২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭
রাত ৩:২২, শুক্রবার

রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে মালয়েশীয় বিমান চট্টগ্রামে

রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে মালয়েশীয় বিমান চট্টগ্রামে 

885

চট্টগ্রাম, ১০ সেপ্টেম্বর : বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া দুর্দশাগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের জন্য ১২ টন ত্রাণ সহায়তা নিয়ে একটি মালয়েশীয় কার্গো বিমান চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে পৌঁছেছে।

শনিবার রাতে এ-৪০০ অস নামের কার্গো বিমানটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে পৌঁছলে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে ত্রাণ সামগ্রী গ্রহণ করতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী বিমানবন্দরে উপস্থিত হন।

শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ম্যানেজার উইং কমান্ডার রিয়াজ উদ্দিন মালয়েশীয় ত্রাণ সহায়তা নিয়ে কার্গো বিমান চট্টগ্রামে পৌঁছানোর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিমানটিতে বিভিন্ন ধরনের ১২ টন ত্রাণ সামগ্রী রয়েছে। ত্রাণ সমূহের মধ্যে রয়েছে গুঁড়ো দুধ, খেজুর, চাল, বিস্কুট, কাপড়, বিশুদ্ধ পানি ও সাবান।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেন, মালয়েশিয়া থেকে আসা খাদ্যসহ ১৪ রকমের ত্রাণ সামগ্রী আমরা বুঝে পেয়েছি। কাস্টমস প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর এই ত্রাণ আজ রোববার কক্সবাজারের জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। এরপর কক্সবাজার জেলা প্রশাসন এসব ত্রাণ সামগ্রী বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিতরণ করবেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ 

085

চট্টগ্রাম, ১ সেপ্টেম্বর : চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ৩ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন আরো অন্তত ৮ জন।

শুক্রবার সকালে উপজেলার নয়াখালের মুখ এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন- মো. আজিজুল ইসলাম (৪০) এবং গিয়াস উদ্দিন (৪০) ও তার স্ত্রী। গিয়াসের স্ত্রীর নাম পুলিশ জানাতে পারেনি।

হাইওয়ে পুলিশের দোহাজারি থানার পরিদর্শক মিজানুর রহমান জানান, চট্টগ্রাম থেকে যাত্রী নিয়ে বাসটি সাতকানিয়া যাচ্ছিল। পথে মৌলভীর দোকান এলাকা পার হয়ে নয়া খালের মুখ এলাকায় চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি রাস্তার পাশে একটি গাছের সঙ্গে সজোরে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই ৩ জন নিহত হন। পরে আহত অবস্থায় ৮ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয় বলে পরিদর্শক মিজানুর জানান।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে অস্ত্র ও মাদকসহ দুই ছিনতাইকারী আটক 

65

চট্টগ্রাম, ২৯ আগস্ট : চট্টগ্রামে অস্ত্র ও ইয়াবাসহ দুই ছিনতাইকারীকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত ছিনতাইকারীরা হলো জয়নাল আবেদিন টিপু (৩২) ও আসিফ মাহমুদ (১৮)।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত ১২টার দিকে নগরীর পাঠানটুলী এলাকা থেকে তাদের আটক করে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরি এলজি ও এক রাউন্ড কার্তুজ এবং ২টি ছোরা উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া তাদের কাছ থেকে ৩৬০ পিস ইয়াবাও উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ডবলমুরিং থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কায়সার হামিদ বলেন, টিপু পেশাদার ছিনতাইকারী। তার বিরুদ্ধে ৩টি মামলা আছে। আসিফ তার সহযোগী। টিপু ও আসিফের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে দুইটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী নিহত 

55

চট্টগ্রাম, ১৮ আগস্ট : চট্টগ্রামের আকবর শাহ এলাকায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর আকবর শাহ থানাধীন ইস্পাহানি রেলগেট এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- কামরুল ইসলাম (২৭), মো. নিজাম (৩২) ও মো. রেজাউল (৩০)।

আকবর শাহ থানার ওসি মো. আলমগীর জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর ইস্পাহানি রেলগেট এলাকায় একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিন আরোহী মারা যান।

পরে পুলিশ ধাওয়া করে ট্রাকটি জব্দ এবং ট্রাকচালক ও হেলপারকে আটক করে।

ময়নাতদন্তের জন্য নিহতদের লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ঝড়ে স্থাপনার নিচে পড়ে ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত 

11

চট্টগ্রাম, ১১ আগস্ট : চট্টগ্রাম নগরের ফিশারি ঘাট এলাকায় হঠাৎ ঝোড়ো বাতাসে টিনের চালসহ কয়েকটি স্থাপনা উড়ে গেছে। স্থাপনার নিচে চাপা পড়ে রাসেল দে নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা মারা গেছেন। তার আনুমানিক বয়স ৩০ বছর। এ সময় সৈয়দ আলম ও আবদুল খালেক নামের দুজন আহত হন।

আজ শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন বলছেন, এটা টর্নেডো হতে পারে। এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিকভাবে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। হতাহত ব্যক্তিরা ওই এলাকা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। নিহত রাসেল পটিয়া উপজেলার রণজিৎ দের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা ১১টার দিকে হঠাৎ ঝোড়ো বাতাসে বিভিন্ন স্থাপনা ২০০ গজ দূরে উড়িয়ে নিয়ে যায়। নগর পুলিশের কোতোয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এক মিনিটের মতো স্থায়ী একটি ঝোড়ো বাতাসে টিনের চালসহ বিভিন্ন স্থাপনা উড়ে যায়। এ সময় রাসেল দেসহ তিনজন আহত হন। তাদের হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক রাসেল দেকে মৃত ঘোষণা করেন। -প্রথম আলো।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ভারী বর্ষণে হাটহাজারীর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত 

1542

চট্টগ্রাম, ২৪ জুলাই : গত তিন দিনে টানা বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের তীব্র স্রোতে হাটহাজারীর বিভিন্ন এলাকার নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। শতাধিক পুকুরের চাষ করা মাছ পানির সাথে ভেসে গেছে। ডুবে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ফসলী জমির বীজ তলা ও নতুন রোপা ধান। পানি বন্দী হয়ে ভোগান্তিতে আছে গ্রামানঞ্চলের কয়েক হাজার পরিবার।

যাতায়াত সড়ক পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় নিত্য প্রয়োজনে হাটবাজারে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। স্রোতের টানে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে যাওয়ায় জনচলাচলের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। পাহাড়ী ঢলের তীব্র স্রোতে নিম্মাঞ্চল এলাকার মানুষের সাথে সদরের সড়ক মহা সড়কের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে পানি বন্ধি পরিবারগুলো। কিছু কিছু স্থানে নৌকা দিয়ে যাতায়াত করতে দেখা গেছে। প্রবল বর্ষণে মহা সড়কের বিভিন্ন দিক দিয়ে পানি স্রোত বেঁয়ে যেতে দেখা গেছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় ও স্থানীয় বাসিন্ধারা জানান, উপজেলার ফরহাদাবাদ,ধলই, গুমান মর্দন, ছিপাতলী, লাঙলমোড়া, গড়দুয়ারা, মেখল ,উত্তর মাদার্শা, দক্ষিণ মাদার্শা, বুড়িশ্চর , চিকনদন্ডী, ফতেপুর ইউনিয়নের সিংহ ভাগ এলাকা এবং হাটহাজারী পৌর এলাকা মির্জপুর ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পৌরসভাসহ পনের ইউনিয়রে শতশত পুকুরে চাষ করা মাছ পানিতে ভেসে গেছে।

এদিকে পাহাড়ী ঢলের চাপ প্রয়োগে খালের পাড় ভেঙে বিভিন্ন এলাকার আমন ধানের বীজতলা ও রূপণ করা জমি সহ ফসলের ক্ষেত তলিয়ে গেছে পানির নিচে । যার ফলে কৃষক পরিবারগুলো হতাশ হয়ে পড়েছে । ক্ষেতে খামারে মুরগির ও মাছের অনেক খামার পানিতে ভেসে গেছে।

এদিকে দুই দিনের টানা বৃষ্টিতে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় এসব এলাকার স্কুল মাদরাসার ছাত্রছাত্রীরা বিদ্যালয়ে যেতে পারছেনা।

উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের জন প্রতিনিধি ও ভুক্তভোগিরা জানান, প্রবল বর্ষণে হাটহাজারীর নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায়,কয়েক হাজার পরিবার পানি বন্ধি রয়েছে। পাহাড়ী ঢলের তীব্র স্রোতে খালের পাড় ভেঙ্গে ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। প্রবল স্রোতের টানে হালদার ভাঙন বৃদ্ধি পেয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

নাফ নদীতে নৌকাডুবি, নিখোঁজ ২ জেলে 

81

কক্সবাজার, ২৩ জুলাই : ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়ে কক্সবাজারের টেকনাফে নাফ নদীতে তিন মাঝিমাল্লাসহ একটি মাছধরার নৌকা ডুবে গেছে। এ ঘটনায় দুই জেলে এখনও নিখোঁজ রয়েছে এবং মুমূর্ষু অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করেছেন কোস্টগার্ড সদস্যরা।

রবিবার সকালে শাহপরীর দ্বীপ সংলগ্ন নাফ নদীতে এ ঘটনা ঘটে।

উদ্ধার হওয়া জেলে মোহাম্মদ আয়ুব (৩০) শাহপরীর দ্বীপ মাঝার পাড়ার মোহাম্মদ ইসলামের ছেলে। নিখোঁজ জেলেরা হলেন—একই এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে মোহাম্মদ রফিক (২১) ও তার ভাই মোহাম্মদ ওসমান (২২)।

এ প্রসঙ্গে কোস্টগার্ড চট্টগ্রাম জোনের কর্মকর্তা লে. কমান্ডার মোহাম্মদ মেহেদী এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘নৌকাডুবিরর ঘটনা শুনে নাফ নদীতে তল্লাশি চালিয়ে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুমূর্ষু অবস্থায় এক জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তিনি এখন সুস্থ রয়েছেন এবং নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

তবে নদী উত্তাল থাকায় উদ্ধারকাজে বেগ পেতে হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ফেরত আসা জেলে ও ওই নৌকার মালিক নুরুল আমিনের ভাষ্য, শনিবার সন্ধায় প্রতিদিনের মতো মাছধরার নৌকা নিয়ে ওই তিন মাঝিমাল্লার শাহপরীর দ্বীপ থেকে আনুমানিক ১২ কিলোমিটার দূরে নাফ নদীতে মাছ ধরতে যায়। রোববার সকাল ৬টার দিকে হঠাৎ নৌকাটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ে। এসময় ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়ে ঢেউয়ের তোড়ে নৌকাটি ডুবে যায়। খবর পেয়ে শাহপরীর দ্বীপ কোস্টগার্ড স্টেশনের কর্মকর্তা মো. কবিরের নেতৃত্বে একটি দল দ্বীপের গুলারচর এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় মোহাম্মদ আয়ুবকে উদ্ধার করে। তাকে চিকিৎসার পর বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে এখনও দুই জেলে নিখোঁজ রয়েছে।

এ বিষয়ে টেকনাফ-২ বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দার এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘নাফ নদীতে নৌকাডুবির ঘটনা শুনেছি। বিজিবি নিখোঁজদের উদ্ধারকাজে সহযোগিতা করছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘নাফ নদীতে মাছধরা বন্ধের ব্যাপারে লিখিত কোন চিঠি পাইনি। তবে জেলেদের রাতে মাছ ধরতে দেয়া হবে না বলে ইউএনওর কাছে থেকে শুনেছি।’ -সমকাল

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে আবার পাহাড়ধস, ৫ জন নিহত 

15

চট্টগ্রাম, ২১ জুলাই : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলায় আবার পাহাড়ধসে নারী-শিশুসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

আজ শুক্রবার ভোরে উপজেলার জঙ্গল ছলিমপুরে এ পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুল ইসলাম ভুঁইয়া।

ইউএনও জানান, জঙ্গল ছলিমপুর এলাকাটি দুর্গম। টানা বৃষ্টির কারণে ভোররাতে সেখানে পাহাড়ধসে একটি বাড়ি ওপর পড়ে। বাড়িতে পাঁচজন ছিলেন। তাঁরা একই পরিবারের সদস্য বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরো দুজন।

নিহতরা হলেন রাবেয়া, তাঁর মেয়ে সামিয়া ও লামিয়া, বিবি ফাতেমা ও ইউনুছ।

মূলত ছিন্নমূল ও দরিদ্র পরিবারের লোকজনই এখানে ঘর বানিয়ে বসবাস করতেন। বাসিন্দারা সেখানকার এলাকাগুলোকে ‘সমাজ’ নামে অভিহিত করে থাকে। তিন নম্বর সমাজে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। সম্ভবত ঘুমের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

সাগরে নিম্নচাপের কারণে গত বুধবার থেকেই টানা বৃষ্টি হচ্ছে।

এর আগে মধ্য জুনে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া, চন্দনাইশসহ কয়েকটি উপজেলায় প্রবল বর্ষণে পাহাড়ধস ও ঢলে নিহত ৩৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর রাঙ্গুনিয়ায় ৫৮০টি পরিবার, চন্দনাইশে ৫০ পরিবারকে ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড় ও এর আশপাশ থেকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে ভারতীয় শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার 

01

চট্টগ্রাম, ১৫ জুলাই : চট্টগ্রামে বেসরকারি ইউএসটিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ভারতীয় শিক্ষার্থীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তার আরেক স্বদেশি সহপাঠীকে।

শুক্রবার মধ্যরাতে আসিফ শেঠ (২৬) এবং আহত উইলসন (২৬) দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা আসিফকে মৃত ঘোষণা করেন।

মেডিক্যাল পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক মোহাম্মদ হামিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তারা দুজনই ইউএসটিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে পুলিশ জানিয়েছে।

নিহত আসিফ শেঠ এবং আহত উইলসন নগরীর আকবর শাহ থানার আব্দুল হামিদ সড়কের একটি বাসায় এক কক্ষে থাকতেন।

আসিফের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে বলে জানান তিনি।

হামিদ আরো জানান, ইউএসটিসির আরেক ভারতীয় ছাত্র নিরাজ গুরু রাত সোয়া ১টার দিকে ওই দুজনকে হাসপাতালে আনেন। নিরাজ তার স্ত্রীকে নিয়ে ওই ফ্ল্যাটে আসিফ ও উইলসনের পাশের কক্ষে থাকেন।

“নিরাজ বলেছে, আসিফ ও উইলসন রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাদের কক্ষে মদ্যপান করছিল। ১২টার দিকে ওই কক্ষ থেকে শব্দ পেয়ে তিনি কক্ষটি খোলার চেষ্টা করেন। কিন্তু কক্ষটি ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। এক পর্যায়ে তিনি বিকল্প চাবি দিয়ে দরজা খুলে ভেতরে ঢুকে উইলসনকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। তখন তিনি স্ত্রীকে নিয়ে উইলসনকে নিচে নামান। এ সময় আসিফকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন।”

পরে প্রতিবেশীদের সহায়তায় দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে আনেন বলে নিরাজ জানিয়েছেন।

আকবর শাহ থানার এসআই জসিমউদ্দিন জানান, ওই বাসায় যে চারজন থাকতেন তারা সবাই ভারতের মণিপুরের বাসিন্দা। কীভাবে এ হত্যাকাণ্ড ঘটল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে এসআই জসিম জানিয়েছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সীতাকুণ্ডে অজ্ঞাত রোগ : মৃত শুকরের মাংস থেকে সংক্রমনের আশংকা 

35858

চট্টগ্রাম, ১৪ জুলাই : সীতাকুণ্ডে বার আওলিয়া ত্রিপুরা পাড়ায় অজ্ঞাত রোগে গত চার দিনে ৯ শিশুর মৃত্যুর পর আরো ছয় শিশু আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে চার শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বুধবার রাতে আক্রান্ত হওয়ার পর তাদেরকে বৃহস্পতিবার সকালে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরিত্যক্ত মৃত শুকুরের মাংস খাওয়া থেকে এ সংক্রামন ঘটে থাকতে পারে বলে আশংকা করছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল করিম রাশেদ। মাত্র চার দিনের ব্যবধানে নয় শিশুর মৃত্যু ও বিয়াল্লিশ শিশু হাসপাতালে ভর্তির ঘটনায় ত্রিপুরা পাড়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ঘরে ঘরে চলছে শোকের মাতম। প্রশাসন ত্রিপুরা পাড়ার পার্শ্ববর্তী তিনটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কপপ্লেক্সের সকল চিকিৎসকের ছুটিও বাতিল করেছেন।

ঘটনাস্থলে কর্মরত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ নুরুর করিম সাংবাদিকদের জানান, আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারি, ত্রিপুরা পাড়ার অধিবাসীরা কিছুদিন আগে পরিত্যাক্ত এক মৃত শুকরের মাংস খেয়েছিল। হয়তো বা ঐ মাংস থেকেই এ সংক্রামন এবং অপুষ্টিহীনতার কারণে ঘটনাটি ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, বুধবার রাতে আরো ছয় শিশু এ অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত শিশুদের মধ্যে পাঁচ জনের নাম পওয়া গেছে। তারা হলো, পারুল ত্রিপুরা(৪), গোপাল ত্রিপুরা (৫), সুমন ত্রিপুরা (৬), তপন বাবু ত্রিপুরা (১০) ও রুমি ত্রিপুরা (৬)। তাদেরকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, অজ্ঞাত এ রোগ নির্নয় করতে ঢাকা থেকে আগত রোগতত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রন, ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর এর চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের পাঁচ সদস্যের একটি দল ডাঃ ফারুক আহমেদ ভূঁইয়ার নেতৃত্বে সীতাকুণ্ডে এসেছেন। তারা গতকাল সকালে উপজেলার ফৌজদারহাটে অবস্থিত বিআইটিআইডি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুদের নিয়ে কাজ শুরু করেছেন।

এদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, ত্রিপুরা পাড়ার পার্শ্ববর্তী তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ওইপ্রতিষ্ঠান গুলোর সকল পরীক্ষা পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সীতাকুণ্ড সোনাইছড়ি ইউনিয়নের পাহাড়ের পাদদেশে ত্রিপুরা পাড়ায় ৪ দিনে ৯ শিশুর মৃত্যুরপর গতকাল আরো ৬ জনকে হাসপাতালে ভর্তি সহ এ পর্যন্ত মোট ৪২ জন শিশু চমেক ও ফৌজাদারহাট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহা পরিচালক অধ্যাপক এমএ ফয়েজ সাংবাদিকদের জানান, চার শিশু আশংকাজনক অবস্থায় আছে। একজন পিআইসিউইতে আছে। আরেকজন ওয়ার্ডে আছে। ঢাকা থেকে পরিক্ষার ফলাফল এলে সার্বিক তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে কি সক্রামণ হয়েছে তা জানা যাবে। -নয়া দিগন্ত

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত শিশুদের রক্তের নমুনা সংগ্রহ 

878

চট্টগ্রাম, ১৩ জুলাই : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের ত্রিপুরাপাড়ায় অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত শিশুদের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করেছেন ঢাকা থেকে আসা বিশেষজ্ঞ দল। আজ বৃহস্পতিবার সকালে ফৌজদারহাটের সংক্রামক ব্যাধি হাসপাতালে ভর্তি হওয়া শিশুদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করেন চার সদস্যের বিশেষজ্ঞ দলটি।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী জানান, ঢাকার আইইডিসিআরর প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তার নেতৃত্বে চার সদস্যের একটি বিশেষজ্ঞ দল ফৌজদারহাট এসেছেন। এখান থেকে নমুনা সংগ্রহ করে তারা চমেক হাসপাতালে যাওয়ার কথা রয়েছে।

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ওই শিশুরা অপুষ্টির শিকার এটি চোখে দেখলেই বোঝা যায়। তবে প্রকৃত কারণ জানতে নমুনা পরীক্ষার ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সুস্থ হয়ে চট্টগ্রাম ফিরলেন আল্লামা শফী 

898

চট্টগ্রাম, ১১ জুলাই : এক মাসের বেশি সময় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর গতকাল ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে ফিরেছেন হেফাজতে ইসলামের আমির মাওলানা শাহ আহমদ শফী।

হেফাজতে ইসলামের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক ইসলামাবাদী সোমবার বিকালে বলেন, হুজুর বিকাল ৪টা ৪৫ এ হাটহাজারীতে এসে পৌঁছেছেন। তিনি এখন মাদ্রাসায় বিশ্রাম নিচ্ছেন।

তিনি জানান, তাদের আমিরের  হেলিকপ্টারে করে সকালে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে যাওয়ার কথা থাকলেও বিরূপ আবহাওয়ার কারণে তিনি রওনা হন বিকালে। ঢাকার ধূপখোলা মাঠ থেকে হেলিকপ্টারে শফীকে নিয়ে বিকাল পৌনে ৫টায় হাটহাজারীর দারুল উলুম মইনুল ইসলামের ছাদে অবতরণ করে।

শারীরিক দুর্বলতা ও শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা নিয়ে গত ১৮ মে থেকে চট্টগ্রাম নগরীর প্রবর্তক মোড়ের সিএসসিআর নামে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন আহমদ শফী। প্রায় ১৫ দিন সেখানে চিকিৎসার পর পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়ায় গত ৬ জুন এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে নিয়ে আসা হয় ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে। সেখানে মেডিসিন বিভাগের বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক সরওয়ারে আলম এবং নিউরোলজির অধ্যাপক নূরুল হুদার তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নেন তিনি।

বর্তমানে হেফাজত আমির স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে পারছেন বলে তার ছোট ছেলে মাওলানা মোহাম্মদ আনাছ জানিয়েছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফের পাহাড় ধস : নিহত ২ 

09

চট্টগ্রাম, ৬ জুলাই : বান্দরবান ও কক্সবাজারে ফের পাহাড় ধসে দুজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন আরও ২ জন। বুধবার দিবাগত রাতে পাহাড় ধসের এ ঘটনা ঘটে বলে জানান স্থানীয়রা।

জানা যায়, বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে পাহাড় ধসে চমেন খাতুন (৪০) নামের এক নারী নিহত হয়েছেন। এসময় তার ছোট মেয়ে আমেনা খাতুন আহত হয়। ঘুমধুম পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সজীব এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার বিকালে প্রবল বর্ষণে ফকির পাড়ার মৃত আবদুল মাজেদের বাড়িতে পাহাড় ধসে পড়ে। এসময় ঘটনাস্থলেই মারা যান তার স্ত্রী চমেন খাতুন, আহত হয় তার মেয়ে। এর আগে গত ১৩ জুন ভারি বর্ষণে বান্দরবানে পাহাড় ধসে নিহত হন নয় জন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

টানা বৃষ্টিতে চট্টগ্রামের নিম্নাঞ্চল ডুবে গেছে 

55

চট্টগ্রাম, ৩ জুলাই : রবিবার রাত থেকে টানা বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম মহানগরীর নিম্নাঞ্চল ডুবে গেছে।

নগরীর আগ্রাবাদ, সিডিএ আবাসিক, শান্তিবাগ, হালিশহর, ছোটপুল, চকবাজার, বাকলিয়া, কাতালগঞ্জ, দুই নম্বর গেট এলাকার কোথাও হাঁটু পানি, আবার কোথাও কোমর পানি জমে গেছে। এতে মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।

চট্টগ্রাম আবহাওয়া অধিদপ্তরের কর্মকর্তা মাসুদুল আলম বলেন, বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপের কারণে চট্টগ্রামে বৃষ্টিপাত হচ্ছে। সোমবার বেলা ১১টা পর্যন্ত ১৩১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আরো কয়েকদিন বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

১৫ লাখ ইয়াবা বড়ি উদ্ধার 

553322

চট্টগ্রাম, ২৪ জুন : চট্টগ্রামের পতেঙ্গা সমুদ্রসৈকতের বহির্নোঙর এলাকা থেকে মিয়ানমারের পাঁচ নাগরিকসহ ১২ জনকে আটক করেছে র‍্যাব-৭। আটক হওয়া ব্যক্তিদের কাছ থেকে ১৫ লাখ ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়েছে।

শনিবার ভোররাতে ওই ১২ ব্যক্তিকে আটকের পাশাপাশি তাদের কাছ থেকে ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করা হয়। একই অভিযানে একটি ট্রলার জব্দ করেছে র‍্যাব।

র‍্যাব-৭ চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) মো. আমিরুল্লা বলেন, বিপুল পরিমাণ ইয়াবা বড়িসহ ১২ ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। তাদের মধ্যে পাঁচজন মিয়ানমারের নাগরিক।

ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানাতে বেলা ১১টায় র‍্যাব-৭ চট্টগ্রামের পতেঙ্গা কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন হওয়ার কথা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর