ষেপ নিয়ে রেখেছি।

তিনি জানান, চিড়িয়াখানায় শুক্রবারে ১৫ থেকে ২০ হাজারের মতো দর্শনাথী হয়। সপ্তাহের অন্য দিনগুলোতে গড়ে পাঁচ-সাত হাজারের মতো দর্শনার্থী থাকে।

চিড়িয়াখানা দেখে বোটানিকাল গার্ডেনের প্রবেশ মুখেও ভিড় ছিল বিকেল পর্যন্ত। রায়সুল ইসলাম নামের এক ব্যবসায়ী তার পরিবার নিয়ে ঘুরতে এসছেন বোটানিক্যাল গার্ডেনে। সময়ের অভাবে তিনি আসতে পারেন না। তাই ঈদের দিনে পরিবার নিয়ে বেড়াতে এসেছেন বলে জানান তিনি।

এদিকে শাহাবাগ শিশুপার্কেও সকাল থেকে উপচে পড়া ভিড় ছিল। পার্কের ভেতরে প্রবেশ করতে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়াতে হয়েছে দর্শনার্থীদের। ভেতরে প্রবেশ করে রাইডে উঠতেও একইভাবে লাইনে দাঁড়াতে হয়েছে তাদের। তারপরও ক্লান্তি দেখা যায়নি কারো মাঝে।

শিশুপার্কেও আগামী দুই দিন আরো ভিড় বাড়বে বলে কর্তৃপক্ষ আশা প্রকাশ করেছেন। সরকারি বিনোদন কেন্দ্র ছাড়াও রাজধানীর বেসরকারি কেন্দ্র গুলোতেও ভিড় ছিল উল্লেখযোগ্য।

সব খবর


উপদেষ্টা: ড. নিজামুল হক ভুঁইয়া
সম্পাদক: ওয়াদুদ বিন মুজিব উল্লাহ
ঠিকানা: ৩০৮, বড় মগবাজার
ঢাকা, বাংলাদেশ

ই-মেইল:– editor@news69bd.com, news@news69bd.com
info@news69bd.com
খবরের জন্য: news69bd.com@gmail.com
ফোনঃ ৯৩৪৭৩৬৯, ০১৯৭৭৭৭৭০৫৩
ফ্যাক্স: ৯৩৫০৫৫৫