১৮ আগস্ট ২০১৭
বিকাল ৪:৫১, শুক্রবার

পটুয়াখালীতে ব্রীজ ভেঙ্গে মাল বোঝাই ট্রাক খালে

পটুয়াখালীতে ব্রীজ ভেঙ্গে মাল বোঝাই ট্রাক খালে 

0000

সোহাগ হোসেন, দুমকি (পটুয়াখালী), ১১ আগস্ট : পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে পাথর বোঝাই ট্রাক পারাপারের সময় চৈতা খালের উপর ষ্টীলের বেলী ব্রীজটি ভেঙ্গে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন পড়েছে। দুর্ঘটনায় পতিত মালবাহী ট্রাকের চালকসহ অন্তত: তিন জন আহত হলেও তারা পলাতক রয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কাঠালতলী এলাকায় বৃহস্পতিবার রাত একটার সময়। ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ায় দক্ষিনাঞ্চালের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে গেছে। শুক্রবার সকালে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ্ মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুল ইসলাম তালুকদার ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাকেরগঞ্জ-কাঠালতলী-সুবিদখালী-চান্দখালী-বরগুনা মহাসড়কের সংস্কার ও বিভিন্ন স্থানে ব্রীজের কাজ চলমান রয়েছে। এরমধ্যে উপজেলার কাঠালতলী চৈতা খালের উপর ব্রীজের কাজ শেষ হলেও এপ্রোচের কাজ বাকি রয়েছে। পাশের নির্মিত ষ্টীলের বেলীব্রীজ দিয়ে যোগযোগ ব্যবস্থা সচল রাখা হয়েছে।
কাঠালতলী বাজারের পাহারাদার মোঃ হারুন সিকদার জানান, ঘটনার সময় বৃহস্পতিবার রাত একটার দিকে একটি-একটি করে তিনটি মালবাহী ট্রাক পার হলেও শেষের ট্রাকটি(কুষ্টিয়া-ট ১১-১১২৮) ব্রীজের উত্তর পার থেকে দক্ষিন পারে পৌছার পর ব্রিজের রেলিং স্টাকচারে ধাক্কা খেলে ব্রীজটি ট্রাকসহ ভেঙ্গে খালে পড়ে যায়। এতে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের সাথে যোগযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ে যায়। এতে দুর্ভোগে পড়েছে দক্ষিনের যাত্রীসহ রোগীরা। সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রকৌশলী বলেন, কাঠালতলী ষ্টীলের বেলী ব্রীজটি ভেঙ্গে পড়ায় যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। তবে আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পটুয়াখালীতে ইয়াবাসহ আটক ২ 

5

পটুয়াখালী, ১ জুলাই : পটুয়াখালী পৌর শহরের নন্দকানাই এলাকা থেকে শুক্রবার মধ্যরাতে এক হাজার ৭শ’ ৩০ পিস ইয়াবাসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

আটককৃতরা হলেন- নন্দকানাই এলাকার মিজানের স্ত্রী মাহবুবা ও তাদের সহযোগী দুলাল সিকদার। গোপন তথ্যের ভিত্তিতে পটুয়াখালী সদর থানা পুলিশ একটি বসত বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।

এ ব্যাপারে পটুয়াখালী সদর থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, অভিযান চলাকালে তাদের কাছ থেকে এক হাজার ৭শ’ ৩০ পিস ইয়াবাসহ ইয়াবা বিক্রির এক লাখ টাকা জব্দ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পটুয়াখলীকে ২৩০৪পিচ ইয়াবা উদ্ধার আটক-৪ 

সোহাগ হোসেন (দুমকি) পটুয়াখালী, ১১ জুন : পটুয়াখালীতে ফিরোজ হাওলাদার (৩৫) ওরফে ইয়াবা ফিরোজ ও তার তিন সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার গভীর রাতে কলাপাড়া পৌরশহরের মুসলিমপাড়ার বাড়ি থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার অন্য তিন জন হলেন মোহাম্মদ আলী (২৮), আপেল বড়ুয়া (২০) ও দিলদার মিয়া (৪০)। এ সময় ফিরোজের বাড়ি থেকে ৪৮টি পলিব্যাগে থাকা ২৩০৪ পিস ইয়াবা জব্দ করা হয়। ফিরোজের বাড়ি কলাপাড়ার ধুলাসার ইউনিয়নের চার নং ওয়ার্ডে। আর বাকিদের বাড়ি কক্সবাজারের উখিয়া থানায়।

ফিরোজ ধুলাসার ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। পটুয়াখালী ডিবি পুলিশের ওসি খন্দকার জাকির হোসেনে ও কলাপাড়া থানার ওসি জিএম শাহনেওয়াজ জানান, এ ঘটনায় কলাপাড়া থানায় একটি মামলা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পটুয়াখালীতে উন্নয়ন ভাবনা শীর্ষক মহিলা সমাবেশ 

0

সোহাগ হোসেন দুমকি, (পটুয়াখালী), ২৪ মে : বর্তমান সরকারের সাফল্য অর্জন ও উন্নয়ন ভাবনা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১০টি বিশেষ উদ্যোগ, যৌতুক, বাল্য বিবাহ, নারী সহিংসতা প্রতিরোধ, নারীর ক্ষমতায়ন ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন শীর্ষক মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গত মঙ্গলবার বেলা ১১টায় জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে দুমকি বিজনেস ম্যানেজমেন্ট এন্ড টেকনিক্যাল মহিলা কলেজ সভাকরে অধ্যক্ষ মো: জামাল হোসেনের সভাপতিত্বে এ মহিলা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে পটুয়াখালীর সিনিয়র সহকারী তথ্য কর্মকর্তা মো: জাকির হোসেন প্রধান অতিথি ছিলেন। সহকারী তথ্য কর্মকর্তা এসএম মেহেদী হাসান, প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক মো. মজিবুর রহমান, উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী মিসেস ফরিদা ইয়াসমিন বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন। অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তৃতা করেন প্রভাষক বাহাউদ্দিন বাহার, মিজানুর রহমান, কলেজ শিক্ষার্থী শারমিন আক্তার মিলা প্রমুখ। এর আগে সরকারের চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ডের ওপর প্রমান্যচিত্র প্রদর্শণ করা হয়। অনুষ্ঠানে কলেজ শিক্ষার্থী, আমন্ত্রিত মায়েরা ও স্থানীয় সুধীজন অংশ নেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পটুয়াখালীতে ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিভ্রাট 

0000

সোহাগ হোসেন, দুমকি (পটুয়াখালী), ২১ মে : ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের মুখে পটুয়াখালীর গ্রাহকরা। অসহনীয় ভ্যাপসা গরমের পাশাপাশি ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিভ্রাটে পটুয়াখালী জেলা শহরসহ প্রত্যন্ত এলাকার জনজীবনে নেমে এসেছে চরম ভোগান্তি। প্রতিদিন গড়ে ৮/৯ ঘণ্টা লোডশেডিং এর নাম করে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকায় গ্রাহকরা এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে। প্রশাসন-সহ ভিআইপি এলাকা ব্যতিরেকে প্রত্যন্ত উপজেলা গুলোতে লোডশেডিং এর মাত্রা বেশী হওয়ায় সাধারণ গ্রাহকরা রীতিমতো ফুসে উঠছে।

শহর এলাকায় মাঝে মাঝে বিদ্যুৎ যাওয়া-আসার মধ্যে রয়েছে। কিন্তু গ্রামের অবস্থা আরও ভয়াবহ । তারা তিন-চার ঘণ্টার বেশি বিদ্যুৎ পাচ্ছেন না। এমনকি কখন বিদ্যুৎ থাকবে আর কখন লোডশেডিং হবে তাও জানা যায় না। বিদ্যুৎ না থাকায় প্রচণ্ড ভ্যাপসা গরমে শিশুসহ নারী ও বয়স্ক মানুষ সবচেয়ে বেশি কষ্টে আছে। এ দিকে গরমে শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন রোগব্যাধি বাড়ছে। বিদ্যুতের ভয়াবহ লোডশেডিং এর কারণে বিদ্যুৎ নির্ভর ব্যবসা-বাণিজ্য এখন বন্ধের উপক্রম হয়েছে। এ চিত্র জেলার কলাপাড়া, দশমিনা, দুমকি, মির্জাগঞ্জসহ প্রত্যন্ত উপজেলায়। বিশেষ করে মৎস্য বন্দর মহিপুর, আলীপুরের বরফকল মালিকদের বিদ্যুৎ বিপর্যয়ে লোকসানও গুনতে হচ্ছে। মোমবাতি জ্বালিয়ে লেখাপড়া করছে শিক্ষার্থীরা। সাধারণ গ্রাহকদের অভিযোগ, আকাশে মেঘ জমলেই বিদ্যুৎ লাইন বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়া স্থানীয় অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তালবাহানার কারণে গ্রাহকরা এ বিভাগের ওপর সম্পূর্ণভাবে আস্থাহীন হয়ে পড়ছেন।

জানা গেছে, পটুয়াখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কলাপাড়া জোনের প্রায় ২৬ হাজার গ্রাহক ও দুমকিতে ৩৬ হাজার গ্রাহক ভয়াবহ লোডশেডিং এ অসহনীয় পরিবেশের শিকার। কলাপাড়া হাসপাতালের চিকিৎসক জুনায়েদ খান লেলিন জানান, তীব্র গরমে জ্বর, নিউমেনিয়া, টাইফয়েডসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের ব্যাহত হচ্ছে শিশুদের চিকিৎসাসেবা। শিশুদের দিনে তিনবার নেবুলাইজ করার প্রয়োজন হলেও তা দেওয়া যাচ্ছে না।

কলাপাড়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম সুবেদ কুমার সরকার, দুমকি এরিয়া ইনচার্জ আবুল বাশার জানান, যেখানে ৬ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ প্রয়োজন, সেখানে পাওয়া যাচ্ছে তিন থেকে সাড়ে তিন মেগাওয়াট। জেনারেশন বৃদ্ধি ও জাতীয় গ্রীডের টাওয়ার মেরামতের কাজ শেষ হলে এ সমস্যার সমাধান হবে বলেও জানান তিনি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মানসিক প্রতিবন্ধী যুবকের দ্বগ্ধ হয়ে মৃত্যু 

সোহাগ হোসেন, দুমকি (পটুয়াখালী), ২০ মে : পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কৃষক সেরাজ হাওলাদারের মানুষিক প্রতিবন্দি ছেলে তোফাজ্জেল হাওলাদার (৩২)সহ বসতঘর সম্পূর্ণ ভষ্মীভূত হয়েছে। ভষ্মীভূত ঘরের মধ্যেই শিকল দিয়ে বেধে রাখা মানসিক প্রতিবন্ধী ছেলে তোফাজ্জেল অগ্নিদ্বগ্ধ হয়ে মারা গেছে।
গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১১টার দিকে উপজেলার মিঠাগঞ্জ ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। অগ্নিকাণ্ডের সুত্রপাত কি তা জানা যায়নি।

নিহত তোফাজ্জেলের বাবা সেরাজ হাওলাদার জানান, বিরোধীয় জমিতে তারা প্রায় ১৫ বছর আগে গোলপাতার ছাউনির ঘরটি তুলে তিনি ছাড়াও স্ত্রী মাজেদা বেগম এবং প্রতিবন্ধী ছেলে তোফাজ্জেলকে নিয়ে বসবাস করে আসছেন। কিন্তু তারা খাওয়া-দাওয়া করতেন প্রায় হাজার ফুট দুরে বড় ছেলে মোশাররফের বাড়িতে। ঘটনার রাতে তোফাজ্জেলকে শিকলে বেধে ঘর বন্ধ করে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই রাতের খাবার খেতে বড় ছেলের বাড়িতে যান। আগুনের খবর শুনে এসে দেখতে পান সব শেষ। দ্বগ্ধ হয়ে মারা গেছে ছেলে তোফাজ্জেল। শনিবার সকালে কলাপাড়া থানার ওসি জিএম শাহনেওয়াজ, ইউপি চেয়ারম্যান কাজী হেমায়েত উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এটি কোন নাশকতা কি না পুলিশ তা এই মুহুর্তে নিশ্চিত করতে পারেনি। এ ঘটনায় ওই গ্রামে শোকাবহ অবস্থার পাশাপাশি নানা ধরনের গুজব গুনজন চলছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জমি দখল করে মার্কেট নির্মাণ 

সোহাগ হোসেন দুমকি (পটুয়াখালী), ১২ মে : পটুয়াখালীর গলাচিপা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জমির অবৈধ দখল রোধ ও নির্মিত স্থাপনা উচ্ছেদের দাবিতে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকা, ব্যবস্থাপনা কমিটি, অভিভাবক ও এলাকার সচেতন সুধীজন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। গত বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় গলাচিপা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে স্কুলের সামনে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

জানা যায়, ১৯৩২ সালে প্রায় ১৯ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত গলাচিপা মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সীমানা দখল করে একের পর এক পাকা ও আধাপাকা মার্কেট নির্মাণ করছে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি। জেলা পরিষদের জায়গার অজুহাতে ওই চক্রটি দোকান ঘর তৈরি করে ভাড়া ও পজিশন বিক্রি করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ফোরকান মিয়া নামে এক ব্যক্তি প্রায় ২০ হাত লম্বা জায়গা দখল করে একটি দোকান ঘর তুলছেন। ইতোমধ্যে ইট দিয়ে দোকান ঘরের দেয়াল গাঁথা শেষ, এখন চলছে টিনের চাল উঠানোর কাজ। অপর পাশে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি স্যামাকান্ত বিশ্বাস নিজেও একটি দোকান ঘর নির্মাণ করেছেন। এছাড়াও শুভাষ বাবু ও কালাম মিয়া স্থায়ীভাবে আধাপাকা দোকান ঘর নির্মাণ করেছেন। এভাবে স্কুলের জমি দখল করে একের পর এক মার্কেট নির্মাণ করায় স্থানীয় লোকজনের মধ্যে চাঁপা ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. নিজাম উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, মার্কেট নির্মাণের সময় আমরা বাধা দিলেও কোনো কাজ হয়নি। অবৈধ দখল রোধ ও নির্মিত দোকান-পাট উচ্ছেদের দাবিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও শিক্ষা অফিসকে অবহিত করেছি এবং স্মারক লিপি দেওয়া হয়েছে।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি স্যামাকান্ত বিশ্বাস দোকান তোলার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। বার বার জানতে চাইলেও কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. রেজাউল করিম বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। খুব দ্রুত খোঁজ নিয়ে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

যৌতুক না দেওয়ায় গৃহবধূকে অত্যাচার 

সোহাগ হোসেন দুমকী (পটুয়াখালী), ৮ মে : যৌতুকের টাকা দিতে না পারায় কুলসুম আক্তার (২০) নামের এক গৃহবধূকে আটকে রেখে অমানসিক নির্যাতন চালিয়েছে পাষণ্ড স্বামী। ধাঁরাল কাঁচদিয়ে স্ত্রীর গোপণাঙ্গসহ শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে গুরুতর জখম করেছে। খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও গ্রাম্য চৌকিদারের উপস্থিতিতে গুরুতর আহতাবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতাল ও পরে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রবিবার রাত সাড়ে ৯টায় পটুয়াখালীর দক্ষিণ মুরাদিয়া গ্রামের আকন বাড়ির বন্দিদশা থেকে নির্মম নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে গ্রামবাসী।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্র জানায়, ৩লক্ষ টাকা যৌতুক দাবিতে দক্ষিণ মুরাদিয়া গ্রামের মৃত কাসেম আকনের ছেলে সুমন আকন তাঁর স্ত্রী কুলসুম আক্তারকে প্রায়শই মারধর করত। কয়েকদিন আগে দাবিকৃত যৌতুকের টাকার জন্য গৃহবধূ কুলসুমকে জোরপূর্বক পিত্রালয়ে পাঠিয়ে দেয়। রবিবার বিকেলে স্বামীর বাড়িতে ফেরত এসে দরিদ্র বাবার পক্ষে দাবিকৃত টাকা দিতে পারবে না বলে সাফ জানিয়ে দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পাষান্ড স্বামী গৃহবধূকে উপর্যুপরি লাঠিপেটা শুরু করে। পরে ধাঁরাল একটি ভাঙ্গাকাঁচের টুকরা দিয়ে গোপনাঙ্গসহ শরীরের স্পর্শকাতর স্থানগুলোতে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে জখম করে ঘরের মধ্যে আটকে রাখে।

সন্ধ্যায় গৃহবধূর পিত্রালয়ে খবর পৌছলে তাঁর বাবা জসিম উদ্দিন আকনসহ স্বজনরা স্থানীয় মহিলা ইউপি সদস্য মিসেস সামসুন্নাহার ও  গ্রাম্য চৌকিদার নজরুল ইসলামের সহায়তায় ওই বাড়ির বন্দিদশা থেকে কুলসুমকে উদ্ধার করে  প্রথমে দুমকি থানায় ও পরে রাত সাড়ে ১০টায় দুমকি উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। প্রাথমিক চিকিৎসার পর আহতের অবস্থার অবনতি ঘটলে দ্রুত পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ দিবাকর চন্দ্র দাস এর সাথে কথা বললে সে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিৎ করে, এবং আরও বলে গৃহবধূকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এখনও পর্যন্ত কোন অভিযোগ দেয়া হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পটুয়াখালীর গলাচিপায় সেতু আছে রাস্তা নেই 

0000

সোহাগ হোসেন দুমকি (পটুয়াখালী), ৬ মে : পটুয়াখালী গলাচিপা উপজেলা ও দশমিনা উপজেলার মেলবন্ধনের একমাত্র সেতুটির অ্যাপ্রোচ সড়ক না হওয়ায় চালু করা যাচ্ছে না। প্রায় অর্ধশতাব্দী ধরে দুই উপজেলার মানুষের প্রাণের দাবি ছিল এ সেতু নির্মাণের কিন্তু মিলনের দ্বারপ্রান্তে এসেও ধমকে আছে কাজ।

সেতুটির ওপর দিয়ে দু’পাড়ের লোকজন ও শিশু-কিশোররা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নির্মাণকাজের সময় বাঁশের সিঁড়ির থাক বেয়ে এপার-ওপার যাতায়াত করছিল। দিকে নির্মাণ তদারকি প্রতিষ্ঠান স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের দশমিনা উপজেলা  প্রকৌশল দপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মনসুর আলী আকন এর সাথে কথা বললে তিনি জানান, ভূমি অধিগ্রহণ জটিলতার কারণে যথাসময়ে কাজটি পুরোপুরি শেষ করা সম্ভব হয়নি। তবে অচিরেই এ কাজ শেষ করা হবে বলে তিনি বলেন।
সংসদ সদস্য আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন সরেজমিন পরিদর্শন করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত সেতুর অসমাপ্ত কাজ শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন গলাচিপা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা টিটো এ কথা বলেন। এক সময় দশমিনা ছিল গলাচিপা উপজেলার একটি অংশ। স্বাধীনতা-পরবর্তীকালে গলাচিপা থানার দশমিনা, রণগোপালদি, আলীপুরা, বেতাগী, সাকনিপুরা ও বাউফল উপজেলার বহরমপুর, বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়ন নিয়ে দশমিনা উপজেলা গঠন করা হয়। এমনিতেই আত্মীয়তা ছাড়াও নানাভাবে এ দুই উপজেলার মানুষের মধ্যে রয়েছে হৃদয়ের গভীর ভালোবাসা কিন্তু এ ভালোবাসার অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায় রণগোপালদি নদী। এ নদীতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর দরপত্র আহ্বান করে ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে বরিশালের মারুফ খানকে ঠিকাদার মনোনীত করে কার্যাদেশ প্রদান করে। কাজের সময়সীমা বেঁধে দেওয়া হয় ২০১৫ সালের ২১ জুলাই পর্যন্ত। রেট কোট অনুযায়ী এতে ব্যয় বরাদ্দ করা হয় ২৩ কোটি ৪২ লাখ টাকা। ২৪৫ মিটার দৈর্ঘ্যের ও ৭.৩ মিটার প্রস্থের এ সেতুতে ৩৫ মিটারের সাতটি স্যাপ, ১২টি পিলার, দুটি অ্যাবাটমেন্ট, ৪০০ মিটার অ্যাপ্রোচ সড়ক ও সেতুর দু’পাশে মানুষের চলাচলের জন্য ওয়াকওয়ে নির্মাণ করার আদেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। ঠিকাদার নির্ধারিত সময়ে কাজ শেষ করতে পারেননি। অতিরিক্ত দেড় বছর সময়ক্ষেপণ করে ২০১৭ সালের প্রাথমদিকে সেতুর মূল কাঠামোর নির্মাণকাজ শেষ করেন। এখনও সেতুর দুই প্রান্তে অ্যাপ্রোচ সড়কের ৪০০ মিটারের কাজ অসমাপ্ত রয়েছে। উলানিয়া বন্দর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মজিবর রহমান জানান, যে শম্ভুক গতিতে সেতুর নির্মাণকাজ হয়েছে তার চেয়েও ধীরলয়ে অ্যাপ্রোচ সড়কের কাজ চলছে। ইচ্ছামাফিক দু’একদিন কাজ করে মাসের পর মাস ঠিকাদারের লোকজনকে কাজ করতে দেখা যায় না। গলাচিপা উপজেলার পূর্ব প্রন্তে ব্যবসায়ের জন্য বিখ্যাত উলানিয়া বন্দর ও নদীর অপর তীর দশমিনা উপজেলার আরেক ব্যবসাবন্দর রণগোপালদি।

রতনদি তালতলী ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জানান, এ সেতুটি চালু হলে দুই উপজেলাবাসীর যোগাযোগে যেমন সুবিধা হবে, তেমনি ব্যবসা-বাণিজ্য বৃদ্ধি পাবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

স্বরাষ্টমন্ত্রীর কাছে ২৫ জন জলদস্যুর আত্মসমর্পন 

0

সোহাগ হোসেন দুমকি (পটুয়াখালী), ৩০ এপ্রিল : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে ৩১ অস্ত্র জমা দিয়ে আত্মসমর্পণ করেছেন সুন্দরবনের জলদস্যু বাহিনীর ২৫ সদস্য। শনিবার বেলা ১টায় পটুয়াখালী শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে র‌্যাব-৮ এর পটুয়াখালী ক্যাম্পের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে এ আত্মসমর্পনের আয়োজন করা হয়েছে। এ সময় র‌্যাবের মহা-পরিচালক বেনজীর আহমেদ এবং র‌্যাব-৮ এর অধিরনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ আনোয়ার উজ জামান সহ আইন শৃংঙ্গলা বাহিনী সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
আলিফ ও কবিরাজ বাহিনীর প্রধানসহ বাহিনী দুটির এসব সদস্য আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের কাছে আত্মসমর্পণ করেন। এদের মধ্যে আলিফ বাহিনীর প্রধান আরিফ মোল্লা ওরফে দয়ালের নেতৃত্বে ১৯ জন এবং কবিরাজ বাহিনীর প্রধান ইউনুস আলী শেখ ওরফে কবিরাজের নেতৃত্বে বাহিনীটির ছয় সদস্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে অস্ত্র জমা দেন। জমা দেয়া অস্ত্রের মধ্যে ছিল ১০টি বিদেশি একনলা বন্দুক, সাতটি বিদেশি দোনলা বন্দুক, চারটি (২২ বোর) বিদেশি এয়ার রাইফেল, ছয়টি ওয়ান শ্যুটারগান এবং চারটি কাটা রাইফেলসহ ৩১টি আগ্নেয়াস্ত্র। এছাড়া ১১শ’ ১০ রাউন্ড গোলাবারুদও জমা দেন তারা। আত্মসর্মপণ কারীদের বাড়ি সাতক্ষীরা বাগেরহাট ও বিভিন্ন জায়গায় আত্মসর্মপণ কারীদের প্রত্যেকের পরিবারে ২০০০০/- টাকা ও বস্ত্র বিতরণ করেন স্বরাষ্টমন্ত্রী।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব 

সোহাগ হোসেন দুমকি (পটুয়াখালী), ২৯ এপ্রিল : পটুয়াখালী লাউকাঠি সেতুর টোলঘর এলাকা থেকে ৬ কেজি গাঁজাসহ মোঃ হাসান গাজী (২৫) নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব-৮, পটুয়াখালী ক্যাম্পের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ ছুরত আলম এর নেতৃত্বে র‌্যাবের বিশেষ দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার সকালে লাউকাঠি সেতুর টোলঘর এলাকায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা কুয়াকাটা গামী নাইটকোচ সমুদ্র সৈকত ঢাকা মেট্রো-ব-১৫-০৩৫৯ পরিবহনে অভিযান চালিয়ে হাসান গাজীর কাছে ৬ কেজি গাঁজাসহ গ্রেফতার করে। দীর্ঘদিন যাবত হাসান গাজী বিভিন্ন এলাকায় মাদক ব্যবসা করে আসছে বলে জানায়।

বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার চাওরালোদা এলাকার মোঃ ধলু গাজীর পুত্র বলে র‌্যাব জানায়। মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের শেষে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পটুয়াখালীতে মেডিকেল কলেজ স্থানান্তরের প্রতিবাদে মানববন্ধন 

সোহাগ হোসেন (পটুয়াখালী), ২৫ এপ্রিল : পটুয়াখালীতে মেডিকেল কলেজ স্থানান্তরের প্রতিবাদে মানববন্ধন, বিক্ষাভ মিছিল এবং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা জেনালের হাসপাতাল প্রাঙ্গনে প্রথম দফায় মানববন্ধন পরে একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রদর্শন করেন কয়েক হাজার নারী ও পুরুষ। এ সময় ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেয়া পটুয়াখালীর বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার হাজারো মানুষ।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় ২৫০শয্যার জেনারেল হাসপাতাল ও চলমান মেডিকেল কলেজের সামনের সড়কে সাড়িবদ্ধ হয়ে মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করে পটুয়াখালীর সর্বস্তরের মানুষ। মানববন্ধন শেষে হাজারো নারী-পুরুষ একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রদর্শন করে জেলা প্রশাসকের কার্যলয়ের সামনে সমাবেশ করেন। মিছিল ও সমাবেশে পটুয়াখালী মহিলা আসনে সংসদ মোসাঃ লুৎফুননেছা বেগমরে স্বামীকে ইঙ্গিত করে অশোভণীয় স্লোগান দেয়া হয়।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি এড. নুরুল হক তালুকদার, মো: ইসমাইল হোসেন মৃধা, সাধারন সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খান মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক কাজী আলমগীর, বিশিষ্ট সমাজসেবক আবুল হোসেন আবু মিয়া, গণফোরাম সভাপতি এড. (কমরেড )আ: আজিজ, সদর উপজেলা আ’লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাধারন সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়রম্যান এড. মনিরুজ্জামান মনি, দুমকি উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মো: শাহজাহান সিকদার, ব্যবসায়ী প্রতিনিধি মহিউদ্দিন আহম্মেদ, জেলা মহিলা আ’লীগের সভানেত্রী কাজী হেলেন প্রমুখ। সমাবেশ শেষে বেলা সাড়ে ১২টায় জেলা প্রশাসক দপ্তরে তাঁর মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাবরে একটি স্মারক লিপি পেশ করা হয়।

উল্লেখ্য, পটুয়াখালী বাসীর র্দীঘ দিনের দাবীর প্রেক্ষিতে পটুয়াখালীর সাবেক সংসদ, সাবেক ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এ্যাড শাহজাহান মিয়ার প্রচেষ্টায় ২০১৫ সালের ১০ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ স্থাপনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। পটুয়াখালীর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালের  অবকাঠাতেই ৫০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী  মাসে প্রধান মন্ত্রী শেখ  হাসিনা পটুয়াখালী মেডিকেল  কলেজের অগ্রগতির লক্ষ্যে মন্ত্রী সভায় একনেকে ৫৮৪ কোটি টাকা পাশ করেন। তারই ধারাবাহিকতায় প্রশিক্ষন প্রাপ্ত (ইনর্টানি) ডাক্তাদের জন্য ২৮ কোটি ব্যয়ে পৃথক দুইটি ছাত্রাবাস নির্মানের জন্য মার্চ মাসে পৃথক দুইটি দরপত্র আহবান করেন পটুয়াখালী গনপূর্ত বিভাগ। আর ছাত্রাবাস নির্মানের জন্য পটুয়াখালী সরকারী নার্সিং কোয়াটারের পূর্বপাশের শূন্য জমিটি র্নিধারন করা হয়।

এ দিকে মেডিকেল কলেজ স্থানান্তরের জন্য পটুয়াখালীর মহিলা সংরক্ষিত আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য মোসাঃ লুৎফুননেছা বেগমের স্বামী ও পটুয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাড. সুলতান  আহমেদ মৃধা পৌর শহরের বাহিরে বহাল গাছিয়া এলাকায় উক্ত মেডিকেল  কলেজ স্থানান্তর  করা জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ে আবেদন করেন। ওই আবেদন তার স্ত্রী মহিলা সংসদ সদস্য মোসাঃ লুৎফুননেছা বেগমের সুপারীশ করেন। ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে   ১২ এপ্রিল স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয় নতুন জমি পরিদর্শনের জন্য মন্ত্রনালয় কর্তৃক একটি কমিটি করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে পটুয়াখালীর সর্বোস্তরের জনতা ফুঁসে ওঠে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বিএনপির দু’গ্রুপের সমাবেশ আহবান, ১৪৪ ধারা জারি 

land-circular20170228163045

সোহাগ হোসনে, দুমকি (পটুয়াখালী), ২২ এপ্রিল : কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের একটি দল আগমন উপলক্ষে পটুয়াখালীতে বিএনপির দু’গ্রুপের একই এলাকায় সমাবেশ আহবান করায় ১৪৪ ধারা জারি করেছে জেলা প্রশাসন।

শনিবার সকাল ৯টায় জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে তৃনমূল থেকে শুর করে জেলা পর্যায়ে বিএনপির প্রতিনিধি সভা হওয়ার কথা রয়েছে । সভাকে কেন্দ্র করে আইন শৃংঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশংকায় শনিবার সকাল ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারী করা হয়েছে। শহরের সার্কিট হাউজ ও এর আশ পাশের এলাকায় কোন সভা-সমাবেশ করা যাবেনা বলে এক আদেশে দিয়েছেন জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী। এ দিকে একই সময় শহরের বটতলা এলাকায় যুব সমাবেশ ডেকেছে থানা যুবদল।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এমএ রব মিয়া এর সাথে ফোন আলাপে জানান, জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলীয় নেতা-কর্মীদের চাঙ্গাঁ করতে কেন্দ্র থেকে নেতৃবৃন্দ জেলা পর্যায়ে সফর করবেন বলেই শহরের শেরে-বাংলা পাঠাগারে এই প্রতনিধি সভা আহবান করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের বাসা থেকে বের হওয়াসহ কোন সমাবেশ করা যাবেনা জানিয়েছেন প্রশাসন পক্ষ থেকে।

কেন্দ্রীয় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহামুদ চৌধূরীসহ নেতৃবৃন্দ প্রতিনিধি সভায় নেতৃবৃন্দ যোগ দেয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া কারা কোথায় সমাবেশ ডেকেছেন তা আমার জানা নেই। এদিকে জেলা ছাত্রদল সভাপতি আশফাকুর রহমান বিপ্লব জানান, জেলা বিএনপির সহ সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খান নান্নু, বিএনপির সভা আহবান করে শেরে বাংলা পাঠাগারে অনুমতি চেয়ে প্রশাসনের কাছে আবেদন করেন। সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও জেলা বিএনপির সভাপতি এয়ার ভাইস মার্শাল (অব:) আলতাফ হোসেন চৌধূরীরর বাসভবন সুরাইয়া ভবন ও শহরের বটতলা এলাকায় যুব সমাবেশ আহবান করেছে যুবদল নেতা এড. রুহুল আমীন রেজা। তাই প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৪৪ ধারা জারী করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী জানান, একই স্থানে বিএনপির দু’গ্রুপ সভা-সমাবেশ আহবান করায় আইনশৃংঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি হতে পারে। তাই শহরের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সার্কিট হাউস ও শেরে বাংলা সড়ক এবং এর আশপাশের এলাকায় সকল সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

জঙ্গিবাদ, মাদক ও বাল্য বিবাহকে লালকার্ড 

0000

মোঃ সোহাগ হোসেন দুমকি (পটুয়াখালী), ২১ এপ্রিল : পটুয়াখালীতে জঙ্গিবাদ, মাদক, ইভটিজিং ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে লালকার্ড প্রদর্শন করে শপথ নিলো চারটি বিদ্যালয়ের প্রায় দুই সহস্রাধিক শিক্ষার্থী। বুধবার সকালে শেরে বাংলা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, রশিদ কিশালয় বিদ্যায়াতন, লতিফ মিউনিসিপাল সেমিনারি ও পুলিশ লাইন্স মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এক যোগে এই শপখ বাক্য পাঠ করেন।

স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান “লাল-সবুজ উন্নয়ন সংঘ” পটুয়াখালী জেলার শাখার আয়োজনে ও কেন্দ্রীয় সভাপতি কাওসার আলম সোহেলের সভাপতিত্বে লালকার্ড প্রদর্শন ও শপথ নেওয়ার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের শপথ বাক্য পাঠ করান পটুয়াখালী জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার নূরনাহার, সম্মিলিত সংস্কৃতিক জোটের সাধারন সম্পাদক মুজাহিদুল ইসলাম প্রিন্স ও শেরে বাংলা বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আমীর।

শেরে বাংলা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাহেব আলী পাঠান শিক্ষার্থীদের নিয়মিত পড়াশোনা করে নিজকে যোগ্য নাগরিক হিসাবে গড়ে তুলতে, সকল প্রকার মাদক বর্জন ও ছেলেরা ২১ বছর এবং মেয়েরা ১৮বছর আগে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ না হওয়ার শপথ পাঠ করান। চারটি বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠনটি পরিচালনা করেন পটুয়াখালী লাল সবুজ উন্নয়ন সংঘ শাখার সিনিয়র সদস্য জুনায়েদ হাসান ইভান, আসিফুজ্জামান, মাইনুদ্দিন, আফনান হোসেন, সাইফ মাহমুদ সিয়াম ও নাফিজ আব্দুল্লাহ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ইউপি সদস্যের বাড়িতে সন্ত্রাসী হামলা: মহিলাসহ আহত ৪ 

সোহাগ হোসেন দুমকি (পটুয়াখালী), ১৯ এপ্রিল : পটুয়াখালীর দুমকিতে নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া এক স্কুলছাত্রীকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় সাবেক ইউপি সদস্যের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বসতঘর ভাংচুর-লুঠপাট ও মহিলাসহ ৪ জনকে পিটিয়ে জখম করেছে বখাটে সন্ত্রাসীরা। গ্রামবাসীরা ধাওয়া করে ৩ সন্ত্রাসীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় উপজেলার মুরাদিয়া ইউনিয়নের উত্তর মুরাদিয়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উত্তর মুরাদিয়া গ্রামের নূর আলম মোল্লার কিশোরী কন্যা মুরাদিয়া জয়গুণনেচ্ছা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী তানিয়া আক্তারকে একই ইউনিয়নের উত্তর মুরাদিয়া গ্রামের বাহাদুর নামের এক বখাটে যুবক উত্যক্ত করে আসছিল। ওই ঘটনার প্রতিবাদ করায় বখাটে বাহাদুরের নেতৃত্বে বাবু ফরাজী, রনি চৌকিদার, কামাল গাজীসহ ১০/১২ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী সাবেক ইউপি সদস্য মৃত- আবদুল কুদ্দুস মোল্লার বাড়িতে হামলা চালিয়ে বসতঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে।

সন্ত্রাসীদের এলোপাথারি মারধরে মশিউর মোল্লা (২২), দুলাল মোল্লা (১৮), নাইম মোল্লা (১৭), নূরজাহান বেগম (৫৫) গুরুতর জখম হয়েছে। আহতদের ডাকচিৎকারে প্রতিবেশী লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। গ্রামবাসীদের ধাওয়ার মুখে বখাটে বাহাদুরসহ সন্ত্রাসীরা পালিয়ে গেলেও ৩ সন্ত্রাসীকে  আটক করতে সমর্থ হয়। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে ধৃত বাবু ফরাজী পিং সোহরাব ফরাজী, রনি চৌকিদার পিং বারেক চৌ, কামাল গাজী পিং ইউসুব গাজী সাং জলিশাদের পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে যায়। অপর দিকে আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেকে ভর্তি করা হয়েছে।

এঘটনায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়া চলছে। দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ দিবাকর চন্দ্র দাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিৎ করে বলেন, মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর