২৯ মে ২০১৭
সকাল ৮:০৩, সোমবার

সন্ধ্যা নদীতে ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ ১

সন্ধ্যা নদীতে ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ ১ 

37

পিরোজপুর, ৩০ ডিসেম্বর : পিরোজপুরের স্বরুপকাঠী উপজেলার সন্ধ্যা নদীতে ট্রলারডুবির ঘটনায় একজন নিখোঁজ হয়েছে বলে জানা গেছে। আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এ ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে।

তবে নিখোঁজ ওই ব্যক্তির নাম, পরিচয় বা বয়স এখনো জানা যায়নি।

স্বরুপকাঠী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পিরোজপুরে সেপটিক ট্যাংকের গ্যাসে দুই শ্রমিকের মৃত্যু 

পিরোজপুরে সেপটিক ট্যাংকের গ্যাসে দুই শ্রমিকের মৃত্যু

ঢাকা, ১৩ আগস্ট : পিরোজপুরের পিটিআই সড়কে সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কার করতে গিয়ে বিষক্রিয়ায় দুই শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

মৃতরা হলেন-পিরোজপুরের কুমারখালী এলাকার আলম শেখের ছেলে শামীম (৩৫) এবং মঠবাড়িয়ার আব্দুল মান্নান হাওলাদারের ছেলে আলীম (৩০)।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পিরোজপুর সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বিশ্বাস।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পিরোজপুরে স্কুলছাত্রীকে গণধর্ষণ 

087555444

পিরোজপুর, ৭ আগস্ট : পিরোজপুরের কাউখালীতে অষ্টম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। শনিবার বিকালে স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে রাস্তা থেকে তাকে উঠিয়ে নিয়ে পার্শ্ববর্তী একটি পরিত্যক্ত ঘরে পালাক্রমে ধর্ষণ করে স্থানীয় কিছু বখাটে।

পরে স্থানীয়রা ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীটিকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে শনিবার রাতেই তার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়।

এ বিষয়ে হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার ফারহানা রহমান জানান, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বিভিন্ন ধরনের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। ডাক্তারি পরীক্ষার পর রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত বলা যাবে।

খবর পেয়ে রাতেই সদর হাসাপাতালে ভিকটিমের সঙ্গে কথা হয়েছে বলে জানান পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মো. ওয়ালিদ হোসেন। তিনি বলেন, আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মঠবাড়িয়ায় ১৩০০ জনকে আসামি করে মামলা 

138232_1

পিরোজপুর, ২৪ মার্চ : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতার ঘটনায় অজ্ঞাতপরিচয় এক হাজার ২০০ থেকে এক হাজার ৩০০ গ্রামবাসীকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ। বুধবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে মঠবাড়িয়া থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ।

ধানীসাফা ইউনিয়নের সাফা মহাবিদ্যালয় কেন্দ্রের দায়িত্বরত আর্মড পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) সানোয়ার আলী খান বাদী হয়ে মঠবাড়িয়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মামলার এজাহারে ব্যালট বাক্স ছিনতাই, গাড়ি ভাঙচুর ও ম্যাজিস্ট্রেটকে কোপানোসহ বিভিন্ন অভিযোগের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

গত ২২ মার্চ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সাফা মহাবিদ্যালয় কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স ছিনতাই চেষ্টা, ম্যাজিস্ট্রেটের ওপর হামলা ও অবরুদ্ধ করে রাখায় ঘটনা ঘটে। সে সময় পরিস্থিতি মোকাবিলায় পুলিশ গুলি চালালে পাঁচজন নিহত হন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীকে হয়রানীর অভিযোগ 

পিরোজপুর

পিরোজপুর, ১২ মার্চ : পিরোজপুর সদর উপজেলার কদমতলা ইউনিয়নের বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: আব্দুস ছালাম শেখকে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান ও তার সমর্থক কর্তৃক হয়রানীর অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছে সদর উপজেলা বিএনপি।

শনিবার দুপুরে পিরোজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গাজী ওয়াহিদুজ্জামান লাভলু।

লিখিত বক্তব্য অভিযোগ করা হয়, বিএনপির মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের ঘর থেকে বের হতে দেয়া হচ্ছে না। আর কেউ প্রচার চালালে তাদের মরধর করা হচ্ছে। চেয়ারম্যান প্রার্থীর ভাই কে প্রচার চালানোর সময় হত্যার হুমকি দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ আনা হয় লিখিত বক্তব্যে।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক শেখ শহিদুল্লাহ শহীদ, কদমতলা ইউনিয়নে বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী মো: আব্দুস ছালাম শেখসহ বিএনপির নেতৃবৃন্দ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রদল নেতা নিহত 

image-2883

পিরোজপুর, ৯ মার্চ : পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় নির্বাচনী সহিংসতায় শামসুল হক ছোট্ট ছাত্রদলের এক নেতা নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত শামসুল উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শেখমাটিয়া ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

স্থানীয়রা জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শেখমাটিয়া ইউনিয়নের খেজুরতলা এলাকা থেকে বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. তৌহিদুল ইসলামের কর্মিসভা শেষে বাড়ি ফিরছিলেন ছোট্ট। পথে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী এস এম কাইউম-উজ জামানের কর্মীরা শামসুল হক ছোট্ট ও ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেনের ওপর হামলা চালায়। এতে তারা গুরুতর আহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাদের খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মধ্যরাতে শামসুল হক ছোট্ট মারা যান।

এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনও একই কথা বলেন। তিনি জানান, কর্মিসভা থেকে ফেরার পথে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকজন এ হামলা চালায়।

নাজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মল্লিক নাসির উদ্দিন জানান, লাশ এখনো নাজিরপুরে এসে পৌঁছেনি। মামলা প্রক্রিয়াধীন আছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পিরোজপুরে জেলা পরিষদ প্রশাসক কে হচ্ছেন ? 

03

মিজানুর রহমান পনা, রাজাপুর(ঝালকাঠী), ২৭ অক্টোবর : পিরোজপুরের জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক এ্যাডঃ আকরাম হোসেনের মৃত্যুতে এ পদটি শূণ্য হওয়ায় কে হবেন জেলা পরিষদ প্রশাসক তা নিয়ে ঢাকায় চলছে লবিং ও জোর তদবির।

যাদের নাম শোনা যাচ্ছে সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যক্ষ শাহ আলম, বাংলাদেশ আওয়ামী সমবায় লীগের সভাপতি, ডেইলী বাংলা এসকাই পত্রিকার সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা মোঃ আমিনুর রহমান সগীর, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এ্যাডঃ এম এ হাকিম হাওলাদার, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী অধ্যাপিকা লায়লা ইরাদ  প্রমুখ। এদিকে প্রশাসক পদটি পেতে ঢাকায় আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতা, মন্ত্রীদের কাছে অধিকাংশ প্রার্থী ধর্ণা দিচ্ছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফেসবুকে বাংলায় নাম নিষিদ্ধ, অতঃপর… 

ফেসবুকে বাংলায় নাম নিষিদ্ধ, অতঃপর...

রফিকুল ইসলাম কামাল : সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বাংলায় নাম লেখা যাবে না। এ রকম একটা শোরগোল সম্প্রতি উঠেছিল। ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা জাকারবার্গ নাকি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, বাংলায় যাদের নাম আছে, তাদের নাম পাল্টে ইংরেজি অক্ষরে পরিবর্তন করতে হবে। সত্য-মিথ্যা থাক, বাস্তবে যদি সত্যিই ফেসবুকে বাংলায় নাম লিখা নিষিদ্ধ হয়, তবে দেশের কে কী প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে পারেন, তার কিছু নমুনা দেখুন।

হসরকার-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি
জাকারবার্গের এই আচমকা সিদ্ধান্তের পেছনে গভীর কোনো ষড়যন্ত্র রয়েছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। কিন্তু আমরা বলে দিতে চাই, ফেসবুকে বাংলায় নাম লিখতে না দিলে আমরা কঠোর হতে বাধ্য হবো। হুম!

হসরকারবিরোধী ব্যক্তি
এমন সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানাই আমরা! এই স্বৈরাচারী সিদ্ধান্ত মানি না! এটা বর্তমান সরকারের আচরণের মতো একতরফা আচরণ! এর প্রতিবাদে ফেসবুকে হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে ‘জাকারবার্গ নিপাত যাক’ লিখে টানা তিন দিন ফেসবুকে অবরোধের ডাক দিলাম আমরা!

হঅতি উৎসাহী ব্যক্তি
এটা কী হলো! এটা কেন হলো! না, না, এটা হতে পারে না! বাংলার ফেসবুকার জলদি সবাই এক হও! আজ থেকে ফেসবুকের পণ্য বর্জন করার ডাক দেওয়া হলো! যারা জানেন না, তাদের জন্য ফেসবুকের পণ্যের তালিকা দেওয়া হচ্ছে। ফেসবুকের পণ্যের মধ্যে রয়েছে লাইক, কমেন্ট, শেয়ার, পোক, চ্যাট, স্ট্যাটাস প্রভৃতি! যারা যারা বুঝতে পেরেছেন, তারা লাইক, কমেন্ট, শেয়ার করে বুঝিয়ে দিন!

হচাপাবাজ এটা নিয়ে চিন্তার কিছু নাই! আরে মশাই, জাকারবার্গ আমার ঘনিষ্ঠ বন্ধু! তারে এ ব্যাপারে বুঝাইয়া বললেই সে এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেবে! যত যাই হোক, আমি কিছু বললে সে ফেলতে পারে না! এই তো আগামী সপ্তাহে জাকারবার্গের আমন্ত্রণে তার সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছি! আমাকে কয়দিন না দেখে সে একেবারে উতলা হয়ে উঠেছে! নিজের প্রাইভেট জেট বিমান আমার জন্য পাঠিয়ে দিচ্ছে সে! আমি বলবনে তাকে! আপনারা টেনশান নিয়েন না!

হআরজে হোয়াট, মানে কী! জাকারবার্গ ফেসবুকে বাংলায় প্রোফাইল নেম রাইট নিষিদ্ধ করছে! এটা হোয়াট হলো! নো, দ্যাট ইজ ভেরি খারাপ ডিসিশান! ওহ নো জাকারবার্গ! দয়া করে চেঞ্জ ইউর সিদ্ধান্ত!

হপাগলা বাবা ফেসবুক! জাকারবার্গ! ওইটা আবার কেডা! ও কি আমার সাম্রাজ্যের ভাগ নিতে চায়! আমি মেন্টাল হাসপাতাল থিকা বাইর হইলে কিন্তু ওর খবর আছে!

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ছেলের বউ পছন্দ না, তাই নাতনিকে ছ্যাঁকা 

2

পিরোজপুর, ১০ অক্টোবর : ছেলের বউ পছন্দ না হওয়ায় সাড়ে তিন মাস বয়সী নাতনিকে তার দাদি গরম খুন্তি দিয়ে ছ্যাঁকা দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিশুটি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁর ডান পায়ের ঊরুতে বেশ বড় ধরনের ক্ষত তৈরি হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তা সেরে উঠতেও সময় লাগবে। তবে এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ করা হয়নি।

ঘটনাটি গত বুধবার পিরোজপুর সদর উপজেলার ভৈরমপুর গ্রামে ঘটে। নির্যাতিত শিশুটি গ্রামের শাহ আলম খানের ছেলে বাহরাইন প্রবাসী শফিক খানের মেয়ে ছোঁয়া। এ ঘটনায় বিচার দাবি করেছেন শিশুর মা হাসি বেগম। তবে এ ব্যাপারে শিশুটির দাদি মুরফিয়া বেগমের কোনো বক্তব্য সংগ্রহ করা যায়নি।

শিশুটির পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের প্রথম দিকে শফিকের সঙ্গে হাসির বিয়ে হয়। বিয়ের আগে শফিক পাঁচ বছর বাহরাইন ছিলেন। বিয়ের দুই মাস পর তিনি আবার বাহরাইন চলে যান। এর পর থেকেই বিভিন্ন সময় শফিকের মা মুরফিয়া বেগম ছেলের বউ হাসির ওপর নির্যাতন চালাতেন। এই অবস্থার মধ্যেই হাসি মেয়েশিশুর জন্ম দেন এবং অধিকাংশ সময় বাবার বাড়িতেই থাকতেন।

হাসির বাবা-মা অভিযোগ করেন, সম্প্রতি শাশুড়ি মুরফিয়া অসুস্থতার কথা বলে ছেলের বউকে নিজ বাড়িতে নিয়ে যান। গত বুধবার গরম খুন্তি দিয়ে ছোঁয়ার ডান পায়ের ঊরুতে ছ্যাঁকা দেন তার দাদি মুরফিয়া। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে হাসি তাঁর শাশুড়িকে গালমন্দ করেন। এতে মুরফিয়া আরো ক্ষেপে গিয়ে দা দিয়ে হাসিকে আঘাত করেন। তাতে হাসির মাথার কয়েক গোছা চুল কেটে যায়।

একপর্যায়ে মুরফিয়া খুন্তি গরম করার জন্য আবারও রান্নাঘরে গেলে হাসি সেখান থেকে পালিয়ে বাবার বাড়ি চলে আসেন বলে জানান হাসির বাবা-মা। তাঁরা এ ঘটনার বিচার দাবি করেন।

গত বুধ ও বৃহস্পতিবার ছোঁয়াকে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বাড়িতে নিয়ে যায় নানাবাড়ির লোকজন। শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে গতকাল শুক্রবার রাতে ছোঁয়াকে আবারও পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সে এখন চিকিৎসাধীন আছে।

আহত ছোঁয়ার মা হাসি জানান, বিয়ের পর থেকে শাশুড়ি তাঁর ওপর বিভিন্ন সময়ে নির্যাতন চালিয়ে আসছেন। মেয়েকে খুন্তির ছ্যাঁকা দেওয়ার পর তাঁর ভাসুর রফিক খান হাসপাতালে এসেছিলেন ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে। এ ছাড়া শ্বশুরবাড়ি থেকে কেউ ছোঁয়াকে দেখতে আসেনি। তিনি এ ঘটনার বিচার দাবি করেন।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা (আরএমও) ননী গোপাল রায় জানান, শিশুটির ক্ষত বেশ বড় এবং এটি সেরে উঠতে সময় লাগবে। এ ধরনের ঘটনা খুবই মর্মান্তিক ও অনাকাঙ্ক্ষিত।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনায়েত হোসেন জানান, এ ঘটনায় এখনো কোনো মামলা হয়নি। মামলা হলে পুলিশ যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।

এ ব্যাপারে হাসির শাশুড়ি মুরফিয়ার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।-এনটিবি

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পরীক্ষার নামে রোগীকে বিবস্ত্র করে চিকিৎসকের যৌন লালসা 

0f

পিরোজপুর, ১৭ সেপ্টেম্বর : মহিলা রোগীদের ডাক্তারি পরীক্ষার নামে বিবস্ত্র করতেন তিনি। এর পর স্পর্শকাতর অঙ্গে হাত দিয়ে যৌন লালসা চরিতার্থ করতেন। সেই দৃশ্য আবার ব্যক্তিগত মুঠোফোনে ধারণ করতেন। তারপর সেই ভিডিও দেখিয়ে বাধ্য করতেন তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতে।

তিনি আর কেউ নন, চিকিৎসক নজরুল ইসলাম। বুধবার রাতে তার তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার শাপলা ক্লিনিকে নাসরিন আক্তার (২৪) নামের এক প্রসূতির মৃত্যু হয়। রাতেই চিকিৎসক নজরুল ইসলাম ও ক্লিনিকের মালিকের ভাই আজিজুর রহমানকে আটক করে পুলিশ। সিলগালা করে দেওয়া হয় ক্লিনিকটি।

চিকিৎসক নজরুল ইসলামকে আটকের পর বেরিয়ে আসে তার নানা কুকর্মের কাহিনী। বৃহস্পতিবার দুপুরে পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মো. ওয়ালিদ হোসেন তার কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য দেন।

তিনি জানান, নজরুল ইসলাম মহিলা রোগীদের আলট্রাসনোগ্রাফি ছাড়াও যে কোন ধরনের ডাক্তারি পরীক্ষার সময় তাদের যৌন নিপীড়ন করতেন। এসব যৌন নিপীড়নের কতকগুলো ভিডিও ক্লিপ জব্দ করা হয়েছে। ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, আলট্রাসনোগ্রাফির সময় নজরুল ইসলাম নারীদের সম্পূর্ণ বিবস্ত্র করতেন। এর পর তিনি তাদের স্পর্শক্তর স্থানে মালিশ করেন।

এসপি জানান, শুধু তাই নয়। মহিলা রোগীদের পরিধেয় কাপড়ও খুলে তাদের উলঙ্গ করেন। আর এ সকল ঘটনা তিনি গোপনে তার ব্যক্তিগত মুঠোফোনে ধারণ করেন। পরবর্তীতে ওই সকল মহিলাদের ফোন করে তাদের ভিডিও ক্লিপের ভয় দেখিয়ে বাধ্য করতেন তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক গড়ে তুলতে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায, মহিলা রোগীদের এভাবে যৌন নিপীড়নের দায়ে পিরোজপুরের দুইটি ক্লিনিক থেকে নজরুলকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। একটি ক্লিনিকে যৌন নিপিড়নের দায়ে এর আগেও একবার নজরুলকে আটক করেছিল পুলিশ।

এসব ঘটনার পর নজরুল শহরের শতাব্দী ডায়াগনস্টিকের সামনে একটি চেম্বার খুলেছেন। এ ছাড়া শহরের বাইরে বিভিন্ন উপজেলার ক্লিনিকে তিনি রোগী দেখেন।

ভান্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, প্রসূতি নাসরিন আক্তারের মৃত্যুর ঘটনায় তার বাবা ভান্ডারিয়া উপজেলার মধ্য ভান্ডারিয়া গ্রামের শাহজাহান হাওলাদার বাদী হয়ে ডা. নজরুল ইসলাম, ক্লিনিক মালিক স্বপন এবং অপারেশনে সহায়তাকারী তার ভাই আজিজুর রহমানের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ২-৩ জনের নামে একটি মামলা করেছেন।

নাসরিন বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার সেলিম হাওলাদারের স্ত্রী।

বৃহস্পতিবার নজরুল ও আজিজুরকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। আদালত তাদের রিমান্ড মঞ্জুর না করে জেল হাজতে পাঠায়।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শাপলা ক্লিনিকে নাসরিনকে ভর্তি করেন তার পরিবার। পরের দিন বুধবার সকাল ৮টায় তার সিজারিয়ামের অপারেশন করার কথা থাকলেও, অপারেশন করা হয় দুপুর আড়াইটায়। ওই ক্লিনিকে কোন অনুভূতিনাশক প্রয়োগকারী না থাকলেও, নিজেই ঝুঁকি নিয়ে ওই রোগীকে অনুভূতিনাশক প্রয়োগ করেন নজরুল। বিকেল ৫টার দিকে রোগীর নাক মুখ থেকে রক্ত পড়া শুরু হলে হাসপাতালের ম্যানেজারসহ অন্যান্যরা পালিয়ে যায়। নজরুল হাসপাতালের মধ্যে আত্মগোপন করেন।

পরে নাসরিনের আত্মীয়রা মূমূর্ষ অবস্থায় তাকে দ্রুত ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এর আগে নাসরিন একটি পুত্র সন্তান জন্ম দেন। সে সুস্থ আছে।

এতে ক্ষুব্ধ হয়ে স্থানীয়রা ওই ক্লিনিক ঘেরাও করে ভাঙচুরের চেষ্টা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ক্লিনিক থেকে ডাক্তার নজরুল ও আজিজুরকে আটক করে।

নজরুল ময়মনসিংহ সদর উপজেলার চর কালিবাড়ি গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে। ২০০৩ সালে তিনি বরিশাল মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। কয়েক বছর ধরে তিনি পিরোজপুরের বিভিন্ন ক্লিনিকে রোগীদের চিকিৎসার নামে যৌন হয়রানি করে আসছিলেন।-দ্য

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

দুর্বল পেয়ে যা-তা করলেন আ.লীগ নেতা! 

007

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) : আব্দুল খালেক। ৬৫ বছর বয়সী এ ব্যক্তি সেনাবাহিনীর সদস্য ছিলেন। অবসর নেয়ার পর তিনি বিভিন্ন এলাকায় ইসলামি মাহফিলে ওয়াজ করে জীবনযাপন করেন। কিন্তু হঠাৎ তার বিরুদ্ধে জাদুমন্ত্র দিয়ে তদবিরের অভিযোগ দেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা লিটু মুন্সী। পরে তাকে ফোন করে ডেকে নেন নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে। তিনি এলেই তাকে আটকে রেখে মারপিট করেন এবং মাথার চুল কামিয়ে দেন। তবে মারপিটের বিষয়টি ওই আ.লীগ নেতা স্বীকার করলেও চুল কামাননি বলে দাবি করেন।

গত ৫ আগস্ট বুধবার বিকেলে মঠবাড়িয়া উপজেলায় ফুলঝুরি গ্রামের ধানীসাফা বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পরে ভুক্তভোগী ওই সাবেক সেনা সদস্য র‌্যাব কার্যালয়ে গিয়ে অভিযোগ দিলে তাদের পরামর্শে মঠবাড়িয়া থানায় গিয়ে সাধারণ ডায়রি (জিডি) করেন।

মারধরকারী লিটু মুন্সী মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানীসাফা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক।

মারধরের শিকার আব্দুল খালেক অভিযোগ করেন, বুধবার বিকেলে উপজেলার ধানীসাফা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক লিটু মুন্সী মুঠোফোনে তাকে সাফা বাজারে ডেকে নিয়ে যান। এরপর লিটুর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে তাকে আটকে রেখে মারধর করেন এবং মাথার মাঝখান থেকে পেছনের দিকের চুলের কিছু অংশ কামিয়ে দেন। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে।

এ ঘটনার পর বৃহস্পতিবার তিনি বরিশালের একটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। পরে ওই দিনই তিনি র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৮ কার্যালয়ে গিয়ে অভিযোগ করলে তারা স্থানীয় থানায় লিখিত অভিযোগ করতে বলেন।

সাবেক ওই সেনা সদস্যের ছেলে জানান, তার বাবাকে মারপিট ও মাথার চুল কামিয়ে দেয়ার খবর পেয়ে তাকে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় উদ্ধার করা হয়। তার বাবা ওয়াজ মাহফিল করে বেড়ান বলেও জানায় ছেলে।

এদিকে আওয়ামী লীগ নেতা লিটু মুন্সী মারপিটের বিষয়টি স্বীকার করলেও অস্বীকার করেছেন চুল কামিয়ে দেয়ার বিষয়টি।

তিনি বলেন, ‘ওই ব্যক্তি (সাবেক সেনা সদস্য) জাদুমন্ত্র দিয়ে মানুষকে ফিকির দেন। এ ব্যাপারে তাকে ডেকে কথা বললে তিনি আমাকে বলেন, ভাইজান আপনার আমি ক্ষতি করিনি। এতে আমার সন্দেহ হলে আমি তাকে কয়েকটি চর-থাপ্পর মেরেছি। তবে তার চুল কাটিনি। শুনেছি আমার ঘর থেকে বের হওয়ার পর বাজারের লোকজন তার চুল কেটে দিয়েছে।’

এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘এ ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। থানায় মামলা নেয়া হবে।’

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

নিজ গ্রামে সমাহিত নিলাদ্রী 

image_254250.1

পিরোজপুর, ৯ আগস্ট : পিরোজপুরের নিজ গ্রামের বাড়িতে সমাহিত করা হয়েছে ব্লগার নিলাদ্রী চট্টোপাধ্যায়ের (নিলয় নীল) মরদেহ। শনিবার রাত ২টায় তার মরদেহের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। নীলাদ্রি চট্টোপাধ্যায়কে তার নিজের বাড়িতে কুপিয়ে হত্যা করার পর দুই দিন পেরিয়ে গেলেও এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এতে হতাশা প্রকাশ করেছেন নিহতের পরিবার। এদিকে নিলয় হত্যার ঘটনা সহায়তা করতে রবিবার ঢাকা আসছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) সদস্যরা। শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় নিলয়ের মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স ঢাকা থেকে পিরোজপুর সদর উপজেলার চলিশা গ্রামের তার নিজ বাড়িতে পৌঁছায়। এরপর রাত সোয়া ১২টায় তার মরদেহের শেষকৃত্য শুরু হয়।

আগে থেকেই পারিবারিকভাবে শেষকৃত্যের সব প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হয়েছিল জানিয়ে নীলাদ্রির বোন জয়শ্রী চট্টোপাধ্যায় জানান, তিনি জানান, ১৯ দিন বাড়িতে থেকে গত ২৫ জুলাই নীলাদ্রি ঢাকায় যান। গত বৃহস্পতিবার রাতে তার সঙ্গে নীলাদ্রির শেষ কথা হয়। এদিকে রাতে নীলাদ্রির গ্রামের বাড়িতে মরদেহ পৌঁছানোর পর তার মায়ের আহাজারি ও স্বজনদের কান্নায় পরিবেশ ভারি হয়ে ওঠে। নিলয়কে এক নজর দেখতে তার বাড়িতে মানুষের ঢল নামে। নীলাদ্রি হত্যার বিচারের দাবি করেছে তার গ্রামবাসী এবং পিরোজপুরের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন। নীলাদ্রির হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে পুলিশ বলছে, হত্যার ঘটনা তদন্তে পুলিশের পাশাপশি অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থাও কাজ করছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মুনতাসীর-উল ইসলাম বলেছেন, তদন্তে থানা পুলিশের পাশাপাশি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা সংস্থার পূর্ব অঞ্চলের কর্মকর্তারা কাজ করছেন। তবে ৩৬ ঘণ্টা পেরিয়ে যাবার পরেও কাউকে গ্রেপ্তার করতে না পারাকে এখনই পুলিশের ব্যর্থতা হিসেবে স্বীকার করতে চাননি এ কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ব্লগার হত্যার কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে সত্য। কিন্তু আমরা সবাইকে আশ্বস্ত করতে চাই যে, এ মামলায় অত্যন্ত আন্তরিকতা ও পেশাদারিত্ব নিয়ে আমরা কাজ করছি। এ ক্ষেত্রে কোনো গাফিলতি করবো না আমরা।

গত কিছুদিন ধরেই হুমকি পাওয়ার পর নিরাপত্তাহীনতার কথা জানিয়ে নীলাদ্রি আড়াই মাস আগে জিডি করতে গেলেও থানা তা নেয়নি বলে ফেসবুকে এক পোস্টে তিনি উল্লেখ করেছিলেন। ঘটনার পর শুক্রবার রাতেই অজ্ঞাত চারজন ব্যক্তির নামে ঢাকার খিলগাঁও থানায় মামলা করেছেন নিহতের স্ত্রী আশা মনি। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কেউ গ্রেপ্তার না হওয়ায় হতাশা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, যার ব্যথা সেই জানে। কিন্ত আদৌ বিচার পাবো কিনা, তা নিয়ে সংশয়ে আছি। আজকে এত ঘণ্টা পার হয়ে যাবার পর, এখনো একজনকেও পুলিশ ধরতে পারলো না। ফলে আমি জানি না আমি সঠিক বিচার পাবো কিনা।

এদিকে ব্লগার নিলয় হত্যার ঘটনা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশকে (ডিবি) তদন্তে সহায়তা করবে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)। রবিবার এফবিআই সদস্যদের ঢাকায় আসবেন। এ বিষয়ে মিন্টো রোডের ডিবি কার্যালয়ে বৈঠক করবেন তারা। পরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন বলে জানা গেছে। শনিবার সকালে নিলয় হত্যার তদন্তে সহায়তার জন্য ডিবির সঙ্গে যোগাযোগ করে এফবিআই। ডিবির ডিসি মাহবুব আলম বলেন, এফবিআই সদস্যরা নিলয় হত্যার ঘটনার তদন্তের সহায়তা করার জন্য রোববার সকালে ডিবি অফিসে আসবেন। তারা প্রযুক্তিগত সহায়তার পাশাপাশি অন্যান্য কারিগরি বিষয়ে সহায়তা করবে।

ডিবি সূত্র জানায়, ব্লগার নিলয় হত্যার পর শনিবার সকালে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ডিবির এক উপকমিশনারের (ডিসি) সঙ্গে যোগাযোগ করে এফবিআই। এ সময় এফবিআই এ হত্যার তদন্তে সহয়তা করার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। পরে এফবিআইকে আনুষ্ঠানিক অনুমতি দেওয়া হয়। রাজধানী খিলগাঁওয়ের গোড়ানের ১৬৭ নম্বর বাড়ির পঞ্চম তলায় শনিবার দুপুরে বাসাভাড়া নেওয়ার কথা বলে চার যুবক বাসায় প্রবেশ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে নীলাদ্রি নিলয়কে। এ ঘটনায় রাতে তার স্ত্রী আশা মনি অজ্ঞাতপরিচয় চারজনকে আসামি করে খিলগাঁও থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর