২৪ এপ্রিল ২০১৭
ভোর ৫:৩৫, সোমবার

বেরোবির প্রশাসনিক ভবনে তালা : তদন্ত কমিটি গঠন

বেরোবির প্রশাসনিক ভবনে তালা : তদন্ত কমিটি গঠন 

0000

ইসমাঈল রিফাত, বেরোবি, ২০ এপ্রিল : বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী দিপু রায়কে উত্যক্তের অভিযোগে আটকিয়ে রাখা এবং তাঁর বাবার আকষ্মিক মৃত্যুর জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর (চলতি দায়িত্ব) মীর তামান্না ছিদ্দিকাকে দায়ী করে তার অপসারণসহ বিচারের দাবিতে চলমান আন্দোলনের সপ্তম দিনে বিক্ষোভ মিছিল শেষে প্রশাসনিক ভবনে তালা লাগিয়েছে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে নয়টার দিকে বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে বিক্ষোভ শেষে প্রশাসনিক ভবনে তালা লাগিয়ে দিলে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে কর্মকর্তারা। প্রশাসনিক কার্যক্রমে নেমে আসে স্থবিরতা। পরে সহকারী প্রক্টর ড. শফিক আশরাফের আশ্বাসে বেলা ১১ টার দিকে তালা খুলে দেয় শিক্ষার্থীরা।

এদিকে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমুল হককে আহবায়ক ও ড. শফিক আশরাফকে সদস্য সচিব করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটিকে অল্প সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ইবরাহইীম কবীর।

তবে গঠিত তদন্ত কমিটির মাধ্যমে সুষ্ঠু তদন্ত সম্ভব নয় বলে অভিযোগ তুলেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা জানান, তদন্ত কমিটিতে যাদের রাখা হয়েছে তাদের দুজন প্রক্টরের কাছের মানুষ ও একজন অতীতে বিভিন্ন সময়ে বিতর্কিত হয়েছেন। তাদের মাধ্যমে ন্যায়বিচার সম্ভব নয়।

তবে গঠিত তদন্ত কমিটির মাধ্যমে সুষ্ঠু তদন্ত করা সম্ভব বলে জানান কমিটির সদস্য সচিব ড. শফিক আশরাফ। তিনি বলেন, ইতোমধ্যেই তদন্ত কমিটি তার কাজ শুরু করেছে। অল্প সময়ের মধ্যে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। তদন্ত কাজে পক্ষপাতের কোন সুযোগ নেই।

উল্লেখ্য, গত ১৪ এপ্রিল ২০১৭ নববর্ষের মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষ করার পর বেলা ১১টার দিকে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী দীপু রায় কয়েকজন বন্ধুসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নং গেট দিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর (চলতি দায়িত্ব) মীর তামান্না ছিদ্দিকা তাঁর সাথে অসদাচরণের অভিযোগ করে পুলিশের কাছে তুলে দেন। পুলিশ ফাঁড়িতে নেওয়ার পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদে সে অসদাচরণের কথা অস্বীকার করলে প্রক্টর দীপুকে বিভিন্ন সময়ের ভাংচুরসহ অন্যান্য মামলায় জড়িয়ে দেওয়ার জন্য পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জকে নির্দেশ দেন। অভিযোগ উঠে প্রক্টরের এ ধরণের নির্দেশনার খবর শুনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান দীপুর বাবা অনীল রায়। এসময় সেখানে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধানসহ অন্যান্য শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বর্ণিল আয়োজনে নববর্ষকে বরণ করে নিল বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় 

2

ইসমাইল রিফাত, বেরোবি, ১৪ এপ্রিল : উৎসব মুখর পরিবেশ বর্ণিল আয়োজনে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে (বেরোবি) পালিত হল বাঙালির ঐতিহ্য পহেলা বৈশাখ।
বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা প্রাণের স্বাদে উদযাপন করলো প্রাণময় পহেলা বৈশাখ। বৈশাখকে বরণ করতে চারিদিকে একই রব সঞ্চিত হয়েছে । বাঙ্গালীদের নিজস্ব স্বকীয়তার প্রতিচ্ছবি ঘটে এই বরর্ষবরণের মাধ্যমে।

এরই ধারাবাহিকতায়  বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে দিয়ে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে উদযাপিত হল ১লা বৈশাখ-১৪২৪ বঙ্গাব্দ । আর এই দিনটিকে উদযাপনের জন্য প্রাণের উৎসবে মেতেছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার সকাল থেকে শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা কর্মচারীরা বাংলা নবর্বষকে স্বাগত জানাতে লাল-হলুদের বাহারি পোশাক পরে বাহিরে বেড়িয়ে পড়েন।সারা ক্যাম্পাস জুয়ে যেন উৎসবের ঢল নেমেছে।

শুক্রবার সকাল ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে বর্ণাঢ্য মঙ্গলশোভাযাত্রাটি বের হয়ে নগরীর লালবাগ ঘুরে আবার ক্যাম্পাসে গিয়ে শেষ হয়।। বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল বিভাগের সকল শিক্ষক শিক্ষার্থী, কর্মকতা কর্মচারী, বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় অংশ গ্রহণ করে। শোভাযাত্রা শেষে বৈশাখী আলোচনা অনুষ্ঠিত হয় । আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড.এ কে এম নূর-উন-নবী ।

বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমুল হকের  সভাপতিত্বে এবং একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের শিক্ষক উমর ফারুকের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় স্বাগতিক বক্তব্য দেন, ১লা বৈশাখ উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব আপেল মাহমুদ।

এছাড়া আরো বক্তব্য দেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. তুহিন ওয়াদুদ, বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ডিন ফেরদৌস রহমান, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ড.তাজুল ইসলাম , বিশিষ্ট সমাজকর্মী মিসেস গুলনাহার নবী,।

এরপর বিকেল তিনটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বেরোবি শিক্ষার্থীদের প্রস্তাবনায় জাতীয় বাজেট 

ইসমাইল রিফাত, বেরোবি, ১৩ এপ্রিল : বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী বলেছেন ‘বাজেট উচ্চাভিলাষী হতে হবে। কারণ বাজেট উচ্চাভিলাষী না হলে নির্ধারিত লক্ষ্যকে কখনোই অতিক্রম করা যাবে না। বাজেট সুশৃঙ্খল হতে হবে। বাজেট প্রনয়নের সাথে সাথে এর বাস্তবায়নও সুশৃঙ্খল হতে হবে।’

বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের উদ্যোগে কবি হেয়াত মামুদ ভবনের ৩য় তলার গ্যালারী রুমে ‘জাতীয় বাজেট ২০১৭-২০১৮: শিক্ষার্থীদের প্রস্তাবনা’ শীর্ষক প্রাক বাজেট সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

উপাচার্য আরো বলেন ‘দেশের ইকোনোমি ডিসিপ্লিন আনতে হলে সারাদেশে আউটসোসিং বাড়াতে হবে বিশেষ করে রংপুর অঞ্চলে আউটসোর্সিং ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে হবে।’

অর্থনীতি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মোরশেদ হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশ গ্রহন করেন।

আলোচনায় অংশ নিয়ে ক্ষুদে অর্থনীতিবিদরা (শিক্ষার্থী) রংপুর উন্নয়নের জন্য প্রস্তাব উপস্থাপন করে বলেন, আঞ্চলিক বৈষম্য দুর করে রংপুরকে বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল ঘোষণা করতে হবে। এই অঞ্চলের জন্য বিশেষ বরাদ্দ দিতে হবে। গ্যাস সরবরাহ করতে হবে। সড়ক ব্যবস্থার উন্নয়ন করতে হবে। ইন্ডাস্ট্রিয়াল জোন বা ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক ঘোষণা করে শিল্পায়ন করতে হবে। একই সাথে সল্প সুধে ঋণ দিয়ে উদ্যোক্তা সৃষ্টিতে উদ্যোগ নিতে হবে। উত্তরাঞ্চলের স্থলবন্দরগুলো পূর্ণাঙ্গভাবে চালু করতে হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

“ছাত্রলীগ আমাকে সাহস যোগায়, অনুপ্রেরণা যোগায়”-বেরোবিতে এমপি নানক 

2

ইসমাইল রিফাত, বেরোবি, ৪ এপ্রিল : “ছাত্রলীগ আমাকে সাহস যোগায়, অনুপ্রেরণা যোগায়। ছাত্রলীগের কারনে আজ আমার এই পরিচিতি । ছাত্রলীগের ইতিহাস বাঙ্গালীর ইতিহাস ।” বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ছাত্রলীগ বেরোবি শাখার সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এসব কথা বলেন।

সম্মেলনের পর নতুন কমিটিতে যারা আসবেন তাদের উদ্দেশে তিনি  বলেন, বেগম রোকেয়া বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগকে এই বিশ^বিদ্যারয়ের সকল ছাত্রছাত্রীদের অধিকার নিয়ে কথা বলতে হবে। তাদের কাজ শুধুমাত্র ছাত্রলীগ কেন্দ্রীক না হয়ে সার্বজনিন করার জন্য পরামর্শ দেন তিনি।

মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ১ নম্বর মাঠে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই জাতীয় সংগীত পরিবেশনের সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় পতাকা ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর দলীয় সংগীতের সঙ্গে পায়রা উড়িয়ে ছাত্রলীগের সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি ও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ এবং সাধারন সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন। তারপর সকল বীর শহীদদের স্মরনে ১মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

উদ্বোধনী বক্তৃতায় সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের অত্যান্ত মেধাবী একটি ইউনিট। নবীন দায়িত্বে যারা আসবেন তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, এই বিশ্ববিদ্যালয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি গুরুত্বপূর্ন বিশ্ববিদ্যালয়। এর সম্মান ধরে রাখার দায়ীত্ব আপনাদের। সাবেকদের সাথে পরামর্শ ও তাদেরকে মূল্যায়ন করে নতুন নেতৃত্ব চালিয়ে যাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

জঙ্গীবাদের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, “ইতিমধ্যে আমরা জঙ্গীবাদ প্রতিরোধে ৪দিনের কর্মসূচি করেছি  যতদিন এই জঙ্গীবাদ এবং মাদকের উত্খাত না হবে ততদিন ছাত্রলীগ মাঠে থাকবে বলেও জানান তিনি।

প্রধান বক্তার বক্তব্যে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন বলেন, ছাত্রলীগের মধ্যে প্রতিযোগীতা থাকবে কিন্তু প্রতিহিংসা নয়। সাধারন শিক্ষার্থীদের  ছাত্রলীগের পতাকা তলে আনতে এবং তরুন প্রজন্ম যারা জঙ্গীবাদের সাথে লিপ্ত হচ্ছে তাদের কাছে ছাত্রলীগের ঐতিহ্য তুলে ধরতে হবে বলেন তিনি।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামীলেগের কোষাদক্ষ এইচএন আশিকুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুন্সি, মমতাজ উদ্দীন আহমেদ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রংপুর জেলা আওয়ামীলীগ, এডভোকেট রেজাউল করিম রাজু সাধারন সম্পাদক রংপুর জেলা আওয়ামীলীগ, সভাপতি সফিউর রহমান সাফি ও সাধারন সম্পাদক বাবু তুষার কান্তি মন্ডল রংপুর মহানগর আওয়ামীলিগ।

বিশেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সহসভাপতি কামাল মোহাম্মদ নাসের রুবেল, ত্রান ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক ইয়াজ আল রিয়াদ, সহসম্পাদক জায়েদ বিন জলিল।

বিশ্ববিদ্যালয় শাখাছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মাহদুদ হাসানের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্বকরেন বেরোবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদি হাসান শিশির।

সবশেষে সমাপনি বক্তব্য প্রদান করেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদি হাসান শিশির এবং সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন সাধারন সম্পাদক মোস্তফা মাহমুদ হাসান।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ এবং সাধারন সম্পাদক নাজমুল হাসান সিদ্দিকী এর নেতৃত্বে ২০১৩ সালের ৩০ শে অক্টোবর মেহেদী হাসান শিশিরকে সভাপতি এবং মোস্তফা মাহমুদ হাসানকে সাধারন সম্পাদক করে  প্রথম ১০ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষনা করা হয়। এরপর ২০১৪ সালের ৬ নভেম্বর ১৭১ সদস্য বিশিষ্ট প্রথম পুর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষনা করা হয়।

নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুই বছর পর সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব পাচ্ছে ছাত্রলীগের অন্যতম এই বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

খুলে দেয়া হলো বেরোবির বন্ধ গেটটি 

00

ইসমাইল রিফাত, বেরোবি, ২৩ মার্চ : ‘বেরোবির ১নং গেট বন্ধে ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা’ সংবাদ প্রকাশের পরে তেমন কোন কারণ ছাড়াই বন্ধ করে রাখা বেগম রোকেয়া বিশ্নবিদ্যালয়ের একাডেমিক গেটটি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় খুলে দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন নিরাপত্তার দায়িত্বরত কর্মকর্তা, সহকারী রেজিস্ট্রার আমিনুর রহমান।

বিশ্ববিদ্যালয় ও স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সূত্রে জানা যায়, গত ৪ মার্চ বিশ^বিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দোকন ভাঙ্গচুর ও চাঁদাবাজীর অভিযোগে স্থানীয় পার্কের মোড়স্থ ব্যবসায়ীদের সাথে টানা ৪ ঘন্টার ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে স্থানীয়রা বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট ভাঙ্গচুর করে। সেই সংঘর্ষের সময় হতে বন্ধ করে রাখা হয়েছিল গেটটি। তবে দীর্ঘদিন পরে গেটটি খুলে দেয়ায় স্বস্তি প্রকাশ করেছে শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী আরিফুল ইসলাম বলেন,‘গেটটি খুলে দেয়ায় শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধা হয়েছে। অনেকদিনের ভোগান্তি হতে অন্তত রক্ষা পাওয়া গেল।’

নিরাপত্তার দায়িত্বরত কর্মকর্তা বলেন,‘সমস্যার কারনে বন্ধ করে রাখা গেটটি এখন খুলে দেওয়া হয়েছে।’ উল্লেখ্য, দীর্ঘ ১৮ দিন হতে গেটটি বন্ধ করে রাখায় গত বুধবার (২২ মার্চ) সংবাদটি প্রকাশিত হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রংপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের কেমিক্যাল গোডাউনে আগুন 

রংপুর, ২৩ মার্চ : রংপুর বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্রের কেমিক্যাল গোডাউনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে নগরীরর শাপলা চত্বর এলাকায় বিদ্যুৎকেন্দ্রের ট্রান্সফরমার ওয়ার্কশপে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট কাজ করে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মর্তুজা বলেন, অগ্নিকান্ডের আগে ওই গোডাউনে ৩০টির অধিক ট্রান্সফরমার ও বিপুল পরিমাণ ট্রান্সফরমার অয়েলসহ বিভিন্ন মালামাল মজুদ ছিল।

রংপুর ফায়ার স্টেশনের উপ-পরিচালক আসাদুজ্জামান খান বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বিদ্যুতের শর্ট সার্কিট থেকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

এক গেটে চলছে বেরোবি : ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা 

ইসমাইল রিফাত, বেরোবি, ২২ মার্চ : বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ছাত্রলীগ-স্থানীয় ব্যবসায়ী সংঘর্ষের ১৮ দিন পেরুলো। ছাত্রলীগ কমিটির স্থগিতাদেশও প্রত্যাহার করে নিয়েছে দলটির কেন্দ্রীয় সংগঠন। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের দ্বারা ভাঙ্গচুর হওয়া বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক গেটটি এখনো খুলে দেওয়া হচ্ছে না। শুধু বিশ্ববিদ্যালয়ের ২নং গেট খোলা রাখায় একটু ঘুরে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে হয় বলে বন্ধগেটটি টপকায়ে পারা হতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের।

বিশ্ববিদ্যালয় ও স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সূত্রে জানা যায়, গত ৪ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দোকান ভাঙ্গচুরের অভিযোগে স্থানীয় পার্কের মোড়স্থ ব্যবসায়ীদের সাথে টানা ৪ ঘন্টার ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে স্থানীয়রা বিশ্ববিদ্যালয়ের গেট ভাঙ্গচুর করে। সেই সংঘর্ষের সময় হতে বন্ধ করে রাখা গেটটি খুলে দেওয়া হয়নি এখনো।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ম ব্যাচের শিক্ষার্থী শুভ্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘অনেকদিন হলো গেটটি বন্ধ করে রাখা হয়েছে। অনেক দূর ঘুরে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে হয়। অনেক সময় লাগে ঘুরে আসতে। তেমন কোন নিরাপত্তার অজুহাতও দেখি না। দ্রুত গেটটি খুলে দেয়া দরকার।’

এদিকে এই গেটের পাশে অবস্থানরত ব্যবসায়ীরা জানান,‘গেটটি বন্ধ রাখায় শিক্ষার্থীরা এই গেট দিয়ে পারাপার হতে পারছেন না ,এতে করে আমাদের ব্যবসা হচ্ছে না। হয়ত গেটটি খুলে দেওয়া থাকলে আমাদের ব্যবসা ভালো হতো।

নিরাপত্তার দায়িত্বরত সহকারী রেজিস্ট্রার আমিনুর রহমান বলেন,‘ কর্তৃপক্ষ চেয়েছে তাই গেটটি বন্ধ রাখা হয়েছে।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলম বলেন,‘গেটটি ভাঙ্গচুর হওয়ায় বন্ধ করে রাখা হয়েছে। আমি বাইরে ছিলাম। কাজ করতেও বলেছিলাম। কিন্তু তা করেননি। তবে খুব দ্রুত গেটটি খুলে দেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে প্রক্টর (চলতি দায়িত্ব) মীর তামান্না সিদ্দিকার সাথে মুঠো ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের চারটি গেট। এর মধ্যে ১ নং (একাডেমিক) ২ নং (মুলগেট) গেট দিয়ে শিক্ষার্থীরা যাতায়াত করে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

উত্তরবঙ্গ যার ঢাকার মসনদ তার: এরশাদ 

hv5lnh3k-copy

ঢাকা, ১৮ মার্চ : জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, ‘একটি কথা আছে, ভারতের উত্তর প্রদেশ যার দিল্লির মসনদ তার। আর আমি বলি, উত্তরবঙ্গ যার ঢাকার মসনদ তার। রংপুর বিভাগের ৩২টি আসনেই আমাদের বিজয়ী হতে হবে। এ জন্য আমরা একটি মহাজোট গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করেছি। ইতিমধ্যে ৩৫টি দল আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। এর মধ্যে ছয়টি নিবন্ধিত দল রয়েছে। অনেকগুলো ইসলামী দল রয়েছে।’

আজ শনিবার বিকেলে রংপুর পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এরশাদ বলেন, ‘আমার বয়স হয়েছে অনেক। আগামী নির্বাচনই আমার শেষ নির্বাচন। এ নির্বাচনে রংপুর বিভাগের ৩২টি আসন পেলে আমরা ক্ষমতার মসনদে চলে যাব। এটাই শেষ সুযোগ। আমাদের সরকার গঠন করতেই হবে।’

এরশাদ বলেন, ‘১৯৯০ সালে আমি ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়ার পর আমাকে কারাগারে পাঠানো হলো। আমার পরিবারের ওপর নির্যাতন চালানো হলো। এরপর ’৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমরা পেলাম ৩৩টি আসন। আর জামায়াত পেল তিনটি। আমি তখন কারাগারে। বিএনপি আমার কাছে দূত পাঠাল। আমাকে বলা হলো সরকার গঠনে আমি যদি সমর্থন দিই তাহলে যা চাইব বিএনপি তাই দেবে। আমি সমর্থন দিইনি।

এ কারণে আমার প্রতি অনেক নির্যাতন করা হয়েছে। অত্যাচার করা হয়েছে। আমার স্ত্রী-সন্তানরাও নির্যাতনের শিকার হয়েছে। ’৯৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমাদের সমর্থন নিয়ে ২১ বছর পর ক্ষমতার মসনদে বসল আওয়ামী লীগ। কিন্তু কী পেলাম। আমার দলকে ভাগ করা হলো। আমার এমপিদের কিনে নেওয়া হলো। আমার ওপর অত্যাচার করা হলো। কিছুই পেলাম না।’

এরশাদ বলেন, ‘আমার লজ্জা ছিল, দুঃখ ছিল রংপুরে জেলা ও মহানগর জাতীয় পার্টির সম্মেলন করতে পারিনি। অথচ আমি দেশের ৪২টি জেলার সম্মেলন করেছি। আজ মহানগর জাতীয় পার্টির সম্মেলন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সে লজ্জা ও দুঃখ দূর হলো।’

বক্তব্যের শেষ পর্যায়ে এরশাদ মহানগর জাতীয় পার্টির নতুন কমিটির সভাপতি হিসেবে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে এস এম ইয়াসিরের নাম ঘোষণা করেন। একই সঙ্গে এরশাদ রংপুর সিটি করপোরেশনের আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী হিসেবে মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার নামও ঘোষণা করেন।

মহানগর জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফার সভাপতিত্বে সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন পার্টির মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার, সাংসদ শাহানারা বেগম, প্রেসিডিয়াম সদস্য চলচ্চিত্র অভিনেতা সোহেল রানা, মেজর (অব.) খালেদ আকতার, ভাইস চেয়ারম্যান এস এম ফখর উজ জামান জাহাঙ্গীর, ভাইস চেয়ারম্যান ও রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক মোফাজ্জল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম ইয়াসির, রংপুর জেলা জাতীয় পার্টির সদস্যসচিব ও সাবেক সাংসদ হোসেন মকবুল শাহরিয়ার প্রমুখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আজকের বাংলাদেশ হতো না : বেরোবি উপাচার্য 

ইসমাইল রিফাত, বেরোবি, ১৭ মার্চ : বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী বলেছেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে আজকের এই বাংলাদেশ হতো না। আমরা স্বাধীন হতাম না। বঙ্গবন্ধুই বাংলাদশের স্থপতি। বঙ্গবন্ধু জাতির কাছে অমর। তিনি আমাদের মাঝেই বেঁচে আছেন। তিনি যুগ যুগ ধরে চিরদিন বাঙ্গালির হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন। আজ শুক্রবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৮তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আয়োজিত আলোচনা সভা ও ভাইস-চ্যান্সেলর’স এ্যওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপাচার্য এসব কথা বলেন।

শিশুদের উদ্দেশ্যে উপাচার্য বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও দর্শন চর্চা করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে হবে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে না বলতে হবে। উদযাপন কমিটির আহবায়ক একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আপেল মাহমুদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. আবু ছালেহ মোহাম্মদ ওয়াদুদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মোঃ গোলাম রব্বানী, সমাজকর্মী মিসেস গুল নাহার নবী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব ও অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক বেলাল উদ্দিন।

সভায় বিভিন্ন বিষয়ে প্রবন্ধ লেখক হিসেবে শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থী কেটাগরিতে ‘ভাইস-চ্যান্সেলর’স এ্যওয়ার্ড’ প্রদান করা হয়। শিক্ষক কেটাগরিতে একাউন্টিং এন্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের সহকারী অধ্যাপক উমর ফারুক, ছাত্রছাত্রী কেটাগরিতে উইমেন এন্ড জেন্ডার স্টাডিজ বিভাগের ছাত্রী লাইলুন্নাহার ও কর্মচারী কেটাগরিতে পিএ কাম কম্পিউটার অপারেটর হাফিজুর রহমান এই পদক পেয়েছেন।

এছাড়া জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন স্কুলের শিশুদের অংশ গ্রহণে অনুষ্ঠিত চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ। এর আগে সকাল সাড়ে ৯ টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী এই কর্মসূচি শুরু হয়। পরে ক্যাম্পাসে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারী অংশ নেন। শোভাযাত্রা শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী। পরে ড. ওয়াজেদ রিসার্চ ইনস্টিটিউট, শিক্ষক সমিতি, অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন ও কর্মচারী ইউনিয়েনসহ বিভিন্ন আবাসিক হল ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকেও পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করা হয়। বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে কেক কাটেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ কে এম নূর-উন-নবী।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শিশুবিয়ে প্রতিরোধ বিষয়ক রংপুরে প্রেস ক্যাম্পেইন 

আব্দুর রহমান রাসেল, রংপুর, ১৬ মার্চ : জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ৯৮ তম জন্মদিবস ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার দুপুরে রংপুর প্রেসক্লাবে এক  শিশুবিয়ে প্রতিরোধ বিষয়ক প্রেস ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রংপুর প্রেসক্লাব, সিটি  প্রেসক্লাব ও ফটোর্জানালিষ্ট এ্যাসোসিয়েশনের যৌথ আয়োজনে ল্যাম্ব ও প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ পরিচালিত গার্লস এ্যাডভোকেসী এ্যালায়েন্স এর সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত প্রেস ক্যাম্পেইনে সাংবাদিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী আশরাফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় বক্তব্য রাখেন এটিন বাংলা ও এটিন নিউজ রংপুর বিভাগীয় প্রতিনিধি মাহবুবুল ইসলাম,সাংবাদিক আফতাব হোসেন,বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবি রংপুর বিভাগীয় প্রধান এ্যাডভোকেট কোহিনুর,সংস্থার কো-অর্ডিনেটর রেহেনা বেগম প্রমূখ। বক্তারা, বাল্য বিয়ে প্রতিরোধে সংবাদ কর্মীদের আরও এগিয়ে আসার আহবান জানান।  কেননা বাল্য বিয়ের দম্পত্তিরা সংসার জীবনে নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে অল্প বয়সে বয়জৈষ্ঠ হয়ে পড়ে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রংপুরে রেস্তোরা শ্রমিক ইউনিয়নের অর্ধদিবস কর্ম বিরতি পালন 

0000

আব্দুর রহমান রাসেল, রংপুর, ১৫ মার্চ : বেতন-ভাতা বৃদ্ধিসহ ৭দফা দাবী আদায়ের লক্ষ্যে বুধবার রংপুর মহানগরীতে অর্ধদিবস কর্ম বিরতির কর্মসূচী পালন করেন রংপুর জেলা রেস্তোরা শ্রমিক ইউনিয়ন। কর্মসূচী পালনকালে পুলিশের হাতে আটক ৭জন। প্রতিবাদে রংপুর কোতয়ালী থানায় রংপুরের বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠন সমূহের নেতৃবৃন্দের অবস্থান।

সকাল ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ কর্মসূচীতে প্রথমেই বাধা হয়ে দাঁড়ায় পুলিশ। রংপুর মহানগরীর অধিকাংশ খাবার হোটেল গুলোতে শ্রমিকরা যোগদান না করে তাদের ন্যায্য দাবী আদায়ের কর্মসূচী পালনের লক্ষ্যে সকাল থেকে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক ও খাবার হোটেল গুলোর সামনে অবস্থান নেন তারা। শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী চলাকালিন সকাল ৬টা ৪০মিনিটে নগরীর পায়রা চত্ত্বর থেকে সংগঠনের ৪ নেতাসহ ৭ জনকে আটক করেন রংপুর কোতয়ালী থানা পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন, রংপুর জেলা রেস্তোরা শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক মোকছেদ আলী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নির্মল চন্দ্র রায়, ক্রীড়া সম্পাদক হামিদুল ইসলাম, কার্যকরী সদস্য বাবু মিয়া, শফিকুল ইসলাম, আমজাদ হোসেন ও মোবারক আলী। এ খবর নগর জুড়ে ছড়িয়ে পড়লে রংপুরের বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতা কর্মীরা ছুটে আসেন পায়রা চত্ত্বরে। পরে তারা রংপুর পাবলিক লাইব্রেরী মাঠে গিয়ে সমবেত হন। রংপুরের অধিকাংশ শ্রমিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও হোটেল শ্রমিকরা একটি বিশাল মিছিল নিয়ে রংপুর কোতয়ালী থানায় উপস্থিত হয় সকাল ১০টায়। সেখানে তারা প্রায় ১ ঘন্টা অবস্থান করেন। পরে রংপুর কোতয়ালী থানায় আটককৃত শ্রমিক নেতাদের ছেড়ে দিলে তাদের নিয়ে পূণরায় মিছিল সহকারে পাবলিক লাইব্রেরী মাঠে ফিরে আসেন তারা। এ সময় এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

রংপুর জেলা রেস্তোরা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত ট্রেড ইউনিয়ন ঐক্য পরিষদ রংপুরের মহাসচিব ও রংপুর বিভাগীয় শহর ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহাতাব উদ্দিন কাজল, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর জেলার সম্পাদক অশোক সরকার, রংপুর জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের কার্য্যকরী সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম রাজা, সম্মিলিত ট্রেড ইউনিয়ন ঐক্য পরিষদ রংপুরের ভাইস চেয়ারম্যান ও শ্রম আইন বাস্তবায়ন যৌথ সংগ্রাম পরিষদ রংপুরের সভাপতি ও রংপুর দোকান কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি জাহেরুল ইসলাম, জাতীয় শ্রমিক পার্টি রংপুর মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক মজাহারুল ইসলাম মন্টু, রংপুর মহানগর স্বর্ণ শিল্পী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান হিরু, রংপুর ঠেলা ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক দীলিপ দাস, রংপুর দোকান কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ নাসিম, দর্জি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শফিকুল ইসলাম শফি, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন টিংকু, রংপুর জেলা রেস্তোরা  শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম, মহানগর রেস্তোরা  শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ইব্রাহিম খলিল ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা।

সভায় বক্তারা, অনতিবিলম্বে  হোটেল শ্রমিকদের নিয়োগপত্র ও ছবিসহ পরিচয়পত্র প্রদান, দৈনিক ৮ঘন্টা কর্ম নির্ধারণ, অতিরিক্ত কাজের জন্য ওভারটাইম, ঈদ ও পূজায় ছুটিসহ উৎসব ভাতা প্রদান, মালিক শ্রমিক সমন্বয়ে কল্যাণ তহবিল গঠন, বর্তমান দ্রব্যমূলের সাথে সংহতি রেখে শ্রমিকদের মজুরী বৃদ্ধি এবং মহান মে দিবসে স্ব-বেতনসহ একদিনের ছুটির দাবী সমূহ বাস্তবায়নের জন্য রংপুরের জেলা প্রশাসন ও জেলা রেস্তোরা মালিকদের প্রতি আহবান জানানো হয়। অন্যথায় পরবর্তীতে রংপুরের সকল শ্রমিক সংগঠন সমূহকে সাথে নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষনা করা হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রংপুরে জৈব সার উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণের উদ্বোধন-রসিক 

আব্দুর রহমান রাসেল, রংপুর, ৯ মার্চ : বৃহষ্পতিবার নগরীর বীরভদ্র মাহিগঞ্জ এলাকায় পরিবেশ অধিদপ্তর এর বাস্তবায়নে প্রোগ্রাম্যাটিক সিডিএম প্রকল্পের আওতায় রংপুর জৈব সার উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণের উদ্বোধন করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহম্মেদ ঝন্টু( প্রতিমন্ত্রী)।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা  আকতার হোসেন আজাদ, প্রোগ্রাম্যাটিক সিডিএম প্রকল্পের প্রকল্প  পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম তোতা, কাউন্সিলর আকরাম হোসেন, রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন, রসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী আজম আলী প্রমুখ।
উল্লেখ্য বাংলাদেশ জলবায়ু ট্রাষ্ট এর অর্থায়নে ২ কোটি ২০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর এর বাস্তবায়নে প্রোগ্রাম্যাটিক সিডিএম প্রকল্পের আওতায় রংপুর জৈব সার উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রংপুরে শিশুবিয়ে প্রতিরোধে ওমেনস্ কনফারেন্স 

আব্দুর রহমান রাসেল, রংপুর, ৯ মার্চ : রংপুরে শিশুবিয়ে প্রতিরোধে ওমেনস্ কনফারেন্স, গার্লস এ্যাডভোকেসী এ্যালায়েন্স এর সহযোগিতায় বাল্যবিবাহ মুক্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় সদর উপজেলা পরিষদ এর আয়োজনে উপজেলা হলরুমে শিশুবিয়ে প্রতিরোধে ওমেনস্ কনফারেন্স ও আলোচনা সভায় কো-অর্ডিনেটর রেহেনা বেগম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি সদর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা গোলাম ফারুক বক্তব্য তিনি বলেন, রংপুর একটি বিভাগীয় শহর ও সদর উপজেলায় পাঁচ টি ইউনিয়নকে শিশুবিয়ে প্রতিরোধ করবো এবং সদর উপজেলাকে শিশুবিয়ে মুক্ত গড়ে তুলবো ।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান রত্না বেগম, বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা আইনজীবি রংপুর বিভাগীয় প্রধান এ্যাডভোকেট কোহিনুর, বি.আর.ডি.পি মমিনুল ইসলাম, ইতি মনি, মিষ্টি খাতুন, মুক্তা প্রমুখ । এছাড়া উপস্থিত ছিলেন পাঁচ ইউনিয়নের ৮০ জন মহিলা সদস্য ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

আন্তর্জাতিক নারী দিবসে মহিলা ফোরামের র‌্যালি ও সমাবেশ 

আব্দুর রহমান রাসেল, রংপুর, ৮ মার্চ : বুধবার আন্তর্জাতিক নারী দিবস সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরাম রংপুর জেলা শাখার উদ্যোগে স্থানীয় প্রেসক্লাব চত্বর থেকে র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পায়রা চত্বরে সমাবেশে রুপ নেয়। এতে গোলাপী বেগমের সভাপতিত্বে মৌসুমী আক্তার মৌ এর পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাসদ জেলা সদস্য সচিব কমরেড মমিনুল ইসলাম, মহিলা ফোরামের সংগঠক সাহেরা বেগম, রিনা মুর্মূ,এম.এ.এইচ অংকন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বাসদ সমন্বয়ক কমরেড আব্দুল কুদ্দুস, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কারমাইকেল কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক জনক রায়, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্ট মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান প্রমূখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কাউন্সিলর তৌহিদুলের আরোগ্য কামনা করেন মেয়র ঝন্টু 

আব্দুর রহমান রাসেল, রংপুর, ৬ মার্চ : রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ২০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলামকে রবিবার দেখতে যান রংপুর সিটি কর্পোশেনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টু(প্রতিমন্ত্রী)। এ সময় সেখানে বেশ কিছু সময় অবস্থান করেন এবং তার চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন । মেয়র তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মেয়র মহোদয়ের একান্ত সচিব রাশেদুল ইসলাম, রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন, রসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী আজম আলী, মহানগর দোকান মালিক সমিতির আহবায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু প্রমুখ ।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ২০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলামকে গত শুক্রবার হার্ট অ্যাটাক এ আক্রান্ত হয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউ সিসিইউতে ভর্তি হন । এ সময় তিনি নিউ সিসিইতে হার্ট অ্যাটাক এ আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হওয়া দর্জি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি একে আজাদ মিঠু ও গুপ্তপাড়া নিবাসী ডিআইজি মিলি বিশ্বাসের মাতা সাবেরা বিশ্বাসের ও চিকিৎসার খোঁজ খবর নেন ।

এদিকে কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলামের আশু রোগ মুক্তি কামনা করে রোববার সিটি কর্পোরেশনের সম্মেলন কক্ষে মোনাজাত করা হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর