২০ আগস্ট ২০১৭
সন্ধ্যা ৭:২৪, রবিবার

বাহুবলে ইমাম পরিবর্তন নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ২

বাহুবলে ইমাম পরিবর্তন নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ২ 

88

হবিগঞ্জ, ১২ আগস্ট : হবিগঞ্জ জেলার বাহুবলে মসজিদ কমিটি ও ইমাম পরিবর্তনের জের ধরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। এসময় আহত হয়েছেন আরও অর্ধশতাধিক।

শনিবার ভোর রাতে উপজেলার সাতকাপন ইউনিয়নের মুগকান্দি জামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- মুগকান্দি গ্রামের সাবু মিয়ার ছেলে কবির আখনঞ্জী (৪৫) ও একই গ্রামের মতিন মিয়া (৫০)।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার সাতকাপন ইউনিয়নের মুগকান্দি জামে মসজিদের কমিটি গঠন ও ইমাম পরিবর্তনকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষে বিরোধ চলছিল।

এর জের ধরে শুক্রবার জুম্মার নামাজে সাতকাপন ইউপি চেয়ারম্যান মুগকান্দি গ্রামের আবদাল মিয়া আখনঞ্জী গ্রুপের সোহেল মিয়ার সঙ্গে একই গ্রামের শফিক মাস্টারের বাকবিতণ্ডা হয়।

এর জের ধরে বাদ জুম্মা উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের নারী-শিশুসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়।

শনিবার ভোরেও তারা ফের সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এই সংঘর্ষে ঘটনাস্থলে একজন নিহত হন। পরে সিলেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে আরো একজনের মৃত্যু হয়।  সংঘর্ষে নারীসহ অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়।

আহতদের উদ্ধার করে বাহুবল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে বাহুবল-নবীগঞ্জ সার্কেলের সিনিয়র এএসপি রাসেলুর রহমান জানান, নিহতদের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে জানান তিনি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বাহুবলে ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে নিহত ২ 

hobigonz

হবিগঞ্জ, ৯ আগস্ট : হবিগঞ্জ জেলার বাহুবলে সিমেন্ট বোঝাই ট্রাকের সঙ্গে টমেটো বোঝাই পিকআপের মুখোমুখি সংঘর্ষে পিকআপ চালক ও হেলপার নিহত হয়েছেন।

বুধবার ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার ডুবাই বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

তাৎক্ষনিক নিহতদের নাম পরিচয় জানা যায়নি।

হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সিলেটগামী সিমেন্ট বোঝাই ট্রাক (ঢাকা মেট্রো ট ১১-১৮৮৩) শায়েস্তাগঞ্জগামী টমেটো বোঝাই পিকআপ (ঢাকা মেট্রো ন ১৮-৫৩৩) ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উপজেলার ডুবাই বাজারে পৌঁছলে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই পিকআপ চালক ও হেলপার মারা যায়।

শায়েস্তাগঞ্জ হাইয়ের থানার ওসি মো. জসিম উদ্দীন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে চার শিশু হত্যায় ৩ জনের ফাঁসির আদেশ 

1825

সিলেট, ২৬ জুলাই : হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় আলোচিত ৪ শিশু হত্যা মামলায় ৩ আসামির ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত।এ ছাড়া ৩ জনের ৭ বছর করে কারাদণ্ড ও ২ জনকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

সিলেটের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মকবুল আহসান আজ বুধবার দেড় বছর আগের এই চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন।

আসামিদের মধ্যে রুবেল মিয়া, আরজু মিয়া ও পলাতক উস্তার মিয়াকে মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

আর রুবেলের ভাই জুয়েল মিয়া ও শাহেদকে ৭ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন বিচারক।

হত্যাকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার  জুয়েল-রুবেলের বাবা আবদুল আলী বাগাল এবং পলাতক আসামি বাবুল মিয়া ও বিল্লালকে আদালত খালাস দিয়েছে।

গত বছরে ১২ ফেব্রুয়ারি বিকালে বাড়ির পাশের মাঠে খেলতে গিয়ে নিখোঁজ হয় হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামের আবদাল মিয়া তালুকদারের ছেলে মনির মিয়া (৭), ওয়াহিদ মিয়ার ছেলে জাকারিয়া আহমেদ শুভ (৮), আব্দুল আজিজের ছেলে তাজেল মিয়া (১০) ও আব্দুল কাদিরের ছেলে ইসমাইল হোসেন (১০)।

মনির সুন্দ্রাটিকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে, তার দুই চাচাত ভাই শুভ ও তাজেল একই স্কুলে দ্বিতীয় ও চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ত। আর তাদের প্রতিবেশী ইসমাইল ছিল সুন্দ্রাটিকি মাদ্রাসার ছাত্র।

নিখোঁজের ৫ দিন পর ইছাবিল থেকে তাদের বালিচাপা লাশ উদ্ধার হলে দেশজুড়ে আলোচনা সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় বাহুবল থানায় নয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন মনির মিয়ার বাবা আবদাল মিয়া।

২০১৬ বছরের ২৯ এপ্রিল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবির তৎকালীন ওসি মোক্তাদির হোসেন ৯ জনের বিরুদ্ধেই আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

পুলিশ গ্রেফতার করে গ্রামের পঞ্চায়েত প্রধান আবদুল আলী বাগাল ও তার দুই ছেলেসহ ৬ জনকে। এর মধ্যে আসামি বাচ্চু মিয়া র‌্যাবের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে মারা যান।

সুন্দ্রাটিকি গ্রামের দুই পঞ্চায়েত আবদাল মিয়া তালুকদার ও আবদুল আলী বাগালের মধ্যে পারিবারিক বিরোধের জেরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয় বলে মামলার তদন্ত ও আসামিদের দেওয়া স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে পুলিশ জানিয়েছে।

হবিগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এ বছরের ৭ সেপ্টেম্বর মামলার বিচারকাজ শুরু হয়। হবিগঞ্জ আদালতে মামলার ৫৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ৪৫ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়।

গত ১৫ মার্চ মামলাটি সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করা হলে আরও ৭ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ২৭০ সে মি উপরে 

8923

হবিগঞ্জ, ২০ জুন : হবিগঞ্জে খোয়াই নদীর পানি বিপদসীমার ২৭০ সে মি উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ ঘটনায় তিনটি ঝুঁকিপূণ স্থানে বাঁধ নির্মাণের চেষ্টা করছে শত শত মানুষ বলে জানা গেছে।

গত দু’দিনের টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নদীর পানি আকষ্মিকভাবে বৃদ্ধি পায়। মঙ্গলবার সকালে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ উপচানোর আশংকা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। ফলে মাইকিং করে শহরবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, খোয়াই নদীর উৎপত্তি স্থল ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে। এ নদীটি জেলার চুনারুঘাট, বাহুবল, সদর, বানিয়াচং ও লাখাই উপজেলার উপর দিয়ে বয়ে গেছে। এ নদীর সঙ্গেই ৫টি উপজেলার বাসিন্দাদের সুখ-দুঃখ জড়িয়ে রয়েছে।

রবিবার দুপুর থেকে জেলায় প্রবল বর্ষণ শুরু হয়। পরদিন সোমবারও তা অব্যাহত থাকে। ফলে মধ্যরাতের পর থেকে খোয়াই নদীর পানি হঠাৎ করেই বৃদ্ধি পায়। সোমবার সকালে পানি বিপদসীমা অতিক্রম করে।

মঙ্গলবার সকাল ৮টায় নদীর বাঁধের মাছুলিয়া পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ২৭০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, নদীর বাঁধে ভাঙ্গনের আশংকায় রাতভর মানুষ তীর পাহারা দেন। রাত ৯টার পর থেকেই বাঁধের কয়েকটি দুর্বল স্থানে ছিদ্র হয়ে পানি শহরে প্রবেশ করতে শুরু করে।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে শহরবাসীর মাঝে মারাত্মক আতংক দেখা দেয়। ওই স্থানগুলোতে সাধারণ মানুষ নিজেদের উদ্যোগে বালুর বস্তা ফেলে এসব ছিদ্র বন্ধ করার চেষ্টা চালান। শহরের মসজিদগুলোতে মাইকিং করে সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়।

এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. তাওহীদুল ইসলাম জানান, সতর্কতার জন্য হিসেবে মাইকিং করা হয়েছে। শহরের ৩/৪টি স্থানে বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। সকাল ৮টায় শহরের মাছুলিয়া পয়েন্টে নদীর পানি বিপদসীমার ২৭০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।

তবে নদীর উজানে বাংলাদেশ অংশের বাল্লা সীমান্ত এলাকায় পানি কমছে। তবে এর প্রভাব শহরে পড়তে আরও ৩ থেকে ৪ ঘণ্টা সময় লাগবে।

তিনি বলেন, যদি নদীর বাঁধ ভেঙ্গে যায় তাহলে শহরের অন্তত ৮ ফুট উপরে পানি থাকবে।  কারণ নদীর তলদেশ উঁচু হয়ে গেছে। পানির বর্তমান অবস্থান প্রায় ১২ ফুট উপরে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

কারাগার অনলাইন টীমের উদ্যোগে হাওরে ত্রাণ ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ 

01

হবিগঞ্জ, ১৭ জুন : হাওরে গরীব ও অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করেছে কারাগার অনলাইন টীম। গত মঙ্গলবার উক্ত টীমের উদ্যোগে এ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এর মাঝে আবারো প্রমাণ করলো উক্ত সংস্থাটি মানবতার কল্যাণকামী একটি অনলাইন গ্রুপ।

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির হবিগঞ্জ জেলা শাখা ও কারাগার অনলাইন টীমের উদ্যোগে বানিয়াচং উপজেলার ৮০টি বন্যার্ত পরিবারের মাঝে এ ত্রাণ ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
02
এতে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী হবিগঞ্জ জেলা শাখার সেক্রেটারি জনাব কাজি মহসিন আহমদ। হবিগঞ্জ জেলা শিবির সভাপতি হাফেজ মস্তোফা কামাল, সেক্রেটারী ফোয়াদ হোসাইনসহ জেলা শাখার বিভিন্ন পর্যায়ের দায়িত্বশীল ও প্রায় ১৫ জন সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

আরো উপস্থিত ছিলেন কারাগার অনলাইন টীমের প্রতিনিধি মাধবপুর উপজেলা জামায়াত নেতা হাফেজ রশিদ আহমদ, শিবির নেতা মীর তারেক এবং এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

 

সূত্র : ফেসবুক ফেইজ থেকে নেওয়া…

487

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত ১ 

24

হবিগঞ্জ, ২৩ এপ্রিল : হবিগঞ্জে ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে একজন নিহত হয়েছেন। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

নিহত ব্যক্তি সদর উপজেলার জমুনাবাদ গ্রামের সুরত আলীর ছেলে জুয়েল মিয়া। এসময় হামলায় অপর একজন আহত হয়েছেন।

এলাকাবাসী জানায়, রোববার ভোর রাতে পূর্ব সুলতানশী গ্রামের জবেদ আলীর ঘরের দরজায় শব্দ হয়। তখন ঘরের লোকজন চিৎকার দেয়। পরে আবারও শব্দ হলে বাড়ির লোকজন ঘর থেকে বের হয়ে ধাওয়া করে জুয়েল মিয়াকে আটক করলে ধস্তাধস্তি শুরু হয়।

এসময় তাদের চিৎকারে এলাকার লোকজন বেরিয়ে এসে গণপিটুনি দিলে জুয়েল মিয়া ঘটনাস্থলেই মারা যান। ধস্তাধস্তিতে আহত হন জবেদ আলীর ছেলে তাজুল ইসলাম। তাকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইয়াছিনুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, জুয়েলের মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জের মেয়র জি কে গউছের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ স্থগিত 

2555

হবিগঞ্জ, ৪ এপ্রিল : হবিগঞ্জের মেয়র জি কে গউছের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ স্থগিত করেছে হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ওই আদেশ কেন বাতিল করা হবে না— তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে আদালত।

আজ মঙ্গলবার বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ দস্তগীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমান খানের ডিভিশন বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

রবিবার স্থায়ীয় সরকার মন্ত্রণালয় জি কে গউছকে বরখাস্তের আদেশ দেয়। এর বিরুদ্ধে তিনি হাইকোর্টে রিট করেন। গউছের পক্ষে আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন শুনানি করেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে ট্রাক-মাইক্রোবাস সংঘর্ষ, নিহত ৫ 

হবিগঞ্জ, ২৬ জানুয়ারি : হবিগঞ্জের শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলায় পাথরবোঝাই ট্রাক ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসের পাঁচ যাত্রী নিহত ও দুজন আহত হয়েছেন।

আজ বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৭টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

হতাহত ব্যক্তিদের পরিচয় জানা যায়নি। নিহত পাঁচজনের মধ্যে এক নারী ও চার পুরুষ রয়েছেন।

গুরুতর আহত দুজনের মধ্যে এক নারী ও এক শিশু রয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভোরে পাথরবোঝাই একটি ট্রাক ঢাকা যাচ্ছিল। আর শায়েস্তাগঞ্জ থেকে সিলেট যাচ্ছিল একটি মাইক্রোবাস। পথে শায়েস্তাগঞ্জ পৌর এলাকায় যানবাহন দুটির সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই সাতজন হতাহত হয়। দুর্ঘটনার পর পাথরবোঝাই ট্রাকটির চালক পালিয়ে গেছেন।

শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসেন জানান, সকাল ৮টার দিকে শায়েস্তাগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও হাইওয়ে পুলিশ দুর্ঘটনাস্থল থেকে লাশগুলো উদ্ধার করে হাইওয়ে থানায় নিয়ে যায়। এর আগেই আহত দুজনকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জের বাহুবলে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ১০ 

হবিগঞ্জ, ১৮ জানুয়ারি : হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলায় দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষ হয়েছে। এতে ১০ দশ গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন অন্তত অর্ধ শতাধিক মানুষ। সংঘর্ষ চলাকালে বাড়ি-ঘর ভাঙচুর ও লুটপাটেরও অভিযোগ উঠেছে।

রাস্তা নিয়ে কাজী হাটা ও তারা পাশা গ্রামের মধ্যে মঙ্গলবার রাত ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত দফায় দফায় এ সংঘর্ষ হয়।

পুলিশ সদর হাসপাতাল থেকে জিজ্ঞাসাদের জন্য শাহিন মিয়া নামে এক যুবককে আটক করে।

আহতরা জানান, তারা পাশা গ্রামের একটি রাস্তা নিয়ে কাজী হাটার সাথে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ বিরোধের জের ধরে মঙ্গলবার রাতে কাজী হাটা গ্রামের কাজল মিয়া ও তারা পাশা গ্রামের আফতার মিয়ার নেতৃত্বে লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় বাতকাটি, শিবপাশা, শিলিমগাওসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম যোগ দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে যায়। এ সময় হবিগঞ্জ পুলিশ লাইন থেকে অতিরিক্ত পুলিশ এসে ১৬ রাউন্ড টিয়ারশেল ও ১২ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

গুরুতর আহত অবস্থায় হাফিজুর রহমান (২৫), শাহাব উদ্দিন (৫০), জমরুদ মিয়া (৩০), কামাল মিয়া (৩২), দেলোয়ার (৩৬) কে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত অন্যদের বাহুবল, সিলেট উসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রাতেই পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করে। পরে রাত ১২টার দিকে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে বাহুবল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোল্লা মুনির হোসেন জানান, পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে। সংঘর্ষ এড়াতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১ 

3785

হবিগঞ্জ, ৯ নভেম্বর : হবিগঞ্জে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্দেহভাজন এক ডাকাত নিহত হয়েছে। বুধবার ভোররাত সাড়ে ৩টার দিকে জেলা শহরের জঙ্গলবহুলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় ডাকাতদের হামলায় পাঁচ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে পুলিশ।

সদর থানার ওসি ইয়াছিনুল হক জানান, ৫/৬ জনের একদল ডাকাত রাত ৩টার দিকে জঙ্গলবহুলা এলাকায় খোয়াই নদীর তীরে জড়ো হয়ে ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল এমন খবর পেয়ে সদর থানার পুলিশ অভিযানে নামে।

পুলিশ স্থানীয় কালিমন্দিরের লেবু বাগানের পাশে অভিযানে গেলে ডাকাতদল তাদের ওপর হামলা চালায়। এসময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে এক ডাকাত নিহত হয়। অন্যরা পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে ডাকাতদের ব্যবহৃত পাঁচটি রামদা, একটি ধারালো ছোরা, একটি গ্রিল কাটার মেশিন, একটি রেঞ্জ উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে ডাকাতদের হামলায় এসআই মিজানুর রহমান, এসআই অরূপ কুমার চৌধুরী, এসআই শাহীদ মিয়া, কনস্টেবল ইয়াছির আরাফাত ও কর্ণমনি আহত হয়েছেন। তাদের সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে মাটিচাপায় ২ শ্রমিকের মৃত্যু 

378

হবিগঞ্জ, ১ নভেম্বর : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় টিলা কাটার সময় মাটিচাপায় দুই শ্রমিক নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার বজরাইপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- মাসুক মিয়া (৪০) নবীগঞ্জের কায়েস্ত গ্রামের শাওন মিয়ার ছেলে ও শামসুল হক (৩৫) একই এলাকার শঙ্কর সেনা গ্রামের বাসিন্দা।

সূত্র জানায়, সকালে মাসুক মিয়া ও শঙ্করসহ কয়েকজন শ্রমিক টিলায় মাটি কাটতে যায়। এসময় হঠাৎ পাহাড়ের মাটি ধসে তাদের ওপর পড়লে ঘটনাস্থলে দুইজন নিহত হয়।

নবীগঞ্জ থানার ওসি আবদুল বাতেন খান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে কৃষক হত্যায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড 

c91sm4hu

হবিগঞ্জ, ২৫ অক্টোবর : হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে কৃষক মোক্তাদির আলী হত্যা মামলায় পাঁচজনের মুত্যুদণ্ড  দিয়েছেন আদালত। উক্ত মামলায় আরও ২৭ জনের বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মাফরোজা পারভীন এ রায় দেন।

এ সময় আদালতে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আনিছ ও ফরাসসহ ১৫ জন আসামি হাজির ছিলেন। বাকি ১৭ জন পলাতক রয়েছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০২ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি দুপুরে নবীগঞ্জ উপজেলার দিঘলবাগ ইউনিয়নের বোয়ালজুর গ্রামের মোক্তাদির আলীর জমির ধান খায় একই গ্রামের নূর ইসলামের গরু। এ সময় প্রতিবাদ করলে নূর ইসলামসহ তার দলের লোকজন হামলা চালিয়ে তাকে হত্যা করে। এ ঘটনায় মোক্তাদিরের ভাই মসাহিদ আলী বাদি হয়ে ৪০ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

তদন্ত শেষে পুলিশ ৩৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়। ১৬ জন সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বিচারক এ রায় দেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

স্কুলছাত্রী ধর্ষণে অভিযুক্তকে পুলিশে সোপর্দ 

ধর্ষণ

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) ২ অক্টোবর : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে চতুর্থ শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। পালিয়ে গেলেও পৌর মেয়রের উদ্যোগে অভিযুক্ত চার সন্তানের জনক হেলাল উদ্দীনকে (৫০) ধরে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে এলাকাবাসী।

শনিবার সকাল ৮টার দিকে পৌরসভার দক্ষিণ কুমড়াকাপন এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। পরে রাতেই মেয়েটির বাবা কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন।

ছাত্রীটির বাবার অভিযোগ, শনিবার সকাল ৮টায় তার মেয়ে চিনি কিনতে হেলাল উদ্দীনের ছেলের মুদি দোকানে যায়। এসময় সেখানে থাকা হেলাল উদ্দীন তাকে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন। ঘটনার পর গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে মেয়েটিকে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হলে পরে তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ধর্ষক বিষয়টি প্রাথমিকভাবে ধামাচাপা দিতে ব্যর্থ হয়ে পালিয়ে যায়।

এদিকে, এ ঘটনার খবর পেয়ে কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমদ নিজ উদ্যোগে খোঁজ নিয়ে রাত ১০টার দিকে জনতার মাধ্যমে শমশেরনগর বাজার থেকে পলাতক হেলাল উদ্দীনকে ধরে থানায় সোপর্দ করেন। এছাড়া ওই স্কুলছাত্রীর প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য ব্যক্তিগত তহবিল থেকে নগদ পাঁচ হাজার টাকা প্রদান করেন।

এ প্রসঙ্গে পৌর মেয়র জুয়েল আহমদ সমকালকে বলেন, ‘থানা কর্তৃপক্ষ অভিযোগটিকে মামলা হিসাবে গ্রহণ করে ধর্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা নেবে।’

কমলগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাহিদুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘ধর্ষক আটক আছে। আর অভিযোগটিকে মামলা হিসাবে গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।’

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে সংঘর্ষে যুবক নিহত 

40

হবিগঞ্জ, ৩ সেপ্টেম্বর : হবিগঞ্জ জেলার বাহুবলে দু’পক্ষের সংঘর্ষে অম্পু সূত্রধর (১৮) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন। শনিবার সকাল ৯টায় উপজেলার শ্যামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত অম্পু শ্যামপুর গ্রামের কৃষ্ণধন সূত্রধরের ছেলে।

আহতদের মধ্যে শোভন সূত্রধর (৪০), সুবোধ সূত্রধর (৭৫), সুশীল সূত্রধর(৩৪), সুধীর সূত্রধর (৭০), স্বদেশ সূত্রধর (৩২), হিরা সূত্রধর (৪০), সম্ভু সুত্রধরকে (২৮) হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার স্নানঘাট ইউনিয়নের শ্যামপুর গ্রামের সুশীল সূত্রধরের সঙ্গে পাশের বাড়ির পরিতোষ সূত্রধরের রাস্তা জায়গা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে শনিবার সকালে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হন।

স্থানীয় লোকজন আহতের উদ্ধার করে বাহুবল হাসপাতাল ও হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। তাদের মধ্যে অম্পু সূত্রধরকে বেলা ১১টায় কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে আবাসিক মেডিকেল অফিসার বজলুর রহমান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

হবিগঞ্জে ভাবি-ভাতিজিসহ ৩ জনকে খুন 

55444

হবিগঞ্জ, ২৪ আগস্ট : হবিগঞ্জের মাধবপুরে সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ভাবি, ভাতিজিসহ তিনজনকে হত্যা করেছে এক পাষণ্ড। মঙ্গলবার রাত সোয়া ৯টার দিকে উপজেলার ধর্মঘর ইউনিয়নের বীরসিংহ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় লোকজন ঘাতক তাহের মিয়াকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

নিহতরা হলেন- বীরসিংহ গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের স্ত্রী জাহানারা বেগম (৪০), তার মেয়ে শারমিন বেগম (২৭) ও তাদের প্রতিবেশী শিমুল মিয়া (২৫)।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, বীরসিংহ গ্রামের তাহের মিয়া এবং তার বড়ভাই সৌদি আরব প্রবাসী গিয়াস উদ্দিনের মাঝে দীর্ঘদিন ধরে সম্পত্তির ভাগবাটোয়ারা নিয়ে বিরোধ চলছিল।

এর জের ধরে মঙ্গলবার রাতে তাহের মিয়া ঘরে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জাহানারা ও শারমিনকে জবাই করে। এ সময় শিমুল মিয়া এগিয়ে গেলে তাকেও ছুরিকাঘাত করে।

ঘটনাস্থলেই মারা যান জাহানারা বেগম। মুমূর্ষু অবস্থায় শারমিন ও শিমুলকে মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে তারা সেখানে মারা যান।

এদিকে হামলায় আহত হয়েছে জাহানারার ছেলে সুজাত মিয়া (১৩)। তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার অপর ছেলে আরিফ মিয়া জার্মানি প্রবাসী।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে হবিগঞ্জের সহকারী পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমান বলেন, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর