২০ আগস্ট ২০১৭
সন্ধ্যা ৭:৪৩, রবিবার

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টা মামলায় ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টা মামলায় ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড 

522

ঢাকা, ২০ আগস্ট : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার উদ্দেশ্যে ৭৬ কেজি ওজনের বোমা পুঁতে রাখার মামলায় ১০ আসামির মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছেন আদালত। এছাড়া একজনের যাবজ্জীবন, তিনজনের ১৪ বছর করে কারাদণ্ড এবং ১০ জনকে খালাস দেওয়া হয়েছে। একই ঘটনায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের মামলায় ৯ জনের ২০ বছর করে কারাদণ্ড এবং চারজনকে খালাস দেওয়া হয়েছে।

আজ রবিবার ঢাকার ২ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের বিচারক মমতাজ বেগম এ রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে গত ১০ আগস্ট মামলা দুটির যুক্তিতর্কের শুনানি শেষে রায় ঘোষণার দিন ঠিক করেন ট্রাইব্যুনাল। এর আগে মামলাগুলোয় ৮৩ সাক্ষীর মধ্যে ৬৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন ট্রাইব্যুনাল।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- ওয়াসিম আক্তার ওরফে তারেক হোসেন ওরফে মারফত আলী, রাশেদ ড্রাইভার ওরফে আবুল কালাম ওরফে রাশেদুজ্জামান খান ওরফে শিমন খান, মোহাম্মদ ইউসুফ ওরফে আবু মোতাহারুল, শেখ ফরিদ ওরফে মওলানা শওকত ওসমান, হাফেজ জাহাঙ্গীর আলম বদর, মওলানা আবু বকর ওরফে হাফেজ সেলিম হাওলাদার, হাফেজ মওলানা ইয়াহিয়া, মুক্তি শফিকুর রহমান, মুক্তি আবদুল হাই ও মওলানা আব্দুর রউফ ওরফে আব্দুর রাজ্জাক ওরফে ওমর ফারুক।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০০০ সালের ২২ জুলাই গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় শেখ লুৎফর রহমান সরকারি আদর্শ কলেজ মাঠ প্রাঙ্গণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভার প্যান্ডেল তৈরির সময় শক্তিশালী একটি বোমা দেখতে পাওয়া যায়। সেনাবাহিনীর একটি দল ৭৬ কেজি ওজনের ওই বোমা উদ্ধার করে। পরদিন ২৩ জুলাই ৪০ কেজি ওজনের একটি বোমা উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় ওই দিনই কোটালীপাড়া থানার পুলিশ হত্যাচেষ্টা এবং বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে মামলা করে।

তদন্ত শেষে ২০০১ সালের ৮ এপ্রিল নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন হরকাতুল জিহাদের নেতা মুফতি আবদুল হান্নানসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। ২০১০ সালে গোপালগঞ্জ আদালত থেকে মামলাটি ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন, মো. মহিবুল্লাহ, মুন্সি ইব্রাহিম, মো. মাহমুদ আজহার, মো. রাশেদ ড্রাইভার, মো. শাহ নেওয়াজ, মো. ইউসুফ, মো. লোকমান, শেখ মো. এনামুল ও মো. মিজানুর রহমান।

বাংলাদেশে সাবেক ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর সিলেটে গ্রেনেড হামলা ও তিনজনকে হত্যার মামলায় মুফতি হান্নানের ফাঁসি ইতিমধ্যে কার্যকর হওয়ায় এ মামলা থেকে তাকে বাদ দেওয়া হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রকাশে দেড় মাস সময় 

588

ঢাকা, ২০ আগস্ট : নিম্ন আদালতের বিচারকদের শৃঙ্খলাবিধির গেজেট প্রকাশে সরকারকে প্রায় দেড় মাস সময় দিয়েছেন আপিল বিভাগ। আগামী ৮ অক্টোবরের মধ্যে গেজেট প্রকাশ করতে হবে।

আজ রবিবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহার নেতৃত্বে ৬ সদস্যের বেঞ্চ এ দিন ধার্য করেন।

শৃঙ্খলাবিধি মালার খসড়া প্রধান বিচারপতির কাছে হস্তান্তর করার পর গেজেট আকারে প্রকাশ করা সংক্রান্ত বিষয়ে গত ৫ আগস্ট সর্বশেষ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। তারপর সেটা আবারও পরবর্তী শুনানির জন্য রবিবার দিন ঠিক করেন আদালত।

এর আগে, নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধি গেজেট আকারে প্রকাশ বিষয়ে আলোচনা করার জন্য গত ৩ আগস্ট বিকেলে প্রধান বিচারপতিসহ আপিল বিভাগের বিচারপতিদের সঙ্গে আইনমন্ত্রীর বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আইনমন্ত্রী অসুস্থ থাকার কারণে ওই নির্ধারিত দিনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়নি। এ নিয়ে প্রধান বিচারপতি বলেছিলেন, ‘উনি (আইনমন্ত্রী) অসুস্থ হয়ে কোন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন জানলে তো দেখতে যেতে পারতাম।’

তার আগে ২৩ জুলাই শুনানিতে নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালার খসড়া গ্রহণ করেননি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ওইদিন খসড়ার বিভিন্ন ধারার অসংগতি তুলে ধরে প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা বলেন, ‘আমার সঙ্গে আলোচনা করে আইনমন্ত্রী বলেছিলেন, সব অসঙ্গতি দূর হবে। কিন্তু মন্ত্রণালয়ের প্রণীত এই খসড়ায় সেটার প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে না।’

শুনানিকালে অ্যাটর্নি জেনারেলের উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘কেন আপনারা পুরোপুরি ইউটার্ন নিয়ে এ ধরনের একটা খসড়া প্রণয়ন করলেন।’

এরপর ২৭ জুলাই প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এই খসড়া হস্তান্তর করেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

২০১৬ সালের ৭ নভেম্বর বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা ২৪ নভেম্বরের মধ্যে গেজেট আকারে প্রণয়ন করতে সরকারকে নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ।

১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর মাসদার হোসেন মামলায় ১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেয়া হয়। ওই রায়ের আলোকে নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা প্রণয়নের নির্দেশনা ছিল। ১২ দফার মধ্যে ইতোমধ্যে কয়েক দফা বাস্তবায়ন করেছে সরকার। এজন্য বারবার আদেশ দিতে হয়েছে আপিল বিভাগকে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে টোল প্লাজায় বাসচাপায় নিহত ৫ 

road-accident

চট্টগ্রাম, ২০ আগস্ট : চট্টগ্রাম নগরের কর্ণফুলী শাহ আমানত তৃতীয় সেতুর টোল প্লাজায় বাসচাপায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার পাঁচ আরোহী নিহত হয়েছেন।

শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন মো. সোহেল (৩৫), তার স্ত্রী বৃষ্টি আক্তার (৩০), দুই শিশুসন্তান সাবরিন (৫) ও সাবরুন (৩) এবং অটোরিকশার চালক সুরুজ মিয়া (৫০)।

নিহত সোহেল নগরের কর্ণফুলী থানার চরপাথরঘাটা এলাকার বাসিন্দা। তিনি স্ত্রী-সন্তানসহ রাতে শহরের আলকরণ এলাকার শ্বশুর বাড়ি থেকে বাসায় ফিরছিলেন।

কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম বলেন, সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি টোল প্লাজায় টোল দেওয়ার জন্য দাঁড়াচ্ছিল। এ সময় পেছন থেকে একটি বাস এসে অটোরিকশাটিকে চাপা দেয়। এতে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, দুর্ঘটনায় চারজন ঘটনাস্থলে নিহত হয়। আরেকজনকে হাসপাতালে নেওয়ার পর মৃত ঘোষণা করা হয়।

বাসের চালক ও তার সহকারী পালিয়ে গেছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ট্রেন বাতিল হলে টাকা ফেরত: রেলমন্ত্রী 

85

ঢাকা, ১৯ আগস্ট : বন্যার কারণে যদি ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়, ট্রেনের টিকিটের অর্থ ফেরত দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। আজ শনিবার দুপুরে মুঠোফোনে এ তথ্য জানান তিনি।

সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কমলাপুর রেলস্টেশনে সরেজমিনে দেখা গেছে, উত্তরাঞ্চল, বিশেষ করে রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, লালমনিরহাট—এসব রেলপথের টিকিট কাউন্টারগুলোতে দীর্ঘ সারি। বন্যার কারণে সড়কপথে যাতায়াতে অনেক সময় লাগতে পারে ভেবে অনেকে ট্রেনের টিকিটের সন্ধানে এসেছেন।

যাত্রীদের চারটি করে ট্রেনের টিকিট দেওয়ার কথা থাকলেও তা দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন কয়েকজন। অনেকে বলছেন, প্রথম শ্রেণির টিকিট পাচ্ছেন না। এসব অভিযোগ সম্পর্কে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক বলেন, যাত্রীদের টিকিট কম দেওয়ার অভিযোগ সঠিক নয়। বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন। তবে লালমণি এক্সপ্রেসের প্রথম শ্রেণির টিকিট আগে শেষ হয়ে গেছে। এখন শোভনের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে। যাঁরা লাইনে দাঁড়াবেন, তাঁরা পাবেন।

অনেক যাত্রী অভিযোগ করছেন, এসি কামরার টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে কমলাপুর রেলস্টেশনের স্টেশন ম্যানেজার সীতাংশু চক্রবর্তী জানান, সব কাউন্টারে এসির টিকিট বুকিং দেওয়ার সুযোগ নেই। যে কটা আছে, প্রথমে যিনি দাঁড়ান, তিনিই পেয়ে যান।

আগামীকাল রবিবার থেকে তিনটি রেলপথের বিশেষ ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু হচ্ছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

নওগাঁয় বাঁশবোঝাই ট্রাক উল্টে নিহত ৬ 

39

নওগাঁ, ১৯ আগস্ট : নওগাঁর মান্দা উপজেলায় বাঁশবোঝাই একটি ট্রাক উল্টে এতে থাকা ছয়জন নিহত ও দুইজন আহত হয়েছে।

আজ শনিবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার গোবিন্দপুর এলাকায় নওগাঁ-রাজশাহী সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিসুর রহমান জানান, মান্দা থেকে বাঁশবোঝাই ট্রাকটি রাজশাহী যাচ্ছিল। পথে গোবিন্দপুর এলাকায় সকাল ৮টার দিকে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ট্রাকটি রাস্তার পাশে উল্টে যায়। এতে ট্রাকে থাকা ছয়জন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহত হন দুইজন।

তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের পরিচয় জানাতে পারেননি ওসি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ট্রাম্পের প্রধান পরামর্শকের পদত্যাগ 

145

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ১৯ আগস্ট : মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রধান পরামর্শক স্টিভ ব্যানন পদত্যাগ করেছেন। হোয়াইট হাউসের একটি সূত্র বিবিসিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়, স্টিভ ব্যাননের পদ নিয়ে হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ জন কেলি পর্যালোচনা করছিলেন। এমন পরিস্থিতিতে ব্যানন নিজেই পদত্যাগ করলেন। ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর হোয়াইট হাউসে ‘প্রধান পরামর্শক’ পদ সৃষ্টি করে ব্যাননকে নিয়োগ দেন।

সিএনএনের খবরে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্সের বরাত দিয়ে বলা হয়, ‘জন কেলির সঙ্গে ব্যাননের বোঝাপড়ার মধ্য দিয়ে ঠিক হয়েছে আজ (শুক্রবার) হোয়াইট হাউসে ব্যাননের শেষ দিন। ব্যাননের এত দিনের কাজের জন্য আমরা তাঁর কাছে কৃতজ্ঞ। ব্যাননের মঙ্গল কামনা করছি।’ ব্যানন পদত্যাগ করেছেন নাকি তাঁকে বরখাস্ত করা হয়েছে—তা অবশ্য নিশ্চিত করেননি স্যান্ডার্স।

ব্যানন ডানপন্থী জাতীয়তাবাদী নেতা বলে পরিচিত। তিনি ট্রাম্পের নির্বাচনী প্রচারণার কাঠামো ঠিক করেছিলেন। মার্কিন গণমাধ্যমের খবর, ট্রাম্পের অন্য উপদেষ্টা ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ব্যাননের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

‘বন্যায় সরকার ব্যস্ত ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে’ 

51

ঢাকা, ১৮ আগস্ট : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশের মানুষের প্রত্যাশা ছিল সরকার বন্যায় তাদের পাশে দাঁড়াবে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, তারা দুর্গতদের পাশে দাঁড়ায়নি। সরকার ব্যস্ত অবৈধ ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে।

শুক্রবার নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয়তাবাদী যুবদলের ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচি উদ্বোধনের সময় এ কথা বলেন তিনি।

ফখরুল আরও বলেন, সরকার বিচার বিভাগের ওপরে হস্তক্ষেপ করছে। দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ধ্বংস করার জন্য সব কিছুর ব্যবস্থা করছে তারা।

দেশের এ দুঃসময়ে বিএনপি দুর্গতদের পাশে থাকবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপি জনগণের কল্যাণের জন্য কাজ করে, সবসময় দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ায়। তাই শুধু যুব দল নয়, বিএনপির সবাইকে দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ জানাই।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষজন ক্ষুধার্ত, তাদের দাঁড়াবার জায়গা পর্যন্ত নেই। আজ পত্রিকায় দেখলাম, দিনাজপুর এলাকার সব ডুবে গেছে। গতকাল খবর পেয়েছি সিরাজগঞ্জের কোনো ত্রাণসামগ্রী পৌঁছায়নি। এই সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে।

যুবদলের সভাপতি সাইফুল আলম নীরবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় ত্রাণ কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী আবদুল্লাহ আল নোমান, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, যুব দল নেতা নুরুল ইসলাম নয়ন, এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।

যু্বদল উত্তরাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলের বিভিন্ন স্থানে চাল, ডাল, আলু, লবণ, প্রয়োজনী ওষুধসহ শুকনো খাবার প্যাকেট করে দুর্গতদের মধ্যে বিতরণ করবে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বিএনপির চুপ থাকাই প্রমাণ করে জিয়ার শাসনামল অবৈধ 

50

নীলফামারী, ১৮ আগস্ট : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জিয়াউর রহমানের অবৈধ ক্ষমতা দখল নিয়ে আদালতের রায় নিয়ে বিএনপি কোন মন্তব্য না করায় প্রমাণ হয়েছে যে, জিয়াউর রহমানের শাসনামল অবৈধ।

এসময় তিনি আরও বলেন, সরকার বন্যার্তদের পাশে সার্বক্ষনিক আছে।

বন্যার্তদের সম্পূর্ন পুনর্বাসন না হওয়া পর্যন্ত সরকার তাদের পাশে থাকবে। আজ বেলা ১১টায় নীলফামারীর সৈয়দপুর স্টেডিয়ামের সামনে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তার সাথে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সতীশ চন্দ্র রায়, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক বি.এম মোজাম্মেল হক, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, নীলফামারী-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা, পঞ্চগড়ের সংসদ সদস্য নাজমুল হক প্রধানসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সেখানে তিনশত বন্যার্ত মানুষের মাঝে ১০ কেজি করে চাল ও ৫শত করে টাকা বিতরণ করেন মন্ত্রী।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী নিহত 

55

চট্টগ্রাম, ১৮ আগস্ট : চট্টগ্রামের আকবর শাহ এলাকায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর আকবর শাহ থানাধীন ইস্পাহানি রেলগেট এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- কামরুল ইসলাম (২৭), মো. নিজাম (৩২) ও মো. রেজাউল (৩০)।

আকবর শাহ থানার ওসি মো. আলমগীর জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর ইস্পাহানি রেলগেট এলাকায় একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিন আরোহী মারা যান।

পরে পুলিশ ধাওয়া করে ট্রাকটি জব্দ এবং ট্রাকচালক ও হেলপারকে আটক করে।

ময়নাতদন্তের জন্য নিহতদের লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফিলিপাইনে মাদক-অভিযানে নিহত ২৫ 

88

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ১৮ আগস্ট : ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত চালানো অভিযানে অন্তত ২৫ মাদকসন্ত্রাসী নিহত হয়েছে। ম্যানিলা পুলশের সিনিয়র সুপারিনটেন্ডেন্ট আর্ভিন মার্গারেজো বলেন, মাদক-বিরোধী ১৮টি পৃথক অভিযানে এসব সন্ত্রাসী নিহত হয়।

পুলিশ সূত্রের খবর, সাম্প্রতিক অতীতে এত বড় অভিযান এবং ‘সাফল্যে’র উদাহরণ নেই বললেই চলে।

সোমবার রাত থেকে মঙ্গলবার সন্ধে পর্যন্ত বুলকান প্রদেশে এক অভিযান চালায় পুলিশ। শহরের রাস্তা থেকে অলি-গলি ব্যাপক ধরপাকড় চালানো হয়। মাদক পাচারে জড়িত সন্দেহে শতাধিক লোককে গ্রেগপ্তার করা হয়। আটক করা হয় প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র, মাদকও।

এই অভিযানের কথা স্বীকার করে বুধবারই প্রেসিডেন্ট রডরিগো দুতার্তে বলেন, ‘বুলকান প্রদেশে পুলিশি অভিযানে ৩২ জন দুষ্কৃতকারীর মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে মাদক-বিরোধী অভিযানে নিহতের সংখ্যা ক্রমশ বাড়তে থাকায় মানবাধিকার কর্মীদের মধ্যে উদ্বেগ বাড়ছে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে মানবাধিকার লঙ্ঘন করে এভাবে পুলিশি অভিযান চালানোর যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

ক্ষমতায় আসার পর গত বছর জুনে প্রেসিডেন্ট দুতের্তে ফিলিপাইনকে মাদক-পাচার মুক্ত করার ঘোষণা দিয়েছিলেন।
তার পর থেকে এখনও পর্যন্ত দেশ জ জুড়ে অন্তত ৬০টি পুলিশ অভিযানে সাড়ে তিন হাজারের বেশি পাচারকারীর মৃত্যু হয়েছে।

কিন্তু প্রেসিডেন্ট পাল্টা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ‘পাচারকারীদের হাত থেকে ফিলিপাইনকে বাঁচাতে জেলে যেতেও রাজি আছি। প্রয়োজনে রোজ ৩২ জন দুষ্কৃতীকে খতম করতে হবে। তাতে যদি দেশে অপরাধের সংখ্যা খানিকটা কমানো যায়!’

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রাষ্ট্রপতির সাথে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতে জাতি উদ্বিগ্ন : মির্জা ফখরুল 

8222

ঢাকা, ১৭ আগস্ট : সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর রায় বাতিলের পর রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাৎ করায় জাতি উদ্বিগ্ন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা ব্যক্ত করেন।

গতকাল রাষ্ট্রপতির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা গতকাল দেখলাম প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং নিজে এ্যাটর্নি জেনারেল এবং আইন মন্ত্রীকে সাথে নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করতে গেছেন। ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের পরে এভাবে সাক্ষাৎ করায় জাতি উদ্বিগ্ন এবং হতাশ। এরআগেও আমরা দেখেছি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রধান বিচারপতির সঙ্গে দেখা করলেন।

তিনি বলেন, সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের বিরুদ্ধে ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের তৎপরতা রাষ্ট্রদ্রোহীতার সামিল। এজন্য ভবিষ্যতে তাদের জনগণের কাঠগড়ায় দাড়াতে হবে।

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে পর্যবেক্ষণের কথা উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা এবং দেশের মানুষ মনে করে বর্তমান রাজনীতিতে এ রায়ে যে পর্যবেক্ষণ দেয়া হয়েছে তা খুব গুরুত্বপূর্ণ। দেশের মানুষের জন্য, ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার জন্য, সংবিধানকে সমুন্নত রাখার জন্য এ রায় শুধু যুগোপযোগী নয় ঐতিহাসিক। আমি মনে করি এটি একটি দলিল।

তিনি বলেন, এখানেই আওয়ামী লীগের গাত্রদাহ শুরু হয়েছে। সরকার দেখছে যে তাদের পায়ের নিচে মাটি নেই।

আওয়ামী লীগ যে অবৈধভাবে দীর্ঘ দিন শাসন চালিয়ে আসছে তার প্রকাশ ঘটেছে এই রায়ের মধ্য দিয়ে দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, বিচার বিভাগ নিজেরাই বলেছে, সরকার তাদের নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছে।

সরকারের দেশের রাষ্ট্র ব্যবস্থা নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, ক্ষমতাসীনরা একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করতে রাষ্ট্রের প্রধান তিনটি স্তম্ভ শাসন বিভাগ, বিচার বিভাগ, আইন বিভাগকে ধ্বংসের ষড়যন্ত্র করছে।এসময়, এ ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে দেশের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান বিএনপি মহাসচিব।

বিএনপির সাবেক মহাসচিব ব্যারিস্টার আবদুস সালাম তালুকদারের ৯৮ তম জন্ম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিলটির আয়োজন করে ব্যারিস্টার আবদুস সালাম তালুকদার স্মৃতি সংসদ।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু প্রমুখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ভেনেজুয়েলায় কারাগারে দাঙ্গা, নিহত ৩৭ 

52

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ১৭ আগস্ট : ভেনেজুয়েলার দক্ষিণাঞ্চলে একটি কারাগারে দাঙ্গায় নিহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩৭ জন।

দেশটির আমাজোনাস রাজ্যের রাজধানী পুয়ের্তো আয়াকুচোর কারাগারে স্থানীয় সময় বুধবার এ দাঙ্গা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিশেষ বাহিনীকে পাঠানো হয়।

বিবিসি অনলাইনের এক খবরে বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কয়েক ঘণ্টা ধরে কারাগারে গোলাগুলির শব্দ হয়েছে। আমাজোনাস রাজ্যের গভর্নর লিবোরিও গাউরুলা এ ঘটনাকে ‘জঘন্য হত্যাকাণ্ড’ হিসেবে অভিহিত করেছেন। এ ছাড়া দেশটির সরকারি কৌঁসুলিরা বলেছেন, কারাগারে দাঙ্গার সময় ১৪ জন কারাকর্মকর্তা আহত হয়েছেন।

‘অ্যা উইন্ডো টু ফ্রিডম’ এবং ‘দি ভেনেজুয়েলান প্রিজন অবজারভেটরি’ নামের এই দুটি পর্যবেক্ষক গ্রুপ জানিয়েছে, দাঙ্গায় যারা নিহত হয়েছেন, তাদের সবাই কারাবন্দি। দাঙ্গার সময় কারাগারে ১০৫ বন্দি ছিলেন।

ভেনেজুয়েলার অনেক কারাগারে নিরাপত্তার অভাব রয়েছে। প্রয়োজনের তুলনায় কারাকর্মকর্তার সংখ্যা অনেক ক্ষেত্রেই কম। যে কারণে কারাবন্দিদের গ্যাং এসব কারাগারে আধিপত্য বিস্তার করে।

তবে ভেনেজুয়েলার সম্প্রতিক রাজনৈতিক অস্থিরতার সঙ্গে এ ঘটনার কোনো সম্পর্ক আছে কিনা, সে  বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। সাংবিধানিক পরিষদ গঠনের নির্বাচন ঘিরে দেশটিতে রাজনৈতিক সহিংসতায় ১২ জন নিহত হন। এ নির্বাচনকে প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরোর ক্ষমতা কুক্ষিগত করার অপচেষ্টা বলে দাবি করেছে বিরোধী গণতান্ত্রিক দলগুলো।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শনিবার থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট 

88

ঢাকা, ১৭ আগস্ট : ঈদুল আজহা উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে ১৯ আগস্ট, শনিবার থেকে। ফিরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ২৫ আগস্ট থেকে।

রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক গণমাধ্যমকে এই তথ্য জানিয়েছেন।

মন্ত্রী জানান, ঈদে ঘরমুখো যাত্রীদের নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিত করতে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ রেলওয়ে প্রয়োজনীয় অতিরিক্ত বগি সংযোজন করবে। টিকিট বিক্রির প্রস্তুতি চলছে।

তিনি বলেন, ‘যাত্রীরা ১৯ আগস্ট থেকে ঈদে ঢাকা ছেড়ে যাবার অগ্রিম টিকিট ক্রয় করতে পারবেন এবং ২৫ আগস্ট থেকে ফিরতি টিকিট ক্রয় করতে পারবেন।’

মুজিবুল হক জানান, আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে এবং কালোবাজারে টিকিট বিক্রি বন্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। ঢাকা ও অন্যান্য নগরীর মধ্যে চলাচলকারী ট্রেনে অতিরিক্ত বগি সংযোজন করা হবে এবং বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা থাকবে। এ সময়ে আন্তঃনগর ট্রেনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাপ্তাহিক ছুটি বাতিল করা হবে।’

বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্র জানিয়েছে, ঈদের আগের তিন দিন বিশেষ ট্রেন চলবে এবং ঈদের পর পাঁচ থেকে সাত দিন পর্যন্ত এই বিশেষ ট্রেন চলাচল অব্যাহত থাকবে।

প্রসঙ্গত, আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে ঈদের সময় নির্বিঘ্নে ট্রেন চলাচল নিশ্চিত করতে গৃহীত পদক্ষেপ এবং অগ্রিম টিকিট দেওয়া সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হবে। সংবাদ সম্মেলনে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, মন্ত্রণালয়ের সচিব, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত থাকবেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

উত্তরাঞ্চলে ভয়াল রূপ নিয়েছে বন্যা 

455

ঢাকা, ১৭ আগস্ট : বাংলাদেশে বন্যা পরিস্থতি, বিশেষ করে উত্তরাঞ্চলের দিনাজপুর, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট জেলায় ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। দিনাজপুর বা কুড়িগ্রামের অনেক জায়গায় স্থানীয়রা বলছেন তারা জীবনে এরকম দুর্যোগের মুখোমুখি হননি।

সরকারি হিসাবেই ২১টি জেলায় অন্তত ৩৩ লাখ লোক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মৃতের সংখ্যা ৪০ ছাড়িয়ে গেছে।

অনেকগুলো জেলায় রাস্তা, রেললাইন ডুবে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। উপদ্রুত লাখ লাখ মানুষ সরকারি আশ্রয়কেন্দ্র ছাড়াও উঁচু জায়গায় গিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন।

পুরো দিনাজপুর জেলাই বন্যার পানিতে তলিয়ে রয়েছে পাঁচদিন ধরে। সেখানকার মানুষ গত প্রায় তিন দশকে বন্যার এত পানি দেখেননি।

বন্যায় তলিয়ে থাকা দিনাজপুর শহরের একটি স্কুলে আশ্রয় কেন্দ্র থেকে ইয়াসিন আলী বলছিলেন, জেলা শহর থেকে সাত কিলোমিটার দূরে গ্রামে আমার ঘরের টিনের চাল পর্যন্ত পানি। ঘরের কিছুই বের করতে পারিনি। শুধু মানুষগুলো বেরিয়ে এসে আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছি। এখানে খাদ্য এবং খাবার পানির অভাবে আমরা খুব অসহায় হয়ে পড়েছি।

একই আশ্রয়কেন্দ্রে দুই শিশু এবং স্বামীসহ উঠেছেন নূরজাহান বেগম। তিনি বলছিলেন,সরকারি বা বেসরকারি সংস্থা, কারও কাছ থেকেই সেভাবে ত্রাণ সহায়তা তাঁরা পাচ্ছেন না।

তিনি বা তাঁর স্বামী একবেলা খেয়েও বেঁচে থাকতে পারবেন। কিন্তু তিনি কোলের দুই শিশুর খাবার জোগাড় করা নিয়ে চরম দুরবস্থায় পড়েছেন।

দিনাজপুরে এবারের বন্যায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে আমন ধানের। সেখানকার সাংবাদিক আসাদুল্লাহ সরকার জানিয়েছেন, দিনাজপুরে দুই লাখ আটাত্তর হাজার হেক্টর জমিতে আমন চাষ হয়।

দিনাজপুরে আগেই আমন ধান রোপন করা হয়েছে। বন্যায় দুই লাখ হেক্টর জমিই পানির নিচে গেছে। নতুন করে আমন রোপনের বীজতলাও নেই। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের পরিস্থিতি সামলে ওঠা বেশ কঠিন হবে বলে তিনি মনে করেন।

উত্তরের বন্যা কবলিত আরেকটি জেলা গাইবান্ধার শহর রক্ষা বাঁধ হুমকির মুখে পড়েছে। সেখানকার মানুষের মাঝে আতংক তৈরি হয়েছে।

জেলাটির পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রৌকশলী মাহবুবুর রহমান বলছিলেন, গাইবান্ধাকে রক্ষার জন্য ২২৭ কিলোমিটার বাঁধ রয়েছে। এই বাঁধের বিভিন্ন জায়গায় ইঁদুর আর উইপোকার গর্ত। এসব গর্ত দিয়ে পানি ঢুকে বাঁধের ক্ষতি হচ্ছে। তবে গর্তগুলো বন্ধ করা হচ্ছে। আর এখন পানি কমতে শুরু করায় বাঁধ ভাঙ্গার সম্ভাবনা নেই।

উত্তরের কুড়িগ্রাম এবং লালমনিরহাটসহ অন্যান্য জেলাগুলোতেও এবং বিভিন্ন নদীর বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ায় মানুষকে বেশি দুরবস্থায় পড়তে হয়েছে।

নদী এবং বন্যা নিয়ে কাজ করেন রংপুরে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক তুহিন ওয়াদুদ। তিনি বলছিলেন, কখনও খনন না করায় উত্তরের নদীগুলো সব ভরাট হয়ে গেছে।ফলে অতিরিক্ত বৃষ্টি এবং উজানে ভারত থেকে যে পানির ঢল এসেছে, তা এখানকার নদীগুলো ধারণ করতে পারেনি এবং অনেক নদীর বাঁধ ভেঙ্গে গেছে।

আর বাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ায় অনেক উঁচু হয়ে জ্বলোচ্ছাসের মতো হু হু করে পানি এসেছে বিস্তীর্ণ এলাকায়। এমন ভয়াবহ পানির তোড়ে অনেক এলাকার মানুষ ভিটেমাটিতে সব ফেলে শুধু নিজের জীবনটা নিয়ে বেরিয়ে এসেছে।

উত্তর পূর্বে সিলেট অঞ্চলে সুনামগঞ্জ জেলায় বন্যায় এবার বেশি ক্ষতি হয়েছে।

বন্যা সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী সাজ্জাদ হোসেন বলছিলেন, উত্তরে যমুনা নদীর পানি এখন কমতে শুরু করেছে। এই পানি পদ্মা নদী দিয়ে বেরিয়ে যাবে। ফলে এখন রাজবাড়ী, শরিয়তপুর, মুন্সিগঞ্জসহ মধ্যাঞ্চলের জেলাগুলোতে বন্যার পানি আসছে।

সরকারের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তারাও স্বীকার করছেন যে, এবার উত্তরের জেলাগুলোর মানুষ আগের বছরগুলোর তুলনায় বয়াবহ বন্যার মুখোমুখি হয়েছেন।

এই মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব গোলাম মোস্তফা দাবি করেছেন, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে পর্যাপ্ত ত্রাণ সহায়তা পৌঁছানোর চেষ্টা তারা করছেন। -বিবিসি বাংলা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চেয়েছেন গণমাধ্যম প্রতিনিধিরা 

58825

ঢাকা, ১৬ আগস্ট : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে সংলাপ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আজ বুধবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে নির্বাচন কমিশনের সম্মেলন কক্ষে এ সংলাপ শুরু হয়। আগামীকাল বৃহস্পতিবারও এ সংলাপ হবে।

আজ সংলাপ শেষে বেরিয়ে এসে গণমাধ্যমকর্মীদের অনেকেই বলেছেন, তাঁরা আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ যাতে নিশ্চিত করা হয়, সেই বিষয়টির প্রতিই জোর দিয়েছেন।

সংলাপে সভাপতিত্ব করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ কে এম নূরুল হুদা। এ ছাড়া চার নির্বাচন কমিশনার উপস্থিত ছিলেন। আজ ৩৪ জন গণমাধ্যমকর্মী ও সাংবাদিক নেতা সংলাপে অংশ নেওয়ার জন্য আমন্ত্রিত হয়েছিলেন। তার মধ্যে ২২ জন অংশ নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

আমন্ত্রিতদের মধ্যে যুগান্তরের সাইফুল আলম, মানবজমিনের মতিউর রহমান চৌধুরী, প্রথম আলোর আনিসুল হক ও সোহরাব হাসান, ভোরের কাগজের শ্যামল দত্ত, বাংলাদেশ প্রতিদিনের নঈম নিজাম, বিএফইউজের একাংশের সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
সংলাপ শেষে দুপুরের বিরতি দিয়ে বেলা ৩টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার এ ব্যাপারে ব্রিফ করবেন।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আগামীকালের সংলাপের জন্য আমন্ত্রিত হয়েছেন ৩৭ জন।

সংলাপে কমিশন প্রণীত নির্বাচনী কর্মপরিকল্পনা বা রোডম্যাপ উপস্থাপন করে এ বিষয়ে গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বদের মতামত নেওয়া হবে। তাঁদের পরামর্শ ও মতামতের ওপর ভিত্তি করে কমিশন আগামী সংসদ নির্বাচনের জন্য তাদের কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করবে। নির্বাচনী কর্মপরিকল্পনা বা রোডম্যাপের আলোকেই সংলাপের এজেন্ডা বা কার্যপত্র তৈরি করা হয়েছে।

সংলাপে নির্বাচনী আইন ও বিধিমালা সংশোধন, সংসদীয় আসনের সীমানা পুনর্নির্ধারণ আইন যুগোপযোগী করা, নির্ভুল ভোটার তালিকা প্রণয়নে পরামর্শ, ভোটকেন্দ্র স্থাপন সংক্রান্ত কার্যক্রম যুগোপযোগী করা বিষয়ে পরামর্শ, নতুন রাজনৈতিক দল নিবন্ধন এবং নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল নিরীক্ষা সংক্রান্ত প্রস্তাবনাসহ সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সক্ষমতা বৃদ্ধির বিষয়ে মতামত গ্রহণ সংলাপের এজেন্ডায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর