২৪ এপ্রিল ২০১৭
ভোর ৫:৪০, সোমবার

ক্লেমন ইনডোর ইউনি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি

ক্লেমন ইনডোর ইউনি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি 

0

সোহেল আহসান নিপু, ঢাকা, ১৫ এপ্রিল : বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি “৪র্থ ক্লেমন ইনডোর ইউনি ক্রিকেট” টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। গত বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল ২০১৭) টুর্নামেন্টের ফাইনালে তারা সাউদার্ন ইউনিভার্সিটিকে ১৭ রানে পরাজিত করে শিরোপা নিজেদের করে নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রথমবারের মতো ক্লেমন ক্রিকেট টুর্নামেন্টে শিরোপা অর্জনের কৃতিত্ব দেখালো। এর আগে গত বছর অনুষ্ঠিত একই টুর্নামেন্টে রানার্সআপ হয় তারা।

বৃহস্পতিবার মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি নির্ধারিত ৮ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮০ রান সংগ্রহ করে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫২ রান করেন সোহেল রানা। এছাড়া মেহরাব হোসেন জোসি ৫০ এবং রায়হান আরিফ ৩৫ রান করেন। সাউদার্ন ইউনিভার্সিটির রাব্বি ৫৮ রানের বিনিময়ে ২ উইকেট লাভ করেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে সাউদার্ন ইউনিভার্সিটির অধিনায়ক রিপন এবং রাব্বির দৃঢ়তায় রানের চাকা সচল রাখার চেষ্টা করলেও বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং এর কাছে শেষ পর্যন্ত পেরে ওঠেননি তারা। নির্ধারিত ৮ ওভার শেষে ২ উইকেটের বিনিময়ে শেষ পর্যন্ত ১৬৩ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হন তারা। দলের পক্ষে রিপন সর্বোচ্চ ৫৪ রান করেন। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির শফিকুল ৪০ রানের বিনিময়ে ২ উইকেট লাভ করেন।

ফাইনালে ৫২ রান করে ম্যাচসেরা হয়েছেন বিইউ’র সোহেল রানা। ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট হয়েছে বিইউ’র সামিউল ইসলাম সুমন। টুর্নামেন্টে তিনি ২৮০ রান এবং ১৭টি উইকেট দখল করেন।

চ্যাম্পিয়ন দল বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি- ট্রফির পাশাপাশি ৫ লাখ টাকার প্রাইজমানি পেয়েছে। খেলাশেষে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ড. শ্রী বীরেন শিকদার। এসময় অন্যাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আয়োজক কমিটির আহবায়ক জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান, ওয়ালটনের অতিরিক্ত পরিচালক জনাব ফিরোজ আলম, গোল্ডেন হার্ভেস্ট এর মার্কেটিং ম্যানেজার জনাব আশরাফুল ইসলাম, আকিজ গ্রুপের হেড অব মার্কেটিং জনাব হিন্দোল রায় প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ছয়দিন ব্যাপি অনুষ্ঠিত ৪র্থ ক্লেমন ইনডোর ইউনি ক্রিকেট টুর্নামেন্টে দেশের পাবলিক এবং বেসরকারি ইউনিভার্সিটির মোট ৩২টি দল অংশগ্রহণ করে। টুর্নামেন্টের টাইটেল স্পন্সর ছিলো কোমল পানীয় কোম্পানী “ক্লেমন”।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

প্রলোভন দেখিয়ে সাভারে ৫০০ পরিবারের ৫০ লাখ টাকা নিয়ে উধাও 

সাভার, ১৩ এপ্রিল : পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনের দারিদ্র্য বিমোচনের নামে সাভার পৌর জামসিং এলাকার ৫০০ গ্রাহকের ৫০ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়েছে। এসব গ্রাহকের অর্ধেকই এখন ঋণখেলাপি। আমানতকারীরা ঋণের অনূকুলে রাখা সঞ্চয়ের অর্থসহ সর্বস্ব হারিয়ে এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

অথচ তাদের নামে ঋণ নিয়েছেন স্থানীয় প্রভাবশালী, ঋণ বিতরণকারী মাঠ কর্মকর্তা ও পদস্থ কর্মকর্তাদের আত্মীয়স্বজন বা ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিরা।

ঋণদানকারী এই আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নাম পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন (ইউপিপিআরপি) ও (ইউএনডিপি), (ডিএফআইডি) এবং (বিজিডি)। সরকারের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন এই স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানটি ‘শতভাগ সফল ও স্বয়ংসম্পূর্ণ’ বলে দাবি করেছিলেন লিপি আক্তার নামের প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মী। এনজিওর কর্মী পরিচয়ে এই লিপি আক্তারই সাধারণ অসহায় দরিদ্র মানুষের নিকট হতে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

গ্রামের গরিব মানুষকে ক্ষুদ্রঋণ দিয়ে স্বাবলম্বী করা এর কাজ হলেও গত সাত বছরের চিত্র এর সম্পূর্ণ বিপরীত। এই সময়ের মধ্যে ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে নানা জালিয়াতি হয়েছে,  প্রায় অর্ধ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়েছে কর্তৃপক্ষ। ভুয়া নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে মাঠকর্মীরা কোটি কোটি টাকা ঋণ দিয়েছেন।

ঋণ বিতরণ বেশি দেখিয়ে খেলাপি ঋণ ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টাও করা হয়েছে। অনেক কর্মী টাকা ব্যাংকে জমা না দিয়ে নিজেরাই ব্যবসা-বাণিজ্য করছেন। ইউপিপিডিআরপি অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষায় এই দুর্নীতি ও লুটপাটের চিত্র বেরিয়ে এসেছে।

খোদেজা নামের এক স্থানীয় বাসিন্দা বলেন, এসব এনজিওর কোনো বৈধ কাগজপত্র নেই। অধিকাংশই ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। এতে করে এনজিও পরিচালকরা আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হচ্ছে। আর দরিদ্র নিরীহ মানুষদের শোষণ এবং চাকরির নামে প্রতারণার মাধ্যমে জমজমাট ব্যবসা চালিয়ে, কিস্তির সুদ আদায় করে হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা।

প্রতারিত পরিবারের লোকজনদের দাবি, এসব দুর্নীতি, অনিয়ম ও লুটপাট করে গেলেও এসব বন্ধের জন্য প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না। তারা এসব দেখেও না দেখার ভান করে থাকেন। এসব অনিয়ম-দুর্নীতি লুটপাট বন্ধে সরকার পদক্ষেপ না নিলে আরও বেশি মানুষ প্রতারিত হতে পারেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির ফার্মেসী বিভাগের নবীন বরণ এবং বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত 

0

সোহেল আহসান নিপু, ঢাকা, ১১ এপ্রিল : বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটিতে স্প্রিং সেমিষ্টারে ফার্মেসী বিভাগের ভর্তিকৃত ছাত্রছাত্রীদেরকে আজ মঙ্গলবার (১১ এপ্রিল ২০১৭) এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বরণ করে নেয়া হয়। ইউনিভার্সিটির ফার্মেসী বিভাগ এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ফার্মেসী বিভাগের প্রধান প্রফেসর ফরিদা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাষ্টিজ এর সেক্রেটারি ইঞ্জি: এম.এ. গোলাম দস্তগীর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিইউ’র উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ আনোয়ারুল হক শরীফ, কোষাধ্যক্ষ কামরুল হাসান এবং বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও প্রকৌশলী অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মোঃ ইমামউদ্দিন, অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য রাখেন ড. আনোয়ারুল হক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিইউ সেক্রেটারী নবাগত ছাত্রছাত্রীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে স্বাগত জানিয়ে ঔষধ শিল্পে ফার্মাসীষ্টদের অবদান এবং ফার্মেসী শিক্ষার ভবিষ্যত নিয়ে আলোকপাত করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বক্তারা কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ছাত্রজীবনের মূল উদ্দেশ্য সফল করার জন্য শিক্ষার্থীদের সময়ের সদ্ব্যবহারের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন। তারা সুশিক্ষিত জাতি গঠনে সঠিক জ্ঞানার্জন করে নিজেদেরকে দক্ষ জনশক্তিতে পরিনত করে দায়িত্বশীল সুনাগরিক হিসেবে দেশ ও জাতির কল্যানে আত্মনিয়োগ করতে ছাত্রছাত্রীদের প্রতি আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে বিভাগের কৃতি শিক্ষার্থীদেরকে স্মারক সম্মাননা প্রদান করা ছাড়া বিভাগ থেকে ২১ তম ব্যাচের পাশকৃত ছাত্রছাত্রীদেরকে বিদায় সংবর্ধনা দেওয়া হয়। দ্বিতীয় পর্বে বিভাগের ছাত্রছাত্রীদের অংশগ্রহণে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক ছাত্রছাত্রী ছাড়াও শিক্ষক, কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সিটিং সার্ভিস বন্ধ করার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে যাত্রী অধিকার আন্দোলন 

27

মাহমুদুল হাসান সাকুরী, ঢাকা, ৪ এপ্রিল : সিটিং সার্ভিস বন্ধ করার সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে এ ধরণের সিদ্ধান্ত নেয়ায় বাস মালিকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন যাত্রী অধিকার আন্দোলন।

আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যাত্রী অধিকার আন্দোলনের আহবায়ক কেফায়েত শাকিল ও যুগ্ম আহবায়ক অন্তু মুজাহিদ গণমাধ্যমে পাঠানো এক যৌথ বির্বৃতিতে ঢাকা পরিবহন মালিক সমিতিকে ধন্যবাদ জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, জনসাধারণের দাবির প্রেক্ষিতে বাস মালিকরা নগরীর সিটিং বাস তুলে দেয়ার ঘোষণা দেয়ায় এবং নারী আসন নিশ্চিত করণ ও সংরক্ষণের প্রতিশ্রুতি দেয়ায় যাত্রী অধিকার আন্দোলনের পক্ষ থেকে বাস মালিকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

তারা বলেন, আমরা বাস মালিকদের নেয়া সিদ্ধান্তে খুশি হয়েছি। তবে এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের ভাড়ার বিষয়টি উল্লেখ করলে আমরা আরো খুশি হতাম।

বির্বৃতিতে তারা আশা প্রকাশ করে বলেন, আমরা আশা করছি বাস মালিক সমিতি শিগগিরই শিক্ষার্থীদের ভাড়ার বিষয়টি বিবেচনা করবেন এবং এই বিষয়ে তাদের বক্তব্য তুলে ধরবেন।

তারা আরো বলেন, আজ সিটিং বাস বন্ধের সিদ্ধান্তে রাজধানীবাসী স্বস্থি পেয়েছে। আমরা আশা করছি সেই স্বস্থি বহাল থাকবে। বাসগুলোতে যথাযথ সেবা পাবেন যাত্রীরা।

এসময় তারা রাজধানীতে যথাযথ মানসম্পন্য কিছু এসি/নন এসি স্পেশাল সার্ভিস চালুর পরামর্শ দেন।

উল্লেখ্য, গণপরিবহনে যাত্রী অধিকার নিশ্চিতের লক্ষ্যে সিটিংবাসের নৈরজ্য বন্ধসহ ৮ দফা দাবিতে আন্দোলন করে আসছে যাত্রী অধিকার আন্দোলন নামের সংগঠনটি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সিটিং বাসের নামে চিটিংবাজী বন্ধে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত 

00

মাহমুদুল হাসান সাকুরী, ঢাকা, ১ এপ্রিল : গণপরিবহনে যাত্রী অধিকার নিশ্চিতের লক্ষ্যে ১ এপ্রিল (শনিবার) সকাল সাড়ে ১০টায় রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে যাত্রী অধিকার আন্দোলন।

এতে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত মুখপাত্র দাউদ ফেরদাউস লিখিত বক্তব্যে বলেন, রাজধানীসহ সারাদেশে গণপরিবহনে যাত্রী হয়রানী চরম আকার ধারণ করেছে। একদিকে সিটিং বাসের নামে যাত্রীদের থেকে আদায় করা হচ্ছে বাড়তি ভাড়া, অন্যদিকে নূন্যতম সেবাও পাচ্ছে না যাত্রীরা। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ(বিআরটিএ) এসব পরিবহনে ভাড়া নির্ধারণ করে দিলেও গুটিকয়েক ছাড়া কেউ মানছে না সেই নির্দেশনা।

তিনি আরো বলেন, এসব পরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার বিষয়টি বরাবরই উপেক্ষিত। শিক্ষার্থী পরিচয় দিলে তাদের পরিবহনে উঠানো হয় না। জোর করে উঠলেও তাদের সাথে অযাচিত আচরণ করা হয়। যা সকল শিক্ষিত সমাজের অবমাননা। অথচ আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনের সম্পদ। তারাই আগামী দিনের দেশেকে নেতৃত্ব দিবে। তাই আমরা সংগঠনের পক্ষ থেকে জোরালোভাবে দাবি জানাচ্ছি রাজধানীসহ সব নগর-মহানগরে শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়া ও দুরপাল্লার যানে শিক্ষার্থীদের ২৫ শতাংশ ভাড়া ছাড় দিতে হবে।

আমাদের দেশে পরিবহনে মহিলা ও শিশুদের জন্য সংরক্ষিত আসন থাকলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় কম। সিট খালি না থাকার উসিলায় অধিকাংশ সময় মহিলা যাত্রীদের বাসে উঠানো হয় না। এতে কর্মক্ষেত্র থেকে বাসায় ফিরতে ভোগান্তিতে পড়তে হয় নারী যাত্রীদের। তাদের জন্য অবিলম্বে প্রয়োজনীয় যানবাহনের ব্যবস্থা করা এবং সকল পরিবহনে মহিলা যাত্রীদের অগ্রাধিকার দিতে হবে বলে দাবি তোলেন তিনি।

এসময় তিনি যাত্রীদের অধিকার রক্ষার স্বার্থে সংগঠনের পক্ষ থেকে লিখিত ৮ দফা দাবি তুলে ধরেন।

দাবি সমূহ:

১। সারাদেশে গণপরিবহনে সরকার নির্ধারিত ভাড়া কার্যকর করতে হবে।

২। রাজধানীসহ দেশের নগর-মহানগর ও আন্তজেলার গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া কর্যকর করতে হবে এবং দূর পাল্লার পরিবহনে শিক্ষার্থীদের ২৫ শতাংশ ভাড়া ছাড় দিতে হবে।

৩। যানজট নিয়ন্ত্রণ, সড়ক দুর্ঘটনা রোধ ও যাত্রীদের যথাযথ সেবা নিশ্চিতে যত্রতত্র যাত্রী উঠা-নামা বন্ধ করতে হবে।

৪। নামে-বেনামে চালু হওয়া সিটিং সার্ভিসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। বিআরটিএ’র অনুমতিক্রমে কিছু স্পেশাল পরিবহন চলাচল করতে পারে, তবে তা অবশ্যই যথাযথ মানের হতে হবে।

৫। গণপরিবহনের ভাড়ায় সমতা আনতে হবে। প্রতিটি গাড়িতে ভাড়ার চার্ট রাখতে হবে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করলে শাস্তির ব্যবস্থা রাখতে হবে।

৬। পরিবহন নৈরাজ্য বন্ধে বিআরটিএ’কে নিয়মিত ‘কার্যকর’ অভিযান পরিচালনা করতে হবে এবং সড়ক দুর্ঘটনা রোধে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে আইন করতে হবে।

৭। প্রাইভেট পরিবহনের চাপ কমাতে উন্নতমানের এসি, নন-এসি সার্ভিস চালু করতে হবে।

৮। ট্রাফিক পুলিশের চাঁদাবাজী বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

আর এ সময় তিনি ২-১৫ তারিখ ক্যাম্পাসে ক্যাম্পাসে মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর অভিযানের ঘোষণা এবং তা বাস্তবায়নে সারাদেশের সকল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানান।

বিক্ষোভ সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, যাত্রী অধিকার আন্দোলনের আহ্বায়ক কেফায়েত শাকিল, যুগ্ম আহ্বায়ক মুজাহিদুল ইসলাম, বার্তা সচিব মাহমুদুল হাসান সাকুরী, আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মুঈন উদ্দিন আরিফ, অর্ণব সাদনিম, তাকবির মাহিন, ওয়াহিদা আক্তার তৃষ্ণা, হুমায়ুন কবির, জাহিদ হাসান, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

২৫ মার্চের গণহত্যাকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দিতে হবে : ঢাবি উপ-উপাচার্য 

0000

নিউজ৬৯বিডি ডেস্ক, ২৫ মার্চ : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য(প্রশাসন) অধ্যাপক মোঃ আখতারুজ্জমান বলেছেন,“২৫ মার্চের গণহত্যাকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দিতে হবে”।

২৫ মার্চ শনিবার বিকাল ৪টায় জাতীয় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন চেতনা পরিষদ,ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাকসু ক্যাফেটেরিয়া মিলনায়তনে “২৫মার্চ : বিশ্বের ইতিহাসে নৃশংসতম গণহত্যা” শীর্ষক বিশেষ আলোচনা সভা তিনি একথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ২৫ মার্চের কালোরাত বিশ্বের ইতিহাসের কলঙ্কজনক ঘটনা। নিরস্ত্র মানুষের উপর পাকিস্তানী সামরিক জান্তারা সেদিন গণহত্যা চালিয়েছিলো তা নজিরবিহীন। তাই সার্বিক বিবেচনায় এই দিনটিকে আন্তর্জাতিক গণহত্যা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি জানান বক্তারা।

আলোচনা সভায়, বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন, বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপির উপ-মহাপরিচালক(যুগ্ন-সচিব) ড. ফোরকান উদ্দিন আহাম্মদ, ঢাকা ইউনিভার্সিটি এলামনাই নিউজ সম্পাদক আলী নিয়ামত, অনলাইন সংবাদ মাধ্যম বিডিভিউ ২৪ ডট কমের প্রধান সম্পাদক জনাব মোতাহের হোসেন চৌধুরী রাশেদ।

আলোচনা সভায় মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন আন্তর্জাতিক অপরাধ বিশ্লেষক কাজী তিউনি বিনতে জিন্নাত।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটিতে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত 

0

নিউজ৬৯বিডি ডেস্ক, ২৫ মার্চ : দেশের অন্যতম বেসরকারি ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটিতে (বিইউ) মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার (২৫ মার্চ ২০১৭) দুপুরে ইউনিভার্সিটির সভাকক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আনোয়ারুল হক শরীফ। অন্যান্যের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও প্রকৌশল অনুষদের ডীন, প্রফেসর ড. মোঃ ইমামউদ্দিন, কলা, সমাজবিজ্ঞান ও আইন অনুষদের ডীন প্রফেসর মুস্তফা কামালউদ্দিন, রেজিস্ট্রার, মেজর নিয়াজ মোহাম্মদ খান (অব:), পরচিালক ( প্রশাসন এবং নরিাপত্তা ) কে এস এম এজাজ আফজাল খান বীর প্রতীক  প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের হানাদার বাহিনীর অত্যাচারের কথা তুলে ধরে বলেন, জাতির পিতা এই বাঙ্গালী জাতিকে স্বাধীনতার চেতনায় উদ্বুদ্ধ করেছিলেন। যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত করেছেন। সেই যুদ্ধের মধ্য দিয়ে আমরা বিজয় অর্জন করেছি। আমরা বিজয়ী জাতি। কোনো দিক থেকে আমরা পিছিয়ে থাকবো না। দেশ হিসেবে আমরা এগিয়ে যাবো।

আলোচনা সভায় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন অনুষদের ডীন, বিভাগীয় প্রধান, কর্মকর্তা, কর্মচারী এবং বিপুল সংখ্যক ছাত্রছাত্রী উপস্থি ছিলেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ঢাবিতে “২৫মার্চঃবিশ্বের ইতিহাসে নৃশংসতম গণহত্যা” শীর্ষক আলোচনা সভা 

নিউজ৬৯বিডি ডেস্ক : জাতীয় গণহত্যা দিবস উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবী ও সামাজিক সংগঠন চেতনা পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাকসু ক্যাফেটেরিয়া মিলনায়তনে ২৫ মার্চ শনিবার বিকাল ৪টায় “২৫মার্চঃ বিশ্বের ইতিহাসে নৃশংসতম গণহত্যা” শীর্ষক বিশেষ আলোচনা সভা ও ৬ টায় শহিদদের স্মরণে স্মৃতি চিরন্তনে “মোমবাতি প্রজ্বালন” আয়োজন করা হয়েছে।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য(প্রশাসন) অধ্যাপক মোঃ আখতারুজ্জমান,বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ড. মো. রহমত উল্লাহ, বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপির উপ-মহাপরিচালক(যুগ্ন-সচিব) ড. ফোরকান উদ্দিন আহাম্মদ, ঢাকা ইউনিভার্সিটি এলামনাই নিউজ সম্পাদক আলী নিয়ামত, অনলাইন সংবাদ মাধ্যম বিডিভিউ ২৪ ডট কমের প্রধান সম্পাদক জনাব মোতাহের হোসেন চৌধুরী রাশেদ, চেতনা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জাহিদ সোহেল প্রমুখ।

আলোচনা সভায় মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন আন্তর্জাতিক অপরাধ বিশ্লেষক কাজী তিউনি বিনতে জিন্নাত।

চেতনা পরিষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মোঃ দুলাল মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান পরিচালনা করবেন সাধারণ সম্পাদক এস এম নাহিদ হাসান নয়ন।
অনুষ্ঠানে ভাষা সৈনিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, কবি, সাংবাদিক, সংগঠক ও বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকবেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সরকারি বিজ্ঞান কলেজে সম্মিলিত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত, পতাকা শোভাযাত্রা ও পরিচ্ছন্নতা অভিযান অনুষ্ঠিত 

0000

ঢাকা, ১৯ মার্চ : চেতনা পরিষদ, সরকারি বিজ্ঞান কলেজ শাখার আয়োজনে সম্মিলিত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত, পতাকা শোভাযাত্রা, কলেজ প্রাঙ্গন ও ফার্মগেট পদচারী সেতুসহ তদসংলগ্ন এলাকায় পরিচ্ছন্নতা অভিযান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার  বেলা ১.১৫ মিনিটে “লাখো শহিদের রক্তে ভেজা এ মাটি, শপথ নিলাম রাখবো পরিপাটি” এই স্লোগানকে সামনে রেখে মহান স্বাধীনতার মাসে চেতনা পরিষদের আয়োজনে এবং সরকারি বিজ্ঞান কলেজ ও সংযুক্ত স্কুলের সার্বিক সহযোগিতায় সরকারি বিজ্ঞান কলেজে সম্মিলিত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত, পতাকা শোভাযাত্রা, কলেজ প্রাঙ্গন ও ফার্মগেট পদচারী সেতুসহ তদসংলগ্ন এলাকায় পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও শোভাযাত্রা হয়।

অনুষ্ঠানে সরকারী বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষ ও চেতনা পরিষদ, বিজ্ঞান কলেজ শাখার প্রধান উপদেষ্টা বনমালী মোহন ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সচিব জনাব শ্যামা প্রসাদ ব্যাপারী, উপাধ্যক্ষ ড. হারন-অর- রশিদ, সহযোগী অধ্যাপক সোমা সামাদ, সহকারী অধ্যাপক পারভীন জাহান, চেতনা পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি প্রভাষক জাহিদ সোহেল, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাস্ক সভাপতি এস এম নাহিদ হাসান নয়ন বক্তব্য রাখেন।

এছাড়াও বীর মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, সাংবাদিক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থার প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটিতে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালিত 

সোহেল আহসান নিপুঢাকা, ১৬ মার্চ : হাজার বছরের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে বক্তারা বলেছেন, স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অবদান অবিস্মরণনীয়। জাতি হিসেবে আমরা এই মহান ব্যক্তির কাছে ঋনী।

বৃহস্পতিবার (১৬ মার্চ) সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি (বিইউ) এর সভাকক্ষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮ তম জন্মদিন এবং জাতীয় শিশু দিবস ২০১৭ উদযাপন ও আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল হক শরীফ। সবাইকে স্বাগত জানিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করেন বিইউ’র রেজিস্ট্রার মেজর নিয়াজ মোহাম্মদ খান (অব:)।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল হক শরীফ বলেন, বঙ্গবন্ধুর অবদানের জন্য তিনি চিরস্মরণীয়। তিনি এই জাতিকে মুক্তির পথ দেখিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চেই দিয়েছিলেন স্বাধীনতার ঘোষনা। ওই ঐতিহাসিক ভাষণে ছিল স্বাধীনতার ডাক, স্বাধীনতার ঘোষনা। আমরা সার্বিকভাবে জাতি হিসেবে এই মহান ব্যক্তির কাছে ঋণী।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ইউনিভার্সিটির কোষাধ্যক্ষ কামরুল হাসান, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন ও বিওটি সেক্রেটারী ইঞ্জি: এম এ গোলাম দস্তগীর, িিবজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মো: ইমামউদ্দিন, কলা ও আইন অনুষদের ডীন প্রফেসর মোস্তফা কামালউদ্দিন এবং পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক শেখ আলাউদ্দিন বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিভাগের প্রধানগণসহ ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে আলোচনা সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর একটি তথ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ইসলামবাগের আগুনে তিনজনের মৃত্যু 

ঢাকা, ২৫ ফেব্রুয়ারি : রাজধানীর বুড়িগঙ্গার পারে ইসলামবাগ এলাকার প্লাস্টিক কারখানা ও বসতবাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট ওই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের পরিদর্শক বেলাল হোসেন বলেন, ওই আগুনের ঘটনায় তিনজন প্রাণ হারিয়েছেন বলে আমরা জানতে পেরেছি। তাদের মধ্যে শামীম নামের একজন রয়েছে। অন্য দুজনের নাম জানা যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানানো হয়, একটি প্লাস্টিক কারখানায় শনিবার বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটের দিকে আগুন আগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১২টি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে ৫টা ৪০ মিনিটের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। তবে আগুনের সূত্রপাত কীভাবে তা জানাতে পারেননি এই কর্মকর্তা।

চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীমুর রশীদ তালুকদার বলেন, ইসলামবাগের টিনশেডের বসতবাড়িতে আগুন লাগে। সেখানে প্লাস্টিকের কারখানা ছিল।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ধামরাইয়ে ৬০ হাজার ইয়াবা জব্দ 

698

ঢাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারি : ঢাকার ধামরাইয়ে পাচারকালে ৬০ হজার ইয়াবা ও ১৯০ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়েছে। তবে এসময় কেউ আটক হয়নি বলে জানায় পুলিশ।

বুধবার গভীর রাতে ডুলিভিটা-আড়ালিয়া সড়কের  ধামরাই পৌরশহরের চন্দ্রাইল নামক স্থান থেকে ওই ইয়াবা ও ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

এ ব্যপারে ধামরাই-সাভার সার্কেলের সহকারি সিনিয়র পুলিশ সুপার মো. নাজমুল হাসান ফিরোজ বলেন, খবর পেয়ে সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্স নিয়ে নিজেই অভিযান চালাই। জনতার সহায়তায় ডুলিভিটা-আড়ালিয়া সড়কের ধামরাই পৌরশহরের চন্দ্রাইল এলাকায় শক্ত প্রতিরোধ ও বেস্টনি গড়ে তুলি। এসময় মাদক ব্যবসায়ীরা মাদকের চালান ফেলে কৌশলে পালিয়ে যায়। সেখান থেকে
৬০ হাজার ইয়াবা জব্দ করা হয়

পরে স্থানীয়দের সহায়তায় পালিয়ে যাওয়া মাদক ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন গোপন আস্তানায় অভিযান চালিয়ে আস্তানা গুঁড়িয়ে দেই।

অপরদিকে মাদক ব্যবসায়ী মশিউর রহমানের ভাড়াকরা বাসা কুল্লা ইউনিয়নের মাখুলিয়া গ্রামের মো. ইয়াজুদ্দিন মাস্টারের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ১৯০ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করা হয়।

এ ব্যপারে ধামরাই থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ রিজাউল হক দীপু বলেন, মাদকের সঙ্গে পুলিশের কোনো আপোষ নেই। কাজেই খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে এ বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়।

শুধু তাই নয় পালিয়ে যাওয়া মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত থাকবে। কোনো ক্রমেই দেশ ও জাতির শত্রু এ মাদক ব্যবসায়ীরা আইনের হাত থেকে শেষ রক্ষা পাবে না।

এ ব্যপারে ধামরাই থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে রাজধানীতে শিবিরের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা 

27

ঢাকা, ২১ ফেব্রুয়ারি : ২১শে ফেব্রুয়ারি মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে ব্যানার, ফেস্টুন ও রক্তিম পতাকা হাতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা করেছে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির।

মঙ্গলবার সকালে সংগঠনের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ শাখার আয়োজনে শোভাযাত্রাটি রাজধানীর গেন্ডারিয়া রেল স্টেশন থেকে শুরু হয়ে জুরাইন মোড়ে গিয়ে শেষ হয়।

শোভাযাত্রার নেতৃত্বে ছিলেন শিবিরের কেন্দ্রীয় দাওয়াহ সম্পাদক শাহিন আহমেদ খান, শাখা সভাপতি শাফিউল আলম, সেক্রেটারি তোফাজ্জল হোসাইন হেলালী।

এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন, কাজী মাসুম সরকার, মুজিবুর রহমান মঞ্জু, ইমাম হোসাইন, শরীয়তুল্লাহ, শেখ ফরিদ রাহাত সহ মহানগরী ও থানা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

শোভাযাত্রা পরবর্তী সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শাহিন আহমেদ খান বলেন, বাঙালি একমাত্র জাতি, যারা জীবন দিয়ে মাতৃভাষা কিনেছে। অথচ আজ ভীনদেশি সংস্কৃতির কবলে পড়ে হুমকির মুখে সেই ভাষা। তাই রক্তে কেনা ভাষা রক্ষায় আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে।

ভাষা সৈনিকদের যথাযথ মূল্যায়নের দাবি তুলে শিবিরের এই নেতা বলেন, বাংলা ভাষাকে রক্ষা করতে হলে শুধু একদিনের কর্মসূচি পালন করলে হবে না। সব সময় স্বরণ করতে হবে ভাষা শহীদদের এবং ভাষার যথাযথ ব্যবহার করতে হবে। যে সকল ভাষা সৈনিক বেঁচে আছেন তাদের যথাযথ মর্যাদা দিতে হবে।

এ সময় তিনি ভাষা সৈনিক হিসেবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সাবেক আমির অধ্যাপক গোলাম আজমের স্বীকৃতিও দাবি করেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

“শুদ্ধ বাংলা চর্চার বর্তমান অবস্থা ও আমাদের করনীয়” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত 

27

নাহিদ হাসান, ঢাবি, ২০ ফেব্রুয়ারি : ঢাবিতে চেতনা পরিষদের-চেতনায় বাংলাদেশ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাস্কের যৌথ আয়োজনে বংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে আমরা” শীর্ষক মানববন্ধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৯ ফেব্রুয়ারী বিকালে বাংলা একাডেমির সামনে মানববন্ধন শেষে সন্ধ্যায় চেতনা পরিষদের সভাপতি জাহিদ সোহেলের সভাপতিত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্রের শহিদ মুনির চৌধুরী অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোঃ হোসেন মনসুর ও প্রধান আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও চিন্তাবিদ অধ্যাপক ড. আবুল কাসেম ফজলুল হক।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই নিউজের সম্পাদক আলী নিয়ামত, বীরমুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আহমেদ উল্লাহ ভুইয়া, এডভোকেট মোশাররফ হোসেনসহ অন্যোন্য নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. মোঃ হোসেন মনসুর বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি, বাংলাভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে পেয়েছি। ভাষাআন্দোলন ও মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আমাদের বংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আজকে বংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে যে আলোচনা হলো ভবিষ্যতে বাংলাভাষা ও সংস্কৃতিকে রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে বলে বিশ্বাস করি।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে চেতনা বিশিষ্ট চিন্তাবিদ অধ্যাপক ড. আবুল কাসেম ফজলুল হক বলেন, আমাদেরকে এগিয়ে যেতে হলে এই অঞ্চলের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে, আমাদের পড়াশুনা করতে হবে। তাহলেই আমরা বুঝতে পারবো আমাদের করণীয় সম্পর্কে। ভাষা আন্দোলনের প্রথম সংগঠন তমুদ্দুন মজলিশ খুবই জনপ্রিয় পরর্তীকালে তমুদ্দুন মজলিশও জোটগত রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েছিলো। ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়েই আমাদের বাংলা ও সংস্কৃতিকে রক্ষা করতে হবে। শুদ্ধ বাংলা ভাষা চর্চার প্রসারের ক্ষেত্রে আমাদের সবাইকে একনিষ্ঠভাবে কাজ করতে হবে। নাসিরনগর, গাইবান্ধাসহ বিভিন্ন জায়গায় ধর্মের নামে যে সহিংসতা হয়েছে তা কোন ধর্মের মৌলিক শিক্ষার সাথে সংহতিপূর্ণ নয়, এগুলো সন্ত্রাসবাদী ধারা। কাজেই আমাদের দেশ ভাষা ও সংস্কৃতিকে এগিয়ে নিতে ইতিহাস চর্চার বিকল্প নেই।

অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক এস এম নাহিদ হাসান নয়নের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন চেতনা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ড. মোঃ আলমগীর হোসেন।

আলোচনা শেষে মোঃ দুলাল মিয়াকে সভাপতি ও এস এম নাহিদ হাসান নয়নকে সাধারণ সম্পাদক করে চেতনা পরিষদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ৭ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয় ও নতুন কমিটিকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, সহ-সভাপতি মোঃ মুহিব, যুগ্নসাধারণ সম্পাদক মোসা. নাছরিন জেবিন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ মোঃ জিদান, মোঃ সিরাজ মিয়া, মোঃ নাসিম প্রমূখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

“ঢাবিতে বাংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে আমরা” শীর্ষক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত 

130db44974eb935424e6865ec8e7f9ed

নাহিদ হাসান, ঢাবি, ১৯ ফেব্রুয়ারি : ঢাবিতে বিশ্বের প্রথম ধূমপান ও মাদক বিরোধী সংগঠন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাস্ক ও চেতনা পরিষদের যৌথ আয়জনে ‘বাংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে আমরা’ শীর্ষক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১৯ ফেব্রুয়ারী বিকালে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট সাংবাদিক, সংগঠক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই নিউজের সম্পাদক আলী নিয়ামত, প্রধান আলোচক ছিলেন চেতনা পরিষদের সভাপতি জাহিদ সোহেল, বিশেষ অতিথি ছিলেন ড. মোঃ আলমগীর হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই নিউজের প্রতিনিধি মাহতাবুর রহমান মুরাদসহ অন্যোন্য নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আলী নিয়ামত বলেন, বাংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজকে বাংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধে ও পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাস্ক যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছে তার জন্য সাধুবাদ জানাই। আগামীতে এ আন্দোলনে মাধ্যমে বাংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধ ও শুদ্ধ বাংলা চর্চার এ আন্দোলন সারাদেশে ছড়িয়ে পড়বে এটা আমি বিশ্বাস করি।

প্রধান আলোকের বক্তব্যে চেতনা পরিষদের সভাপতি জাহিদ সোহেল বলেন, লাখো শহিদের রক্তে ভেজা এই মাটিকে পরিচ্ছন্ন রাখবো ও শুদ্ধ বাংলার চর্চা করতে আমাদের সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।

ঢাবি সাস্ক সভাপতি এস এম নাহিদ হাসান নয়ন বলেন, বাংলা ভাষাই বিশ্বের একমাত্র রক্তে কেনা ভাষা। এই ভাষার মর্যাদা রক্ষার্থে আমাদেরকে বাংলাভাষা ও সংস্কৃতির বিকৃতি রোধ ও শুদ্ধ বাংলা চর্চা করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাবি সাস্ক সভাপতি এস এম নাহিদ হাসান নয়নের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাস্কের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম, রেজাউল ইসলাম, সাস্কের প্রচার সম্পাদক গোলাম আজম প্রমুখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর