২৯ মে ২০১৭
সকাল ৮:০৪, সোমবার

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে চাঁপাইয়ে ৩ বাড়ি ঘেরাও

জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে চাঁপাইয়ে ৩ বাড়ি ঘেরাও 

11

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ২৪ মে : চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার চাঁনপুর শিমুলতলা বালুগ্রাম এলাকায় জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে বুধবার ভোর চারটা থেকে তিনটি বাড়ি ঘিরে রেখেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। এর মধ্যে একটি বাড়িতে ইতিমধ্যে তল্লাশি শুরু করা হয়েছে।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে ওই উপজেলা থেকে অস্ত্র ও বিস্ফোরকসহ তিন ব্যক্তিকে আটক করা হয়। তাঁদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী তিনটি বাড়ি ঘেরাও করে র‍্যাব। আটক ব্যক্তিদের নাম জানানো হয়নি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ র‍্যাব-৫ এর অধিনায়ক এনামুল করিম এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, মঙ্গলবার রাতে তিন ব্যক্তিকে গোমস্তাপুর উপজেলার বাজারপাড়া এলাকা থেকে আটক করা হয়। তাঁদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে তিনটি বাড়ি ঘিরে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে একটি বাড়িতে তল্লাশি শুরু করা হয়েছে।

এনামুল করিম জানান, বাজারপাড়া এলাকা থেকে আটক তিন ব্যক্তির কাছ থেকে তিন কেজি গান পাউডার, একটি পিস্তল ও চারটি গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

৪ টাকা কেজি আমের ক্রেতা নেই 

028

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ২১ মে : প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে চাঁপাইনবাবগঞ্জে এ বছর আম উৎপাদনে বিপর্যয় ঘটবে। বছরের শুরুতে ফেব্রুয়ারি মাসে শতকরা ৯০ ভাগ আম গাছে মুকুল হয়েছিল। কিন্তু মুকুল আসার সময় বৃষ্টি হওয়ায় মুকুল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় আশানুরূপ গুটি হয়নি।

এরপর এপ্রিল পর্যন্ত বৃষ্টি না হওয়ায় খরায় আমের গুটি ঝরে পড়ে। মে মাসে পরপর তিনটি ঝড় ও দুটি শিলাবৃষ্টিতে আমের গুটি ঝরে পড়েছে। ঝরে পড়া ওই আম বিক্রি হচ্ছে ৪ থেকে ৬ টাকা কেজি দরে। তবুও ক্রেতার অভাবে এসব আম বিক্রি হচ্ছে না।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার দ্বারিয়াপুর মহলার বাগান মালিক মো. মারুফ জানান, জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার চৌডালা এলাকায় তার পাঁচ বিঘার বাগান আছে। গত ৫ মে ঝড়ে তার বাগানের শতকরা ৭৫ ভাগ আম ঝরে পড়েছে। এ বছর বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হবেন তিনি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার ওপর রাজারামপুর মহল্লার আম চাষি মিজানুর রহমান বলেন, তিনটি ঝড়ে অনেক আম পড়ে গেছে এবং শিলা বৃষ্টির কারণে বাগানের অধিকাংশ আম ঝরে গেছে। যে পরিমাণ আম ঝরছে তাতে আমার সবই শেষ হয়ে যাবে। সবকিছু মিলিয়ে এ বছর আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবো।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ মো. মঞ্জুরুল হুদা জানান, এ বছর জেলায় ৫০ ভাগ বাগানের প্রায় ৩০ ভাগের আম ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই ফলন কম হতে পারে। তবে সামষ্টিক ওজনে কতটা প্রভাব পড়বে এটা এখনও বলা যাবে না।

তিনি আরও জানান, শিলা বৃষ্টির কারণে যেসব আম আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে সেসব আম পর্যায়ক্রমে ঝরে পড়বে। ইতোমধ্যে শিলার পর গাছ থেকে প্রতিদিনই আম ঝরে পড়ছে।

এদিকে ঝরে পড়া আম বিভিন্ন হাট-বাজারে ৪ থেকে ৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। আবার অনেক আম পচেও গেছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

শিবগঞ্জের চার জঙ্গির দাফন সম্পন্ন 

77

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ২৯ এপ্রিল : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার জঙ্গি আস্তানায় নিহত চার জঙ্গির দাফন সম্পন্ন হয়েছে। শুক্রবার গভীর রাত দুইটার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার বেওয়ারিশ গোরস্থানে তাদের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে।

লাশ দাফনের সময় উপস্থিত থাকা নবাবগঞ্জ পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র মো. সাইদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ সময় প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে আস্তানায় নিহত জঙ্গি আবুর মরদেহ গতকাল রাতে তার চাচা ইয়াসিন আলীর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছিল। কিন্তু বাবা-মা না থাকায় তিনি লাশ গ্রহণ করেননি। পরে পুলিশ লাশ ফেরত নিয়ে যায়। এছাড়া দাফন করা অজ্ঞাত তিন জঙ্গির ডিএনএ টেস্টের জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

জঙ্গি আস্তান সন্দেহে বুধবার ভোর থেকে ঘিরে রাখা বাড়িটিতে অপারেশন ঈগল হান্ট চালায় সোয়াট, কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট ও পুলিশ। প্রথম দিনের অভিযানের সময় ভেতরে থাকা জঙ্গিরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের লক্ষ্য করে গ্রেনেড ও গুলি ছোড়ে। কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট সদস্যরাও পাল্টা গুলি ছুড়লে ওই এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ভেতরে থাকা জঙ্গিদের আত্মসমর্পণ করতে দিনভর পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হলেও জঙ্গিরা উল্টো পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। দিনের শেষ ভাগে ঢাকা থেকে পুলিশের বিশেষায়িত টিম সোয়াট সদস্যরা আসলে কিছু সময় অভিযানের পর সেদিনের জন্য অভিযান স্থগিত করা হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ফের অভিযানে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এর একপর্যায়ে বিকালের দিকে জঙ্গি আবু ও তার সন্তানকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। এছাড়া ভেতরে আবুসহ চার জঙ্গির লাশ পড়ে আছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

রাতের জন্য অভিযান স্থগিত করে শুক্রবার আবারো অভিযান চালিয়ে আবুসহ চার জঙ্গির মরদেহ উদ্ধারের পর সেগুলো পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে ক্রাইম সিন ইউনিটের সদস্যরা। রাতে হাসপাতালে লাশগুলো ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেন চিকিৎসক মো. শফিকুল ইসলাম। তবে কীভাবে তাদের মৃত্যু হয়েছে প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত তা জানানো সম্ভব হবে না বলে চিকিৎসক জানান। পরে রাত দুইটার দিকে চারজনের লাশ দাফন করা হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

জঙ্গি আস্তানায় প্রচণ্ড গুলি, অভিযান শুরুর প্রস্তুতি 

33

চাঁপাইনবাবগঞ্জ , ২৭ এপ্রিল : বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা বাড়ি থেকে দফায় দফায় গুলির শব্দ পাওয়া যাচ্ছে।

শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাবিবুল ইসলাম বিবিসিকে জানিয়েছেন সকাল থেকেই গুলির শব্দ শোনা যাচ্ছে।

ওদিকে গতরাতে স্থগিত হওয়া অপারেশন ঈগল হান্ট আবার শুরুর জন্য সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

হাবিবুল ইসলাম জানান অ্যাম্বুলেন্স ও ফায়ার সার্ভিস প্রস্তুত করা হয়েছে।

ওদিকে সোয়াটের কিছু সদস্য ইতোমধ্যেই ঘটনাস্থলে রয়েছে এবং এ বাহিনীর আরও সদস্যরা কিছুক্ষণের মধ্যেই সেখানে পৌঁছাবে।

এর আগে বুধবার ওই বাড়ি ঘেরাওয়ের পর চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ কর্মকর্তা মাইনুল ইসলাম বিবিসিকে বলেছিলেন যে বাড়িটিতে আবু নামের একজন রয়েছেন।

“তিনি এখানে মুদির ব্যবসা করলেও, ভেতরে ভেতরে জঙ্গি সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ততা আছে। আরো কয়েকজনের এখানে আসা যাওয়া থাকতে পারে।”

তিনি বলেন, ”যখন (বুধবার) আমরা এখানে ঢুকতে যাই, তখন আমাদের উপর গুলি করা হয়। এখন সোয়াট টিম এসেছে, তারা অভিযান শুরু করেছে।”

বাড়ির বাসিন্দাদের সম্পর্কে তিনি জানান, আবুর সঙ্গে তার স্ত্রী আছে। আর কেউ কেউ বলছেন একটি বাচ্চা আছে, আবার কেউ কেউ বলছেন, তাদের সঙ্গে দুইটি বাচ্চা রয়েছে।

বাড়িটি ঘেরাও করার পর থেকেই আশেপাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে এবং পার্শ্ববর্তী বাড়িগুলোর বাসিন্দাদের সরিয়ে নেয়া হয়েছে। সেখানে কাউকে যেতে বা বের হতে দেয়া হচ্ছে না।-বিবিসি বাংলা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কানসাটে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ছে জঙ্গিরা 

18

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ২৬ এপ্রিল : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট ত্রিমহোনী এলাকার একটি আস্তানা থেকে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ছে জঙ্গিরা।

বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ওই এলাকার একটি বাড়ির চারপাশ ঘিরে অবস্থান নেয় পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা।

এরপর কিছুক্ষণ পর পর পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ও বিস্ফোরক ছোড়া হয় ওই বাড়িটির ভেতর থেকে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক সারোয়ার রহমান এই তথ্য জানান। তিনি বলেন, পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান নিয়েছে। জঙ্গিদের আত্মসমর্পণে বাধ্য করতে চেষ্টা করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, তারা আত্মসমর্পণ না করলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে চূড়ান্ত অভিযান শুরু করবে আইনশৃংখলা বাহিনী।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সহকারী পুলিশ সুপার তৌহিদ জানান, বাড়িটির ভেতরে ৭/৮ জন লোক আছে।

ওই আস্তানার চারপাশে পুলিশের বিপুল সংখ্যক সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।  আশেপাশের সড়কে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সরিয়ে নেয়া হচ্ছে বাসিন্দাদের।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খান জানান, ঢাকা থেকে সোয়াতের একটি দল ইতিমধ্যে ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে। তারা আসলে পুরোপুরি অভিযান শুরু হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি গরু ব্যবয়ায়ী নিহত 

82147

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ২৪ এপ্রিল : চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ভোলাহাটে বিএসএফের গুলিতে এক বাংলাদেশি গরু ব্যবসায়ী নিহত ও আরো দুইজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। বোববার রাত ১০টার দিকে ভোলাহাট সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যবসায়ীর নাম ছাইদুল ইসলাম (২৮) তিনি উপজেলার হোসেনভিটা গ্রামের এরফান আলীর ছেলে।

গুলিবিদ্ধরা হলেন-ওই গ্রামের লতিফের ছেলে জাল শাহার (২৬) আনোয়ারুল ইসলামের ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৫)।

৫৯ ব্যাটালিয়নের অধিনায়েক লে. কর্নেল রাশেদ আলী ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, রোববার রাত ১০টার দিকে ভোটাহাটের গিলাবাড়ি সংলগ্ন এলাকা দিয়ে ভারতে গরু আসতে আনতে যায় ছাইদুলসহ আরো কয়েকজন। এসময় বিএসএফ তাদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এতে গরু ব্যবয়ায়ী ছাইদুল পেটের ডান পাশে গুলিবিদ্ধ হন। পরে সাইদুল দৌড়ে পালিয়ে বাংলাদেশ সীমান্তের ভেতরে হাঁসপুকুর ত্রিমোহনী এলাকায় এসে পড়ে যায়। রাত ৩টার দিকে স্থানীয়রা তার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশ ও বিজিবি কর্মকর্তাদের খবর দেয়।

জানা যায়, আহতরা আইসি জটিলতা এড়াতে গোপনে অজ্ঞাত স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ভোলাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহসিন কামাল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৩৮০ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক ২ 

555

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ৮ এপ্রিল : চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে মিনি পিকআপ ভ্যানে অভিনব কায়দায় বহনের সময় ৩৮০ বোতল ফেন্সিডিলসহ দু’জনকে আটক করেছে নাচোল থানা পুলিশ।

আজ শনিবার ভোরে নাচোল কসবা ইউপির ধানসুরা বাজার এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। আটককৃতরা হল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া উপজেলার টাংপাড়া গ্রামের ইউনুস আলীর ছেলে কায়মত (২৭) ও মুন্সিগঞ্জ জেলার বিক্রমপুর গ্রামের মৃত দিল মোহাম্মদের ছেলে শাহাদাৎ হোসেন (২৬)।

নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ ফাছির উদ্দিন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই বারিক সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ধানসুরা বাজার এলাকা থেকে পিকআপে ফেন্সিডিল বহনের সময় কায়মত ও শাহাদাৎ হোসেনকে আটক করে। আটক দু’জনের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দিয়ে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পিকনিকের বাস বিলে, নিহত ২ 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ২৪ ফেব্রুয়ারি : চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকায় আজ শুক্রবার বিকেলে পিকনিকের বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিলের মধ্যে পড়ে গেছে। এতে অন্তত দুজন নিহত হয়েছেন। এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। উদ্ধার তৎপরতা চলছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার নয়াদিয়ারি এলাকার ১৬০-১৭০ জন লোক চাঁপাইনবাবগঞ্জের বাবুডাইং পিকনিক স্পট থেকে দুটি বাসে করে বাড়ি ফিরছিলেন।

বিকেল সোয়া চারটার দিকে পৌর এলাকায় পৌঁছার পর একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাডাঙা বিলে পড়ে যায়। পাঁচজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক দুজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

তাৎক্ষণিকভাবে ওই দুজনের পরিচয় পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের সদস্য ও স্থানীয় লোকজন উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন। বাসটিতে আনুমানিক ৬০-৭০ জন যাত্রী রয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

খাটের নিচে মিলল নিখোঁজ ২ শিশুর বস্তাবন্দী লাশ 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ১৫ ফেব্রুয়ারি : ছোট শিশু সুমাইয়া খাতুন (৭) ও মেহজাবিন আক্তার (৬) সহপাঠী। স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে বাইরে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয় তারা। এর দুদিন পর মঙ্গলবার প্রতিবেশী এক ব্যক্তির বাড়ির শোবার ঘরে খাটের নিচে বস্তাবন্দী অবস্থায় তাদের লাশ পাওয়া গেছে। এ ঘটনা চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের নামোশংকরবাটীর ভবানীপুর-ফতেপুর মহল্লার।

নিহত সুমাইয়া খাতুনের খালাতো ভাই আবু তালেব বলেন, সুমাইয়া ভবানীপুর-ফতেপুর মহল্লার মিলন রানার মেয়ে ও পৌর এলাকার ছোটমণি বিদ্যানিকেতনের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী। সহপাঠী মেহজাবিন প্রতিবেশী আবদুল মালেকের মেয়ে। রবিবার বেলা ১১টার দিকে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে বাইরে খেলতে যায় তারা। পরে আর বাড়ি ফেরেনি। সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খুঁজেও তাদের পাওয়া যায়নি।

এরপর গতকাল বিকেলে সুমাইয়ার স্বজনেরা প্রতিবেশীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজা শুরু করেন। তাঁরা সাড়ে পাঁচটার দিকে প্রতিবেশী ভ্যানচালক মো. ইয়াসিনের বাড়িতে যান। সেখানে তাঁর প্রবাসী ছেলে মো. ইব্রাহীমের (৩৫) স্ত্রী লাকী আক্তার (২৪) ইতস্তত শুরু করেন। এতে সন্দেহ দেখা দিলে জোর করে তাঁরা ঘরে ঢুকে লাকীর শোয়ার ঘরে খাটের নিচ থেকে বস্তাবন্দী অবস্থায় সুমাইয়া ও মেহজাবিনের লাশ পান। পুলিশকে খবর দিলে তাঁরা এসে সন্ধ্যা ছয়টার দিকে লাশ উদ্ধার করে।

আবু তালেব জানান, সুমাইয়া, মেহজাবিন ও লাকী আক্তারের মেয়ে ইমন সহপাঠী। তিন শিশুই একসঙ্গে খেলাধুলা করত।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাযহারুল ইসলাম বলেন, লাকী আক্তারসহ চারজনকে এ ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিখোঁজ শিশু দুটির সঙ্গে থাকা স্বর্ণালংকারের লোভে এমন ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। শিশু দুটি নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় ওই দিনই মেহজাবিনের বাবা আবদুল মালেক থানায় একটি মামলা করেন।

ওসি আরও বলেন, গতকাল গ্রেপ্তার হওয়া লাকী, ইয়াসিন ও ইয়াসিনের স্ত্রী তানজিলা বেগম প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। এর আগে শিশু দুটি নিখোঁজ হওয়ার পর গীতা রানী নামে আরেক প্রতিবেশীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চাঁপাই সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ১৪ ফেব্রুয়ারি : চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তে মাসুদ আলী (২২) নামে এক বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা করেছে বিএসএফ। এসময় গুলিবিদ্ধ হয়েছেন মাসুদের চাচাতো ভাই কালামসহ ৫ জন।

সোমবার রাত পৌনে ১টার দিকে ওহেদপুর সীমান্তের বিপরীতে ভারতীয় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মাসুদ আলী শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের বিশরশিয়া গ্রামের বাসিন্দা। তিনি ওই গ্রামের মোশাররফ হোসেনের ছেলে।

স্থানীয়রা জানান, সোমবার সন্ধ্যার পর ৪০/৪৫ জন বাংলাদেশি রাখাল সীমান্ত অতিক্রম করে গরু আনতে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার সুতি থানার চাঁন্দপুরে যায়। রাত সাড়ে ১২টার দিকে তারা শতাধিক গরু-মহিষ নিয়ে ফেরার সময় ভারতীয় সীমান্তের দেড় কিলোমিটার ভেতরে চাঁদনিচক বিএসএফ ক্যাম্পের জোয়ানরা তাদের গতিরোধ করে। এসময় বিএসএফের ধাওয়া খেয়ে কিছু রাখাল গরু ছেড়ে পালিয়ে আসে।

বিএসএফ গুলি বর্ষণ করলে মাসুদ গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। এসময় কালামসহ ৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়।

বিএসএফ শতাধিক গরু-মহিষও আটক করেছে বলে স্থানীয়রা নিশ্চিত করেছেন।

এ ব্যপারে ওহেদপুর বিজিবি ফাঁড়ির কমান্ডার নায়েব সুবেদার জামাল উদ্দিন জানান, বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি হতাহতের কোনো খবর তাদের কাছে নেই।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সীমান্তে ফের গুলি, আহত ৩ 

3555

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ১৭ জানুয়ারি : চাঁপাইনবাবগঞ্জের জোহরপুর সীমান্তে ফের গুলি করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। এতে গুলিবিদ্ধসহ আহত হয়েছেন তিন বাংলাদেশী রাখাল।

গুলিবিদ্ধ ব্যক্তি হলেন- নারায়ণপুর গ্রামের আইনাল হকের ছেলে নাজিমুদ্দিন (২৫)। নির্যাতনে আহতরা হলেন- একই এলাকার কামালের ছেলে শাহাবুদ্দিন (২৩) ও আনসুরের ছেলে হাসান (২৫)।

সোমবার রাত ১০টার দিকে সদর উপজেলার নারায়ণপুর সাতরশিয়া সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে রবিবার রাতে জেলার ওহেদপুর সীমান্তে এক রাখালকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নারায়ণপুর ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্য জানান, একদল বাংলাদেশী রাখাল গরু নিয়ে দেশে ফিরছিলেন। সীমান্তের দুই কিলোমিটার ভেতরে ভারতীয় এলাকায় নুরপুর ফাঁড়ির বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশী রাখালদের লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে।

এতে নারায়ণপুর গ্রামের আইনাল হকের ছেলে নাজিমুদ্দিন গুলিবিদ্ধ হন। একই সঙ্গে বিএসএফের নির্যাতনে আহত হন দুইজন।

এতে গুলিবিদ্ধ নাজিমসহ অপর দুজনকে মৃত ভেবে বিএসএফ সদস্যরা মাঠের ফেলে রেখে চলে যায়।

রাত ১১টার দিকে অন্য রাখালরা আহতদের কাঁধে করে সীমান্ত পার করে বাংলাদেশের ভেতরে নিয়ে আসেন। আহতদের রাতেই নৌকায় করে চিকিৎসার জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরে নিয়ে যাওয়া হয় ।

এ ব্যাপারে চাপাইনবাবগঞ্জ-৯ ব্যাটালিয়ান বিজিবির কমান্ডিং অফিসার ( সিও) লে. কর্নেল এসএম আবুল এহসান জানান, জোহরপুর সীমান্তে এমন কোনও ঘটনার খবর তিনি জানেন না।

কেউ এমন কোনও ঘটনার অভিযোগও করেনি।

অন্যদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ- ৫৯ বিজিবি ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক লে. কর্নেল হাসান মোর্শেদ বলেন, তার এলাকায় গুলির কোনও ঘটনার খবর তার জানা নেই।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মিষ্টি নিয়ে সাখাওয়াতের বাসায় আইভী 

সাখাওয়াত আইভি

নারায়ণগঞ্জ, ২৩ ডিসেম্বর : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে বিজয়ী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী মিষ্টি নিয়ে তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী ও বিএনপি প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানের বাসায় গেছেন।

শুক্রবার (২৩ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তিনি নগরীর খানপুরে অবস্থিত সাখাওয়াতের বাসায় যান। এ সময় সাখাওয়াত তার বাসায় আইভীকে স্বাগত জানান।

নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নে আইভীকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে সাখাওয়াত হোসেন বলেন, নির্বাচনে জয় পরাজয় থাকবেই। আমরা যেহেতু একই এলাকায় থাকি তাই আমাদের সবাইকে একসঙ্গেই এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে হবে। মাদক ও সন্ত্রাসীদের কারণে নারায়ণগঞ্জের দুর্নাম রয়েছে জানিয়ে সাখাওয়াত এ দুর্নাম ঘোছানোর জন্য আইভীর প্রতি অনুরোধ জানান।

পরে আইভী বলেন, আগেই বলেছি হারি বা জিতি আমি তার বাসায় যাব। আমি আমার সে প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছি।

তিনি আরও বলেন, নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নে ওনার (সাখাওয়াত) সহযোগিতা নিব। আমরা একই এলাকায় বসবাস করি এবং আমাদের সম্পর্ক হবে সৌহার্দপূর্ণ।

মাদক ও সন্ত্রাসের বিষয়ে আইভী বলেন, এসব বিষয়ে আমি পূর্ব থেকেই সোচ্চার। যাদেরকে মাদক ও সন্ত্রাসীর মদদদাতা ধরা হয়, তাদের বিরুদ্ধে সাখাওয়াত সাহেবও সোচ্চার থাকবেন বলে আমি আশা করি।

উল্লেখ্য, ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সাখাওয়াতকে ৭৯ হাজার ৫৬৭ ভোটে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আইভী। নির্বাচনে আইভী নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১ লাখ ৭৫ হাজার ৬১১ ভোট। অপরদিকে সাখাওয়াত ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৯৬ হাজার ৪৪ ভোট।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কাউন্সিলর পদে জয় পেলেন যারা 

drys9xh5-copy

ঢাকা, ২৩ ডিসেম্বর : নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে ২৭ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ১২টিতে জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ। আর ১১ ওয়ার্ডে  বিজয়ী হয়েছে বিএনপি।

এ ছাড়া তিনটি ওয়ার্ডে জাতীঁয় পার্টি ও একটিতে বাসদ সমর্থিত প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফলে এ তথ্য জানা গেছে।

বিজয়ীরা হলেন-নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১নং ওয়ার্ডে ফুলের ঝুড়ি প্রতীকে হাজী মো. ওমর ফারুক, ২নং ওয়ার্ডে আলোচিত লাটিম প্রতীকে ৭ খুন মামলায় অব্যাহতিপ্রাপ্ত বিএনপি নেতা ইকবাল হোসেন, ৩ নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে কাউন্সিলর শাহজালাল বাদল, ৪ নং ওয়ার্ডে লাটিম প্রতীকে আওয়ামী লীগের আরিফুল হক হাসান, ৫নং ওয়ার্ডে ব্যাডমিন্টন প্রতীকে বিএনপি দলীয় সাবেক এমপি গিয়াসের পুত্র মো. সাদরিল, ৬নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগের আহবায়ক মতিউর রহমান মতি, ৭নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে আলী হোসেন আলা, ৮নং ওয়ার্ডে মিষ্টি কুমড়া প্রতীকে রুহুল আমিন,  ৯নং ওয়ার্ডে মিষ্টি কুমড়া প্রতীকে ইসরাফিল প্রধান, ১০নং ওয়ার্ডে ব্যাডমিন্টন প্রতীকে আওয়ামী লীগ নেতা ইফতেখার আলম খোকন, ১১ নং ওয়ার্ডের ঘুড়ি প্রতীকে বর্তমান কাউন্সিলর ও বিএনপি নেতা জমশের আলী ঝন্টু, ১২ নং ওয়ার্ডে ঘুড়ি প্রতীকে বর্তমান কাউন্সিলর ও নগর বিএনপি নেতা শওকত হাশেম শকু, ১৩নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে বর্তমান কাউন্সিলর ও মহানগর যুবদলের আহবায়ক মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, ১৪ নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে শফিউদ্দিন প্রধান, ১৫ নং ওয়ার্ডে ঘুড়ি প্রতীকে কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাস, ১৬নং ওয়ার্ডে ব্যাডমিন্টন প্রতীকে নগর স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি নাজমুল আলম সজল, ১৭ নং ওয়ার্ডে ঘুড়ি প্রতীকে মো. আব্দুল করিম বাবু ওরফে ডিসবাবু, ১৮নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে কবির হোসাইন, ১৯ নং ওয়ার্ডে করাত প্রতীকে বর্তমান কাউন্সিলর ফয়সাল আহাম্মেদ সাগর, ২০ নং ওয়ার্ডে লাটিম প্রতীকে গোলাম নবী মুরাদ, ২১ নং ওয়ার্ডে রেডিও প্রতীকে বর্তমান কাউন্সিলর হান্নান সরকার, ২২নং ওয়ার্ডে লাটিম প্রতীকে কাউন্সিলর সুলতান আহম্মেদ ভূঁইয়া, ২৩ নং ওয়ার্ডে লাটিম প্রতীকে কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল, ২৪নং ওয়ার্ডে ঘুড়ি প্রতীকে কাউন্সিলর আফজাল হোসেন, ২৫নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে এনায়েত হোসেন, ২৬নং ওয়ার্ডে ঘুড়ি প্রতীকে মো. সামছুজ্জোহা, ২৭নং ওয়ার্ডে ঠেলাগাড়ি প্রতীকে কামরুজ্জামান বাবুল জয়ী হয়েছেন।

এছাড়া সংরক্ষিত  নং ওয়ার্ডে (১,২ ও ৩) গ্লাস প্রতীকে মাকসুদা মোজাফফর, ২ নং ওয়ার্ডে (৪,৫ ও ৬) মোবাইল প্রতীকে মনোয়ারা বেগম, সংরক্ষিত ৩ নং ওয়ার্ডে (৭,৮ ও ৯) চশমা প্রতীকে মহিলা দলের আয়েশা আক্তার দিনা, সংরক্ষিত ৪ নং ওয়ার্ডে (১০,১১ও ১২) মোবাইল প্রতীকে মিনোয়ারা বেগম, সংরক্ষিত ৫ নং ওয়ার্ডে (১৩,১৪,১৫) বই প্রতীকে শারমিন হাবিব বিন্নি, সংরক্ষিত ৬ নং ওয়ার্ডে (১৬, ১৭,১৮) বই প্রতীকে নগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানের স্ত্রী আফসানা আফরোজ, সংরক্ষিত ৭ নং ওয়ার্ডে (১৯,২০,২১) বই প্রতীকে শিউলী নওশাদ, সংরক্ষিত ৮ নং ওয়ার্ডে (২২,২৩,২৪) বই প্রতীকে শাওন অংকন, সংরক্ষিত ৯ নং ওয়ার্ডে (২৫,২৬,২৭) চশমা প্রতীকে হোসনে আরা জয় পেয়েছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

এমপি রাব্বানীর গাড়িচালককে অপহরণ 

22

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ১১ ডিসেম্বর : চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের এমপি গোলাম রাব্বানীর গাড়িচালক নুরে আলম পিন্টুকে (৩৩) অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শিবগঞ্জ পৌরসভার সামনে থেকে দুর্বৃত্তরা অপহরণ করে বলে তার বাবা আব্দুল মোকিম মাস্টার অভিযোগ করেছেন।

পিন্টুর বাড়ি উপজেলার জগন্নাথপুর গ্রামে। তবে তিনি শিবগঞ্জ পৌর এলাকার আলীডাঙ্গায় পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন।

পিন্টুর বাবা আব্দুল মোকিম মাস্টার অভিযোগ করেন, টাকা-পয়সার লেনদেন নিয়ে শিবগঞ্জ বাজারের কয়েকজনের সঙ্গে পিন্টুর ঝামেলা চলছিল। পিন্টু ওইসব লোকেদের কাছে টাকা পেতো।

রবিবার দুপুরে শিবগঞ্জ পৌরসভায় দু’পক্ষের মধ্যে সালিশ বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। সালিশের জন্য বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পিন্টু তার সঙ্গী বেনজিরকে নিয়ে পৌরসভায় যাচ্ছিলেন। এ সময় পৌরসভার প্রবেশমুখে একটি সোনালী রঙের মাইক্রোবাস থেকে ৪/৫ জন নেমে জোর করে পিন্টুকে তুলে নিয়ে মুখ ও হাত বেঁধে ফেলে।

সঙ্গী বেনজির লোক ডাকাডাকি করলে মাইক্রোবাসটি পিন্টুকে নিয়ে সোনা মসজিদ- চাঁপাইনবাবগঞ্জ সড়কে উঠে দ্রুত নগরের দিকে চলে যায়।

তিনি আরও বলেন, পিন্টু গত কয়েক বছর ধরে এমপি রাব্বানীর গাড়িচালক ছিলেন। কিছুদিন আগে টাকা-পয়সা নিয়ে এমপির আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে বিরোধ হলে তাকে কিছুদিনের জন্য কাজ থেকে বিরতি দেয়া হয়।

এরপর থেকেই পিন্টুর সঙ্গে এমপির লোকদের ঝামেলা চলছিল বলেও জানান পিন্টুর বাবা আব্দুল মোকিম।

এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানার ওসি সারোয়ার হোসেন বলেন, ‘পিন্টুর বাবা এ বিষয়ে থানায় অপহরণের একটি অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’

তিনি বলেন, পিন্টুর কাছে অনেকের টাকা-পয়সা পাওয়ার খবর শুনেছি। তবে কারা এ অপহরণের সঙ্গে জড়িত তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২২ পিস্তল ও ১৩৬ রাউন্ড গুলি উদ্ধার 

nosd7sdy

চাঁপাইনবাবগঞ্জ, ২৪ অক্টোবর : চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২২ বিদেশি পিস্তল, ১৩৬ রাউন্ড গুলি ও ৪৫টি ম্যাগাজিন উদ্ধার করেছে।

সোমবার বিকেল ৩টার দিকে শহরের ৬ নং ওয়ার্ডের বটতলাহাট এলাকায় একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে এগুলো উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ ওই বাড়ির মালিক শাহীন কাদেরের মা রোকেয়া বেগম ও শাকিল আহমেদ নামে আরেকজনকে আটক করেছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম জানান, ওই বাড়ি ভাড়া নিয়ে ছাগলের ব্যবসার আড়ালে অস্ত্র ব্যবসা করা হচ্ছিল- এমন খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালানো হয়।

তিনি আরও জানান, অভিযানে ২২টি বিদেশি পিস্তল, ১৩৬ রাউন্ড গুলি ও ৪৫টি ম্যাগাজিন উদ্ধার করা করেছে। এ ঘটনায় বাড়ির মালিক শাহীন কাদেরের মা রোকেয়া বেগম ও শাকিল আহমেদ নামে আরেকজনকে আটক করা হয়েছে।

এ বিষয়ে পরে বিস্তারিত জানানো হবে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন পুলিশ সুপার টিএম মোজাহিদুল ইসলাম।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর