২৮ মার্চ ২০১৭
রাত ১২:২৪, মঙ্গলবার

আট উইকেটে সহজ জয় বাংলাদেশের

আট উইকেটে সহজ জয় বাংলাদেশের 

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৭ মার্চ : ইমার্জিং এশিয়া কাপে প্রথম ম্যাচে হংকংয়ের বিরুদ্ধে সহজ জয় পেয়েছে টাইগাররা। মাত্র ১২৬ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে ২ উইকেট হারিয়ে ৮ উইকেটে জয়লাভ করে মুমিনুল-নাসিররা। বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করেন সাইফ হাসান অপরাজিত ৫৮, নাজমুল হাসান শান্ত অপরাজিত ২৪, আজমির ১৫ ও মুমিনুল ২১।

এর আগে আজ সোমবার কক্সবাজার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় হংকংয়ের অধিনায়ক আনসুমান রাথ।

ব্যাটিংয়ে নেমে হংকং শুরু থেকেই সুবিধা করতে পারেনি। দলের পক্ষে বাবর হায়াত ৩৭ আর নিজাখাত খান ২৬ রান করেন। বাংলাদেশি বোলারদের তোপে বাকিরা আসা যাওয়ার মধ্যেই ছিলেন। আর হংকংকে দ্রুত অল আউট করতে দলকে সামনে থেকেই নেতৃত্ব দিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক আর সহ-অধিনায়ক নাসির হোসাইন। দুজনেই তুলে নেন প্রতিপক্ষের তিনটি করে উইকেট।

একই সময়ে পাশের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামের দ্বিতীয় ভেন্যুতে ‘বি’ গ্রুপের অপর ম্যাচে নেপালকে মোকাবেলা করছে পাকিস্তান।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মাশরাফির প্রশংসায় পঞ্চমুখ তামিম 

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৭ মার্চ : জাতীয় ক্রিকেট দলের সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে প্রশংসায় ভাসালেন ডাম্বুলায় শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রথম ওয়ানডে জয়ের নায়ক তামিম ইকবাল।

টাইগার ড্যাশিং ওপেনার তামিম বলেন, ‘মাশরাফি ভাইকে দেখে আমাদের শেখা উচিত। দলের সবচেয়ে সিনিয়র খেলোয়াড় তিনি। বিশেষ করে ফিল্ডিংয়ে উনার চেষ্টা সত্যিই দুর্দান্ত।’

‘আমরা হয়তো সব ম্যাচ নাও জিততে পারি। কিন্তু ওনার (মাশরাফি) মতো মনোভাব যদি সবার মধ্যে থাকে, তাহলে অনেক কঠিন কাজই সহজ হয়ে যাবে।’

দলের মধ্যে একটা দারুণ বন্ধন তৈরি করেছেন মাশরাফি ভাই উল্লেখ করে তামিম বলেন, ‘দল হিসেবে আমরা এখন দারুণ করছি। সবার মধ্যে মধুর একটা বন্ধন রয়েছে, আপনি যদি ফিল্ডিং দেখেন, সব খেলোয়াড়ের সম্পৃক্ততা দেখেন, তাহলে সেটা আঁচ করতে পারবেন। আমি চাই, এটা বজায় থাকুক।’

মাশরাফি বিন মর্তুজাকে দলের সব খেলোয়াড়ই ভীষণ পছন্দ করেন। তার নেতৃত্বগুণ, বন্ধুসুলভ মনোভাব এরই মধ্যে মুগ্ধ করেছে অনেককে।

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে লঙ্কানদের ৯০ রানে পরাজিত করে বাংলাদেশ। টাইগারদের হয়ে ব্যাট হাতে বড় অবদান ছিল তামিম ইকবালের। দলকে উপহার দিয়েছেন ১২৭ রানের নরজরকাড়া ইনিংস। নির্বাচিত হন ম্যাচ সেরা।

উল্লেখ্য, জয়টা শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের পঞ্চম। আর লঙ্কানদের মাটিতে দ্বিতীয়। এই জয়ে ফলে তিন ম্যাচ সিরিজে ১-০’তে এগিয়ে থাকল সাকিব-তামিমরা। ২৮ মার্চ একই মাঠে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মুখোমুখি হবে দু’দল।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

পাকিস্তানের কাছে ক্যারিবীয়দের লজ্জার হার 

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৭ মার্চ : চার ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে পাকিস্তানের কাছে লজ্জাজনকভাবে হেরে গেল ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত এই ফরম্যাটের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

রবিবার রাতে ক্যারিবীয়দের ছয় উইকেটে হারিয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেছেন হাফিজ-মালিক-সরফরাজরা।

এদিন রাতে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ক্যারিবীয়রা। কিন্তু পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে দাঁড়াতেই পারেননি স্যামুয়েলস-সিমনস-পোলার্ডের সমন্বয়ে গড়া ওয়েস্ট ইন্ডিস। দলীয় ৭৪ রানেই স্বাগতিকদের ৭ ব্যাটসম্যানকে সাজঘরে পাঠায় পাকিস্তান। তবে শেষ দিকে কার্লোস ব্র্যাথওয়েটের প্রতিরোধে শত রান পার করে তারা। পাকিস্তানের হয়ে ৭ রানে তিন উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিসকে একাই কোনঠাসা করে দেন অভিষিক্ত স্পিনার শাহদাব খান।

জবাবে ১৭ বল বাকি থাকতে ১১৫ করে মাঠ ছাড়ে পাকিস্তান। বার্বাডোজে জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শোয়েব মালিকের ৩৮, বাবর আজমের ২৯ ও কামরান আকমলের ২২ রানে ভর করে জয় তুলে নেয় পাকিস্তান। জেসন হোল্ডার সর্বোচ্চ দুটি উইকেট পান।

ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন শাহদাব খান। আগামী ৩০ মার্চ পোর্ট অব স্পেনে সিরিজে দ্বিতীয় টি-২০ অনুষ্ঠিত হবে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

‘বর্তমান সময়ে নেইমারই সেরা’ 

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৭ মার্চ : বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা লিওনেল মেসি এবং রিয়াল মাদ্রিদের ‘গেম মেকার’ খ্যাত ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর তুলনায় বর্তমানে বার্সার ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার সেরা বলে মন্তব্য করেছেন আলেসান্দ্রো কোস্তাকুর্তা। ইতালির এই সাবেক ফুটবলার জানান, আগামীতে ব্যালন ডি’অর লড়াইয়ে শীর্ষে থাকবে নেইমারের নাম।

অবশ্য এই উক্তির মাধ্যমে মেসি বা রোনালদোকে মোটেও খাট করার চেষ্টা করেনি ইতালির ক্লাব মিলানের সাবেক ডিফেন্ডার। তিনি বলেন, মেসি ও রোনালদো তাদের নিজেদের যুগের সেরা খেলোয়াড়। কিন্তু তাদের সময় শেষ হয়ে আসছে। সামনে তাদের মত এই লড়াইয়ে সবার ওপরে থাকবে নেইমারের নাম। তবে পার্থক্য হল তাকে টক্কর দেয়ার মত হয়ত কেউ থাকবে না।

আর সে কারণেই কোস্তাকুর্তা বলেন, বর্তমানে, ২০১৭ সালে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো সেরা খেলোয়াড়।

তিনি স্কাই ইতালিয়াকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘নেইমার সম্পর্কে আমি যতদূর জানি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর মতই সে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দারুণ সক্রিয় সে। কিন্তু রোনালদোর সবকিছু তার ভেতরে নেই। কিন্তু আমি মনে করি কিছুটা কম-বেশি হলেও এদের গোল সংখ্যাও সমান হয়ে যাবে। এখনই ব্যালন ডি’অর লড়াইয়ে দৃঢ়ভাবে উচ্চারিত হয় নেইমারের নাম। বর্তমান সময়ের কথা চিন্তা করলে সে রোনালদো বা মেসির থেকে ভাল খেলোয়াড়। আর যদি তার বয়সে রোনালদো বা মেসির খেলার সঙ্গে আপনি তুলনা করেন, তাহলে নিশ্চিতভাবেই এগিয়ে আছে নেইমার।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

জেনে নিন আইপিএলে কোন দলের খেলা কবে 

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৬ মার্চ : ৫ এপ্রিল হায়দ্রাবাদের রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী ম্যাচ খেলা হবে। এবং শেষ ফাইনাল ম্যাচ খেলা হবে ২১ মে। সবমিলিয়ে মোট ৬০ ম্যাচ খেলা হবে। গতবছরে ফাইনাল খেলেছিল সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। এবার ২০১৭ সালের আইপিএলে উদ্বোধনী ম্যাচে খেলবে এ দুল। এ আসরের বাংলাদেশের হয়ে খেলছেন দুজন, সাকিব আল হাসান, কেকেআর, মোস্তাফিজুর রহমান খেলবেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে।

ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড আইপিএলের দশম আসরের পূর্ণাঙ্ক সূচি প্রকাশ করা হয়েছে। আগামী ৫ এপ্রিল হায়দ্রাবাদের রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী ম্যাচ খেলা হবে। এবং শেষ ফাইনাল ম্যাচ খেলা হবে ২১ মে। মোট ৪৭ দিনের এই টুর্নামেন্টে ৮টি দল খেলবে। মোট ১০টি আলাদা স্টেডিয়ামে খেলা হবে। প্রতিটি দল ১৪টি করে ম্যাচ খেলবে। সবমিলিয়ে মোট ৬০ ম্যাচ খেলা হবে।

এবারের আইপিএলের ভেন্যুগুলো হল: ইডেন গার্ডেন্স (কলকাতা), চিন্নাস্বামী স্টেডিয়াম (বেঙ্গালুরু),ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়াম (মুম্বাই), রাজীব গান্ধী আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম (হায়দ্রাবাদ), আইএস বিন্দ্রা স্টেডিয়াম (মোহালি), এমসিএ স্টেডিয়াম (পুনে), গ্রিন পার্ক স্টেডিয়াম (কানপুর), হোলকার ক্রিকেট স্টেডিয়াম (ইন্দোর), ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়াম (দিল্লি), সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়াম (রাজকোট)।

প্রথম ম্যাচ, ৫ এপ্রিল, বুধবার, হায়দ্রাবাদ বনাম ব্যাঙ্গালোর – হায়দ্রাবাদ, রাত ৮টা
দ্বিতীয় ম্যাচ, ৬ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার, রাইজিং পুনে বনাম মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স – পুনে, রাত ৮টা
তৃতীয় ম্যাচ, ৭ এপ্রিল, শুক্রবার, গুজরাত লায়ন্স বনাম নাইট রাইডার্স – রাজকোট, রাত ৮টা
চতুর্থ ম্যাচ, ৮ এপ্রিল, শনিবার, পাঞ্জাব বনাম রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্ট – ইন্দোর, বিকেল ৪টা
পঞ্চম ম্যাচ, ৮ এপ্রিল, শনিবার, ব্যাঙ্গালোর বনাম দিল্লি – বেঙ্গালুরু, রাত ৮টা
ষষ্ঠ ম্যাচ, ৯ এপ্রিল, রবিবার, হায়দ্রাবাদ বনাম গুজরাত লায়ন্স – হায়দ্রাবাদ বিকেল ৪টা
সপ্তম ম্যাচ, ৯ এপ্রিল, রবিবার, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম কলকাতা নাইট রাইডার্স – মুম্বাই, রাত ৮টা
অষ্টম ম্যাচ, ১০ এপ্রিল, সোমবার, পাঞ্জাব বনাম ব্যাঙ্গালোর – ইন্দোর, রাত ৮টা
নবম ম্যাচ, ১১ এপ্রিল, মঙ্গলবার, পুনে সুপারজায়ান্টস বনাম দিল্লি ডেয়ারডেভিলস – পুনে, রাত ৮টা
দশম ম্যাচ, ১২ এপ্রিল, বুধবার, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম হায়দ্রাবাদ-মুম্বাই, রাত ৮টা
ম্যাচ ১১, ১৩ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার, কেকেআর বনাম পাঞ্জাব – কলকাতা রাত ৮টা
ম্যাচ ১২, ১৪ এপ্রিল, শুক্রবার, আরসিবি বনাম মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স-বেঙ্গালুরু, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ১৩, ১৪ এপ্রিল, শুক্রবার, গুজরাত বনাম পুনে – রাজকোট, রাত ৮টা
ম্যাচ ১৪, ১৫ এপ্রিল, শনিবার, কেকেআর বনাম হায়দ্রাবাদ – কলকাতা, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ১৫, ১৫ এপ্রিল, শনিবার, দিল্লি বনাম পাঞ্জাব-দিল্লি, রাত ৮টা
ম্যাচ ১৬, ১৬ এপ্রিল, রবিবার, মুম্বাই বনাম গুজরাত-মুম্বাই, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ১৭, ১৬ এপ্রিল, রবিবার, ব্যাঙ্গালোর বনাম পুনে – বেঙ্গালুরু, রাত ৮টা
ম্যাচ ১৮, ১৭ এপ্রিল, সোমবার, দিল্লি বনাম কলকাতা – দিল্লি, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ১৯, ১৭ এপ্রিল, সোমবার, সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ বনাম পাঞ্জাব-হায়দ্রাবাদ, রাত ৮টা
ম্যাচ ২০, ১৮ এপ্রিল, মঙ্গলবার, গুজরাত বনাম ব্যাঙ্গালোর – রাজকোট, রাত ৮টা
ম্যাচ ২১, ১৯ এপ্রিল, বুধবার, হায়দ্রবাদ বনাম দিল্লি – হায়দ্রাবাদ, রাত ৮টা
ম্যাচ ২২, ২০ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার, পাঞ্জাব বনাম মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স – ইন্দোর, রাত ৮টা
ম্যাচ ২৩, ২১ এপ্রিল, শুক্রবার, কলকাতা বনাম গুজরাত – কলকাতা, রাত ৮টা
ম্যাচ ২৪, ২২ এপ্রিল, শনিবার, দিল্লি বনাম মুম্বাই – দিল্লি, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ২৫, ২২ এপ্রিল, শনিবার, পুনে বনাম হায়দ্রাবাদ – পুনে, রাত ৮টা
ম্যাচ ২৬, ২৩ এপ্রিল, রবিবার, গুজরাত বনাম পাঞ্জাব – রাজকোট, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ২৭, ২৩ এপ্রিল, রবিবার, কলকাতা বনাম ব্যাঙ্গালোর – কলকাতা, রাত ৮টা
ম্যাচ ২৮, ২৪ এপ্রিল, সোমবার, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম পুনে – মুম্বই, রাত ৮টা
ম্যাচ ২৯, ২৫ এপ্রিল, মঙ্গলবার, ব্যাঙ্গালোর বনাম হায়দ্রাবাদ – বেঙ্গালুরু, রাত ৮টা
ম্যাচ ৩০, ২৬ এপ্রিল, বুধবার, পুনে বনাম কলকাতা – পুনে, রাত ৮টা
ম্যাচ ৩১, ২৭ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার, ব্যাঙ্গালোর বনাম গুজরাত – বেঙ্গালুরু, রাত ৮টা
ম্যাচ ৩২, ২৮ এপ্রিল, শুক্রবার, কেকেআর বনাম দিল্লি – কলকাতা, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৩৩, ২৮ এপ্রিল, শুক্রবার, পাঞ্জাব বনাম হায়দ্রাবাদ – মোহালি, রাত ৮টা
ম্যাচ ৩৪, ২৯ এপ্রিল, শনিবার, পুনে বনাম ব্যাঙ্গালোর – পুনে, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৩৫, ২৯ এপ্রিল, শনিবার, গুজরাত বনাম মুম্বাই – রাজকোট, রাত ৮টা
ম্যাচ ৩৬, ৩০ এপ্রিল, রবিবার, পাঞ্জাব বনাম দিল্লি – মোহালি, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৩৭, ৩০ এপ্রিল, রবিবার, হায়দ্রাবাদ বনাম কলকাতা – হায়দ্রাবাদ, রাত ৮টা
ম্যাচ ৩৮, ১ মে, সোমবার, মুম্বাই বনাম ব্যাঙ্গালোর – মুম্বাই, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৩৯, ১ মে, সোমবার, পুনে বনাম গুজরাত – পুনে, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪০, ২ মে, মঙ্গলবার, দিল্লি বনাম হায়দ্রাবাদ – দিল্লি, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪১, ৩ মে, বুধবার, কলকাতা বনাম পুনে – কলকাতা, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪২, ৪ মে, বৃহস্পতিবার, দিল্লি বনাম গুজরাত – দিল্লি, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪৩, ৫ মে, শুক্রবার, ব্যাঙ্গালোর বনাম পাঞ্জাব – বেঙ্গালুরু, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪৪, ৬ মে, শনিবার, হায়দ্রাবাদ বনাম পুনে – হায়দ্রাবাদ, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৪৫, ৬ মে, শনিবার, মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম দিল্লি – মুম্বাই, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪৬, ৭ মে, রবিবার, ব্যাঙ্গালোর বনাম কলকাতা- বেঙ্গালুরু, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৪৭, ৭ মে, রবিবার, পাঞ্জাব বনাম গুজরাত – মোহালি, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪৮, ৮ মে, সোমবার, হায়দ্রাবাদ বনাম মুম্বাই – হায়দ্রাবাদ, রাত ৮টা
ম্যাচ ৪৯, ৯ মে, মঙ্গলবার, পাঞ্জাব বনাম কলকাতা – মোহালি, রাত ৮টা
ম্যাচ ৫০, ১০ মে, বুধবার, গুজরাত বনাম দিল্লি – কানপুর, রাত ৮টা
ম্যাচ ৫১, ১১ মে, বৃহস্পতিবার, মুম্বাই বনাম পাঞ্জাব – মুম্বাই, রাত ৮টা
ম্যাচ ৫২, ১২ মে, শুক্রবার, দিল্লি বনাম পুনে – দিল্লি, রাত ৮টা
ম্যাচ ৫৩, ১৩ মে, শনিবার, গুজরাত বনাম হায়দ্রাবাদ – কানপুর, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৫৪, ১৩ মে, শনিবার, কলকাতা বনাম মুম্বাই – কলকাতা, রাত ৮টা
ম্যাচ ৫৫, ১৪ মে, রবিবার, পুনে বনাম পাঞ্জাব – পুনে, বিকেল ৪টা
ম্যাচ ৫৬, ১৪ মে, রবিবার, দিল্লি বনাম ব্যাঙ্গালোর – দিল্লি, রাত ৮টা
ম্যাচ ৫৭, ১৬ মে, মঙ্গলবার, কোয়ালিফায়ার ১, রাত ৮টা (ভেন্যু ঠিক হয়নি)
ম্যাচ ৫৮, ১৭ মে, বুধবার, এলিমিনেটর, রাত ৮টা (ভেন্যু ঠিক হয়নি)
ম্যাচ ৫৯, ১৯ মে, শুক্রবার, কোয়ালিফায়ার ২ (ভেন্যু ঠিক হয়নি)
ম্যাচ ৬০, ২১ মে, রবিবার, আইপিএল ১০ ফাইনাল – হায়দ্রাবাদ, রাত ৮টা
[সূচী প্রয়োজনে পরিবর্তিত করতে পারে আইপিএল কমিটি]

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

যে কারণে আগে ফিল্ডিং নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা 

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৬ মার্চ : বাংলাদেশ প্রথম ওয়ানডেতে ডাম্বুলায় শ্রীলঙ্কাকে ৯০ রানে উড়িয়ে দিয়েছে। দুর্দান্ত ব্যাটিং, দারুণ বোলিং আর উদ্দীপ্ত ফিল্ডিং প্রদর্শন করে জয় তুলে নিয়েছে টাইগার বাহিনী। এই জয়ের মাধ্যমে তিন ম্যাচ সিরিজে এগিয়ে গেল মাশরাফি বিন মর্তুজার দল।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ৩২৪ রান করে বাংলাদেশ। যেটা মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয় শ্রীলংকা। আগে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে বাংলাদেশকে কেন রানের পাহাড়ে চড়ার সুযোগ দেয়া হয়েছে- তা নিয়ে সমালোচিত হচ্ছে দেশটির বোর্ড ম্যানেজম্যান্ট।

ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যান দিনেশ চান্দিমাল তার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, কুয়াশার মধ্যে বিপদে ফেলতেই টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিল শ্রীলংকা।

চান্দিমাল বলেন, আগে বল করা ছিল সম্মিলিত দলীয় সিদ্ধান্ত। গত দুই দিন এই মাঠে সন্ধ্যার পর কুয়াশা পড়েছে। কুয়াশার সুবিধা কাজে লাগাতে আমরা বাংলাদেশকে ব্যাট করতে পাঠাই। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে শনিবার কোনো কুয়াশা পড়েনি মাঠে। যে কারণে আমাদের কৌশলও কাজে আসেনি।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

রোনালদোর জোড়া গোলে পর্তুগালের জয় 

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৬ মার্চ : আবারো পর্তুগাল, আবারো সেই রোনালদো। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বেও দারুণ ছন্দে আছে পর্তুগাল। তার প্রমাণও রেখেছে তারা। রোনালদো বাহিনী শনিবার রাতে আরও একবার চিরচেনা পর্তুগালকে চিনিয়ে দিল।

বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে হাঙ্গেরির বিপক্ষে ম্যাচে ২ গোল করেছেন রোনালদো। ৩-০ গোলে জয় তুলে নিয়েছে পর্তুগাল। ম্যাচের প্রথম গোল আসে ৩২ মিনিটে। আন্দ্রে সিলভা পায়ের আলতো ছোঁয়ায় বলটি হাঙ্গেরির জালে ঢোকাতে সক্ষম হন।

৩৬ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে উড়িয়ে দেয়া বল রোনালদোকে দেন সিলভা। আর দুরপাল্লার এক শটে লক্ষ্যভেদ করেন পর্তুগাল অধিনায়ক। ৬৫ মিনিটে হাঙ্গেরির কফিনে শেষ পেরেকটা ঠুকে দেন রোনালদো নিজেই।

উল্লেখ্য, ১২ পয়েন্ট নিয়ে রোনালদোরা রয়েছেন ‘বি’ গ্রুপের দ্বিতীয় স্থানে। সুইজারল্যান্ড যথারীতি শীর্ষেই আছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

দুর্দান্ত জয়ে সিরিজে এগিয়ে গেল টাইগাররা 

187

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৬ মার্চ : শাবাশ বাংলাদেশ! মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের প্রাক্কালে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান, ক্রিকেট পরাশক্তি শ্রীলংকার বিরুদ্ধে এক অবিস্মরণীয় জয় তুলে নিয়ে টাইগাররা সূচনা করলো এক নতুন ইতিহাসের। পরের মাঠে শততম টেস্ট জয়ের পর ওয়নডে ম্যাচে ৯০ রানের এক বড় জয় পাওয়ায় ১-০ তে এগিয়ে গেলো তামিম, সাকিব, মাশরাফিরা। এর আগে আজ শনিবার ডাম্বুলায় রনগিরি স্টেডিয়ামে নতুন অধ্যায় সূচনা করে লাল-সবুজ বাহিনী। ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম খেলায় স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে ব্যাটে-বলে উড়িয়ে দিয়ে যেন বাঘের হুংকারে ধরাশায়ী করলো লঙ্কান সিংহকে। এদিকে আগামী ২৮ মার্চ একই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ।

অবশ্য শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে বাংলাদেশের এটি পঞ্চম জয় এবং তাদের মাটিতে দ্বিতীয়। এর ফলে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে লিড নিল বাংলাদেশ। টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে তামিমের অনবদ্য সেঞ্চুরিতে বাংলাদেশ ৫ উইকেটে সংগ্রহ করে ৩২৪ রান। জবাবে শ্রীলঙ্কা ৪৫.১ ওভারে ২৩৪ রানেই অলআউট হয়ে যায়। সেঞ্চুরির সুবাদে অনুমিতভাবে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জিতেছেন তামিম ইকবাল।

৩২৫ রানের জয়ের টার্গেটে ব্যাট করতে নামলেও এর আগে ডাম্বুলার রণগিরি ভেন্যুতে ৩০০ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড নেই কোন দলের। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জিততে হলে নতুন রেকর্ড গড়তে হতো স্বাগতিক শ্রীলঙ্কাকে। সেই অসাধ্য সাধনে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই ভীষণ চাপের মধ্যে ছিল দলটি। এর উপর প্রথম ওভারেই লঙ্কান শিবিরে আঘাত হানেন বাংলাদেশ ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। তৃতীয় বলেই লঙ্কান ওপেনার দানুষ্কা গুণাথিলাকাকে এলবির ফাঁদে ফেলেন তিনি। লঙ্কান দলীয় স্কোর তখন শূন্য। প্রথম ওভার মেডেনসহ এক উইকেট নেন মাশরাফি। যদিও রিভিউ নিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। কিন্তু কাজ হয়নি। স্কোর ৩ বলে শূন্য রানে ১ উইকেট।

লঙ্কান শিবিরে দ্বিতীয়বারের মতো হানা দেন ওয়ানডেতে অভিষেক হওয়া বা হাতি স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ। ৫.৬ ওভারে মিরাজের বলে শুভগতর হাতে ক্যাচ দেন ওয়ান ডাউনে নামা কুশল মেন্ডিজ। ১৭ বলে চার রান করে সাজঘরে ফেরেন মেন্ডিজ। তৃতীয় উইকেট জুটিতে হাল ধরার চেষ্টা করেছিলেন অধিনায়ক উপল থারাঙ্গা ও দিনেশ চান্দিমাল। তবে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। হামলে পড়েছেন পেসার তাসকিন আহমেদ। ১০.৬ ওভারে তাসকিনের বলে মাশরাফির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন থারাঙ্গা। তার আগে করে যান ২৯ বলে তিন চারে ১৯ রান।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে কিছুটা ভয় ধরিয়ে দিয়েছিলেন চান্দিমাল ও গুণারত্নে। এই জুটি থেকে আসে ৫৬ রান। শেষ অবধি এই জুটি বিচ্ছিন্ন করে বাংলাদেশ শিবিরে স্বস্তি এনে দেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ২৩.২ ওভারে সাকিবের বলে মোসাদ্দেকের হাতে ক্যাচ দেন গুণারত্নে। ৪০ বলে দুই চারে ২৪ রান করে ফেরেন তিনি। গলার কাঁটা হিসাবে ব্যাট করছিল দিনেশ চান্দিমাল। যিনি গোটা সিরিজেই কম বেশি ভুগিয়েছেন বাংলাদেশের বোলারদের। এই ম্যাচেও ফিফটি করে আগাচ্ছিলেন সাবলিল গতিতে। শেষ পর্যন্ত তাকে থামান অভিষিক্ত মেহেদী হাসান মিরাজ।  ২৮.৫ ওভারে মিরাজের বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে গিয়ে সৌম্যর হাতে ধরা পড়েন চান্দিমাল। সাজঘরে ফেরার আগে চান্দিমাল করে যান ৭০ বলে ৬ চারে ৫৯ রান।

মুস্তাফিজ উইকেট পাচ্ছেন না। এমন আফসোস ছিল মাঠ ও মাঠের বাইরে। ৩৩.৩ ওভারে মিলিন্দা শ্রীবর্ধনেকে আউট করে ভক্তদের আশ্বস্ত করেন কাটার মাস্টার। মুস্তাফিজের বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে মিডউইকেটে শুভাগতর তালুবন্দী হন শ্রীবর্ধনে। ২৫ বলে এক চার ও এক ছয়ে ২২ রান করেন শ্রীবর্ধনে।

এরপর আবারো মাশরাফির আঘাত। ৩৭.১ ওভারে মাশরাফির বলে রিয়াদের হাতে ক্যাচ দেন পাথিরানা। ৩২ বলে তিন চারে ৩১ রান করে ফেরেন পাথিরানা। অষ্টম উইকেট জুটিতে লাকমলের সঙ্গে রানের গতি বাড়াচ্ছিলেন থিসারা পেরেরা।

এই জুটি ভাঙেন মুস্তাফিজ। নয় বলে এক চারে ৮ রান করা সুরঙ্গ লাকমল মুস্তাফিজের বলে ক্যাচ দেন সাব্বিরের হাতে। শ্রীলঙ্কার অষ্টম উইকেটের পতন। দলীয় রান তখন ২০৮। ৪৩.৫ ওভারে নবম উইকেটের পতন। সান্দাকান রান আউট মুস্তাফিজের নিখুত থ্রোয়ে। ৭ বলে তিন রান করেন তিনি। জয়ের খুব কাছে তখন বাংলাদেশ। শেষ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশকে দারুণ জয়োৎসবে মাতান মুস্তাফিজুর রহমান। ৫৫ রানে আউট হন পেরেরা। টাইগার শিবিরে আসে মধুর জয়। বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে মুস্তাফিজ তিনটি, মাশরাফি, মিরাজ দুটি, সাকিব, তাসকিন একটি করে উইকেট লাভ করেন।

তারও আগে ব্যাট করতে নেমে রেকর্ড গড়া ইনিংস উপহার দেয় বাংলাদেশ। ৫ উইকেটে টাইগার শিবির করে ৩২৪ রান। যেখানে ১২৭ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলেন হার্ড হিটার তামিম ইকবাল। ফিফটি করেন সাব্বির ও সাকিব। ৩২৪ রান শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস বাংলাদেশের। আগেরটি ছিল ২৬৫ রান, মোহালিতে, ২০০৬ সালে। ডাম্বুলার রণগিরি ভেন্যুতেও শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে কোন দলের সর্বোচ্চ রানের ইনিংস এটি। বাংলাদেশের ওয়ানডে ইতিহাসে এটি তৃতীয় সর্বোচ্চ রানের ইনিংস। প্রথম দুটি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে, ৩২৯, ৩২৬। ৩২৪ রানের ইনিংস শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সব দল মিলিয়ে বাংলাদেশের চতুর্থ সর্বোচ্চ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

তামিমের অষ্টম শতক 

fv5kivju-copy

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৫ মার্চ : ওয়ানডে ক্যারিয়ারে অষ্টম শতক পূরণ করলেন তামিম ইকবাল। স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচেই সেঞ্চুরি হাঁকালেন বাংলাদেশের বাঁহাতি ওপেনার তামিম।ৱ

সিরিজের প্রথম ওয়ানেডেতে ৪৩তম ওভারে ১২টি চারে ১২৭ বলে তামিম তুলে নেন ক্যারিয়ারের অষ্টম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। এর আগে ২৬তম ওভারে ওয়ানডেতে ৩৫তম অর্ধশতকের দেখা পান তামিম।  ৭৫ বলে করা তার অর্ধশত রানে ছিল ছয়টি চারের মার।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ১০ ‌হাজারি ক্লাবে তামিম 

fv5kivju-copy

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৫ মার্চ : ডাম্বুলায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে তামিম ইকবাল ছুঁলেন ১০ হাজার আন্তর্জাতিক রানের মাইলফলক। প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে এই কীর্তি তার।

এই ম্যাচের আগে তিন ধরনের ক্রিকেটে তামিমের রান ছিল ৯ হাজার ৯৯৯। টেস্টে তামিমের রান ৩ হাজার ৬৭৭। টি-টোয়েন্টিতে ১ হাজার ২০২। ওয়ানডেতে ইতোমধ্যেই পেরিয়ে গেছেন ৫ হাজার রান।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রান শচীন টেন্ডুলকারের—৩৪ হাজার ৩৫৭। কমপক্ষে ১০ হাজার রান করা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের মধ্যে আছেন ১২ জন ভারতীয়। তারা হলেন শচীন টেন্ডুলকার, রাহুল দ্রাবিড়, সৌরভ গাঙ্গুলী, মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন, বীরেন্দর শেবাগ, মহেন্দ্র সিং ধোনি, বিরাট কোহলি, সুনীল গাভাস্কার, যুবরাজ সিং, ভিভিএস লক্ষ্মণ, দিলীপ ভেংসরকার ও গৌতম গম্ভীর।

শ্রীলঙ্কান আছেন ৮ জন—কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়াবর্ধনে, সনাৎ জয়াসুরিয়া, অরবিন্দ ডি সিলভা, অর্জুনা রানাতুঙ্গা, তিলকরত্নে দিলশান, মারভান আতাপাত্তু, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস।

ইনজামাম–উল–হক, ইউনিস খান, মোহাম্মদ ইউসুফ, জাভেদ মিয়াঁদাদ, সেলিম মালিক, সাঈদ আনোয়ার, শহীদ আফ্রিদি, মোহাম্মদ হাফিজরা পাকিস্তানের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে করেছেন কমপক্ষে ১০ হাজার রান।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

তামিমের শতকে বাংলাদেশ ৩২৪ 

7tz808as-copy

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৫ মার্চ : শ্রীলংকার বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে টস হেরে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। ৪৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪ উইকেট হারিয়ে ২৭৬ রান। উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল ১১৫ রানে ব্যাট করছেন। তার সঙ্গে অপর প্রান্তে থাকা মোসাদ্দেক হোসেন ৫ রানে ব্যাট করছেন।

৭২ রানে সাজঘরে ফিরেছেন সাকিব। দলীয় ২৯ রানে সৌম্য সরকার ১০ রানে আউট হন। এর আগে তামিমের সঙ্গে ৯০ রানে জুটি গড়ে আউট হন সাব্বির। তিনি করেন ৫৪ রান। এরপর মুশফিকুর রহিম নেমে ১ রান করে আউট হন।

শনিবার বাংলাদেশ সময় বেলা ৩টায় শ্রীলংকার রণগিরি ডাম্বুলা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হয়।

ব্যাট করতে নেমে প্রথম চার ওভারে ২৫ রান তুলে ভালো শুরুরই ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ও সৌম্য। তবে বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি এ জুটি।

লংকান পেসার সুরঙ্গা লাকমলের করা পঞ্চম ওভারের চতুর্থ বলে দলীয় ২৯ রানে সৌম্য সরকার উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিলে বাংলাদেশের প্রথম উইকেটের পতন হয়। তিনি করেন ১০ রান।

এই ম্যাচে বাংলাদেশের পক্ষে ওয়ানডেতে অভিষেক হচ্ছে মেহেদি হাসান মিরাজের।

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), সাকিব আল হাসান, মাহমুদুল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদি হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান।

শ্রীলংকা দল: ধানুষ্কা গুণাথিলকা, উপুল থারাঙ্গা (অধিনায়ক),  কুশল মেন্ডিস, দিনেশ চান্ডিমাল (উইকেটরক্ষক), আসেলা গুণারত্নে, মিলিন্দা সিরিবর্ধনে, সচিথ পাথিরানা, থিসারা পেরেরা, সুরঙ্গা লাকমল, লক্ষণ সান্দাকান ও লাহিরু কুমারা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ওয়ানডেতে মিরাজের অভিষেক 

222

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৫ মার্চ : শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে মাঠে নামার আগে সবার কৌতুহলি অপেক্ষা, স্পিনার কোটায় খেলবেন কে? মেহেদী হাসান মিরাজ, নাকি সানজামুল ইসলাম নয়ন। যেহেতু দুজনার কেউই আগে কখনো ওয়ানডে খেলেননি, তাই যেই খেলুন না কেন একজনের অভিষেক হবেই। এখন অভিষেকটা কার হবে, বাঁহাতি স্পিনার সানজামুলের, নাকি অফস্পিনার মিরাজের?

এদিকে জাগো নিউজের পাঠকরা আগেই জেনে গিয়েছিলেন সানজামুল নয় মিরাজেরই অভিষেক হচ্ছে। অবশেষে তাই দেখা গেল। বাংলাদেশের ১২৩তম ওয়ানডে ক্রিকেটার হিসেবে মিরাজের মাথায় টুপি পড়িয়ে দেন অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ। মূলত লঙ্কান ব্যাটিং অর্ডারে চার-পাঁচজন বাঁহাতি। এর মধ্যে টপ অর্ডারে উপল থারাঙ্গা, বিরাকোডির মত উইলোবাজও বাঁহাতে ব্যাট করেন। তাই অনেক ভেবে চিন্তে বাঁহাতি সানজামুলকে বাইরে রেখে সম্ভবত ডানহাতি অফব্রেক বোলার মিরাজকে খেলানোর সিদ্ধান্ত।

সাকিব আল হাসানের সঙ্গে খুলনার এ ২০ বছর বয়সী যুবাকেই হয়তো স্পিন আক্রমণ সামলাতে দেখা যাবে। টিম কম্বিনেশন আগেই মোটামোটি ঠিক সাত ব্যাটসম্যান। তিন পেসার আর অলরাউন্ডার সাকিবকে ব্যাটসম্যানের পাশাপাশি স্পিনার ধরে দুই স্পিনার। সাত ব্যাটসম্যান কোটায় কারা খেলবেন, তা নিয়ে কোন সংশয় নেই। দ্বিতীয় স্পিনার ঠিক করার পাশাপাশি মাশরাফি ও মোস্তাফিজের সঙ্গে তৃতীয় সিমার হিসেবে কাকে খেলানো হবে, তাসকিন না শুভাশিস- তা নিয়ে খানিক সংশয় ছিল। শুভাশিস একটু শারীরিক সমস্যার কারণে শুক্রবার শেষ প্র্যাকটিস সেশনে বোলিং-ব্যাটিং বা ফিল্ডিং কিছুই করেননি। একদম শেষ মুহূর্তের খবর- তৃতীয় পেসার হিসেবে মাঠে নামতে যাচ্ছেন তাসকিন আহমেদ।

বাংলাদেশ একাদশ
তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহীম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান ও তাসকিন আহমেদ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ 

333

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৫ মার্চ : ডাম্বুলায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে টস হেরে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ পেয়েছে বাংলাদেশ।

টসের পর মাশরাফি জানান, টস জিতলে তিনিও ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্তই নিতেন। সেদিক থেকে টসে হেরেও খুশি তিনি। এ পর্যন্ত ৩৮টি ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লড়েছে বাংলাদেশ। যার মধ্যে ৩৩টি ম্যাচে জয় পেয়েছে লঙ্কানরা, আর বাংলাদেশের জয় চারটি। একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে।

অন্যদিকে চোট কাটিয়ে ওয়ানডে দলে ফিরেছেন মুশফিকুর রহিম। ছন্দ ফিরে পাওয়া সৌম্য সরকার ফিরেছেন একাদশে।

নিউ জিল্যান্ডে খেলা তৃতীয় ওয়ানডের একাদশ থেকে বাদ পড়েছেন তিন জন। সৌম্য ফেরায় জায়গা হয়নি ইমরুল কায়েসের। চোট কাটিয়ে মুশফিক ফেরায় একাদশে নেই তরুণ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান। লেগ স্পিনিং অলরাউন্ডার তানবীর হায়দার স্কোয়াডেই নেই।

বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা, তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, মুস্তাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান মিরাজ।

এ পর্যন্ত ৩৮টি ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে লড়েছে বাংলাদেশ। যার মধ্যে ৩৩টি ম্যাচে জয় পেয়েছে লঙ্কানরা, আর বাংলাদেশের জয় চারটি। একটি ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বিসিবির কাছে সফরসূচি চেয়েছে অস্ট্রেলিয়া 

55

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৫ মার্চ : ২০১৫ সালের অক্টোবরে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ার দলের। কিন্তু নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে তারা সেই সফর স্থগিত করে দেয়। ২০১৬ সালের জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হয়েছিল আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ। নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে এই আসরেও দল পাঠায়নি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

তবে, সব শঙ্কা উড়িয়ে এই বছরই অনুষ্ঠিত হতে চলেছে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। আগামী জুনে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হবে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এই আসরের পরই বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া বিসিবির কাছে সফরসূচি চেয়েছে। সাম্প্রতিক জঙ্গি ইস্যু অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফরে কোনও প্রভাব ফেলবে না।

যদিও ২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে খেলতে আসেনি। কিন্তু এরপর অনেক দলই বাংলাদেশে খেলতে এসেছে। গতবছর বাংলাদেশে আইসিসি অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে, এশিয়া কাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইংল্যান্ড ও আফগানিস্তান এসে সিরিজ খেলে গেছে। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) অনুষ্ঠিত হয়েছে। ক্রিকেটের বাইরেও অনেক আন্তর্জাতিক ক্রীড়া ইভেন্ট সফলভাবে আয়োজন করেছে বাংলাদেশ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

টাইগারদের সম্ভাব্য একাদশ 

022

স্পোর্টস ডেস্ক, ২৫ মার্চ : শ্রীলংকার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ সময় বিকাল ৩টায় রনগিরি ডাম্বুলা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে শুরু হবে ম্যাচটি।

তবে এই স্টেডিয়ামে রয়েছে বাংলাদেশের হারের দুঃসহ স্মৃতি। সেই স্মৃতিকে পেছনে ফেলে জয় দিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ শুরু করতে চায় মাশরাফি বাহিনী।

এ লক্ষ্যে টাইগারদের সম্ভাব্য একাদশে লংকান দলের বিপক্ষে কার্যকরী এবং অভিজ্ঞ টাইগার সদস্যরাই মাঠে নামবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সর্বশেষ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলা ওয়ানডে দলের পরিবর্তন আসতে পারে আজকের ম্যাচে। লংকানদের বিপক্ষে আজকের দলে আগের একাদশের মধ্যে অন্তত দুটি পরিবর্তন আসতে পারে। খবর ক্রিকইনফোর।

আজকে দলের নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার মুশফিকুর রহিম আবার উইকেটের পেছনে ফিরছেন। এ কারণে বাদ পড়ছেন নুরুল হাসান। অন্যদিকে তানভির হায়দার এবারের ওয়ানডে স্কোয়াডে নেই।

এছাড়া মেহেদী হাসান মিরাজকে টেস্ট ম্যাচের পরে ইমার্জিং কাপ দলে রাখার পরেও তাকে আবার শ্রীলংকায় ফিরিয়ে নেয়ার ঘটনায় আশা করা যাচ্ছে তিনি আজকের ম্যাচে লংকানদের বিপক্ষে মাঠে নামবেন।

এছাড়া দু’জন পেসার খেলানোর সিদ্ধান্ত নিলে আজ মাঠে দেখা যেতে পারে স্পিনার সানজামুল ইসলামকেও।

এ অনুযায়ী বাংলাদেশ দলের সম্ভাব্য একাদশের মধ্যে আজ থাকতে পারেন- তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান, মাশরাফি বিন মুর্তজা, তাসকিন আহমেদ অথবা সানজামুল ইসলাম আর অবশ্যই কাটার মাস্টার মোস্তাফিজুর রহমান।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর