২৪ জুন ২০১৭
বিকাল ৪:৩১, শনিবার

লক্ষ্মীপুরের মেঘনায় মিলছে না ইলিশ

লক্ষ্মীপুরের মেঘনায় মিলছে না ইলিশ 

00

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ২৩ জুন : ঈদ মানে খুশি। তবে খুশি হতে পারছে না লক্ষ্মীপুরের জেলেরা। ভরা মৌসুমেও লক্ষ্মীপুরের মেঘনায় মিলছেনা রুপালি ইলিশ। দিনভর নদীতে জাল পেলে মাছ না পেয়ে খালি হাতে বাড়ি ফিরতে হচ্ছে তাদের।

ঈদকে সামনে রেখে আনন্দ নেই এসব লক্ষ্মীপুরের জেলে পরিবার গুলোর মাঝে। হতাশা বিরাজ করছে জেলে পল্লীগুলোতে। মাছ ধরা না পড়ায় তাদের উপার্জন নেই। ব্যস্ততাও নেই ঈদের কেনাকাটা নিয়ে। ছেলে-মেয়ে কিংবা পরিবারের সদস্যদের জন্য নতুন জামা কাপড় কেনার সামর্থও নেই তাদের। এতে জেলে পল্লীগুলোতে আনন্দের চিহ্ন দেখা যাচ্ছে না।

মেঘনার লক্ষ্মীপুর সীমান্তে কোন ধরণের মাছ মিলছে না জেলেদের জালে। নদীতে ইলিশসহ অন্য প্রজাতির মাছের তীব্র সংকটের কারণে জেলার হাজার হাজার জেলে এবং ব্যবসায়ীদের মাঝে চরম হতাশা বিরাজ করছে। এদিকে মাছ ধরা না পড়ায় জেলে ও মৎস্য ব্যবসায়ীদের কোন উপার্জন নেই বললেই চলে। এতে জেলে পল্লীগুলোতে ঈদের আনন্দ বেদনায় সৃষ্টি হয়েছে।

অন্যদিকে যে কয়টি ইলিশ পাওয়া যায় তা সাধারণ ক্রেতাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। স্বল্প পরিমাণ ইলিশ ঘাটে আসলেও এর সাথে জড়িত জেলে, আড়ৎদার ও শ্রমিকসহ অনেকেই বসে বসে পুঁজির টাকা খরচ করছেন। কমলনগর উপজেলার মতিরহাট ঘাট, লুধুয়াঘাট, রামগতি উপজেলার রামগতির ঘাট, টাংকীর ঘাট, গাবতলীর ঘাট, আলেকজান্ডার সেন্টার খাল ঘাট, সদর উপজেলার মজু চৌধুরীর ঘাট ও রায়পুর উপজেলার কয়েকটি ঘাট ঘুরে একই চিত্র দেখা গেছে।

এদিকে ইলিশ কিনতে গিয়ে অতিরিক্ত অর্থ গুণতে হচ্ছে ক্রেতাদের। বাজারে যে কয়টি ইলিশ মাছ পাওয়া যায় তারও দাম বৃদ্ধি। ৫০০ গ্রামের প্রতি কেজি ইলিশ ৯শ থেকে ১ হাজার টাকায় ও ১ কেজি ওজনের ইলিশ ১৪ শ’ থেকে ১৫ শ’ টাকায় বিক্রি করতে দেখা যায়।

রামগতি মাছ ঘাটের খোকন মাঝি জানায়, বিগত বছরগুলোতে এ সময় জেলেদের জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়েছিল। এবার নদীতে মাছ ধরা পড়ছে না।

মতিরহাট ঘাটের ব্যবসায়ী কবির জানান, গত বছর এ সময় এ ঘাট থেকে প্রায় ২০০ টন ইলিশ দেশের অভ্যন্তরীণ বাজারে চালান হয়েছে। কিন্তু এ বছর স্থানীয়দের চাহিদাও মেটানো সম্ভব হচ্ছে না।

বাতিরখাল ঘাটের মৎস্য ব্যবসায়ী মো. রফিক সাদী জানান, বৈশাখ মাস থেকে ইলিশের ভরা মৌসুম চললেও এখন পর্যন্ত জেলেদের জালে আশানুরূপ মাছ ধরা পড়ছে না। দৈনিক একটি নৌকা ২-৩ টির বেশী মাছ পায় না। আবার অনেককেই খালি হাতে ফিরতে দেখা যায়।

করইতোলা বাজারের বরফকল মালিক কালাম জানান, জেলেরা বরফ কিনতে না এলও মেশিন সবসময় চালু রাখতে হয়। এতে বরফ বিক্রি না থাকলেও বিদ্যুৎ বিল এবং অন্যান্য খরচ মেটাতে গিয়ে লোকসান গুণতে হচ্ছে।

লক্ষ্মীপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ত্রস ত্রম মহিবুল্ল্যাহ বলেন, ত্রই মৌসুমে নদীতে মাছ কম পাওয়া যায় ত্রবং ইলিশ জলবায়ুর সাথে জড়িত। জলবায়ুর প্রভাবের কারণে নদীতে তেমন মাছ ধরা পড়ছে না। ইলিশ হলো গভীর পানির মাছ। চর পড়ে নদীর গভীরতা কমে যাওয়ায় এবং পর্যাপ্ত ঝড়-বৃষ্টি না হওয়ায় সাগর থেকে নদীতে মাছ আসছে না বলে জানান তিনি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চেয়ারম্যানসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেফতার-৪ 

0000

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ২৩ জুন : লক্ষ্মীপুরে মাটি কাটার শ্রমিক নূরুল আমিনকে (৫২) গ্রাম্য সালিশে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত ও নাকে খত দিতে বাধ্য করার ঘটনায় চন্দ্রগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২২ জুন) দুপুরে তাদেরকে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে বুধবার (২১ জুন) রাতে দত্তপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) শিপন বড়–য়া বাদি হয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আহসানুল কবির রিপনকে প্রধান আসামি ৭জনের বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করা হয়। পরে রাতেই বড় আউলিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে চৌকিদার জাহাঙ্গীর আলম, সালিশদার জাহাঙ্গীর আলম, কাজী ইউসুফ ও কাজী আলমগীর হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মামলার ৫ আসামির নাম জানা গেলেও তদন্ত স্বার্থে অপর ২ আসামির নাম জানায়নি পুলিশ। এদিকে মামলার পর থেকে ইউপি চেয়ারম্যান আহসানুল কবির রিপন পলাতক রয়েছেন।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোকতার হোসেন বলেন, মাটি কাটার শ্রমিকেক বেত্রাঘাত ও নাকে খত দেয়ার ঘটনায় ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামি চেয়ারম্যান রিপনসহ বাকিদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

অন্যদিকে বুধবার (২১ জুন) দুপুরে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবি মো. তাছেব হোসাইনের করা জনস্বার্থে রিট মামলার প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট ডিভিশনের বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর দ্বৈত অবকাশকালীন বেঞ্চ এ রুল দেয়। চন্দ্রগঞ্জ থানার ওসি ও ইউপি চেয়ারম্যানকে সুপ্রিম কোর্টে হাজির হওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

রিটকারী আইনজীবি মোঃ তাছেব হোসাইন জানান, আদালত নির্যাতিত পরিবারটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে লক্ষ্মীপুরের পুলিশ সুপারকে (এসপি) নির্দেশ দিয়েছেন। এসময় চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও দত্তপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আহসানুল করিব রিপনকে ৩ জুলাই সকাল সাড়ে ১১ এগারটায় সুপ্রিম কোর্টে হাজির হয়ে বক্তব্য দিতে বলা হয়। এ ঘটনার সাথে জড়িত অন্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য এসপিকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। যুগান্তরসহ কয়েকটি গণমাধ্যমে ছবিসহ এক প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। জনস্বার্থে আদালতের নজরে এনে আইনজীবি মো. তাছেব হোসাইনের রিট মামলা (৯১৮০/২০১৭) দায়ের করেন। আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেয়।

প্রসঙ্গত, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আহসানুল কবির রিপন ২য় রমজান গ্রাম্য সালিসে শ্রমিক নূরুল আমিনকে  বাড়ি থেকে ধরে এনে প্রকাশ্যে নাকে খত দিতে বাধ্য করেন। এসময় তার (চেয়ারম্যান) নির্দেশে গ্রামপুলিশ জাহাঙ্গীর আলম ওই শ্রমিককে ১০ থেকে ১১টি বেত্রাঘাত করে। অভিযোগকারী শহীদ ও তার স্ত্রীর পায়ে ধরে দু’দফায় ক্ষমা চেয়েও রক্ষা পাননি তিনি। ঘটনার পর থেকে নির্যাতিত নূরুল আমিনের পরিবারটি লোকলজ্জায় মানষিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে। পরিবারের সদস্যরা ঘর থেকে তেমন বের হন না। চেয়ারম্যান ও তার অনুসারীদের ভয়ে আতংকগ্রস্থ হয়ে পড়েছে তারা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শেষ মুহূর্তে লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার 

5820

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ২১ জুন : শেষ মুহূর্তে লক্ষ্মীপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে মার্কেট গুলোর বেচাকেনা। কেউ কিনছে কেউবা পছন্দ করছে। কেউ আবার জামার সাথে মিলিয়ে কসমেটিকস নিয়ে ব্যস্ত।

এদিকে ঈদকে সামনে রেখে পুলিশসহ আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী জেলার গুরুত্বপূর্ণ স্থানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে। ঈদকে কেন্দ্র করে শেষ মুহুর্তে জেলার রায়পুর, রামগঞ্জ, রামগতি ও কমলনগরে মার্কেট গুলোও জমে উঠেছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।

লক্ষ্মীপুর শহরের চকবাজার, মসজিদ মার্কেট, মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট, হকার্স মার্কেট ও পৌর সুপার মার্কেট ঘুরে দেখা যায়, জামা-কাপড়, কসমেটিকস ও জুতার দোকানগুলো আলোকসজ্জাসহ বিভিন্ন সাজে সেজেছে। দোকানগুলোতে বাহারি রঙ্গের ছোট-বড় জামা, থ্রী-পিচ, লেহেঙ্গা, শাড়ী, পাঞ্জাবী, মেয়েদের বিভিন্ন ধরণের কসমেটিকস বেশ আকর্ষনীয় ভাবে সাজানো হয়েছে। বিপণী বিতানগুলোতে বাহুবলি-১, বাহুবলী-২, আবার কোনটির নাম রাখী-বন্ধনসহ বিভিন্ন নামে মেয়েদের পোষাক বিক্রি হচ্ছে। ছোট শিশুদের জন্যও রয়েছে বেবি সেট ও গেঞ্জি সেট। ক্রেতারা ঈদের পোশাক ও সামগ্রী পছন্দমত কিনে নিচ্ছেন সাধ ও সাধ্যের মধ্যে।

তরুণদের দেখা যায় বাহারি রঙের শার্ট-পাঞ্জাবি কিনতে। বেচা-বিক্রি ভীড়ে বিক্রেতারাও বাড়তি কথা বলার সময় পাচ্ছেন না। রোজা শুরুতে বিক্রি কিছু কম থাকলেও শেষ মুহুর্তে বেচা-বিক্রি বাড়ছে বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা। শহরের চক-বাজার মসজিদ মার্কেটের ৩য় তলায় বাঁশ দিয়ে সাজানো ‘বাঁশ জ্যান্টেলম্যান’ নামে একটি শার্ট- প্যান্টের দোকান সাজানো হয়েছে। এতে গরীব-অসহায়দের জন্য সীমিত মূল্যে ভালো শার্ট, প্যান্ট ও পাঞ্জাবী রয়েছে। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নারী, পুরুষ, শিশু-কিশোরসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের পদচারণায় জমজমাট হয়ে উঠে মার্কেটগুলো। কিনছেন তাদের পছন্দের সামগ্রী। শেষ সময়ে জমজমাট বিক্রির আশাবাদী দোকানীরা। রাস্তার পাশে ছোট বিপনীবিতান গুলো থেকে নিম্ন ও মধ্যবিত্ত আয়ের ক্রেতাদের সামর্থ অনুযায়ী কেনাকাটা করছেন। জামা-কাপড় কেনা শেষে জুতা ও কসমেটিকস’র দোকানগুলোও বেশ জমে উঠতে দেখা যায়।

অন্যদিকে, শহরের মসজিদ মার্কেট, মুক্তিযোদ্ধা মার্কেট ও পৌর সুপার মার্কেটে লোভনীয় অফার দিয়ে জমজমাট বেচা-বিক্রি চলছে। মার্কেট কমিটির লোকজন সাংবাদিকদের জানায়, ৫শ টাকার কেনাকাটা করলে লাকী কুপনের মাধ্যমে হুন্ডা, ফ্রীজ ও টিভিসহ সর্বমোট ৫১টি পুরস্কার জেতার সুযোগ রয়েছে। মোটরসাইকেল, ফ্রীজ, এলইডি টিভিসহ বিভিন্ন পুরস্কার মার্কেটের সামনে আকর্ষনীয়ভাবে সাজিয়ে রেখেছে রমজানের শুরু থেকেই। এমন লোভনীয় অফারে ক্রেতারা হুমড়ি খেয়ে পড়ছে মার্কেটগুলোতে।
সুমন হোসেন, জামাল উদ্দিন ও শরীফ আহমেদসহ শহরের কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, রমজানের শুরুতে বেচা-বিক্রি কম হলেও এখন বেড়েছে। ঈদ যতই কাছে আসছে ক্রেতাদের সমাগম ততই বেড়ে যাচ্ছে।

সমসেরাবাদ এলাকার মোস্তফা কামাল ও মজুপুর এলাকার গৃহবধু সুরাইয়া বেগম বলেন, এবার জামা-কাপড় চওড়া দামে কিনতে হচ্ছে। বাচ্চা থেকে বৃদ্ধ সবার জামা-কাপড় প্রচুর টাকা খরচ হচ্ছে। কামাল তার ছেলের জন্য ৬শ টাকা দিয়ে একটি পাঞ্জাবী কিনেছেন। সুরাইয়া বেগম তার মেয়ের জন্য ৩ হাজার টাকায় একটি লেহেঙ্গা কিনেছেন বলে জানান।

লক্ষ্মীপুর জেলা পুলিশ সুপার আ স ম মাহাতাব উদ্দিন বলেন, ঈদকে কেন্দ্র করে জেলা জুড়ে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ব্যাংক, বীমা ও ঈদ বাজারের মার্কেটগুলো সিভিল ও পোশাকদারী পুলিশের পাশাপাশি ক্লোজ সার্কিট (সিসি ক্যামেরা) ক্যামেরার মাধ্যমে নিয়ন্ত্রণে থাকে। সার্বক্ষনিক টহলে থাকছে ডিবির তিনটি টিম। তাছাড়া ঈদে পর্যটন কেন্দ্রগুলোতেও বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সুস্থ থাকতে বুঝিনি অসুস্থতা কত বেশি যন্ত্রণাদায়ক 

58

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ২১ জুন : আমি যখন সুস্থ ছিলাম তখন চিন্তাও করিনি অসুস্থতা এতো বেশি যন্ত্রণাদায়ক হবে। সত্যিই আজ আমি খুব বেশি অসহায় হয়েগেছি। ব্যবসা-বাণিজ্য, জায়গা-জমি, টাকা-পয়সা সব হারিয়ে এখন আমি নিঃস্ব। পরকালের জন্যও তেমন কোনো কিছু সংরক্ষণ করতে পারিনি। তাই আমি আরো কিছুদিন বাঁচতে চাই।

মৃত্যু পথযাত্রী কামাল হোসেন (২৯) কেঁদে কেঁদে এসব কথা বলেছেন। তার দুটি কিডনিই নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি লক্ষ্মীপুরের চন্দ্রগঞ্জ থানার মান্দারী মটবী গ্রামের মেন্দি মিয়া বাড়ির মৃত আব্দুল গণির ছেলে। চার ভাই দুই বোনের মধ্যে তিনি পঞ্চম।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, কামাল হোসেন (২৯) পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রী। তিনি দীর্ঘদিন যাবত এ পেশায় জড়িত ছিলেন। স্থানীয় মান্দারী বাজারে নিউ কামাল ফার্ণিচার নামে একটি ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান ছিল তার। কিডনি দুটি নষ্ট হওয়ার পর প্রতি সপ্তাহে ঢাকায় গিয়ে কিডনি ইনিস্টিটিউটসহ বিভিন্ন হাসপাতালে তাকে ডায়ালাইসিস করাতে হচ্ছে। কিন্তু অর্থ সংকটে তাকে এখন হাসপাতাল ছেড়ে বাড়িতে অবস্থান করতে হচ্ছে। তার অর্জিত এবং পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া সব সম্পত্তি বিক্রি করে এখন তিনি নিঃস্ব।

মুমূর্ষু কামাল হোসেন বাঁচতে চেয়ে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন। প্রধানমন্ত্রীসহ সমাজের দানশীল ব্যক্তিদের কাছে পরিবারটি আর্থিক সহযোগিতা কামনা করছে।
সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা : কামাল হোসেন, হিসাব নং-০২০০০০৮৮৮৮৬৫৫ (অনলাইন), অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড, মান্দারী বাজার শাখা, লক্ষ্মীপুর। বিকাশ : ০১৮৩৮৩৩৫৪৯৬।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

লক্ষ্মীপুরে সালিশে লাঠিপেটা ও নাকেখতের ঘটনায় তদন্ত কমিটি 

index-27

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১৯ জুন : লক্ষ্মীপুরে মাটি কাটার শ্রমিক নূরুল আমিনকে (৫২) বাড়ি থেকে তুলে এনে গ্রাম্য সালিসে প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত ও নাকেখত দিতে বাধ্য করার ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রোববার (১৮ জুন) লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) হোমায়রা বেগম বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ খবর দেখে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নুরুজ্জামানকে ঘটনাটির তদন্তের নির্দেশ দেন।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ নুরুজ্জামান জানান, তিনি সরেজমিন ভূক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শীসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবেন।

লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) হোমায়রা বেগম জানান, খবরটি গনমাধ্যমে দেখে তিনি তদন্তের নির্দেশ দেন। তদন্ত প্রতিবেদন দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
প্রসঙ্গত, সদর উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক আহসানুল কবির রিপন ২য় রমজান গ্রাম্য সালিসে শ্রমিক নূরুল আমিনকে স্ত্রী-সন্তানসহ এলাকাবাসীর সামনে প্রকাশ্যে নাকে খত দিতে বাধ্য করেন। এসময় তার (চেয়ারম্যান) নির্দেশে গ্রামপুলিশ জাহাঙ্গীর আলম ওই শ্রমিককে লাঠিপেটা করে। মো. শহিদ নামে আরেক মাটি কাটা শ্রমিকের সাথে বিবাধকে কেন্দ্র করে চেয়ারম্যানের কাছে অভিযোগ করলে তিনি ইউনিয়নের বড় আউলিয়া গ্রামে সালিশের আয়োজন করেন। সালিসের দুইদিন পর নুরুল আমিনের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা আদায় করা হয়। গোপনে ধারণ করা এক মিনিট ৩৫ সেকেন্ডের সালিশে নির্যাতনের ভিডিওটি শুক্রবার (১৬ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় উঠে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

লক্ষ্মীপুরে ছাত্রদল সভাপতি হারুন গ্রেফতার 

1483799379_33

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১৮ জুন : লক্ষ্মীপুর জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হারুনুর রশিদ হারুনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার (১৮ জুন) সকালে লক্ষ্মীপুর আদালতের মাধ্যমে তাকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এরআগে শনিবার (১৭ জুন) রাতে তাকে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার বাঞ্চানগর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তিনি নাশকতা মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভূক্ত আসামি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হাছিবুর রহমান জানায়, ঘটনার সময় হারুন পাশের মসজিদে নামাজ আদায় শেষে বাড়িতে ফিরছিলেন। এসময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।

লক্ষ্মীপুর মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) একেএম ফজলুল হক বলেন, একাধিক নাশকতা মামলায় হারুনুর রশিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

লক্ষ্মীপুরে ফুটপাত দখলমুক্ত করতে পুলিশের অভিযান 

0000

মো: জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১৭ জুন : পবিত্র মাহে রমজান ও ঈদুল ফিতরকে কেন্দ্র করে লক্ষ্মীপুর শহরের ফুটপাত দখলমুক্ত ও অবৈধ গাড়ি পার্কিং উচ্ছেদ করেছে সদর থানা পুলিশ। শনিবার (১৭ জুন) দুপুর ১২টার দিকে লক্ষ্মীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: লোকমান হোসেন’র নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানে বিপুল পুলিশ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ দিন থেকে জেলা শহরের গেঞ্জি হাটা, ভক্তের গলি, মাছ বাজার রোড, থানা রোডসহ বেশ কিছু গলি দখল হয়ে আছে। ঈদকে সামনে এসকল ফুটপাতের দোকান-পাট শহরে যানযট সৃষ্টি করে। এরই অংশ হিসেবে পুলিশ এ অভিযান চালায়।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লোকমান হোসেন জানান, শহরে যানযট নিরসনে  উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে। আগামীতে যেসব মার্কেট ও দোকানের সামনে ফুটপাত দখল হবে সেসব মার্কেট ও দোকানের মালিককে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হবে। এবং অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

গাছের সাথে হাত-পা বেঁধে কিশোরকে মারধর 

0000

মো.জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১৭ জুন : লক্ষ্মীপুরে যৌন হয়রানির অভিযোগে গাছের সাথে হাত-পা বেঁধে রিয়াজ হোসেন বাবু (১৮) নামের এক কিশোরকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এদিকে একই অভিযোগে বৃহস্পতিবার রাতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামানের ভ্রাম্যমান আদালত তাকে ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের কালুহাজী সড়কে একটি ঘরে ঢুকে বাবু এক তরুণীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করা হয়। পরে তরুণীর চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এসে ঘটনাস্থল থেকে তাকে আটক করে গাছের সাথে হাত-পা বেঁধে মারধর করে। খবর পেয়ে শহর পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আবুল কাশেম আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে। পরে তাকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। বাবু (২৫) সদর উপজেলার শাকচর এলাকার কামালের ছেলে এবং পেশায় ট্রলিচালক।

লক্ষ্মীপুর শহর পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কাশেম জানান, যৌন হয়রানির ঘটনায় একজনকে আটক করা হয়েছে। তবে তাকে ঘটনাস্থল থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধারা করা হয়েছে। কে বা কারা তাকে মারধর করেছে সে বিষয়ে তিনি অবগত নয়।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুজ্জামান বলেন, যৌন হয়রানির অভিযোগ পেয়ে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। ক্ষতিগ্রস্ত তরুনীর সাথে কথা বলে সত্যতা পাওয়া গেছে। পরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে বাবুকে ৩ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তবে তাকে মারধরের বিষয়ে আমি অবগত নয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

৭ টি বন্দুকসহ ৫ জলদস্যু র‌্যাবের হাতে আটক 

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১৪ জুন : র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব-১১ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নোয়াখালী-লক্ষ্মীপুর জেলার চরঅঞ্চল মেঘনা মোহনা থেকে ৭ টি একনলা বন্দুক, ২৩ রাউন্ড গুলি,২৩ টি রকেট ফ্লেয়ারসহ জলদস্যু কালাম বাহিনীর ৫ সদস্যকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার (১৩ জুন) বিকেলে র‌্যাব-১১ লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানানো হয়, আটককৃতরা হলেন,  নোয়াখালী জেলার হাতিয়া উপজেলার মো: বেলায়েত হোসেন, মো: রিয়াজ, আমির হোসেন, ভোলার জেলার মো: বাদশা, কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া উপজেলার  ফরহাদ।

এ র‌্যাব-১১ সিও ল্যান্ট: কামরুল হাসান ও লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পের অধিনায়ক নরেশ চাকমা সাংবাদিকদের জানান, আসন্ন ইলিম মৌসুম কে সামনে রেখে কালাম বাহিনীর সদস্যরা নোয়াখালী জেলার হাতিয়া উপজেলার নলেরচর আদর্শগ্রাম এলাকায় জলদস্যু মামুনের বাড়িতে ডাকাতির করার উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে এমন সংবাদ পেয়ে সোমবার গভীর রাত থেকে মঙ্গলবার ভোর পর্যন্ত র‌্যাব-১১ লক্ষ্মীপুর ক্যাম্পের উপ-অধিনায়ক মেজর আশিক বিল্লাহ এবং সিনিয়র এএসপি মোী: জসিম উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে এসময় কালাম বাহিনীর প্রধান কালাম ঘটনারস্থল থেকে পালিয়ে গেলেও ৫ জলদস্যু কে অস্ত্র,গুলি ও রকেট ফ্লেয়ারসহ আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে হাতিয়া থানায় ডাকাতি প্রস্ততি ও অস্ত্র আইনে পৃথক মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে বলে জানায় র‌্যাব।

র‌্যাবের একটি সূত্র জানায়, বঙ্গোপসাগর ও মেঘনায় ইলিশ মৌসুমকে সামনে রেখে জলদুস্যরা কালাম বাহিনীর প্রধান কালামের নেতৃত্বে ভোলার মনপুরায়, কক্সবাজারের মহেলখালী,কুতুবদিয়া, চকরিয়া, চট্টগ্রামের বাঁশখালী, নোয়াখালীর হাতিয়া ও লক্ষ্মীপুরের রামগতি এলাকায় মেঘনা নদীতে ডাকাতি, অপহরণ, চাঁদাবাজি, লুট সহ নানান অপরাধ করে বেড়ায়। কামাল বাহিনী নিজ দলে ২ সদস্যকে সম্প্রতি খুন করে লাশ গুম করে।

এ ছাড়া বিভিন্ন জেলেদের অপহরণসহ মাছ ধরার ট্রলার ছিনতাই করে প্রায় ২০ লাখ টাকার চাঁদাবাজি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রামগঞ্জে ছোট বোনের হাতে বড় খুন 

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১২ জুন : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে পাখি বেগম (২৮) ছোট বোনের হাতে বড় বোন লাকি বেগম (৩০) খুন হয়েছেন।

রবিবার দুপুরে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। এর আগে শনিবার রাতে উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের পূর্ব সুন্দরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী আলমগীর হোসেন বাদী হয়ে দুপুরে থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। মামলায় অভিযুক্ত ছোট বোনকে আটক করে পুলিশ।

রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. তোতা মিয়া জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই বোনের বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে পাখি বেগম তার বড় বোন লাকি বেগমকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। খবর পেয়ে পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় থানায় মামলা ও ছোট বোনকে আটক করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

লক্ষ্মীপুরে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের সম্মেলন 

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১১ জুন : লক্ষ্মীপুরে বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার (৯ জুন) সন্ধ্যায় এ উপলক্ষে সাবেক সাংসদ শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানির পৌরসভার সমসেরাবাদ এলাকার বাস ভবনে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

সদর উপজেলা (পূর্ব) বিএনপির সভাপতি মাঈন উদ্দিন চৌধুরী রিয়াজের সভপতিত্বে এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর ও সদরের একাংশ) আসনের সাবেক সাংসদ ও জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল খায়ের ভূঁইয়া।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, সাবেক সাংসদ ও কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি নিজাম উদ্দিন ভূঁইয়া, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট হারুনুর রশিদ বেপারী, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাছিবুর রহমান, পৌর বিএনপির সভাপতি মাহবুবুর রহমান লিটন, সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর মো. নিজাম উদ্দিন, সদর উপজেলা (পূর্ব) বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বাচ্চু, জেলা কৃষকদলের সভাপতি আমির হোসেন চাষী, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হারুনুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম মামুন, ছাত্রদল নেতা মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, আবদুল্লাহ আল মামুন ও মোসাদ্দেক হোসেন বাবর প্রমুখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ইফতার চাওয়ায় এতিম শিশুকে পিটিয়ে আহত 

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১১ জুন : লক্ষ্মীপুরে ছোট বোনের জন্য ইফতার চাওয়ায় জাহিদ হাসান শুভ (৮) নামের এক এতিম শিশুকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে মসজিদ কমিটির সদস্য শিক্ষক শাহাবউদ্দিনের বিরুদ্ধে। আহত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (৯ জুন) সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর পৌরসভার দক্ষিণ মজুপুর এলাকার মোটকা মসজিদে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শনিবার সকাল থেকে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে এবং ওই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছে এলাকাবাসী।

শুভ একই এলাকার চৌকিদার বাড়ির মৃত আব্বাস আলীর ছেলে ও স্থানীয় একটি মাদ্রাসার দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। অভিযুক্ত শাহাবউদ্দিন একই এলাকার বাসিন্দা ও পেশায় একজন শিক্ষক।

স্থানীয়রা জানায়, ঘটনার দিন মসজিদ কমিটির উদ্যোগে ইফতারের আয়োজন করা হয়। নির্ধারিত সময়ে ইফতার শুরু হওয়ার পর বিতরনের সময় শুভকে ইফতার দিলেও তার বোন বর্ষাকে দেয় নি। এসময় সে তার বোনের জন্য ইফতার চাইলে শাহাবউদ্দিন তার ওপর চরম ক্ষুদ্ধ হন। একপর্যায়ে শুভকে এলোপাতাড়ি মারধর করে তাকে বের করে দেয়া হয়। পরে স্থানীয়রা শুভর অবস্থার অবনতি দেখে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আনোয়ার হোসেন জানান, ছেলেটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে।

লক্ষ্মীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লোকমান হোসেন বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। তবে এ ব্যাপারে কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মোনাজাত না ধরার প্রতিবাধ করায় হামলা 

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১১ জুন : লক্ষ্মীপুরে মসজিদে নামাজ শেষে ইমামের মোনাজাত না ধরাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় নুর হোসেন নামের এক মুসল্লী নিহত হয়েছেন। এতে নিহতের বড় ভাই জাকির হোসেনও আহত হয়।  শুক্রবার (৯ জুন) দিবাগত রাত ৯টার দিকে সদর উপজেলার মধ্য কালিরচর গ্রামের মনছুর আহমদ জামে মসজিদের সামনে ইমাম পক্ষের লোকজন এ হামলা চালায়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় নুর হোসেনেকে ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হয়। শনিবার সকাল ৭টার দিকে তিনি সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। নিহত নুর হোসেন মধ্য কালিরচর গ্রামের মৃত রফিক উল্লাহর ছেলে। এ ঘটনায় পুলিশ ওই মসজিদের ইমাম মো. আল-আমিনসহ ৩জনকে আটক করে। তবে আটক অপর দুইজনের নাম জানায়নি পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, স্থানীয় মনছুর আহমদ জামে মসজিদের ইমাম মো. আল আমিন নামাজের পর অন্য ইমামদের মতো মোনাজাত ধরতেন না। মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক শুক্রবার জুমার নামাজের পর ইমামকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে ইমাম উত্তেজিত হয়ে তাকে মসজিদ থেকে বের হয়ে যেতে বলেন। এসময় ইমাম পক্ষ ও কমিটির পক্ষরা বাক বিতণ্ডায় লিপ্ত হয়। এর জের ধরে রাতে তারাবির নামাজের পর ইমামের পক্ষ নিয়ে স্থানীয় দেলোয়ারসহ কয়েকজন মাথায় লাল ফিতা বেঁধে দুই ভাইকে পেটায়।

স্থানীয়রা আরও জানান, বিগত ৩-৪ মাস ধরে হুজুর ওই মসজিদে ইমামতি করলেও এখানে তার কোন আসবাবপত্র ছিল না। ওই ইমাম চাঁদপুরের বিশ্বপুর গ্রামের মো. দুলালের ছেলে বলে জানা যায়। এদিকে নিহতের স্ত্রী জেসমিন আক্তার মেয়ে মিতু আক্তার ও ছেলে রুবেল এই হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করেন।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) লোকমান হোসেন জানান, নিহত নুর হোসেনের মরদেহ ঢাকা থেকে নিয়ে আসলে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এছাড়া ওই ঘটনায় মসজিদের ইমামসহ ৩জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কমলনগরে পিকআপ ভ্যান চাপায় পথচারী নিহত 

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১১ জুন : লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে পিকআপ ভ্যান চাপায় মো. সাকায়েত উল্যাহ (৫৩) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে রামগতি-লক্ষ্মীপুর আঞ্চলিক সড়কের উপজেলার চরজাঙ্গালীয় হাফেজিয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকায় এ মর্মান্তিক দূর্ঘটনা ঘটে। শনিবার দুপুরে নিহতের ছোট ভাই উপজেলার চরলরেন্স ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. নাসির উদ্দিন বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন। নিহত সাকায়েত উল্যাহ ওই এলাকার বাসিন্দা এবং লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের সদস্য গিয়াস উদ্দিন মোল্লার বড় ভাই।

স্থানীয়রা জানান, তার বড় ভাই সাকায়েত উল্যাহ শুক্রবার রাত ১২টার দিকে স্থানীয় চর লরেন্স বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। ওই সময় বিপরীতমুখী (লক্ষ্মীপুরগামী) দ্রুতগতির একটি পিকআপ ভ্যান তাকে চাপা দেয়। এতে গুরুতর আহত হলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে অবস্থার অবনতিতে চিকিৎসকের পরামর্শে রাতেই ঢাকায় নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

অপহরণের ৬ মাস পর রকির সন্ধান 

0000

জামাল উদ্দিন বাবলু, লক্ষ্মীপুর, ১১ জুন : লক্ষ্মীপুর থেকে অপহরণের ৬ মাস পর রাকিবুল হাসান রকি নামের এক যুবক বাড়ীতে পিরলেন। রবিবার (১১জুন) ভোর রাতে পৌর শহরের বাগবাড়ী এলাকায় হাত ও চোখ বাঁধা অবস্থায় তাকে ফেলে রেখে যায় দূর্বৃত্তরা। পরে এক রিক্সা চালক তাকে দেখে বাড়ী নিয়ে যায়। এরপর হৈ চৈ পড়ে স্বজন ও সহপাঠীদের মাঝে। একনজর দেখতে ছুটে আসেন প্রতিবেশী ও উৎসুক জনতা। তাকে পেয়ে এখন খুশিতে মেতে উঠেছে সবাই।

যুবক রকি পৌর  শহরের শিল্পী কলোনী এলাকার মো. তোফায়েল আহমদের ছেলে ও স্থানীয় ইসলামীয়া মর্টস এর মার্কেটিং অফিসার এবং তিন তিন বার ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড় হিসেবে জেলা চ্যাম্পিয়ন হন।

রকি ও তার পরিবার সুত্রে জানা যায়, গেলো বছরের ৬ ডিসেম্বর রাতে লক্ষ্মীপুর শহরের পুরাতন আদালত রোড এলাকায় রাকিবুল হাসান রকি ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট খেলছিলেন। এ সময় পানি পান করতে সে পাশের একটি হোটেলে ঢুকলে ৭/৮ জন ব্যাক্তি তাকে অপহরন করে মাইক্রোবাস যোগে তুলে নিয়ে যায়। এ ঘটনার পরদিন সকালে রকির বাবা সদর থানায় একটি জিডি করেন।

অপহরণ থেকে ফিরে এসে রকি বললেন, অপহরনের পর থেকে ওরা  হাত-পা ও চোখ বাঁধা অবস্থায় তাকে একটি ছোট্ট ঘরে ফেলে রাখতো। চোখ বাধা অবস্থায় তাকে খাওয়া-ধাওয়া দেয়া হত। খাওয়া শেষে তাকে হ্যান্ডকাপ পরিয়ে রাখা হতো।

কোথায় রাখা হয়েছে এবং কারা নিয়ে গেছে সেটা বলতে না পারলেও তাকে কোন নির্যাতন, জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি বলে জানান তিনি। রবিবার ভোর রাতে লক্ষ্মীপুর-ঢাকা মহাসড়কের বাগবাড়ি এলাকায় চোখ বাধা অবস্থায় তাকে ফেলে যায় দূর্বত্তরা। পরে স্থানীয় এক রিক্সা চালক তাকে চিনতে পেরে তার বাসায় নিয়ে যায়।

এদিকে রকির বাবা তোফায়েল আহমদ বলেন, ‘আমার ছেলে কোন রাজনীতি করেনা, কারো সাথে বিরোধ নেই তার, তাকে কেন অপহরণ করা হয়েছে, আল্লাহ তাদের বিচার  করুক।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. লোকমান হোসেন কে বা কাহারা রকিকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে সেটি বলতে না পারলেও তার ফিরে আসার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর