২৪ জুন ২০১৭
বিকাল ৪:২৫, শনিবার

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে থেমে থেমে যানজট

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে থেমে থেমে যানজট 

7356

গাজীপুর, ১৭ জুন : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা থেকে কোনাবাড়ি পর্যন্ত প্রায় ১৫ কিলোমিটার জুড়ে থেমে থেমে যানজট চলছে।

শনিবার ভোর থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের ওই অংশে থেমে থেমে গাড়ি চলছে।

কোনাবাড়ি হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হোসেন সরকার জানান, শুক্রবার রাতে বংশাই সেতুর মেরামতের কাজ করা হয়। এ জন্য মহাসড়কের একদিকে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। এ কারণেই রাত থেকে যানজট শুরু হয়। যানজট নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

গাজীপুরে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত 

55

গাজীপুর, ১৪ জুন : গাজীপুরের পুবাইল কলেজগেইট এলাকায় একটি মালবাহী ট্রেনের ছয়টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। তবে এতে কোনো রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়নি।

বুধবার ভোররাতে এ ঘটনা ঘটে।

পূবাইল স্টেশন মাস্টার কামরুল ইসলাম জানান, ঢাকাগামী মালবাহী একটি ট্রেন পূবাইল কলেজগেট এলাকায় পৌঁছলে ছয়টি বগি লাইনচ্যুত হয়। দুর্ঘটনায় ঢাকামুখী লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হলেও চট্টগ্রামমুখী লাইন দিয়ে সব ট্রেন পার করা হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, দুর্ঘটনায় প্রায় ৩০ ফুট লুপলাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রিলিফ ট্রেন এসে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। উদ্ধার শেষে ক্ষতিগ্রস্ত লুপলাইন মেরামত করা হবে।

স্টেশন মাস্টার জানান, অতিরিক্ত গতিতে ট্রেন চলার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে লড়ির চাপায় কারখানা কর্মকর্তা নিহত 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ১১ জুন : শ্রীপুরে লড়ির চাপায় মোটর সাইকেল আরোহী স্থানীয় কারখানার কর্মকর্তা রেজাউল হক সাজাহান (৫০) নিহত হয়েছে। ১১ জুন রোববার সকাল ৮টার সময় উপজেলার গোসিংগা ইউনিয়নের লতিফপুর এলাকায় শ্রীপুর-কাপাসিয়া সড়কে এ দূর্ঘটনা ঘটে। নিহত রেজাউল হক লতিফপুর গ্রামের মৃত আ: সোবাহানের পুত্র। সে শ্রীপুরের বৈরাগীরচালা এলাকার হেমস ফ্যাশন কারখানায় কাটিং ম্যানেজার পদে চাকুরী করতো।

পুলিশ জানায়, রেজাউল মোটর সাইকেল নিয়ে সকালে তার কর্মস্থলের উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হয়। শ্রীপুর-কাপাসিয়া সড়কের নারায়নপুর এলাকায় বাই সাইকেলকে পাশ কাটাতে গিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসা কাপাসিয়াগামী একটি লড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধাকে মারধর, আটক-১ 

9

জোনায়েত আকন্দ,  শ্রীপুর, গাজীপুর, ৪ জুন : গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় শনিবার বিকেলে নুরুল ইসলাম (৭১) নামের এক মুক্তিযোদ্ধাকে হামলার অভিযোগে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। মুক্তিযোদ্ধার ছেলে ইমরান সরকার জানান, শ্রীপুর উপজেলার মাধখলা এলাকার রফিকুল ইসলামের কাছ থেকে ২০১১সালে দলিল করে কিছু জমি কিনে তাতে ঘরবাড়ি ও গাছপালা রোপন করে তারা বসবাস করছেন। স্থানীয় দাঙ্গাবাজ প্রকৃতির মোক্তার হোসেন, জামাল গং দীর্ঘাদন ধরে ওই জমির পাশের আমাদের দখলীয় কিছু (খাস) জমি জোর করে দখল ও বিক্রি করার চেষ্টা করছে। আমরা তাতে বাধা দিলে তারা আমাদের খুন-জখমের হুমকি দিয়ে আসছিল। এরই জেরে শনিবার বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে মাধখলা মোড় থেকে বাসায় ফেরার পথে মোক্তার হোসেন (৪৮) তার সঙ্গীদের নিয়ে আমার বাবার উপর লাঠি দিয়ে হামলা চালায়। এসময় বাবার বন্ধু দেলেয়ার হোসেনের সহায়তায় বাবাকে তার গাড়িতে তুলে নেয়ার সময় গাড়িতেও হামালা চালিয়ে ভাংচুর করেছে। পরে বাবাকে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জমা দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে মোক্তার হোসেন জানান, তার সাথে নয় রফিকুলদের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলছে। তবে কয়েকটি বৈদ্যুতিক মিটার সংযোগের চুক্তি নিয়েও তা স্থাপন না করার কারণে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শনিবার তাকে আমি গলাধাক্কা দেই, কোন হামলা করিনি। শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান জানান, রাতে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে স্থানীয় গণ্যমান্যদের বিষয়টি মিমাংসার প্রতিশ্রুতিতে মোক্তার হোসেনকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে মায়ের সাথে অভিমান করে ছেলের আত্মহত্যা 

gggg

জোনায়েত আকন্দ,  শ্রীপুর, গাজীপুর, ৪ জুন : গাজীপুরের শ্রীপুরে সুদের টাকা পরিশোধ করার জন্য মায়ের কাছে টাকা না পেয়ে অভিমান করে রফিকুল ইসলাম (৩০) নামের এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। গতকাল ৩ জুন রোববার রাত ৯টার সময় উপজেলার কাওরাইদ ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রফিকুল ইসলাম ওই গ্রামের মৃত সুরুজ মিয়ার পুত্র। সে শ্রীপুর পৌর এলাকার মাওনা চৌরাস্তায় সেলুনে শীলের কাজ করত।

জানা যায়, রোববার রাতে সুদের টাকা দেওয়ার জন্য রফিকের কাছে টাকা না থাকায় তার মায়ের কাছে টাকা আনতে যায়। এসময় তার মা টাকা না দেওয়ায় অভিমান করে তাদের বসত ঘরের ধর্নার সাথে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

দুধের সাথে বিষ প্রয়োগে পুত্র হত্যা, মা গ্রেফতার 

0000

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ১ জুন : ঘুমন্ত শিশু আদনান লাবিব সাদ (৮মাস) কে দুধের সাখে বিষ প্রয়োগে হত্যা করেছ পাষণ্ড মা। লোমহর্ষক হত্যাকাণ্ড ঘটেছে ৩১ মে বুধবার রাতে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার মাওনা ইউনিয়নের চকপাড়া গ্রামে। নিহত সাদ ওই গ্রামের হারুনুর রশিদ খানের পুত্র। এলাকাবাসী ঘাতক মা সামিয়া আক্তার বিথী (২০) কে পুলিশে সোপর্দ করেছে। সে মুন্সিগঞ্জ জেলার টুঙ্গীবাড়ী থানার সোনারং গ্রামের আব্দুল করিম বেপারীর কন্যা ও চকপাড়া দাখিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্রী।

জানা যায়, প্রায় আড়াই বছর পূর্বে সামিয়া ও হারুনের বিয়ে হয়। হারুন পেশায় পোল্ট্রি ব্যবসায়ী, বিথী গৃহিনী। তাদের সংসারে আট মাস পূর্বে জন্ম নেয় একমাত্র পুত্র আদনান লাবিব সাদ। হারুন জানায়, বিথী বেপরোয়া চলাফেরা করতো, পরিবারের কারও কথা সে মানতোনা। ছোট খাট বিষয়ে তার সাথে ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়তো। স্ত্রীর উশৃংখল আচরণের জন্য শশুর শ্বাশুড়ি কে খবর দিলেও তারা কোন খোজ খবর নিতোনা। জন্মের পর থেকে তার পুত্র ঠাণ্ডা জনিত রোগে ভোগছিল। পুত্রের কান্নাকাটি, সংসারের কাজ কর্ম বিথীর ভাল লাগতোনা। এনিয়ে স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়ার সময় বিথী পুত্রকে হত্যার হুমকি দিত।

বুধবার রাত ১১ টার দিকে হারুন ব্যবসায়ীক কাজ শেষ করে বাড়ী ফিরলে স্ত্রী জানায় সাদ রক্ত বমি করে ঘুমিয়ে পড়েছে। হাত মুখ ধুয়ে ঘরে গিয়ে হারুন দেখতে পায় তার পুত্রের শরীর ঠাণ্ডা হয়ে গেছে মুখ দিয়ে ফেনা বের হয়ে আসছে। দুধের বোতল থেকে কীটনাশকের গন্ধ বের হচ্ছে। হাসপাতালে নেয়ার পথে সাদ মৃতুবরণ করে।

স্থানীয় লোকদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে বিথী প্রাথমিক ভাবে স্বীকার করে তার পুত্রর সবসময় ঠাণ্ডা থাকতো। দুধের সাথে গাছে দেয়ার বিষ মিশিয়ে খাইয়েছে। শ্রীপুর থানার এস.আই. সৈয়দ আজিজুল হক রাতেই বিথীকে গ্রেফতার করে এবং নিহত সাদের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর মর্গে প্রেরণ করেন। শ্রীপুর থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান নিহতের পিতা বাদী হয়ে বিথীর বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেছে। বিথীকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বাবা-মেয়ের আত্মহত্যার ঘটনায় আরও এক আসামী গ্রেফতার 

1483799379_33

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ৩০ মে : বিচার না পেয়ে বাবা-মেয়ের আত্মহত্যার ঘটনায় শ্রীপুর থানা পুলিশ বগুড়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সহায়তায় আব্দুল খালেক বেপারী (৫০) নামের আরও এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে। ২৯ মে সোমবার রাতে বগুড়ার ধুনট থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামী শ্রীপুরের গোসিংগা ইউনিয়নের কর্নপুর গ্রামের মৃত আলিশ উদ্দিন বেপারীর পুত্র। শ্রীপুর থানা পুলিশ জানায়, গ্রেফতারকৃত আব্দুল খালেক আত্মহত্যা প্ররোচিত ও চুরি মামলার ২ নাম্বার আসামী। উল্লেখ্য, গত ২৯ এপ্রিল শ্রীপুর রেলস্টেশনের দক্ষিন দিকে স্থানীয় এনএন ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের পাশে ধর্ষনের চেষ্টার অভিযোগের বিচার না পেয়ে পিতা হযরত আলী ও তার পালিত কন্যা আয়েশা আক্তারকে সাথে নিয়ে চলন্ত ট্রেনের নিচে আত্মহত্যা করেন। এ ব্যাপারে কমলাপুর রেলওয়ে থানায় ও শ্রীপুর থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়। এর আগে ঘটনার মূল হোতা ফারুকসহ তিনজন গ্রেফতার হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবীতে ভাইস চেয়ারম্যানের সংবাদ সম্মেলন 

13

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ৩০ মে : শ্রীপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও পৌর আ’লীগের সভাপতি মো: রফিকুল ইসলাম মন্ডল বুলবুল নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবীতে উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে ২৯ মে সোমবার সন্ধ্যায় সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে শ্রীপুর নাগরিক ফোরামের আহ্বায়ক মো: রফিকুল ইসলাম মন্ডল বুলবুল তার বক্তব্যে বলেন, শ্রীপুরের আজিজ গ্রুপ, সামিট গ্রুপ, আর.এ.কে সিরামিক্সের উৎপন্ন বিদ্যুৎ শ্রীপুরের বাইরে সরবরাহ করা হয়। অথচ শ্রীপুর উপজেলার সর্বত্র লোডশেডিংয়ের নামে বিদ্যুৎহীনতায় রাখা হয়। শ্রীপুরে নূন্যতম বিদ্যুৎ সরবরাহ হচ্ছে না, দিনে প্রতি দুই ঘন্টা অন্তর এক ঘন্টার জন্য অথবা ত্রিশ মিনিটের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়। এছাড়া লো-ভোল্টেজের চাপ রয়েছে। তিনি আজিজ গ্রুপ, সামিট গ্রুপের উৎপাদিত বিদ্যুৎ শ্রীপুরবাসীকে সরবরাহ করার পর অতিরিক্ত বিদ্যুৎ অন্যত্র দেওয়ার পরামর্শ দেন। তা না হলে আজিজ গ্রুপ, সামিট গ্রুপ, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক, ঢাকা-শ্রীপুর সড়ক অবরোধসহ ঘেরাও করার কর্মসূচী দিবেন বলে জানান।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ধর্ষনের অভিযোগ দুলাভাই গ্রেফতার 

1483799379_33

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ২৪ মে : গাজীপুরের শ্রীপুর শালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে দুলাভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার গভীর রাতে উপজেলার তেলিহাটি ইউনিয়নের মুলাইদ গ্রামের রাজ্জাক মুন্সির বাড়ীতে এ ঘটনা ঘটে। ধর্ষক সুমন মিয়া (২৫) একই ইউনিয়নের টেপির বাড়ী গ্রামের রতন মিয়ার পুত্র। এ ঘটনায় বুধবার দূপুরে ওই শিশুর মা বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, সুমন তার স্ত্রীকে নিয়ে মুলাইদ গ্রামের রাজ্জাক মুন্সির বাড়ীতে ভাড়া থাকত। সম্প্রতি ওই শিশু তার দুলাভাই সুমনের বাড়ীতে বেড়াতে আসে। মঙ্গলবার রাতে বড়বোন দুলাভাইয়ের সাথে শিশুটি এক ঘরে ঘুমিয়ে পড়ে। রাত অনুমান দুইটার দিকে সুমন ঘুমন্ত ওই শিশুর উপর পাষবিক নির্যাতন চালালে সে গুরুত্বর আহত হয়। শিশুর  ডাক চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন আহত শিশুকে উদ্ধার  করে। স্থানীয় জনতা ধর্ষক সুমনকে গণধোলাই দিয়ে বেঁধে রাখে। খবর পেয়ে শ্রীপুর থানার এস.আই কায়সার আহম্মেদ ও এখলাস উদ্দিন রাতেই ঘটনাস্থল থেকে ভিকটিমকে উদ্ধার সহ সুমনকে গ্রেফতার করে। বুধবার  দুপুরে ওই শিশুর মা বাদী হয়ে শ্রীপুর থনায় মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কারী কর্মকর্তা এস.আই. এখলাস উদ্দিন জানান, ধর্ষক সুমনকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আহত শিশুটিকে গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দিন আহাম্মদ মেডিকেল কলেজ হাস পাতালে ভর্তি করা হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরের অদম্য ৪ জয়িতার গল্প 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ২২ মে : উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রশাসনের যৌথ উদ্দ্যোগে এবং স্থানীয় ৮টি ইউনিয়ন পরিষদের সহায়তায় হার না মানা অদম্য ৫ জয়িতা নারীর সন্ধান করে। পাঁচ ক্যাটাগরীর জয়িতা খুঁজে চার ক্যাটাগরির ৪ জন জয়িতাকে নির্বাচন করে উপজেলা কমিটি। উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মৃণালিণী কর্মকার জানান, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে নতুন উদ্যোগে জীবন শুরু, অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী, সফল জননী ও সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রাখায় যে চারজন জয়িতা নির্বাচিত হয়েছে তারা হলেন- উপজেলার বরমী ইউনিয়নের বরমী গ্রামের মৃত চান মিয়ার স্ত্রী তালাকপ্রাপ্তা রেজিয়া খাতুন, একই ইউনিয়নের পাঠানটেক গ্রামের বিপ্লব চন্দ্র সাহার স্ত্রী লক্ষী রাণী সাহা, তেলিহাটি ইউনিয়নের টেপিরবাড়ী গ্রামের মৃত গণেশ মিত্রের স্ত্রী চায়না রাণী মজুমদার ও একই ইউনিয়নের উদয়খালী গ্রামের মো: আলী হোসেনের স্ত্রী মোসা: কামরুন্নাহার। তবে শিক্ষা ও চাকুরির ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী জয়িতা পাওয়া যায়নি।

যে কারণে তারা জয়িতা:
নিজের আর্থিক ও সামাজিক বিপন্নতা বর্ণনা করতে গিয়ে রেজিয়া খাতুন জানান, বিয়ের কিছুদিন যাবার পর থেকে স্বামী যৌতুকের জন্য অকথ্য ভাষায় গালাগাল সহ অমানুষিক নির্যাতন করতো, অনুমতি ছাড়াই ২য় বিয়ে করে, অমানবিক অত্যাচার সইতে না পেরে গর্ভজাত ৩ সন্তানকে নিয়ে পিত্রালয়ে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। তিনি হাতের কাজ শিখে তার প্রাপ্ত আয় দিয়ে অনেক কষ্টে সন্তানদের লেখাপড়া শিখিয়েছেন। এতো কিছুর পরেও সমাজ এবং পরিবারের স্বজনদের নিকট থেকে যথাযথ সম্মান ও মুল্যায়ন পাননি। বর্তমানে তিনি বরমী ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত সদস্য। এখন সবাই তাকে সম্মান করে মর্যাদা দেয়। তার সাহসী সিদ্ধান্তের কারণে এলাকার অন্যান্য নারীরাও উজ্জিবিত।

লক্ষী রাণী সাহা জানান, দরিদ্র পরিবারে বিয়ে হওয়ায় অর্ধহারে অনাহারে থাকতে হয়েছে। এজন্য তাকে মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করতে হয়েছে। সহোদরের নিকট থেকে তিনশত টাকা নিয়ে কাপড় কিনে ফেরী করে বাড়ি বাড়ি বিক্রি করে কাপড়ের ব্যবসা শুরু করে। এজন্য সমাজের ভর্ৎসনা গঞ্জনা সইতে হয়েছে। এখন তার ৫ লাখ টাকা পুঁজি হওয়ায় অনেকেই সমীহ করে কথা বলে। তিনি তার ৪টি মেয়েকে উপযুক্ত পাত্রস্থ করেছেন এবং কনিষ্ঠ কণ্যা বিএসসি পড়ে। এলাকায় তাকে এখন অনেকেই অনুকরণ করছে।

চায়না রাণী মজুমদার বলেন, স্বামীর মৃত্যুর পর তিন সন্তান নিয়ে অনাহার অর্ধহারে কেটেছে। এস এস সি পাশ হওয়ায় টিউশনি করে ও ঔষধ বিক্রি করে তিন সন্তানকে শিক্ষিত করেছেন। স্বামীর কোন জায়গা-জমি, টাকা-পয়সা ছিল না। নিত্য অভাব থাকায় কেউ আর্থিক সাহায্যও করতে চায়নি। এনজিও ব্রাক থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ছোট ব্যবসা শুরু করে। স্থানীয় গণ্যমান্য ও প্রতিবেশী স্কুলের শিক্ষকদের সহায়তায় ১ম ও ৩য় মেয়েকে বিএসসি, ২য় মেয়েকে কোয়ালিটি ডিপ্লোমা পড়াচ্ছেন। এখন সবাই তাকে গুরুত্ব দেয়।

মোসা: কামরুন্নাহারও শোনান তার জয়িতা হওয়ার কথা। তিনি বলেন, বিয়ের পর থেকেই শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামী জ্বালাতন করতো। এক সময় স্বামী অসুস্থ হলেও মনোবল দৃঢ় করে নিজের স্বপ্ন পূরণের জন্য চেষ্টা চালিয়ে যান। তিনি ২০১৪ সাল থেকে বিনা টাকায় সকালে শিশুদের এবং বিকালে মহিলাদের কোরআন শিক্ষা দেন। নিজের জায়গায় একটি মাদ্রাসা স্থাপন করেছেন। এ সফলতার জন্য তাকে এলাকার গণ্যমান্যরা প্রশংসা ও কৃতজ্ঞতার চোখে দেখে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সংবাদ সম্মেলন 

জোনায়েদ আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ২০ মে : শ্রীপুরের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের জমি দখল করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ২০ মে শনিবার দুপুরে মৃত মুক্তিযোদ্ধা সামসুল আলমের স্ত্রী-সন্তানরা শ্রীপুর প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের পক্ষে আনোয়ার হোসেন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। তিনি অভিযোগ করে বলেন, তার পিতা মুক্তিযোদ্ধা সামসুল আলম দেশ রক্ষার জন্য যুদ্ধ করেছেন কিন্তু ভূমি খেকোদের কবল থেকে নিজের জমি রক্ষা করতে গিয়ে চিন্তায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে গত চার মাস পূর্বে মারা যান।

লিখিত বক্তব্যে তার সন্তানরা জানান, গত ছয় মাস যাবৎ স্থানীয় আব্দুল হামিদ খানের পুত্র কথিত ভূমিখেকো সিপাহী খান মানিক ও হাবিবুরের পুত্র হাফিজুরের নেতৃত্বে সংঘবদ্ধচক্র তাদের পিতার রেকর্ডীয় মালিকানাধীন জমি জবর দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে তিনি আদালতের স্বরনাপন্ন হলেও আদালতের আদেশ উপেক্ষা করে ওই চক্রটি জমি দখলের জন্য বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে দেয়াল নির্মাণের চেষ্টা চালাচ্ছে। এ ব্যাপারে তারা স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শ্রীপুরে দেড় বছরেও মেলেনি যাত্রাবিরতীর অনুমোদন 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ১৪ মে : গাজীপুরের শ্রীপুর রেলস্টেশনে গত দেড় বছর ধরে স্থানীয় লোকজনের দাবীর মুখে অননুমোদিত ভাবে আন্ত:নগর যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেন যাতায়াতে দু’মিনিট দাঁড়ালেও কর্তৃপক্ষের যাত্রাবিরতীর অনুমোদন আজও মেলেনি। এ নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য সংসদে বিল উত্থাপনসহ ডিও লেটার দিয়েছেন। শুধু তাই নয় ব্যক্তিগত ভাবে তিনি রেলমন্ত্রীর সাথে একাধিকবার দেখা করে শ্রীপুরবাসীর দাবী উত্থাপন করেছেন। এতে শুধু প্রতিশ্রুতিই পাওয়া গেছে। মেলেনি আজও সরকারীভাবে যাত্রা বিরতীর কোন অনুমোদন। যাদের উদ্যোগে ট্রেনের এ কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে তারা বিভিন্ন সময়ে রেলভবনে, মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করে শুধু আশ্বাস এবং আশ্বাসই পেয়েছেন। অননুমোদিত যাত্রা বিরতীর কারনে টিকিট না পাওয়ায় প্রতিনিয়তই যাত্রীরা হয়রানি হচ্ছেন। মাত্রাতিরিক্ত পয়সা তাদের খোয়া যাচ্ছে। শুধু তাই নয় এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দু’পয়সা কামিয়ে নিচ্ছে যমুনা ট্রেনের রেলের স্টাফ, পুলিশ, আনসার, নিরাপত্তা কর্মী ও রেলওয়ের বিভিন্ন স্টেশনের অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। শ্রীপুর রেলস্টেশন থেকে গড়ে প্রতিদিন পাঁচশতাধিক যাত্রী দেশের বিভিন্ন স্থানে তথা জয়দেবপুর, ঢাকা, বিমানবন্দর, গফরগাঁও, ময়মনসিংহ, জামালপুর, দেওয়ানগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থানে  যাতায়াত করে। সবচেয়ে বেশি যাত্রী হয় বৃহস্পতিবার, রবিবার ও সরকারী ছুটির দিন। একদিকে যাত্রীদের টিকিট না থাকায় সরকার গড়ে প্রতি মাসে ৫/৬ লাখ টাকা রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অন্যদিকে এর একাংশ যাত্রীদের হয়রানি করে কামিয়ে নিচ্ছে ঐ সব অসাধু কর্মকর্তা কর্মচারীরা। এতে পুলিশ, আনসার, নিরাপত্তা বাহিনীও পিছিয়ে নেই।

স্থানীয়রা প্রতিদিন সকাল বিকাল আপ-ডাউনে লাল পতাকা দেখিয়ে ট্রেনটি থামায়। তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, অনুমান দুই/আড়াই বছর পূর্বে ‘নাশকতা প্রতিরোধ ও আমাদের করণীয়’ প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে শ্রীপুর রেল স্টেশনের প্লাটফর্মে একটি সভায় রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি যমুনা ট্রেনের যাত্রা বিরতীর আশ্বাস দেন। এরপর স্থানীয় এমপি এডভোকেট মো: রহমত আলী, উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল জলিলসহ অনেক দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা মন্ত্রী ও মহাপরিচালকের সাথে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করলে শুধু আশ্বাসই পেয়েছেন। কিন্তু দীর্ঘদিনেও আশ্বাসের কোন প্রতিফলন না ঘটায় স্থানীয় জনতা বর্তমান সরকারের প্রতি একটু একটু করে আস্থা হারিয়ে ফেলছেন। তারা মনে করছে শুধু প্রতিশ্রুতির ফুলঝুড়ি, বাস্তবায়নের বেলায় কিছুই নয়। অভিযোগ উঠেছে, ট্রেন থামানোর কারনে বিভিন্ন ব্যক্তিদের নামে মামলার হুমকি দেয়া হচ্ছে। স্থানীয়রা আরও অভিযোগ করেন, রেলমন্ত্রীর সদিচ্ছা থাকলেও মহা পরিচালকের ব্যক্তিগত স্বার্থ ক্ষুন্ন হওয়ার আশংকায় তিনি এই মহতী কর্মকান্ডের অনুমোদন দিচ্ছেন না।

শ্রীপুর বাজার ব্যবসায়ী নিরাপত্তা কমিটির সভাপতি রুহুল আমিন রতন, সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সোহাগ, যুবলীগ নেতা হাফিজুর রহমান হাবি, ব্যবসায়ী শ্রী তপন বণিক, আমান উল্লাহ আমানের নেতৃত্বে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ ট্রেনটির যাত্রা বিরতীর দাবীতে আন্দোলন করে আসছে। তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, এলাকাবাসীর গণস্বাক্ষরকৃত আবেদনের প্রেক্ষিতে চট্রগ্রাম রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ শ্রীপুর স্টেশনে যমুনা ট্রেনের দু’মিনিটের যাত্রা বিরতীর সুপারিশ করেন। আবেদনটি রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ে চুড়ান্ত অনুমোদনের অপেক্ষায়। প্রায় দেড় বছর যাবত আন্দোলন করেও যাত্রা বিরতীর অনুমোদন না মেলায় দিনদিন সংক্ষুব্ধ হচ্ছেন আন্দোলনকারীরা। এ দাবী না মানা পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত রাখবে বলে তারা দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তাদের দাবী, শ্রীপুরে প্রায় পাঁচশতাধিক শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে। যার মধ্যে কয়েক লাখ শ্রমিক, কর্মচারী, কর্মকর্তা পেশাজীবি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। ডিজিটাল দেশ গড়ায় তারা অগ্রনী ভূমিকা রাখছেন। এই শিল্পাঞ্চল খ্যাত শ্রীপুরে কোন আন্ত:নগর ট্রেনের স্টপিজ নাই। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে শ্রীপুরে তারা আসা যাওয়া করে। শ্রীপুরসহ আশপাশের ৫টি উপজেলার যাত্রীরা অবিলম্বে শ্রীপুর স্টেশনে যমুনা ট্রেনের যাত্রা বিরতীর অনুমোদনের জন্য জোর দাবী জানাচ্ছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কালিয়াকৈরে পোশাক কারখানায় আগুন 

812

গাজীপুর, ১৩ মে : গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার চন্দ্রা এলাকার ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং নামে একটি পোশাক কারখানায় আগুন লাগে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে এ আগুনের সূত্রপাত হয়। ফায়ার সার্ভিসের গাজীপুরের কালিয়াকৈর ও জয়দেবপুর, সাভারের ইপিজেড ও টাঙ্গাইলের মির্জাপুর স্টেশনের সাতটি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় দুই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের সহকারি উপপরিচালক আক্তারুজ্জামান জানান, চন্দ্রা পল্লী বিদ্যুৎ এলাকার ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইংয়ের সাততলা ভবনের তৃতীয় তলায় আগুন লাগে। মুহূর্তে আগুন পুরো ফ্লোরে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর, জয়দেবপুর, ইপিজেড, মির্জাপুর ফায়ার স্টেশনের সাতটি ইউনিটের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাত দেড়টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে তৈরি পোশাক, ফেব্রিক্স ও অন্যান্য মালামাল পুড়ে গেছে। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত করে বলতে হবে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হাইওয়ে পুলিশের পরিচ্ছন্নতা অভিযান শুরু 

13

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, ১০ মে : ১০ মে বৃহস্পতিবার সকালে গাজীপুরে শ্রীপুরে মাওনা হাইওয়ে পুলিশের উদ্যোগে শ্রীপুর পৌরসভার সহায়তায় মাওনা চৌরাস্তা এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে ও তার আশেপাশে পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শুরু করেছে মাওনা হাইওয়ে পুলিশ।

পরিচ্ছন্নতার কার্যক্রম উদ্বোধন করে মাওনা হাইওয়ে থানার ওসি দেলোয়ার বলেন, ফ্লাইওভারের নিচে ময়লা আবর্জনা থাকায় সেগুলো থেকে দুগর্ন্ধ বের হচ্ছিল। এতে ওই মহাসড়কে চলাচলকারী যাত্রী ও স্থানীয় জনসাধারণের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল। সামনে মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় মহাসড়কে অবস্থিত ফ্লাইওয়াভারের নিচ থেকে ও তার আশপাশের এলাকার ময়লা আবর্জনা অপসারনের পরিকল্পনা করা হয়। এতে শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমান তার পরিচ্ছন্ন কর্মী বাহিনী দিয়ে সহযোগিতা করেন। পাশাপাশি যানজট নিরসনে মহাসড়কের উপর ভাসমান দোকান, কাঁচা বাজার অপসারনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি যাত্রী পরিবহনেও শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে কাজ করে যাচ্ছে হাইওয়ে পুলিশ।

একাজে স্থানীয় প্রশাসনসহ সর্বসাধরনের সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। পর্যায়ক্রমে মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় এধরনের কাজ অব্যাহত থাকবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

আবাসিক হোটেলে ভ্রাম্যমান আদালত, আটক ১৬ 

জোনায়েত আকন্দ, শ্রীপুর, গাজীপুর, ৮ মে : গাজীপুরের শ্রীপুরে ভ্রাম্যমান আদালত আবাসিক হোটেলে অভিযান চালিয়ে নারী পুরুষসহ ১৬ জনকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দিয়েছে। ৮ মে সোমবার দুপুর ১২টার সময় মাওনা চৌরাস্তা মিতালী গেস্ট হাউজে অসামাজিক কার্যকলাপের দায়ে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হলো উপজেলার বাপতা গ্রামের কামরুল (২৫), সাইটালিয়া গ্রামের দুলাল মিয়া (৫০), সোনাকর গ্রামের হাবিবুর রহমান (৩০), নান্দিয়াসাঙ্গুন গ্রামের সাইজুদ্দিন (৩০), পার্শ্ববর্তী গফরগাঁও থানার লঙগাইর গ্রামের বাবু (২৮), পাগলা থানার পোড়াদিয়া গ্রামের মনিরুজ্জামান (২৫), শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার সুবহান (২৭), সিরাজগঞ্জ জেলার কামারখন্দ উপজেলার হান্নান (২৬), পটকা গ্রামের জালাল মিয়া (২৪)। শ্রীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাসুম রেজার নেতৃত্বে গঠিত ভ্রাম্যমাণ আদালত আটককৃত ৯ মহিলাকে আর্থিক জরিমানা করে ছেড়ে দেয়। অপর দিকে ৫ খদ্দেরকে ৩ দিন করে ও অপর ২ জনকে ৭ দিনের কারাদন্ড দিয়ে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর