২৩ মে ২০১৭
রাত ১:২৬, মঙ্গলবার

কুড়িগ্রামে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, আহত ১

কুড়িগ্রামে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, আহত ১ 

0000

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ১৭ মে : কুড়িগ্রামে জেলা ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের্  ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপের পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ আহত হলে তাকে কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ হাসিনার ৩৭তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আনন্দ র‌্যালী শেষে শহরের কলেজ মোড়স্থ সাধারণ পাঠাগার প্রাঙ্গনে মিলিত হয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এসময় সেখানে উপস্থিত জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি  আমিনুল ইসলাম মঞ্জু মন্ডলের চেয়ারে বসা নিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি নাজমুল হোসেন ও পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম মঞ্জু মন্ডল ও সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদ হাসান লোবানের সামনে দুজনের সমর্থকদের মাঝে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইট পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এতে পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ মাথায় আঘাত প্রাপ্ত হয়ে আহত হলে তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে করে।

এব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম সাকিব জানান, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতির সামনে বেয়াদবি করায় এ ঘটনা ঘটেছে।
এব্যাপারে কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুস সোবহান বলেন, শহরের কলেজ মোড়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

দাশিয়ারছড়ার মাদক সম্রাট সেরা গ্রেফতার 

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ১৫ মে : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সাবেক ছিটমহল দাশিয়াছড়ার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি মাদক সম্রাট সিরাজুল ইসলাম সেরা (৪৫) কে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। সোমবার গভীর রাতে এস আই ইসমাইল হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল দাশিয়ারছড়ার খড়িয়াটারী গ্রামেরর মৃত আ. রাজ্জাক ব্যাপারীর পুত্র মাদক সম্রাট সেরাকে উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের আমসা বাজার এলাকার নিজ ভায়রা আ. সামাদের বাড়ীতে থেকে গ্রেফতার করে।

এলাকাবাসী জানায়, সে বহুদিন যাবৎ এলাকায় মাদকের ব্যবসা করে এলাকার যুবসমাজকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। তাকে গ্রেফতার করায় জনমনে সস্তি ফিরে এসেছে।

উল্লেখ যে, গত ৩০/১১/১৬ কুড়িগ্রামের ডিবি পুলিশ তার নিজ বাড়ীতে তল্লাশী চালিয়ে ১শত ৯ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট আটক করলেও আসামি সেরা পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে তার নামে ওয়ারেন্ট বের হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফুলবাড়ীতে জঙ্গি ও মাদকবিরোধী মতবিনিময় সভা 

84

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২৯ এপ্রিল : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে জঙ্গিবাদ ও মাদক না বলি এ শ্লোগাকে সামনে রেখে উপজেলা শিক্ষক সমিতির আয়োজনে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার সকালে উপজেলার শনিবার ৩টি মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফুলবাড়ী জছিমিয়া মডেল উচ্চ বিদ্যালয়, ফুলবাড়ী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালের পরিচালক ও দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধা  ডাঃ মোঃ হামিদুল হক খন্দকার (অব)। ফুলবাড়ী থানার অফিসার্স ইনচার্জ খন্দকার ফরহাদ রুহানী, উপজেলা শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবেদ আলী খন্দকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক গোলাম রবাবানী সরকার, ফুলবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হারুন অর-রশিদ ও প্রধান শিক্ষক কানাই চন্দ্র ও মোরশেদ আলম প্রমুখ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফুলবাড়ীতে ১৫ কেজি গাঁজাসহ আটক-১ 

0

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২৬ এপ্রিল : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ১৫ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নে পৃর্বফুলমতি এলাকায় এস আই সেলিম ও এস আই তপন দাস এক বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। আটককৃত মাদক ব্যবসায়ী হলেন নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের পৃর্ব ফুলমতি গ্রামের ইলিয়াছ খন্দকারের পুত্র বেলাল খন্দকার(৪৫)।

এ ব্যপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার ফুয়াদ রুহানী জানান, আটক আসামীর বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফেনসিডিলসহ যুবক আটক 

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২৫ এপ্রিল : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে বীরমুক্তিযোদ্ধার  পুত্রকে ১৪ বোতল ফেনসিডিল ও একটি ব্যাটারি চালিত অটোরিকসা সহ আটক করেছে ফুলবাড়ী থানা পুলিশ।  গতকাল গভীর রাতে উপজেলার নাওডাঙ্গা পুলের পাড় এলাকায় এস আই তপন দাস বিশেষ অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। আটককৃত ব্যক্তি হলেন বড়ভিটা ইউনিয়নের উত্তর বড়ভিটা গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা শওকত আলীর মাদক ব্যবসায়ী পুত্র মতিয়ার রহমান(৪০)।

এ ব্যপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ খন্দকার ফুয়াদ রুহানী জানান, আটক আসামীর বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

গ্রাম আদালত সক্রিয়করণে কমিউনিটি সভা 

0000

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২৩ এপ্রিল : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ইউনিয়ন পর্যায়ে বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ(২য় পর্যায়) প্রকল্পের আওতায় কমিউনিটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১০টায় ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ হল রুমে ইউএনডিপি ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অর্থায়নে বেসরকারী সংস্থা ইকো-সোসাল ডেপ্লোভমেন্ট অর্গানাইজেশন(ইএসডিও)এর উদ্যোগে এ কমিউনিটি সভার আয়োজন করা হয়।

এসময় ফুলবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান হারুন অর- রশিদ, প্রবীণ শিক্ষক সৈয়দ আমিনুল ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী গোলাম মোস্তফা সরকার, সাংবাদিক আব্দুল আজিজ মজনু, সংস্থার উপজেলা সমন্বয়কারী মাসুমা সুলতানা ছায়া, ভিলেজ কোর্ট এ্যাসিসট্যান্ট আমিনুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, ইউপি সদস্য আপেল সরকার, মোজাম্মেল হক, আব্দুল লতিফ, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি আশরাফুল আলম বুলবুল, সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক মিলন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

আর কত বয়স হলে আমি বয়স্ক ভাতা পাব : হরিবালার আকুতি 

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ১০ এপ্রিল : বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে ক্রমাগত উন্নয়ন এখন অনেকটাই দৃশ্যমান। এদেশের মানুষের মাথা পিছু গড় আয় অনেকাংশে বেড়েছে। এর পরেও দেশের বৃহৎ একটি জনগোষ্ঠী জীবন সংগ্রামে এখনও ক্ষুধা ও দারিদ্রতার সাথে প্রতিনিয়ত লড়াই করে চলেছে। দারিদ্রের করাল গ্রাস থেকে তারা কোন মতেই মুক্ত হতে পারছে না।

তেমনি বয়সের ভারে নুঁয়ে পড়া লাঠিতে ভর দিয়ে কোন রকমে হাঁটাচলা করতে পারে এবং গ্রামের সব চাইতে প্রবীন ব্যক্তি জীবনের শেষ প্রান্তে এসে বিষন্নতায় ভুগছেন হরিবালা(৮৫) । তাঁর একটাই প্রশ্ন আর কত বয়স হলে আমি বয়স্ক ভাতা পাব? তিনি আর বলেন আমার ইউনিয়নের মেম্বার চেয়ারম্যানের কাছে একটি বয়স্ক ভাতার জন্য আকুতি মিনতি করে ‘আগামীতে আসলে পাবেন’ এই আশ্বাসটুকু ছাড়া আর কিছুই পাই নি। করুণ আকুতি ও দু চোখ ভেজা জলে এ কথাগুলি বলেছিলেন, কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী  উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ চন্দ্রখানা (বজরের খামার) গ্রামের ৮৫ বছর বয়সের বৃদ্ধ হরিবালা । হরিবালার কোন ছেলে সন্তান নেই, তবে চারটি মেয়েকে বিয়ে দিতে গিয়ে সয় সম্বলহীন হয়ে পড়েছেন । এখন নিজ স্ত্রী ছাড়া আর কেউ নেই তাঁর সংসারে । মাত্র ২ শতক জমির  উপর ছোট একটি টিনের চালায় নিজ স্ত্রী নিয়ে কোনভাবেই জীবন যাপন করছেন। হরিবালার শরীলে আগের মত শক্তি না থাকায় দিনমজুরের কাজে কেউ ডাকে না। মাঝে মাঝে দুজনকে উপবাস থাকতে হয় । তবে গরম কালে বাঁশের চাটাই তুলে বসে বসে হাত পাখা তৈরী করে বাজারে বিক্রি করে কোন ভাবে সংসার চালায়।

হরিবালার স্ত্রী শান্তি বালা বলেন, আমরা অসহায় ও গরিব মানুষ আমাদেরকে দেখার জন্য যেন কেউ নেই, আমরা চেয়ারম্যান মেম্বারদেরকে রয়স্ক ভাতার কার্ড  পাওয়ার জন্য টাকা দিতে পারিনা, তাই আমাদের কার্ডও হয়না।

ইউপি সদস্য বিমল চন্দ্রের সাথে কথা হলে তিনি জানান, হবিরবালার রয়স অনুযায়ী তিনি বয়স্ক ভাতা পাওয়ার যোগ্য । সামনে বরাদ্ধ আসলে আমি তাঁর বয়স্ক ভাতা করে দেওয়ার চেষ্টা করব।

এব্যাপারে সদর ইউনিয়নের নর নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান হারুন-অর রশিদ জানান, সাবেক চেয়ারম্যানের আমলে হরিবালার মত মানুষ বয়স্ক ভাতা পায়নি সেটি দুঃখ জনক । সামনের বরাদ্ধে বয়স্ক ভাতার তালিকায় হরিবালার নাম সংযুক্ত করা হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

দুই নারী মাদক ব্যবসায়ী আটক 

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ৯ এপ্রিল : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ৩০ বোতল ভারতীয় মাদক দ্রব্য স্কাপসহ দুই নারী মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে থানা পুলিশ। রবিবার দপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফুলবাড়ী থানার এস আই সেলিম এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার গংগারহাট বাজারের পার্শ্বে দক্ষিণ আজোয়াটারী গ্রামের সীমান্ত ঘেসা রাস্তার উপর স্কাপসহ ওই দুই নারী ব্যবসায়ীকে আটক করেন।আটককৃত নারী মাদক ব্যবসায়ীরা হলেন দক্ষিণ আজোয়াটারী গ্রামের জাইদুল হোসেনের স্ত্রী আফরোজা(২৭) ও একই গ্রামের সোলায়মানের মেয়ে জয়বানু (২৮)।

এব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) খন্দকার ফরহাদ রুহানী বলেন,আটককৃত দুই নারী মাদক ব্যবসায়ীর নামে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। যাহার মামলা নং ০৮।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

করলা চাষে লাভবান ফুলবাড়ীর চাষীরা 

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ৫ এপ্রিল : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে করলার বাম্পার ফলন দাম বেশী হওয়ায় লাভের মুখ দেখেছেন চাষীরা। করলার বাম্পার ফলনের কারণে এখন অনেকেই ঝুঁকে পড়ছেন করলা চাষে। কৃষকের সঙ্গে কিষাণীরাও রীতিমতো করলার ক্ষেতে কাজ করছেন। ফুলবাড়ীর কৃষকের উৎপাদিত করলা কুড়িগ্রামের চাহিদা মিটিয়ে রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ হচ্ছে । প্রতি সপ্তাহে রাজশাহী, চাঁপাই থেকে পাইকাররা এসে করলা কিনে ট্রাকযোগে দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করছেন।

ফুলবাড়ীতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার থেকে করলা কিনতে আসা করলা পাইকার সোলায়ামান (৪৬), একই এলাকার মনির হোসেন (৪৫), নওগাঁ জেলার পরমান্দপুরের মিজানুর রহমান (৩৮) জানান, ফুলবাড়ীর করলার চাহিদা বাজারে বেড়ে যাওয়ায় আমরা এখানে করলা কিনতে এসেছি। অন্যান্য স্থানের চেয়ে এখানকার দেশি করলা ক্রেতার নজর কাড়ে। পাশাপাশি করলার দাম একটু কম হওয়ায় দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে হলেও আমরা এখানকার করলা বিক্রি করে লাভের মুখ দেখেছি।

পাইকাররা  আরো জানান, বাজারের উপর নির্ভর করে প্রতি মণ করলা তারা কৃষকের কাছ থেকে কখনও ১ হাজার ৪০০, অবার কখনও ১০০০, আবার কখনও ৭০০ টাকা দরে কিনছেন। এখানে তারা নিয়মিত করলা কিনবেন। এ জন্য তারা এখানকার কৃষকদের আরো বেশি করে করলা চাষের পরামর্শ দিচ্ছেন। করলা চাষী ফুলবাড়ী উপজেলা সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা আগটারী গ্রামের মোহাম্মদ আলী (৪০),নাসিউদ্দিন(৩৭)ও জাকারিয়া (৪৫) জানান, তারা তাদের জমিতে গত ৩ বছর ধরে করলা চাষ করে আসছেন। বিঘা প্রতি জমিতে  করলা চাষে তাদের খরচ হয় ৭/৯ হাজার টাকা। কিন্তু প্রতি বিঘায় করলা বিক্রি করে তারা আয় করছেন বিঘা প্রতি ৪০থেকে ৪৫ হাজার টাকা।

করলা চাষীরা আর জানান, ধান চাষে সার, তেল, কীটনাশক, কৃষি শ্রমিকের অধিক মূল্য দিয়ে উৎপাদিত ধানের মূল্য না পাওয়ায় তারা এখানে করলা চাষে ঝুঁকেছেন। করলা চাষ তাদের জন্য নতুন হলেও করলা চাষে তারা প্রচুর লাভ দেখছেন। সামনের দিনে চাহিদা মতো অল্প জমিতে ধান চাষ করে বাকি জমিতে করলা চাষ করবেন ।

ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি অফিস সূএে জানা যায়, এবার উপজেলায় ১০০ হেক্টর জমিতে করলা চাষ হয়েছে। ফলনও বাম্পার হয়েছে। করলা চাষে খরচ কম ও লাভ বেশি হওয়ায় কৃষক করলা চাষে আগ্রহ দেখাচ্ছেন। এছাড়াও কৃষি অফিস থেকে কৃষকদের করলা চাষের উপর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফুলবাড়ীতে গরুর খামার করে স্বাবলম্বী আছিয়া বেগম 

0000

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ৩ এপ্রিল : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা গ্রামে চায়ের দোকানদার রফিকুল ইসলামের ৩ সন্তানের জননী গরুর খামার করে এখন স্বাবলম্বী নারী আছিয়া বেগম । স্বামীর গরু পালনের শখ চিরদিনের মতো ধরে রাখতে ছোট গরুর-খামার দেখাশোনা ও পরিচর্যা করে সংসারের চাকা ঘুরিয়েছেন আছিয়া বেগম ।

সোমবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আছিয়া বেগম গরুর খামারটি নিজ বাড়িতে সাত শতাংশ জমির উপর  নির্মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন পরিবেশ। আছিয়া বেগমের  খামার ভরা গরু, বাছুর। তিনি গরুকে খাবার দেয়ার কাজে ব্যস্ত।

আছিয়া বেগম বলেন, ২০ বছর আগে চন্দ্রখানা গ্রামের আমজাদ হোসেনের পুত্র রফিকুল ইসলামের সাথে তার বিয়ে হয়। অভাব অনাটনের সংসার চায়ের দোকান করে কোন মতেই চলত। ৩ বছর আগে সামান্য টাকা দিয়ে ৩টি দেশী গরুর বাছুর নিয়ে শুরু ছোট একটি গরুর খামার। তার পরে তারা ওই তিনটি গরু বিক্রি করে  একটি হলস্টিন ফ্রিজিয়ান গাভী গরু ক্রয় করে । কিছুদিন পর স্বামী রফিকুল চায়ের দোকান করে আর একটি গরু ক্রয় করে। সেই দুইটি গাভী থেকে এখন আমাদের খামারে হলস্টিন ফ্রিজিয়ান নয়টি গরু রয়েছে ।আমরা একন সেই গাভী থেকে প্রতিদিন ৪০ থেকে ৫০ লিটার দুধ বিক্রি করি । এই দুধ বিক্রি করি আমার সংসারের ও ছেলে মেয়েদের লেখাপড়ার খরচ ও সংসারের খরচ ভালই চলছে। এখন আমাদের আর কোন অভাব নেই খামার দিয়ে আমারা স্বাবলম্বী।

আছিয়া বেগমের স্বামী রফিকুল ইসলাম জানান,আমাদের স্বপ্ন ছিল আমি একদিন বড় গরুর খামার করব, তাই সামান্য ৫০ হাজার টাকা দিয়ে তিনটি গরুর বাছুর কিনে গরু খামার শুরু করি ।এখন স্বপ্ন সত্যি হয়েছে আমাদের  খামারে এগার লক্ষ টাকার গরু। তবে আমরা কোন সরকারি সহযোগীতা পেলে আমার ছোট খামারটিকে আর বড় করার ইচ্ছা আছে। যাদে আমাদের এই খামারে এলাকার বেকার যুব-যুবতীদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ছেলেকে বাঁচাতে দিনমজুর পিতার সাহায্যের আবেদন 

00

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২৩ মার্চ : মেরুদণ্ডের হাড় ক্ষয়রোগে আক্রান্ত কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার চন্দ্রখানা পাঠানটারী গ্রামের দিনমজুর রামমোহন চন্দ্রের পুত্র তরনী কান্ত রায়(২৮) পৃথিবীর আলো-বাতাসে বেঁচে থাকতে চায়।

প্রায় ১০ মাস থেকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালের পরিচালক(অবঃ) ডাঃ হামিদুল হক খন্দকারের চিকিৎসাধীন রয়েছেন। চিকিৎসার খরচ জোগাতে শেষ সম্বল জমি টুকুও বিক্রি করতে হয়েছে তাকে। বর্তমানে টাকার অভাবে তার চিকিৎসা বন্ধ। ডাক্তাররা জানিয়েছেন এক মাসের মধ্যে মেরুদন্ডে অপারেশন না করলে তরনীকে বাঁচানো সম্ভব না।

আর এ অপারেশন করতে আরো ৩ লাখ টাকার প্রয়োজন। কিন্তু দিনমজুর রামমোহন কোথায় পাবেন এত টাকা? তাই ছেলেকে বাঁচাতে সমাজের দানশীল বিত্তবান মানুষের কাছে আর্থিক সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন তিনি। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা- অগ্রনী ব্যাংক লিঃ ফুলবাড়ী শাখা, কুড়িগ্রাম-হিসাব নং-০২০০০০৮৬৯৩৭৪৯ মোবাইল নং-০১৯৩৮৩৫৪৮৪৩/০১৭২২৪৪৫৩৪১।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফুলবাড়ীতে মিড ডে মিল কর্মসূচীর উদ্বোধন 

0

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২২ মার্চ : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীর কবির মামুদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের জন্য মিড ডে মিল কর্মসূচীর উদ্ধোধন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে এ কর্মসূচীর উদ্ধোধন করেন ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ নজির হোসেন।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার স্বপন কুমার অধিকারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ঢাকার উপ-পরিচালক মোঃ ইউসুফ আলী, উপজেলা আওয়মীলীগের সভাপতি আতাউর রহমান শেখ, সহ-সভাপতি শাহাজাহান আলী বাদশা, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রব্বানী সরকার, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মোঃ মইনুল হক, চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ, সহকারী শিক্ষা অফিসার শফিকুল ইসলাম, রাশেদুল হক মন্ডল, হৃদয় কৃষ্ণ বর্মণ, প্রধান শিক্ষক খাদিজা বেগম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ভ্রাম্যমান আদালতে তিন জুয়াড়ির জেল 

1485374376_87

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২০ মার্চ : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ভ্রাম্যমান আদালতে তিন জুয়াড়ির প্রত্যেকে ১ মাস করে জেল দিয়েছেন উপজেলা নিবার্হী ম্যাজিস্টেট দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও । সোমবার দুপুরে আটককৃত স্থানে ভ্রাম্যমান  আদালত বসিয়ে তাদের এ জেল দেন।

উল্লেখ্য যে, সোমবার রাত ১২টা ৩০ মিনিটে ফুলবাড়ী থানার নবাগত ওসি খন্দকার ফুয়াদ রুহানীর নেতেৃত্বে একদল পুলিশ উপজেলার মধ্য রাবাইতাড়ী সরকারপাড়া গ্রামের ধান ক্ষেতের পাশে পরিত্যক্ত একটি টিনসেডঘর থেকে ওই তিন জুয়াড়িকে জুয়ার ফর ডাবু ও গুটিসহ আটক করে। আটককৃত জুয়াড়িরা হলেন, রাবাইতাড়ী গ্রামের মৃত ডাঃ হেফাজউদ্দিনের ছেলে সামীম চৌধুরী(৩৩) একই গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে আশরাফ(২৯) ও মৃত মমিন মিয়ার ছেলে জুয়েল।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফুলবাড়ীতে বাক-শ্রবণ ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের উদ্বোধন 

322

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ১৪ মার্চ : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে বাক-শ্রবণ ও বুদ্ধি প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১ ঘটিকার সময় উপজেলা সদরে বাক-শ্রবণ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় শুভ উদ্বোধন করেন কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সাবেক এমপি জাফর আলী।

বিদ্যালয়ের সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ওয়াহেদ আলী এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবেন্দ্র নাথ উরাঁও, উপজেলা শিক্ষা অফিসার স্বপন কুমার অধিকারী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান শেখ, ফুলবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা শিপ্রা রাণী প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী প্রতিবন্ধীদের উপর বিশেষ নজর রেখেছেন। তারা সমাজের বোঝা নয়। তাদের আদর যত্ন দিয়ে শিক্ষা ক্ষেত্রে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার ইনোভেশনের সুফল পাচ্ছে নাগেশ্বরীর যুবক ও যুবতীরা 

জাহাঙ্গীর আলম, কুড়িগ্রাম, ২৮ ফেব্রুয়ারি : কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলার উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয়ের মাধ্যমে পরিচালিত এটুআই প্রোগ্রামের প্রশিক্ষণে উদ্বুদ্ধ হয়ে যুব উন্নয়নের প্রশিক্ষণ গ্রহণের ভোগান্তী কমানোর জন্য একটি উদ্ভাবনী উদ্যোগ গ্রহণ করেন। যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মোঃ মনজুর আলম বরাবরই একজন উদ্দমী ও সক্রিয় কর্মকর্তা। তার কর্ম প্রেরণায় নাগেশ্বরীতে যুবরা প্রচণ্ডভাবে উজ্জিবীত। একাধীক উদ্ভাবনী উদ্যোগ বাস্তবায়নের মাধ্যমে তিনি যুবদের দেখাচ্ছেন আত্মকর্মসংস্থানের পথ। তাঁর প্রচেষ্টায় গড়ে উঠেছে যুবদের আত্মকর্মসংস্থানমূলক ছোট- বড় অনেকগুলো প্রকল্প।

সরকারি যুব সেবায় ভোগান্তী কমে এসেছে নাগেশ্বরীতে শুন্যের কোঠায়। নিজ প্রচেষ্টায় নাগেশ্বরীতে বাস্তবায়িত হচ্ছে তিনটি উদ্ভাবনী উদ্যোগ। তার প্রথম উদ্যোগটি ইতোমধ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয় দেশব্যাপী বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। ২য় উদ্যোগটি ইনোভেশণ ফান্ডের এওয়ার্ড পেয়েছে এবং এটিও পাইলটিং শেষে দেশব্যাপী বাস্তবায়িত হবে। ৩য় উদ্যোগটিও চমকপ্রদ, এটি ধারনা পর্যায়ে আছে। নাগেশ্বরী উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসেবে “যুবদের আত্মকর্মসংস্থান সৃজনে তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম সহজীকরণ” বিষয়ক উদ্ভাবনী উদ্যোগটি তিনি শুরু করেন জুলাই-১৪ সাল থেকে। এই উদ্যোগের আওতায় তিনি নাগেশ্বরী উপজেলার জন্য তৈরী করেছেন একটি অনলাইন আবেদন ফরম যেখানে যে কেউ ((goo.gl\O8QG4r) এই লিংকটি ব্যবহার করে অনলাইনে ইউডিসিতে, সাইবার ক্যাফে, নিজস্ব কম্পিউটারে বা মোবাইলে ঘরে বসেই যুব প্রশিক্ষণের জন্য আবেদন করতে পারছে।এই প্রক্রিয়ায় নাগেশ্বরীতে এপর্যন্ত ৬৩৫জন যুব আবেদনের মাধ্যমে প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেছেন। অনেকেই আত্মকর্মী হয়েছেন। ধারণাটিতে আরো যা আছে তা হলো যুবদের চাহিদার আলোকে প্রশিক্ষণ প্রদান, প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে প্রকল্প গ্রহণকারীদের প্রকল্পের বিপরীতে ঋণ প্রাপ্তিতে সহযোগীতা করা হয়েছে।

সরেজমিনে নাগেশ্বরী উপজেলার পৌরসভার কামারপাড়ার খাদিজা বেগম এবং রাশেদা বেগম এবং কুটি পায়রাডাংগা গ্রামের তাজুল ইসলামের প্রকল্প পরিদর্শন করে দেখা যায় যে, তারা যুব উন্নয়ন থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে গরু মোটাতাজা করে এবং বাউকুল চাষকরে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছেন। তাদের মত অনেকেই নতুন নতুন প্রকল্প গড়ে তুলছে এবং প্রকল্প তৈরীর উদ্যোগ নিচ্ছে। যা দ্রুত এগিয়ে দিচ্ছে নাগেশ্বরীকে। তার উদ্ভাবনগুলোও যুগান্তকারী। তার অনলাইনে যুব প্রশিক্ষণের জন্য আবেদনের উদ্ভাবনের কারনে নাগেশ্বরীর যুবরা খুব সহজেই অফিসে না এসে প্রশিক্ষণের জন্য আবেদন করতে পারছে। অথবা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে গিয়েও আবেদন করতে পারছে। এতেকরে তাদের সময়-ব্যয়-পরিদর্শন ব্যপকভাবে সাশ্রয় হচ্ছে। তিনি এই উদ্যোগের আওতায় যুবদের চাহিদা মাফিক ট্রেডে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকেন। এতকরে যুবরা উপকৃত হচ্ছে, তাদের অপ্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ পরিহার করে পরিকল্পিত ট্রেডে প্রশিক্ষণ নিয়ে আত্মকর্মসংস্থান করতে পারছে। এই উদ্যোগের আওতায় তিনি পোষাক তৈরী, কাগজের ঠোংগা তৈরী, বাঁশ বেতের হাজের প্রশিক্ষণ দিয়েছেন।

কামারপাড়ার রোজিনা আক্তার কমা, আন্জুমান আরা এবং জাহানারা বেগম, কাগজের ব্যাগ বানিয়ে সফল হয়েছেন। তার প্রচেষ্টায় ২০১৪সালে নাগেশ্বরী থেকে জাতীয় যুব পুরষ্কার পেয়েছেন জনাব মোঃ সামছুত্তীবরী রাজন। গড়ে উঠছে আরো এরকম ২/১ জন যারা শীঘ্রই পুরষ্কৃত হতে পারে। তার অধীনে নাগেশ্বরীতে অত্যন্ত সুষ্ঠু ও দূর্নীতিমুক্ত পরিবেশে বাস্তবায়িত হয়েছে সরকারের অগ্রাধীকারভূক্ত প্রকল্প ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি। এটি নাগেশ্বরীর জন্য বড় পাওয়া।

নাগেশ্বরী উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা হিসেবে তার এই উদ্ভাবনী কাজের প্রেক্ষিতে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয়ের মাধ্যমে সিংগাপুরে ৫দিনের একটি প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। ২০১৪সালে জেলা প্রশাসন তাকে কুড়িগ্রাম জেলার মধ্যে সেরা কর্মকর্তার পুরষ্কার প্রদান করেন । এবং ২০১৫ সালে বিভাগী পর্যায়ে তাকে ইনোভেশনে ১ম স্থানের পুরষ্কার প্রদান করা হয়। এছাড়া তার উদ্ভাবনী উদ্যোগটি একাধিক সেমিনারে উপস্থাপনের সুযোগ দেয়া হয়।

তার এই উদ্যোগগুলো জাতীয়ভাবে বাস্তবায়িত হলে শুধু নাগেশ্বরীই নয় গোটা দেশ উপকৃত হবে। তার মত একজন সৎ বিনয়ী ও জনবান্ধব কর্মকর্তা সারা দেশে থাকলে আমাদের দেশটি একটি সোনার দেশে রূপান্তর সম্ভব।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর