১৮ নভেম্বর ২০১৭
বিকাল ৫:৫৯, শনিবার

ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে চবি ছাত্রলীগ নেতা আটক

ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে চবি ছাত্রলীগ নেতা আটক 

32

চবি, ২৭ অক্টোবর : চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালটির ছাত্রলীগ নেতা ইসতিয়াক আহমেদ সৌরভকে আটক  করেছে পুলিশ।

চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার রাত সোয়া দশটার দিকে ৫টি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসসহ ওই ছাত্রলীগ নেতাকে আটক করে।

সৌরভ চবি ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগের ছাত্র।

পাঁচলাইশ থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ এ প্রতিবেদককে জানান, ভর্তি জালিয়াতির অভিযোগে সৌরভসহ কয়েকজনের উপর পুলিশ বেশ কয়েকদিন ধরে নজরদারি চালিয়ে আসছিল।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাতে ৫টি ইলেক্ট্রনিক ডিভাইসসহ সৌরভকে আটক করা হয়। তার অপর সহযোগীদের ধরতে পুলিশে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানান ওসি।-যুগান্তর

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কৌশল পাল্টে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক দিয়ে আসছে ইয়াবা 

312

চট্টগ্রাম : বিভিন্ন মাদকদ্রব্যসহ ইয়াবা পাচার থেমে নেই চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক পথে। নিত্য-নতুন কৌশল পাল্টে ও অভিনব কায়দায় পাচারকারীরা চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক পথে ইয়াবা পাচার করছে। প্রতিদিন এ সড়কের কোন না কোন অংশে ইয়াবার ছোট-বড় চালান পুলিশের হাতে ধরা পড়ছে। এ সড়কের লোহাগাড়া অংশে পুলিশের হাতে যারা ধরা পড়ছে তাদের মধ্যে কেউ কেউ অভিনব কায়দায় পাচারকারী।

বিভিন্ন সূত্র ও অনুসন্ধানে জানা গেছে, দেশে ইয়াবার এতো বেশি চাহিদা যে, মিয়ানমারের উৎপাদিত ইয়াবা টেকনাফ, উখিয়া ও নাইক্ষ্যংছড়ির প্রায় ৩৩টি সীমান্ত পথ দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকছে। সড়ক পথে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সতর্ক অবস্থান। তারপরও চোরাচালানকারীরা বিভিন্ন কৌশল ও রুট পরিবর্তন করে ইয়াবা পাচার করছে। সড়ক পথে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম, ফেনী ও কুমিল্লা হয়ে ঢাকাসহ বিভিন্নস্থানে চলে যাচ্ছে। নীল, লাল রংসহ বিভিন্ন রং’র ছোট প্যাকেটে ২শ’টি ট্যাবলেট প্যাকেটজাত করে পাচার হচ্ছে ইয়াবা। স্থানভেদে প্রতি পিস ট্যাবলেটের দাম ১৮০-৫০০ টাকা। ইয়াবা পাচারে ব্যবহার করা হচ্ছে রোহিঙ্গা এবং দেশের যুবসমাজ ও অভাবী নারী-পুরুষকে। পাচারকারীরা কখনো যাত্রীবেশে কখনো চালকের আসনে কখনো ভিক্ষুক-প্রতিবন্ধী, কখনো ভিআইপি গাড়ি করে ও কখনো সুফি সেজে পাচার করছে। কক্সবাজার থেকে প্রাইভেট গাড়ি, মাইক্রোবাস, দূরপাল্লার বাস, অ্যাম্বুলেন্স ও মালবাহী-লবনবাহী ট্রাকের মাধ্যমে বিভিন্নস্থানে চলে যাচ্ছে।

অন্যদিকে সড়ক পথে কক্সবাজারের উখিয়া থেকে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ১৮টি চেকপোস্ট রয়েছে। এসব চেক পোস্টে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তীক্ষ্ণ দৃষ্টি থাকার পরও পাচারকারীরা কৌশল পাল্টে ইয়াবা পাচার করছে। প্রতিদিন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়কের বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের হাতে ধরা পড়ছে শত শত ও হাজার হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট। এ মাদকদ্রব্য থাইল্যান্ড ও মিয়ানমার থেকে  কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ এবং বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্ত দিয়ে দেশে ঢুকছে। পাচারের রুট হিসেবে বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও পার্বত্য অঞ্চলের সড়ক- উপসড়ক। দেশীয় চোরাচালানী ও প্রভাবশালীরা নিত্যনতুন কৌশল ব্যবহার-পাল্টে পাচারকারীদেরকে দিয়ে তা ছড়িয়ে দিচ্ছে তৃণমূল পর্যায়ে। এতে আক্রান্ত হচ্ছে যুব সমাজ।

লোহাগাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ হানিফ জানান, মাদকদ্রব্য ইয়াবা সেবনে শরীরে নানা জটিল রোগ হয়। ইয়াবায় ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ এমফিটামিন রয়েছে। এটি সেবনে কিডনি নষ্ট, অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিকলাঙ্গ স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হয়। দেহে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাসসহ হার্টএ্যাটাক, উচ্চ রক্তচাপ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি থাকে। এক পর্যায়ে কর্মশক্তি ও উদ্যম হারিয়ে শারীরিক-মানসিকভাবে দুর্বল হয়ে জীবনের আলো নিভে যায়।

লোহাগাড়া থানার ওসি মো. শাহজাহান পিপিএম জানান, ইয়াবা পাচারে পাচারকারীরা যত কৌশল অবলম্বন করুক না কেন পার পাবে না। ইয়াবাসহ মাদকদ্রব্যের বিরুদ্ধে লোহাগাড়া পুলিশের অবস্থান জিরো টলারেন্স। উপজেলার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক পথে ইয়াবা পাচার নিয়ন্ত্রণে লোহাগাড়া থানা পুলিশ সবসময় সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। ফলে পাচারকারীরা রেহাই পাচ্ছে না বলে তিনি জানান।

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহবুব আলম জানান, ইয়াবা নেশা জাতীয় মরণঘাতি মাদকদ্রব্য। এটি সেবনে নানা মারাত্মক রোগ হয়। দেশের যুব সমাজ এটির প্রতি আসক্ত হয়ে আক্রান্ত হচ্ছে। উপজেলায় মাদকদ্রব্যের সাথে জড়িতদের ব্যাপারে শাস্তির ক্ষেত্রে কঠোরতা অবলম্বন করা হচ্ছে। গত পাঁচ মাসে লোহাগাড়ায় অর্ধ শতাধিক ইয়াবাসেবককে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেয়া হয়েছে। পুলিশসহ সংশ্লিষ্টদেরকে মাদকদ্রব্যের ব্যাপারে কঠোর হওয়ার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান। -ইত্তেফাক

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে বন্দুকযুদ্ধে মাদকসম্রাট নিহত 

332

চট্টগ্রাম, ২০ অক্টোবর : চট্টগ্রামের সদরঘাট থানার আইস ফ্যাক্টরি রোড এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তার নাম মোহাম্মদ ফারুক। নিহত ব্যক্তি মাদকসম্রাট ছিলেন বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

বাইট্যা ফারুক ওরফে বস ফারুক নামে পরিচিত এই ব্যক্তির বিরুদ্ধে ১৮টি মামলা থাকার কথা জানিয়েছে র‍্যাব।

এ সময় ফারুকের কাছ থেকে দুই লাখ ইয়াবা, বিপুল ফেনসিডিল, বিদেশি দুটি পিস্তল ও একটি ওয়ান শুটার গান উদ্ধারের দাবি করেছে র‍্যাব।

শুক্রবার সকালে র‍্যাব ৭ চট্টগ্রামের সহকারী পরিচালক মিমতানুর রহমান বলেন, মাদকসম্রাট ফারুককে (৪২) ধরতে র‍্যাব অভিযান চালায়। এ সময় ফারুক র‍্যাবকে উদ্দেশ করে গুলি ছোড়ে। র‍্যাবও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির মধ্যে পড়ে ফারুক নিহত হন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সীতাকুণ্ডে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ২ 

6344

ঢাকা, ২০ অক্টোবর : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের বাড়বকুণ্ডে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে দুজন নিহত ও আহত হয়েছেন আরও ১২ জন। নিহতরা হলেন কামরুজ্জামান মল্লিক(৩৭) ও মো. মাসুদ (৩৫)। তাদের বাড়ি শরীয়তপুরের জাজিরায়। বাসটির বেশির ভাগ যাত্রী তবলিগ জামাতের বলে জানিয়েছে হাইওয়ে পুলিশ।

শুক্রবার ভোররাত সোয়া তিনটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা ওয়াসি আজাদ বলেন, সৌদিয়া পরিবহনের বাসটি ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের দিকে যাচ্ছিল। বাসটি সীতাকুণ্ডের বাড়বকুণ্ড বিদ্যুৎ বিতরণের কেন্দ্রের সামনে আসার পর সামনে থাকা একটি ট্রাককে ধাক্কা দেয়। আবার বাসটিকে পেছন থেকে আরেকটি ট্রাক ধাক্কা দেয়। এতে গুরুতর আহত অবস্থায় তিনজনসহ আটজন যাত্রীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক অলিউর রহমান দুজন নিহত হওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত করেছেন।

কুমিরা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী ট্রাফিক উপপরিদর্শক(এটিএসআই) জামশেদ আলম বলেন, বাসটিতে বেশির ভাগ যাত্রীই তবলিগ জামাতের ছিলেন। এ ঘটনায় আহত ১২ জনের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। দুর্ঘটনা কবলিত গাড়ি দুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

এইডস আক্রান্ত ২ রোহিঙ্গা নারী চট্টগ্রাম মেডিকেলে 

8221

চট্টগ্রাম, ২৫ সেপ্টেম্বর : মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা এইডস আক্রান্ত দুই রোহিঙ্গা নারী চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চামেক) হাসপাতালে এসেছেন। তাদের কক্সবাজারের উখিয়ার শরণার্থী শিবির থেকে গতকাল রোববার রাতে চমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই আলাউদ্দিন তালুকদার জানান, এইচআইভি ভাইরাস আক্রান্ত  একজনের বয়স ৫০ বছর, অন্যজনের ৬০ বছর।

এইডস আক্রান্ত দুই নারীর সঙ্গে সাপের কামড় খাওয়া এক বৃদ্ধকেও কুতুপালং শরণার্থী শিবির থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

গত ২৫ অগাস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে পুলিশ পোস্ট ও সেনা ক্যাম্পে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের হামলার পর থেকে সীমান্তে নতুন করে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের ঢল নামে। শরণার্থীর সংখ্যা এরই মধ্যে ৪ লাখ ছাড়িয়েছে।

পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বেশির ভাগের ছিল গুলি ও বোমার জখম। তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে তাদের কক্সবাজারে শরণার্থী শিবিরে ফেরত পাঠানো হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রোহিঙ্গাদের জন্য ত্রাণ নিয়ে মালয়েশীয় বিমান চট্টগ্রামে 

885

চট্টগ্রাম, ১০ সেপ্টেম্বর : বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া দুর্দশাগ্রস্ত রোহিঙ্গাদের জন্য ১২ টন ত্রাণ সহায়তা নিয়ে একটি মালয়েশীয় কার্গো বিমান চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে পৌঁছেছে।

শনিবার রাতে এ-৪০০ অস নামের কার্গো বিমানটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে পৌঁছলে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে ত্রাণ সামগ্রী গ্রহণ করতে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী বিমানবন্দরে উপস্থিত হন।

শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের ম্যানেজার উইং কমান্ডার রিয়াজ উদ্দিন মালয়েশীয় ত্রাণ সহায়তা নিয়ে কার্গো বিমান চট্টগ্রামে পৌঁছানোর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বিমানটিতে বিভিন্ন ধরনের ১২ টন ত্রাণ সামগ্রী রয়েছে। ত্রাণ সমূহের মধ্যে রয়েছে গুঁড়ো দুধ, খেজুর, চাল, বিস্কুট, কাপড়, বিশুদ্ধ পানি ও সাবান।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেন, মালয়েশিয়া থেকে আসা খাদ্যসহ ১৪ রকমের ত্রাণ সামগ্রী আমরা বুঝে পেয়েছি। কাস্টমস প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর এই ত্রাণ আজ রোববার কক্সবাজারের জেলা প্রশাসকের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। এরপর কক্সবাজার জেলা প্রশাসন এসব ত্রাণ সামগ্রী বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিতরণ করবেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩ 

085

চট্টগ্রাম, ১ সেপ্টেম্বর : চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ৩ জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন আরো অন্তত ৮ জন।

শুক্রবার সকালে উপজেলার নয়াখালের মুখ এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন- মো. আজিজুল ইসলাম (৪০) এবং গিয়াস উদ্দিন (৪০) ও তার স্ত্রী। গিয়াসের স্ত্রীর নাম পুলিশ জানাতে পারেনি।

হাইওয়ে পুলিশের দোহাজারি থানার পরিদর্শক মিজানুর রহমান জানান, চট্টগ্রাম থেকে যাত্রী নিয়ে বাসটি সাতকানিয়া যাচ্ছিল। পথে মৌলভীর দোকান এলাকা পার হয়ে নয়া খালের মুখ এলাকায় চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি রাস্তার পাশে একটি গাছের সঙ্গে সজোরে ধাক্কা খায়। এতে ঘটনাস্থলেই ৩ জন নিহত হন। পরে আহত অবস্থায় ৮ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয় বলে পরিদর্শক মিজানুর জানান।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে অস্ত্র ও মাদকসহ দুই ছিনতাইকারী আটক 

65

চট্টগ্রাম, ২৯ আগস্ট : চট্টগ্রামে অস্ত্র ও ইয়াবাসহ দুই ছিনতাইকারীকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত ছিনতাইকারীরা হলো জয়নাল আবেদিন টিপু (৩২) ও আসিফ মাহমুদ (১৮)।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত ১২টার দিকে নগরীর পাঠানটুলী এলাকা থেকে তাদের আটক করে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরি এলজি ও এক রাউন্ড কার্তুজ এবং ২টি ছোরা উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া তাদের কাছ থেকে ৩৬০ পিস ইয়াবাও উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ডবলমুরিং থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কায়সার হামিদ বলেন, টিপু পেশাদার ছিনতাইকারী। তার বিরুদ্ধে ৩টি মামলা আছে। আসিফ তার সহযোগী। টিপু ও আসিফের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে দুইটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী নিহত 

55

চট্টগ্রাম, ১৮ আগস্ট : চট্টগ্রামের আকবর শাহ এলাকায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেলের ৩ আরোহী নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর আকবর শাহ থানাধীন ইস্পাহানি রেলগেট এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- কামরুল ইসলাম (২৭), মো. নিজাম (৩২) ও মো. রেজাউল (৩০)।

আকবর শাহ থানার ওসি মো. আলমগীর জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর ইস্পাহানি রেলগেট এলাকায় একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তিন আরোহী মারা যান।

পরে পুলিশ ধাওয়া করে ট্রাকটি জব্দ এবং ট্রাকচালক ও হেলপারকে আটক করে।

ময়নাতদন্তের জন্য নিহতদের লাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ঝড়ে স্থাপনার নিচে পড়ে ব্যাংক কর্মকর্তা নিহত 

11

চট্টগ্রাম, ১১ আগস্ট : চট্টগ্রাম নগরের ফিশারি ঘাট এলাকায় হঠাৎ ঝোড়ো বাতাসে টিনের চালসহ কয়েকটি স্থাপনা উড়ে গেছে। স্থাপনার নিচে চাপা পড়ে রাসেল দে নামের এক ব্যাংক কর্মকর্তা মারা গেছেন। তার আনুমানিক বয়স ৩০ বছর। এ সময় সৈয়দ আলম ও আবদুল খালেক নামের দুজন আহত হন।

আজ শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন বলছেন, এটা টর্নেডো হতে পারে। এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিকভাবে আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। হতাহত ব্যক্তিরা ওই এলাকা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। নিহত রাসেল পটিয়া উপজেলার রণজিৎ দের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা ১১টার দিকে হঠাৎ ঝোড়ো বাতাসে বিভিন্ন স্থাপনা ২০০ গজ দূরে উড়িয়ে নিয়ে যায়। নগর পুলিশের কোতোয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, এক মিনিটের মতো স্থায়ী একটি ঝোড়ো বাতাসে টিনের চালসহ বিভিন্ন স্থাপনা উড়ে যায়। এ সময় রাসেল দেসহ তিনজন আহত হন। তাদের হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক রাসেল দেকে মৃত ঘোষণা করেন। -প্রথম আলো।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ভারী বর্ষণে হাটহাজারীর নিম্নাঞ্চল প্লাবিত 

1542

চট্টগ্রাম, ২৪ জুলাই : গত তিন দিনে টানা বর্ষণ ও পাহাড়ী ঢলের তীব্র স্রোতে হাটহাজারীর বিভিন্ন এলাকার নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। শতাধিক পুকুরের চাষ করা মাছ পানির সাথে ভেসে গেছে। ডুবে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে ফসলী জমির বীজ তলা ও নতুন রোপা ধান। পানি বন্দী হয়ে ভোগান্তিতে আছে গ্রামানঞ্চলের কয়েক হাজার পরিবার।

যাতায়াত সড়ক পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় নিত্য প্রয়োজনে হাটবাজারে আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। স্রোতের টানে রাস্তাঘাট ভেঙ্গে যাওয়ায় জনচলাচলের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। পাহাড়ী ঢলের তীব্র স্রোতে নিম্মাঞ্চল এলাকার মানুষের সাথে সদরের সড়ক মহা সড়কের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে পানি বন্ধি পরিবারগুলো। কিছু কিছু স্থানে নৌকা দিয়ে যাতায়াত করতে দেখা গেছে। প্রবল বর্ষণে মহা সড়কের বিভিন্ন দিক দিয়ে পানি স্রোত বেঁয়ে যেতে দেখা গেছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায় ও স্থানীয় বাসিন্ধারা জানান, উপজেলার ফরহাদাবাদ,ধলই, গুমান মর্দন, ছিপাতলী, লাঙলমোড়া, গড়দুয়ারা, মেখল ,উত্তর মাদার্শা, দক্ষিণ মাদার্শা, বুড়িশ্চর , চিকনদন্ডী, ফতেপুর ইউনিয়নের সিংহ ভাগ এলাকা এবং হাটহাজারী পৌর এলাকা মির্জপুর ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পৌরসভাসহ পনের ইউনিয়রে শতশত পুকুরে চাষ করা মাছ পানিতে ভেসে গেছে।

এদিকে পাহাড়ী ঢলের চাপ প্রয়োগে খালের পাড় ভেঙে বিভিন্ন এলাকার আমন ধানের বীজতলা ও রূপণ করা জমি সহ ফসলের ক্ষেত তলিয়ে গেছে পানির নিচে । যার ফলে কৃষক পরিবারগুলো হতাশ হয়ে পড়েছে । ক্ষেতে খামারে মুরগির ও মাছের অনেক খামার পানিতে ভেসে গেছে।

এদিকে দুই দিনের টানা বৃষ্টিতে নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায় এসব এলাকার স্কুল মাদরাসার ছাত্রছাত্রীরা বিদ্যালয়ে যেতে পারছেনা।

উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের জন প্রতিনিধি ও ভুক্তভোগিরা জানান, প্রবল বর্ষণে হাটহাজারীর নিম্মাঞ্চল প্লাবিত হওয়ায়,কয়েক হাজার পরিবার পানি বন্ধি রয়েছে। পাহাড়ী ঢলের তীব্র স্রোতে খালের পাড় ভেঙ্গে ফসলি জমির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। প্রবল স্রোতের টানে হালদার ভাঙন বৃদ্ধি পেয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

নাফ নদীতে নৌকাডুবি, নিখোঁজ ২ জেলে 

81

কক্সবাজার, ২৩ জুলাই : ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়ে কক্সবাজারের টেকনাফে নাফ নদীতে তিন মাঝিমাল্লাসহ একটি মাছধরার নৌকা ডুবে গেছে। এ ঘটনায় দুই জেলে এখনও নিখোঁজ রয়েছে এবং মুমূর্ষু অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করেছেন কোস্টগার্ড সদস্যরা।

রবিবার সকালে শাহপরীর দ্বীপ সংলগ্ন নাফ নদীতে এ ঘটনা ঘটে।

উদ্ধার হওয়া জেলে মোহাম্মদ আয়ুব (৩০) শাহপরীর দ্বীপ মাঝার পাড়ার মোহাম্মদ ইসলামের ছেলে। নিখোঁজ জেলেরা হলেন—একই এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে মোহাম্মদ রফিক (২১) ও তার ভাই মোহাম্মদ ওসমান (২২)।

এ প্রসঙ্গে কোস্টগার্ড চট্টগ্রাম জোনের কর্মকর্তা লে. কমান্ডার মোহাম্মদ মেহেদী এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘নৌকাডুবিরর ঘটনা শুনে নাফ নদীতে তল্লাশি চালিয়ে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে মুমূর্ষু অবস্থায় এক জেলেকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তিনি এখন সুস্থ রয়েছেন এবং নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

তবে নদী উত্তাল থাকায় উদ্ধারকাজে বেগ পেতে হচ্ছে বলে জানান তিনি।

ফেরত আসা জেলে ও ওই নৌকার মালিক নুরুল আমিনের ভাষ্য, শনিবার সন্ধায় প্রতিদিনের মতো মাছধরার নৌকা নিয়ে ওই তিন মাঝিমাল্লার শাহপরীর দ্বীপ থেকে আনুমানিক ১২ কিলোমিটার দূরে নাফ নদীতে মাছ ধরতে যায়। রোববার সকাল ৬টার দিকে হঠাৎ নৌকাটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ে। এসময় ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়ে ঢেউয়ের তোড়ে নৌকাটি ডুবে যায়। খবর পেয়ে শাহপরীর দ্বীপ কোস্টগার্ড স্টেশনের কর্মকর্তা মো. কবিরের নেতৃত্বে একটি দল দ্বীপের গুলারচর এলাকায় তল্লাশি চালিয়ে মুমূর্ষু অবস্থায় মোহাম্মদ আয়ুবকে উদ্ধার করে। তাকে চিকিৎসার পর বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে এখনও দুই জেলে নিখোঁজ রয়েছে।

এ বিষয়ে টেকনাফ-২ বিজিবির উপ-অধিনায়ক মেজর শরীফুল ইসলাম জোমাদ্দার এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘নাফ নদীতে নৌকাডুবির ঘটনা শুনেছি। বিজিবি নিখোঁজদের উদ্ধারকাজে সহযোগিতা করছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘নাফ নদীতে মাছধরা বন্ধের ব্যাপারে লিখিত কোন চিঠি পাইনি। তবে জেলেদের রাতে মাছ ধরতে দেয়া হবে না বলে ইউএনওর কাছে থেকে শুনেছি।’ -সমকাল

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে আবার পাহাড়ধস, ৫ জন নিহত 

15

চট্টগ্রাম, ২১ জুলাই : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলায় আবার পাহাড়ধসে নারী-শিশুসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

আজ শুক্রবার ভোরে উপজেলার জঙ্গল ছলিমপুরে এ পাহাড়ধসের ঘটনা ঘটে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজমুল ইসলাম ভুঁইয়া।

ইউএনও জানান, জঙ্গল ছলিমপুর এলাকাটি দুর্গম। টানা বৃষ্টির কারণে ভোররাতে সেখানে পাহাড়ধসে একটি বাড়ি ওপর পড়ে। বাড়িতে পাঁচজন ছিলেন। তাঁরা একই পরিবারের সদস্য বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরো দুজন।

নিহতরা হলেন রাবেয়া, তাঁর মেয়ে সামিয়া ও লামিয়া, বিবি ফাতেমা ও ইউনুছ।

মূলত ছিন্নমূল ও দরিদ্র পরিবারের লোকজনই এখানে ঘর বানিয়ে বসবাস করতেন। বাসিন্দারা সেখানকার এলাকাগুলোকে ‘সমাজ’ নামে অভিহিত করে থাকে। তিন নম্বর সমাজে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। সম্ভবত ঘুমের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

সাগরে নিম্নচাপের কারণে গত বুধবার থেকেই টানা বৃষ্টি হচ্ছে।

এর আগে মধ্য জুনে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া, চন্দনাইশসহ কয়েকটি উপজেলায় প্রবল বর্ষণে পাহাড়ধস ও ঢলে নিহত ৩৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর রাঙ্গুনিয়ায় ৫৮০টি পরিবার, চন্দনাইশে ৫০ পরিবারকে ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড় ও এর আশপাশ থেকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চট্টগ্রামে ভারতীয় শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার 

01

চট্টগ্রাম, ১৫ জুলাই : চট্টগ্রামে বেসরকারি ইউএসটিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ভারতীয় শিক্ষার্থীর রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তার আরেক স্বদেশি সহপাঠীকে।

শুক্রবার মধ্যরাতে আসিফ শেঠ (২৬) এবং আহত উইলসন (২৬) দুজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা আসিফকে মৃত ঘোষণা করেন।

মেডিক্যাল পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক মোহাম্মদ হামিদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তারা দুজনই ইউএসটিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলে পুলিশ জানিয়েছে।

নিহত আসিফ শেঠ এবং আহত উইলসন নগরীর আকবর শাহ থানার আব্দুল হামিদ সড়কের একটি বাসায় এক কক্ষে থাকতেন।

আসিফের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে বলে জানান তিনি।

হামিদ আরো জানান, ইউএসটিসির আরেক ভারতীয় ছাত্র নিরাজ গুরু রাত সোয়া ১টার দিকে ওই দুজনকে হাসপাতালে আনেন। নিরাজ তার স্ত্রীকে নিয়ে ওই ফ্ল্যাটে আসিফ ও উইলসনের পাশের কক্ষে থাকেন।

“নিরাজ বলেছে, আসিফ ও উইলসন রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাদের কক্ষে মদ্যপান করছিল। ১২টার দিকে ওই কক্ষ থেকে শব্দ পেয়ে তিনি কক্ষটি খোলার চেষ্টা করেন। কিন্তু কক্ষটি ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। এক পর্যায়ে তিনি বিকল্প চাবি দিয়ে দরজা খুলে ভেতরে ঢুকে উইলসনকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। তখন তিনি স্ত্রীকে নিয়ে উইলসনকে নিচে নামান। এ সময় আসিফকে মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন।”

পরে প্রতিবেশীদের সহায়তায় দুজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে আনেন বলে নিরাজ জানিয়েছেন।

আকবর শাহ থানার এসআই জসিমউদ্দিন জানান, ওই বাসায় যে চারজন থাকতেন তারা সবাই ভারতের মণিপুরের বাসিন্দা। কীভাবে এ হত্যাকাণ্ড ঘটল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে এসআই জসিম জানিয়েছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সীতাকুণ্ডে অজ্ঞাত রোগ : মৃত শুকরের মাংস থেকে সংক্রমনের আশংকা 

35858

চট্টগ্রাম, ১৪ জুলাই : সীতাকুণ্ডে বার আওলিয়া ত্রিপুরা পাড়ায় অজ্ঞাত রোগে গত চার দিনে ৯ শিশুর মৃত্যুর পর আরো ছয় শিশু আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে চার শিশুর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বুধবার রাতে আক্রান্ত হওয়ার পর তাদেরকে বৃহস্পতিবার সকালে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পরিত্যক্ত মৃত শুকুরের মাংস খাওয়া থেকে এ সংক্রামন ঘটে থাকতে পারে বলে আশংকা করছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল করিম রাশেদ। মাত্র চার দিনের ব্যবধানে নয় শিশুর মৃত্যু ও বিয়াল্লিশ শিশু হাসপাতালে ভর্তির ঘটনায় ত্রিপুরা পাড়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ঘরে ঘরে চলছে শোকের মাতম। প্রশাসন ত্রিপুরা পাড়ার পার্শ্ববর্তী তিনটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কপপ্লেক্সের সকল চিকিৎসকের ছুটিও বাতিল করেছেন।

ঘটনাস্থলে কর্মরত উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ নুরুর করিম সাংবাদিকদের জানান, আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারি, ত্রিপুরা পাড়ার অধিবাসীরা কিছুদিন আগে পরিত্যাক্ত এক মৃত শুকরের মাংস খেয়েছিল। হয়তো বা ঐ মাংস থেকেই এ সংক্রামন এবং অপুষ্টিহীনতার কারণে ঘটনাটি ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

তিনি আরো জানান, বুধবার রাতে আরো ছয় শিশু এ অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্ত শিশুদের মধ্যে পাঁচ জনের নাম পওয়া গেছে। তারা হলো, পারুল ত্রিপুরা(৪), গোপাল ত্রিপুরা (৫), সুমন ত্রিপুরা (৬), তপন বাবু ত্রিপুরা (১০) ও রুমি ত্রিপুরা (৬)। তাদেরকে উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, অজ্ঞাত এ রোগ নির্নয় করতে ঢাকা থেকে আগত রোগতত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রন, ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর এর চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের পাঁচ সদস্যের একটি দল ডাঃ ফারুক আহমেদ ভূঁইয়ার নেতৃত্বে সীতাকুণ্ডে এসেছেন। তারা গতকাল সকালে উপজেলার ফৌজদারহাটে অবস্থিত বিআইটিআইডি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুদের নিয়ে কাজ শুরু করেছেন।

এদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, ত্রিপুরা পাড়ার পার্শ্ববর্তী তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ওইপ্রতিষ্ঠান গুলোর সকল পরীক্ষা পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সীতাকুণ্ড সোনাইছড়ি ইউনিয়নের পাহাড়ের পাদদেশে ত্রিপুরা পাড়ায় ৪ দিনে ৯ শিশুর মৃত্যুরপর গতকাল আরো ৬ জনকে হাসপাতালে ভর্তি সহ এ পর্যন্ত মোট ৪২ জন শিশু চমেক ও ফৌজাদারহাট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক মহা পরিচালক অধ্যাপক এমএ ফয়েজ সাংবাদিকদের জানান, চার শিশু আশংকাজনক অবস্থায় আছে। একজন পিআইসিউইতে আছে। আরেকজন ওয়ার্ডে আছে। ঢাকা থেকে পরিক্ষার ফলাফল এলে সার্বিক তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে কি সক্রামণ হয়েছে তা জানা যাবে। -নয়া দিগন্ত

Share This:

এই পেইজের আরও খবর