২৩ মে ২০১৭
রাত ১:২৩, মঙ্গলবার

শ্রীপুরের অদম্য ৪ জয়িতার গল্প

শ্রীপুরের অদম্য ৪ জয়িতার গল্প 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ২২ মে : উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্দ্যোগে এবং স্থানীয় ৮টি ইউনিয়ন পরিষদের সহায়তায় হার না মানা অদম্য ৫ জয়িতা নারীর সন্ধান করে। পাঁচ ক্যাটাগরীর জয়িতা খুঁজে চার ক্যাটাগরির ৪ জন জয়িতাকে নির্বাচন করে উপজেলা কমিটি। উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মৃণালিণী কর্মকার জানান, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে নতুন উদ্যোগে জীবন শুরু, অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী, সফল জননী ও সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় যে চারজন জয়িতা নির্বাচিত হয়েছে তারা হলেন- উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বরমী গ্রামের মৃত চান মিয়ার স্ত্রী তালাকপ্রাপ্তা রেজিয়া খাতুন, একই ইউনিয়নের পাঠানটেক গ্রামের বিপ্লব চন্দ্র সাহার স্ত্রী লক্ষী রাণী সাহা, তেলিহাটি ইউনিয়নের টেপিরবাড়ী গ্রামের মৃত গণেশ মিত্রের স্ত্রী চায়না রাণী মজুমদার ও একই ইউনিয়নের উদয়খালী গ্রামের মো: আলী হোসেনের স্ত্রী মোসা: কামরুন্নাহার। তবে শিক্ষা ও চাকুরির ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী জয়িতা পাওয়া যায়নি।

যে কারণে তারা জয়িতা:
নিজের আর্থিক ও সামাজিক বিপন্নতা বর্ণনা করতে গিয়ে রেজিয়া খাতুন জানান, বিয়ের কিছুদিন যাবার পর থেকে স্বামী যৌতুকের জন্য অকথ্য ভাষায় গালাগাল সহ অমানুষিক নির্যাতন করতো, অনুমতি ছাড়াই ২য় বিয়ে করে, অমানবিক অত্যাচার সইতে না পেরে গর্ভজাত ৩ সন্তানকে নিয়ে পিত্রালয়ে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। তিনি হাতের কাজ শিখে তার প্রাপ্ত আয় দিয়ে অনেক কষ্টে সন্তানদের লেখাপড়া শিখিয়েছেন। এতো কিছুর পরেও সমাজ এবং পরিবারের স্বজনদের নিকট থেকে যথাযথ সম্মান ও মুল্যায়ন পাননি। বর্তমানে তিনি বরমী ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত সদস্য। এখন সবাই তাকে সম্মান করে মর্যাদা দেয়। তার সাহসী সিদ্ধান্তের কারণে এলাকার অন্যান্য নারীরাও উজ্জিবিত।

লক্ষী রাণী সাহা জানান, দরিদ্র পরিবারে বিয়ে হওয়ায় অর্ধহারে অনাহারে থাকতে হয়েছে। এজন্য তাকে মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করতে হয়েছে। সহোদরের নিকট থেকে তিনশত টাকা নিয়ে কাপড় কিনে ফেরী করে বাড়ি বাড়ি বিক্রি করে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করে। এজন্য সমাজের ভর্ৎসনা গঞ্জনা সইতে হয়েছে। এখন তার ৫ লাখ টাকা পুঁজি হওয়ায় অনেকেই সমীহ করে কথা বলে। তিনি তার ৪টি মেয়েকে উপযুক্ত পাত্রস্থ করেছেন এবং কনিষ্ঠ কণ্যা বিএসসি পড়ে। এলাকায় তাকে এখন অনেকেই অনুকরণ করছে।

চায়না রাণী মজুমদার বলেন, স্বামীর মৃত্যুর পর তিন সন্তান নিয়ে অনাহার অর্ধহারে কেটেছে। এস এস সি পাশ হওয়ায় টিউশনি করে ও ঔষধ বিক্রি করে তিন সন্তানকে শিক্ষিত করেছেন। স্বামীর কোন জায়গা-জমি, টাকা-পয়সা ছিল না। নিত্য অভাব থাকায় কেউ আর্থিক সাহায্যও করতে চায়নি। এনজিও ব্রাক থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ছোট ব্যবসা শুরু করে। স্থানীয় গণ্যমান্য ও প্রতিবেশী স্কুলের শিক্ষকদের সহায়তায় ১ম ও ৩য় মেয়েকে বিএসসি, ২য় মেয়েকে কোয়ালিটি ডিপ্লোমা পড়াচ্ছেন। এখন সবাই তাকে গুরুত্ব দেয়।

মোসা: কামরুন্নাহারও শোনান তার জয়িতা হওয়ার কথা। তিনি বলেন, বিয়ের পর থেকেই শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামী জ্বালাতন করতো। এক সময় স্বামী অসুস্থ হলেও মনোবল দৃঢ় করে নিজের স্বপ্ন পূরণের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যান। তিনি ২০১৪ সাল থেকে বিনা টাকায় সকালে শিশুদের এবং বিকালে মহিলাদের কোরআন শিক্ষা দেন। নিজের জায়গায় একটি মাদ্রাসা স্থাপন করেছেন। এ সফলতার জন্য তাকে এলাকার গণ্যমান্যরা প্রশংসা ও কৃতজ্ঞতার চোখে দেখে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সংবাদ সম্মেলন 

জোনায়েদ আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ২০ মে : শ্রীপুরের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জমি দখল করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ২০ মে শনিবার দুপুরে মৃত মুক্তিযোদ্ধা সামসুল আলমের স্ত্রী-সন্তানরা শ্রীপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষে আনোয়ার হোসেন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, তার পিতা মুক্তিযোদ্ধা সামসুল আলম দেশ রক্ষার জন্য যুদ্ধ করেছেন কিন্তু ভূমি খেকোদের কবল থেকে নিজের জমি রক্ষা করতে গিয়ে চিন্তায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে গত চার মাস পূর্বে মারা যান।

লিখিত বক্তব্যে তার সন্তানরা জানান, গত ছয় মাস যাবৎ স্থানীয় আব্দুল হামিদ খানের পুত্র কথিত ভূমিখেকো সিপাহী খান মানিক ও হাবিবুরের পুত্র হাফিজুরের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধচক্র তাদের পিতার রেকর্ডীয় মালিকানাধীন জমি জবর দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে তিনি আদালতের স্বরনাপন্ন হলেও আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে ওই চক্রটি জমি দখলের জন্য বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে দেয়াল নির্মাণের চেষ্টা চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে তারা স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে দেড় বছরেও মেলেনি যাত্রাবিরতীর অনুমোদন 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ১৪ মে : গাজীপুরের শ্রীপুর রেলস্টেশনে গত দেড় বছর ধরে স্থানীয় লোকজনের দাবীর মুখে অননুমোদিত ভাবে আন্ত:নগর যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেন যাতায়াতে দু’মিনিট দাঁড়ালেও কর্তৃপক্ষের যাত্রাবিরতীর অনুমোদন আজও মেলেনি। এ নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য সংসদে বিল উত্থাপনসহ ডিও লেটার দিয়েছেন। শুধু তাই নয় ব্যক্তিগত ভাবে তিনি রেলমন্ত্রীর সাথে একাধিকবার দেখা করে শ্রীপুরবাসীর দাবী উত্থাপন করেছেন। এতে শুধু প্রতিশ্রুতিই পাওয়া গেছে। মেলেনি আজও সরকারীভাবে যাত্রা বিরতীর কোন অনুমোদন। যাদের উদ্যোগে ট্রেনের এ কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে তারা বিভিন্ন সময়ে রেলভবনে, মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করে শুধু আশ্বাস এবং আশ্বাসই পেয়েছেন। অননুমোদিত যাত্রা বিরতীর কারনে টিকিট না পাওয়ায় প্রতিনিয়তই যাত্রীরা হয়রানি হচ্ছেন। মাত্রাতিরিক্ত পয়সা তাদের খোয়া যাচ্ছে। শুধু তাই নয় এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দু’পয়সা কামিয়ে নিচ্ছে যমুনা ট্রেনের রেলের স্টাফ, পুলিশ, আনসার, নিরাপত্তা কর্মী ও রেলওয়ের বিভিন্ন স্টেশনের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। শ্রীপুর রেলস্টেশন থেকে গড়ে প্রতিদিন পাঁচশতাধিক যাত্রী দেশের বিভিন্ন স্থানে তথা জয়দেবপুর, ঢাকা, বিমানবন্দর, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ, জামালপুর, দেওয়ানগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থানে  যাতায়াত করে। সবচেয়ে বেশি যাত্রী হয় বৃহস্পতিবার, রবিবার ও সরকারী ছুটির দিন। একদিকে যাত্রীদের টিকিট না থাকায় সরকার গড়ে প্রতি মাসে ৫/৬ লাখ টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অন্যদিকে এর একাংশ যাত্রীদের হয়রানি করে কামিয়ে নিচ্ছে ঐ সব অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারীরা। এতে পুলিশ, আনসার, নিরাপত্তা বাহিনীও পিছিয়ে নেই।

স্থানীয়রা প্রতিদিন সকাল বিকাল আপ-ডাউনে লাল পতাকা দেখিয়ে ট্রেনটি থামায়। তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, অনুমান দুই/আড়াই বছর পূর্বে ‘নাশকতা প্রতিরোধ ও আমাদের করণীয়’ প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে শ্রীপুর রেল স্টেশনের প্লাটফর্মে একটি সভায় রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি যমুনা ট্রেনের যাত্রা বিরতীর আশ্বাস দেন। এরপর স্থানীয় এমপি এডভোকেট মো: রহমত আলী, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল জলিলসহ অনেক দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা মন্ত্রী ও মহাপরিচালকের সাথে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করলে শুধু আশ্বাসই পেয়েছেন। কিন্তু দীর্ঘদিনেও আশ্বাসের কোন প্রতিফলন না ঘটায় স্থানীয় জনতা বর্তমান সরকারের প্রতি একটু একটু করে আস্থা হারিয়ে ফেলছেন। তারা মনে করছে শুধু প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি, বাস্তবায়নের বেলায় কিছুই নয়। অভিযোগ উঠেছে, ট্রেন থামানোর কারনে বিভিন্ন ব্যক্তিদের নামে মামলার হুমকি দেয়া হচ্ছে। স্থানীয়রা আরও অভিযোগ করেন, রেলমন্ত্রীর সদিচ্ছা থাকলেও মহা পরিচালকের ব্যক্তিগত স্বার্থ ক্ষুন্ন হওয়ার আশংকায় তিনি এই মহতী কর্মকান্ডের অনুমোদন দিচ্ছেন না।

শ্রীপুর বাজার ব্যবসায়ী নিরাপত্তা কমিটির সভাপতি রুহুল আমিন রতন, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সোহাগ, যুবলীগ নেতা হাফিজুর রহমান হাবি, ব্যবসায়ী শ্রী তপন বণিক, আমান উল্লাহ আমানের নেতৃত্বে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ ট্রেনটির যাত্রা বিরতীর দাবীতে আন্দোলন করে আসছে। তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এলাকাবাসীর গণস্বাক্ষরকৃত আবেদনের প্রেক্ষিতে চট্রগ্রাম রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ শ্রীপুর স্টেশনে যমুনা ট্রেনের দু’মিনিটের যাত্রা বিরতীর সুপারিশ করেন। আবেদনটি রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ে চুড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষায়। প্রায় দেড় বছর যাবত আন্দোলন করেও যাত্রা বিরতীর অনুমোদন না মেলায় দিনদিন সংক্ষুব্ধ হচ্ছেন আন্দোলনকারীরা। এ দাবী না মানা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত রাখবে বলে তারা দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তাদের দাবী, শ্রীপুরে প্রায় পাঁচশতাধিক শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যার মধ্যে কয়েক লাখ শ্রমিক, কর্মচারী, কর্মকর্তা পেশাজীবি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ডিজিটাল দেশ গড়ায় তারা অগ্রনী ভূমিকা রাখছেন। এই শিল্পাঞ্চল খ্যাত শ্রীপুরে কোন আন্ত:নগর ট্রেনের স্টপিজ নাই। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শ্রীপুরে তারা আসা যাওয়া করে। শ্রীপুরসহ আশপাশের ৫টি উপজেলার যাত্রীরা অবিলম্বে শ্রীপুর স্টেশনে যমুনা ট্রেনের যাত্রা বিরতীর অনুমোদনের জন্য জোর দাবী জানাচ্ছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কালিয়াকৈরে পোশাক কারখানায় আগুন 

812

গাজীপুর, ১৩ মে : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা এলাকার ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং নামে একটি পোশাক কারখানায় আগুন লাগে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিসের গাজীপুরের কালিয়াকৈর ও জয়দেবপুর, সাভারের ইপিজেড ও টাঙ্গাইলের মির্জাপুর স্টেশনের সাতটি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারি উপপরিচালক আক্তারুজ্জামান জানান, চন্দ্রা পল্লী বিদ্যুৎ এলাকার ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইংয়ের সাততলা ভবনের তৃতীয় তলায় আগুন লাগে। মুহূর্তে আগুন পুরো ফ্লোরে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর, জয়দেবপুর, ইপিজেড, মির্জাপুর ফায়ার স্টেশনের সাতটি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাত দেড়টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে তৈরি পোশাক, ফেব্রিক্স ও অন্যান্য মালামাল পুড়ে গেছে। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত করে বলতে হবে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হাইওয়ে পুলিশের পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু 

13

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ১০ মে : ১০ মে বৃহস্পতিবার সকালে গাজীপুরে শ্রীপুরে মাওনা হাইওয়ে পুলিশের উদ্যোগে শ্রীপুর পৌরসভার সহায়তায় মাওনা চৌরাস্তা এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ও তার আশেপাশে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শুরু করেছে মাওনা হাইওয়ে পুলিশ।

পরিচ্ছন্নতার কার্যক্রম উদ্বোধন করে মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি দেলোয়ার বলেন, ফ্লাইওভারের নিচে ময়লা আবর্জনা থাকায় সেগুলো থেকে দুগর্ন্ধ বের হচ্ছিল। এতে ওই মহাসড়কে চলাচলকারী যাত্রী ও স্থানীয় জনসাধারণের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল। সামনে মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় মহাসড়কে অবস্থিত ফ্লাইওয়াভারের নিচ থেকে ও তার আশপাশের এলাকার ময়লা আবর্জনা অপসারনের পরিকল্পনা করা হয়। এতে শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান তার পরিচ্ছন্ন কর্মী বাহিনী দিয়ে সহযোগিতা করেন। পাশাপাশি যানজট নিরসনে মহাসড়কের উপর ভাসমান দোকান, কাঁচা বাজার অপসারনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি যাত্রী পরিবহনেও শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে কাজ করে যাচ্ছে হাইওয়ে পুলিশ।

একাজে স্থানীয় প্রশাসনসহ সর্বসাধরনের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। পর্যায়ক্রমে মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় এধরনের কাজ অব্যাহত থাকবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

আবাসিক হোটেলে ভ্রাম্যমান আদালত, আটক ১৬ 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ৮ মে : গাজীপুরের শ্রীপুরে ভ্রাম্যমান আদালত আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে নারী পুরুষসহ ১৬ জনকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়েছে। ৮ মে সোমবার দুপুর ১২টার সময় মাওনা চৌরাস্তা মিতালী গেস্ট হাউজে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো উপজেলার বাপতা গ্রামের কামরুল (২৫), সাইটালিয়া গ্রামের দুলাল মিয়া (৫০), সোনাকর গ্রামের হাবিবুর রহমান (৩০), নান্দিয়াসাঙ্গুন গ্রামের সাইজুদ্দিন (৩০), পার্শ্ববর্তী গফরগাঁও থানার লঙগাইর গ্রামের বাবু (২৮), পাগলা থানার পোড়াদিয়া গ্রামের মনিরুজ্জামান (২৫), শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার সুবহান (২৭), সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ উপজেলার হান্নান (২৬), পটকা গ্রামের জালাল মিয়া (২৪)। শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাসুম রেজার নেতৃত্বে গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালত আটককৃত ৯ মহিলাকে আর্থিক জরিমানা করে ছেড়ে দেয়। অপর দিকে ৫ খদ্দেরকে ৩ দিন করে ও অপর ২ জনকে ৭ দিনের কারাদন্ড দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

গুলি করে ব্যবসায়ীর ৬৬ লাখ টাকা ছিনতাই 

124

গাজীপুর, ৭ মে : গাজীপুরে রবিউল ইসলাম নামে এক গার্মেন্ট ব্যবসায়ীকে গুলি করে তার কাছে থাকা ৬৬ লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

আজ রবিবার দুপুর ১২টার দিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মালেকের বাড়ি এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এ ঘটনা ঘটে।

গুলিবিদ্ধ ওই ব্যবসায়ীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক।

এসময় ওই ব্যবসায়ীর গাড়িচালক ও কারখানার ক্যাশিয়ার আহত হয়েছেন। তাদের স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ভোগড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই জাকির হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে তিনি জানান, ইসলামী ব্যাংক গাজীপুর চৌরাস্তা শাখা থেকে শ্রমিকদের বেতনের ৬৬ লাখ টাকা তুলে নিজ প্রাইভেটকারযোগে টঙ্গী স্টেশন রোডের ‘আর এন করপোরেশন’ কারখানায় যাচ্ছিলেন ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম। ঢাকা-ময়মনসিংহ রোডের গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মালেকের বাড়ি এলাকায় পৌঁছলে একটি মোটরসাইকেল ও দুটি পিকআপ ওই ব্যবসায়ীর প্রাইভেটকারের গতিরোধ করে। এসময় মোটরসাইকেলে থাকা দুর্বৃত্তরা প্রাইভেটকারটির গ্লাস ভেঙ্গে ব্যবসায়ীকে ৩/৪ রাউন্ড গুলি করে প্রাইভেটকারের ভেতরে থাকা টাকার ব্যাগ ছিনিয়ে নেয়।

এতে গাড়িতে থাকা কারখানার ক্যাশিয়ার ও প্রাইভেটকারচালক ভাঙা কাঁচের আঘাতে আহত হন।

গুলিবিদ্ধ ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং কারখানার ক্যাশিয়ার ও প্রাইভেটকারচালককে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এসআই জাকির হোসেন জানান, পুলিশ ঘটনা তদন্ত করে দেখছে। গাজীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ রাসেল ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল মো. সাখাওয়াত হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

গাজীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ 

255

গাজীপুর, ৪ মে : গাজীপুরের শ্রীপুরে দাড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের পেছন থেকে পিকআপের ধাক্কায় দুজন নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ভোররাত চারটার দিকে শ্রীপুরের আশপাড়া এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন পিকআপের মালিক আমিনুল ইসলাম (২৮) ও চালক আল-আমিন (২৪)। দুজন  চালক তন্দ্রাচ্ছন্ন অবস্থায় পিকআপ চালানোর কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে ধারণা করছে পুলিশ। নিহত আমিনুল ইসলাম শ্রীপুর উপজেলার চকপাড়া এলাকার আবুল কালামের ছেলে এবং পিকআপের চালক আল-আমিন দিনাজপুরের বিরামপুর থানার কাতলাহাত এলাকার আমিনুল হোসেনের ছেলে।

মাওনা হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. দেলোয়ার হোসেন দুর্ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, শ্রীপুরে আশপাড়া এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের এক পাশে থেমে থাকা একটি ট্রাকের পেছনে ময়মনসিংহগামী ওই পিকআপ এসে ধাক্কা দেয়। এতে পিকআপের চালক আল-আমিন ঘটনাস্থলে এবং মালিক আমিনুল ইসলাম হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান। নিহত দুজনের লাশ গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

জীবন দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করল হযরত আলী 

0000

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ২ মে : বিচার হীনতা থেকে বেরিয়ে আসতে পারেনি বাংলাদেশ। বিচার না পেয়ে মেয়েকে নিয়ে জীবন দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেল হযরত আলী বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক সোমবার দুপুরে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার কর্নপুর সিটপাড়া গ্রামের হযরত আলীর বাড়ী পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদেরকে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, হতদরিদ্র নি:স্ব মানুষ হযরত আলী দীর্ঘদিন যাবত একটি প্রভাবশালী চক্র জমি জায়গার লোভে তাদের ওপর বারবার অত্যাচার নির্যাতন চালিয়ে আসছেন। অসহায় দরিদ্র পরিবারটি বারবার নির্যাতিত হয়েও বিচার পায়নি। এদের মানবিক অধিকার ফিরিয়ে দিতে হবে। তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, স্থানীয় জনগন, জনপ্রতিনিধি ও নির্যাতিত পরিবারের সাথে কথা বলে তার নিকট প্রাথমিক ভাবে প্রতিয়মান হয় যে, প্রতিপক্ষের দ্বারা নির্যাতিত হয়ে বিচারহীনতার কারনেই হযরত আলী তার মেয়েকে নিয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। তিনি আরও বলেন, পুলিশ হালিমার অভিযোগটি আমলে নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নিলে এই অনভিপ্রেত ও দু:খজনক ঘটনার সূত্রপাত হত না। হালিমার অভিযোগটি শ্রীপুর থানা পুলিশ শুধুমাত্র জি.ডি করেই ক্ষান্ত রয়েছে। আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত না হওয়ায় মেয়েকে নিয়ে জীবন দিয়ে বিচারহীনতার প্রতিবাদ করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করে গেল হযরত আলী। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কমিশনের চেয়ারম্যান আরও বলেন, ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের হালিমাকে নিরাপত্তা, আইনী সহায়তাসহ তাকে পুনর্বাসিত করার সব ধরনের ব্যবস্থা করা হবে। তাকে আর ভিক্ষা করে খেতে হবে না এমন আশ্বাসও দেন। পুলিশের দায়িত্ব ছিল এটার তদন্ত করার পরে একটা ব্যবস্থা নেওয়া এবং মানুষের কাছে বিশ্বাসযোগ্য ব্যবস্থা নিতে হবে। এখানে আমরা যেটা দেখতে পাচ্ছি পুলিশ এ ঘটনাটির যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করে নাই। সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে আতœহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে। আমরা মনে করছি, যে মামলা হয়েছে তার তদন্ত যেন যথাযথ হয়, তার জন্য যদি আমাদের হাইকোর্টে রিট ও করতে হয় আমরা সেটা করব। আইনি লড়াইয়ে আমরা তাদের সর্বাত্ব সহায়তা করব। পুলিশের ব্যাপারে আমরা অনেক কথা বললাম, তার অর্থ এই না পুলিশ তার দায়িত্ব থেকে সরে যাবে। পুলিশরে মধ্যে তার মধ্যে বিশ্বাস ফিরিয়ে আনতে হবে। সে যাতে তার স্বামীরমত আত্মহত্যার পথ বেছে না নেয়। একটা লোক আইনের প্রতি বিশ্বাস রাখতে না পেরে আত্ম হত্যার পথ বেছে নিয়েছে। এ কারণে তার পরিবারের প্রতি বিশ্বাস ফিরিয়ে আনা জরুরী। পরে তিনি আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে অভিযোগে নামীয় আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশকে নির্দেশ দেন।

এর আগে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার রেহেনা আকতার, শ্রীপুর থানার ওসি আসাদুজ্জামান, অভিযোগের তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসআই বাবুল এর সাক্ষাতকার গ্রহন করেন। এছাড়া তদন্তকালে কমিশন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সংবাদকর্মী ও নিহতের স্ত্রী হালিমা ও এলাকাবাসীর সাথে কথা বলেন। এসময় তার সাথে ছিলেন মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক (অভিযোগ ও তদন্ত) শরীফ উদ্দিন, সহকারী পরিচালক রবিউল ইসলাম, সাজ্জাদুর রহমান, গণসংযোগ কর্মকর্তা ফারহানা সাঈদ, ইউএনডিপি’র প্রতিনিধি, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট রায়হানুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেহেনা আকতার, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মন্ডল বুলবুল, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাসুম রেজা প্রমূখ। উল্লেখ্য, সিটপাড়া গ্রামের হালিমার স্বামী হযরত আলী (৪৫) ও তার পালিত কন্যা আয়েশা (১০) গত শনিবার সকাল ৯টার দিকে আন্ত:নগর তিস্তা এক্সপ্রেস ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করার ঘটনায় গনমাধ্যমে প্রকাশ পেলে নড়ে চড়ে বসে প্রশাসন। শনিবার সন্ধ্যায় শ্রীপুর থানা পুলিশ ইউপি সদস্য আবুল হোসেনকে আটক করে। এ ঘটনায় ঢাকা রেলওয়ে থানায় নিহতের স্ত্রী হালিমা বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে ১৮(৪)১৭নং মামলা দায়ের করেন। সোমবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে নিজ বাড়ীতে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় হযরত আলী ও তার কন্যাকে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মেয়ে নিয়ে ট্রেনের নিচে বাবার ঝাপ 

377

গাজীপুর, ২৯ এপ্রিল : গাজীপুরের শ্রীপুরে ট্রেনে কাটা পড়ে পালিত মেয়েসহ বাবা মারা গেছেন।

শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে শ্রীপুর রেলস্টেশনের পশু হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- হযরত আলী (৪৫) ও তার পালিত মেয়ে আয়েশা খাতুন (৮)। তাদের বাড়ি শ্রীপুর উপজেলার কর্ণপুর ছিটপাড়া গ্রামে।

নিহতদের পরিবার এটিকে আত্মহত্যা বলে দাবি করেছে।

শ্রীপুরের স্টেশন মাস্টার শাহজাহান মিয়া জানান, মেয়েকে নিয়ে হযরত আলী ঢাকা থেকে দেওয়ানগঞ্জগামী তিস্তা এক্সপ্রেসের নিচে লাফিয়ে পড়েন। এতে ঘটনাস্থলেই বাবা ও মেয়ের মৃত্যু হয়।

নিহত হযরত আলীর স্ত্রী হালিমা বেগম জানান, সকাল ৮টার দিকে মেয়েসহ বাড়ি থেকে বের হন তার স্বামী। এরপরই তিনি এ দুঃসংবাদ পান।

স্বামী দীর্ঘদিন যাবৎ একটি মামলা সংক্রান্ত ঘটনায় মানসিক যন্ত্রণায় ভুগছিলেন বলে জানান তিনি।

জয়দেবপুর রেল ফাঁড়ির এসআই দাদন মিয়া জানান, রেলওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ২৭ এপ্রিল : গাজীপুরের শ্রীপুরে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে ৯ দিন যাবৎ শ্রীপুর রেলস্টেশনে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি মারা গেছে। ২৭ এপ্রিল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার সময় শ্রীপুর রেল স্টেশনের প্লাট ফর্মে মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, গত ৯ দিন আগে ঢাকা-ময়মনসিংহ রেল সড়কের কোন এক ট্রেনে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে। ট্রেনের যাত্রীরা অজ্ঞাত ব্যক্তিকে অচেতন অবস্থায় শ্রীপুর রেল স্টেশনে নামিয়ে দিলে স্টেশনের অপরিচিত লোকজন শ্রীপুর উপজেলা হাসপাতালে নিলে কর্মরত ডাক্তার তার চিকিৎসা না করেই ফেরত দেন। এরপর থেকে ওই ব্যক্তিকে রেলস্টেশনে থাকা প্রতিবন্ধী মানিক প্লাটফর্মের এক কোনে ভ্যানগাড়ীতে করে বাজার থেকে টাকা তুলে প্রাথমিক চিকিৎসা করান। টানা ৯ দিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে বৃহস্পতিবার সকালে সে মারা যায়।

শ্রীপুর রেলওয়ের ষ্টেশন মাষ্টার শাহজাহান মিয়া জানান, গত কয়েকদিন যাবত অসুস্থ অবস্থায় নাম পরিচয় বিহীন এক ব্যক্তিকে কে বা কাহারা ষ্টেশনের প্লাটফর্মে রেখে যায়। স্থানীয় ভাবে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল।

শ্রীপুর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিল্লাল হোসেন জানান, অজ্ঞাত এক ব্যক্তির মারা যাওয়ার ঘটনায় ষ্টেশন মাস্টার আমাদের অবহিত করলে পৌরসভার ব্যাবস্থাপনায় ও পৌর কর্তৃপক্ষের অনুমতিতে পৌর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, বিষয়টি রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের বিধায় আমাদের কিছু জানা নেই।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

টঙ্গীতে ঢাকা-ময়মন‌সিংহ মহাসড়ক অবরোধ 

77

গাজীপুর, ২৭ এপ্রিল : গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী‌তে আশরাফ টেক্সটাইল মিলস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আনোয়ার হোসেনের অপসারণের দা‌বি‌তে ঢাকা-ময়মন‌সিংহ মহাসড়ক অবরোধ করেছে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্প‌তিবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে শিক্ষার্থীরা মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে।

শিক্ষার্থীরা জানায়, বিদ্যালয়ের নানা অ‌নিয়ম, প্রধান শিক্ষকের দুর্নী‌তিসহ নানা অভিযোগে প্রধান শিক্ষকের অপসারণের দা‌বিতে তারা সড়ক অবরোধ করে।

তারা বিদ্যালয়ের দুর্নী‌তিবাজ প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দা‌বি করেন।

টঙ্গী থানার ও‌সি ফিরোজ তালুকদার জানান, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের অপসারণ দা‌বি করে শিক্ষার্থীরা সড়ক অবরোধ করেছে। তাদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরানোর চেষ্টা চলছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মুফতি হান্নানের সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবার 

40

গাজীপুর, ১২ এপ্রিল : মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত হরকাতুল জিহাদ নেতা মুফতি আবদুল হান্নানের সঙ্গে দেখা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা। আজ বুধবার সকালে গাজীপুরের কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কেন্দ্রীয় কারাগারে চার স্বজন তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

বুধবার ভোর ৬টার দিকে কারাগারে পৌঁছানোর পর ‘মুফতি’ হান্নানের স্ত্রী জাকিয়া পারভীন, দুই মেয়ে নিশাত ও নাজনীন এবং বড় ভাই আলী উজ্জামান সকাল ৭টা ১০ মিনিটে তার সঙ্গে সাক্ষাতের অনুমতি পান। তখন থেকে তারা প্রায় ৭টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত হান্নানের সঙ্গে কথা বলেন। এরপর বেরিয়ে আসেন।

কাশিমপুর কারাগারের ডেপুটি জেলার মনির হোসেন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার মুফতি হান্নানের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য তার স্বজনদের কাছে বার্তা পাঠিয়েছিল কারা কর্তৃপক্ষ। বার্তা পেয়ে আজ সকালে মুফতি হান্নানের স্ত্রী, দুই মেয়ে ও বড় ভাই কারাগারে আসেন।

কারাগারের জ্যেষ্ঠ তত্ত্বাবধায়ক মো. মিজানুর রহমান জানান, মুফতি হান্নান ও তার সহযোগী শরীফ শাহেদুল ওরফে বিপুলের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করতে গতকালই ফাঁসির মঞ্চ পুরোপুরি প্রস্তুত করা হয়েছে। শামিয়ানা টাঙানো হয়েছে। জল্লাদদেরও প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

আজ বুধবার ফাঁসির রায় কার্যকর করা হতে পারে বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।

উল্লেখ্য, সিলেটে ২০০৪ সালে তৎকালীন ব্রিটিশ হাইকমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা ও তিনজন নিহত হওয়ার মামলায় মুফতি হান্নান এবং তার সহযোগী বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন ওরফে রিপনকে মৃত্যুদণ্ড দেন বিচারিক আদালত। হাইকোর্ট ও আপিল বিভাগেও তা বহাল থাকে। রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে (রিভিউ) তিনজনের করা আবেদন খারিজ হয়। গত ২৭ মার্চ তিনজনই প্রাণভিক্ষা চেয়ে কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করেন। গত রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, তাদের প্রাণভিক্ষার আবেদন রাষ্ট্রপতি নাকচ করেছেন।

মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত অপরজন দেলোয়ার রয়েছেন সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে। গতকাল তার সঙ্গে স্বজনেরা দেখা করেছেন। তিনজনের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হওয়ার পর কারাবিধি অনুযায়ী, তাদের ফাঁসি কার্যকর করতে পরবর্তী পদক্ষেপ নেয় কারা কর্তৃপক্ষ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

গ্রেফতার এর প্রতিবাদে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ৬ এপ্রিল : গাজীপুরের শ্রীপুরে মাদকসহ আ’লীগ নেতা মাহতাব উদ্দিনকে আটক করার খবরে তার সমর্থকেরা ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ, টায়ারে অগ্নিসংযোগ ও অবরোধ সৃষ্টি করেছে। আটক নেতার মুক্তির দাবীতে প্রায় ৪ ঘন্টা ব্যাপী মহাসড়ক অবরোধ করলে ওই সড়কের আশপাশের প্রায় ২৫ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়। বৃহষ্পতিবার ভোর ৪ টা থেকে সকাল সাড়ে সাতটা পর্যন্ত মাওনা চৌরাস্তা মোহা সিএনজি স্টেশনের সামনে সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করা হয়। আইনীভাবে পরিস্থিতি মোকাবিলার আশ্বাস দিলে সকাল সাড়ে সাতটার দিকে অবরোধ তুলে নেয়া হয়। আটককৃত মাহতাব উদ্দিন শ্রীপুর পৌর এলাকার ৭নং ওয়ার্ডের চন্নাপাড়া গ্রামের জুবেদ আলীর ছেলে। সে মাওনা চৌরাস্তার বেতার-বিতান এন্ড সাউন্ড সিস্টেমের মালিক। সে একাধিক মামলার আসামী ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজের অনুসারী বলেও জানা গেছে।

শ্রীপুর থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান জানান, বৃহস্পতিবার রাতে গাজীপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশ মাহতাব উদ্দিনকে আটক করে নিয়েছে এমন খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার  ভোর রাত থেকে তার সমর্থকেরা লাঠি-সোটা হাতে নিয়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ, টায়ারে অগ্নিসংযোগ ও অবরোধের সৃষ্টি করে। সকাল ৮টা পর্যন্ত তারা মহাসড়ক অবরুদ্ধ করে রাখে। এতে ওই মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। শ্রীপুর থানা পুলিশ ও মাওনা মহাসড়ক থানা পুলিশ দীর্ঘ চার ঘন্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মাহতাবের ছোট ভাই সিদ্দিকুর রহমান জানান, বুধবার দিবাগত রাত আড়াইটার সময় গাজীপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে চারটি গাড়ি নিয়ে নিজ বাসা থেকে মাহতাব উদ্দিনকে তুলে নিয়ে যায়। এসময় তারা কোন গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দেখায়নি।

মাওনা মহাসড়ক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান জানান, ভোর পৌনে চারটা থেকে মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিল। পরে পুলিশ অবরোধকারীদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দিলে সকাল ৮টা থেকে যান  চলাচল স্বাভাবিক হয়।

গাজীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ জানান, শ্রীপুর উপজেলা নির্বাচনে মাহতাব উদ্দিন তার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন। জেলা আওয়ামলীগের অনুমোদনের অপেক্ষায় থাকা পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে সদস্য পদে তার নাম রয়েছে। মাহতাবের মাদক বা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সঙ্গে জড়িত নয়। তিনি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলেন, কেউ প্রমান দেখাতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।

গাজীপুর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন জানান, মাহতাব এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণের অভিযোগও রয়েছে। তাকে রাত আড়াইটার দিকে তার এলাকা থেকে ২’শ পিস ইয়াবাসহ আটক করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে জঙ্গীবাদ বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত 

13

জোনায়েদ আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ২৯ মার্চ : গাজীপুরের শ্রীপুরে উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে জঙ্গীবাদ বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে শ্রীপুর পৌর এলাকার ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কের মাওনা চৌরাস্তায় এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

শ্রীপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকিরুল হাসান জিকুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল হাসানের পরিচালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল আলম রবিন।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন শ্রীপুর উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল আহমেদ, পৌর শ্রমিক লীগের সভাপতি লিটন ফকির, পৌর ছাত্রলীগের নব গঠিত সভাপতি হাবিবুর রহমান রনি, সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান রিমন প্রমূখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর