২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭
রাত ৩:১২, শুক্রবার

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লার তিনজনের মৃত্যু

সৌদি আরবে সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লার তিনজনের মৃত্যু 

896

সৌদি আরব, ১৪ সেপ্টেম্বর : সৌদি আরবে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় কুমিল্লার তিন প্রবাসীর মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটেছে। এতে আহত হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন আরো ২জন। তাদেরকে সৌদি আরবের একটি হাসপাতালে নিবীর পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

নিহতরা হলেন- কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার শ্রীমন্তপুর গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে কামাল হোসেন (২৮), একই গ্রামের মৃত ছায়েদ আলীর ছেলে মোহাম্মদ হোসেন (৪০) ও বরুড়া উপজেলার গইনখালী গ্রামের সেলিম মিয়া (৩৮)। আহতরা হলেন- চান্দিনার শ্রীমন্তপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে জাকির হোসেন ও আমিন মেম্বারের ছেলে শরীফ।

নিহতদের নিটকতম আত্মীয় চান্দিনার শ্রীমন্তপুর গ্রামের মাজহারুল ইসলাম জানান, মাত্র ৬ মাস পূর্বে কাজের তাগিদে সৌদি আরব যান কামাল হোসেন ও মোহাম্মদ হোসেন। সেখানে একই গ্রামের আমিন মেম্বারের ছেলে শরীফের সঙ্গে কাজ করছিল তারা। তারা সকলেই সৌদি আরবের দাম্মামে থাকতো।

১২ সেপ্টেম্বর সকালে প্রাইভেট যোগে সৌদি আরবের দ্বীযানের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার পর হাফার আল বাতেন রোডের নারীয়া এলাকার পৌঁছার পর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনা স্থলেই তিনজন নিহত হয়। গুরুতর আহতাবস্থায় শরীফ ও জাকিরকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের দুই জনের অবস্থাই আশঙ্কাজনক।

সৌদি আরব থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন তাদের নিকটতম আত্মীয় জিয়াউর রহমান। এদিকে, এ ঘটনার পর নিহতের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মালয়েশিয়ায় ছুরিকাঘাতে বাংলাদেশি নিহত 

82

কুয়ালালামপুর, ২০ আগস্ট : ইন্দোনেশিয়ার তিন নাগরিকের হামলায় ও ছুরিকাঘাতে মালয়েশিয়ায় শওকত আলী (৩০) নামে এক বাংলাদেশি শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

রবিবার স্থানীয় সময় সকাল পৌনে ৮টায় রাজধানী কুয়ালালামপুরের ব্যস্ততম এলাকা বুকিত বিনতাংয়ের জালান ইম্বি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শওকত আলীর গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার দাউদকান্দিতে বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে শওকত আলী জালান ইম্বির আল-মাহমুদিয়া রেস্টুরেন্টের সামনে ছিলেন। এ সময় ইন্দোনেশিয়ার তিন নাগরিক তাকে এলোপাতারি ছুরিকাঘাত করলে ঘটনাস্থলেই শওকত আলীর মৃত্যু হয়।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠায়।

তবে ঘটনার সূত্রপাত ও কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে তা জানা যায়নি।

আল-মাহমুদিয়া রেস্টুরেন্টের মালিক ফারুক জানান, শওকত তার রেস্টুরেন্টে কাজ করতেন। সকালে বাসা থেকে কর্মস্থলে আসার পথে ইন্দোনেশিয়ার তিন নাগরিক তার ওপর হামলা চালায়।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বৃটিশ হাইকোর্টে প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত বিচারপতি 

8

ঢাকা, ১৯ আগস্ট : বৃটিশ হাইকোর্টে প্রথম বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিচারক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন আখলাকুর রহমান চৌধুরী। রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ তাকে এ পদে নিয়োগ দিয়েছেন। তার নিয়োগ কার্যকর হবে ২রা অক্টোবর থেকে। বৃটিশ বিচার বিভাগকে উদ্ধৃত এ কথা বলা হয়েছে মিডিয়ার রিপোর্টে।

এতে বলা হয়েছে, শুক্রবার বিচার বিভাগ থেকে এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে। ওই ঘোষণায় বলা হয়েছে আখলাকুর রহমান চৌধুরীর বয়স এখন ৫০ বছর। তিনি ‘দ্য অনারেবল মিস্টার জাস্টিস চৌধুরী’ নামে পরিচিত হবেন। তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে রানীর বেঞ্চ ডিভিশনে।

এর আগে ২০১৪ সালে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত স্বপ্নারা খাতুনকে সার্কিট জাজ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। তার দায়িত্ব ছিল ক্রাউন অ্যান্ড ফ্যামিলি কোর্টের মামলার শুনানি করা। ওদিকে বিচারক চৌধুরী ১৯৯২ সালে যোগ দেন বারে। কুইন্স কাউন্সেল হিসেবে এ পর্যন্ত দু’জন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূতকে দায়িত্ব দেয়া হলো। তার মধ্যে বিচারক চৌধুরী অন্যতম।

তার আগে কুইন্স কাউন্সেলে নিয়োগ দিয়ে হয়েছিল আরেক বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত আজমালুল হোসেনকে। বিচারক আখলাকুর রহমান চৌধুরীকে ২০০৯ সালে রেকর্ডার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। ২০১৬ সালে তাকে হাইকোর্টের ডেপুটি জাজ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। দ্রুত তিনি কাজে দক্ষতা দেখান এবং তারই ধারাবাহিকতায় সরকারের নজরে পড়েন। এর ফলে দ্রুত পদোন্নতি পেতে থাকেন।

দীর্ঘদিন তিনি এটর্নি জেনারেলের অ্যাপ্রুভড কাউন্সিলে এ-প্যানেলের সদস্য ছিলেন। সেখানে তিনি পররাষ্ট্র ও কমনওয়েল অফিস, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থাকে মানবাধিকার থেকে বিভিন্ন ইস্যুতে পরামর্শ দিয়েছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

যুক্তরাষ্ট্রে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বাংলাদেশি নিহত 

7444

যুক্তরাষ্ট্র, ১৬ আগস্ট : যুক্তরাষ্ট্রে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।

স্থানীয় সময় গত ১৪ আগস্ট সোমবার রাত আটটার দিকে জর্জিয়ার অদূরে উইলকিংসন কাউন্টি এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। জর্জিয়া স্টেট পেট্রল পুলিশ এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

নিহত দুজন হলেন ইমতিয়াজ ইকরাম আলী (২৬) ও প্রাচিতা দত্ত টুম্পা (২৫)। তারা যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা শারলট বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করছিলেন।

একই দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরেক বাংলাদেশি ফারজানা সুলতানা টুসী। তিনি জর্জিয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তার সফলভাবে অস্ত্রোপচার হয়েছে বলে বন্ধুরা জানিয়েছেন।

ইকরাম, প্রাচিতা ও ফারজানা নর্থ ক্যারোলাইনা থেকে ফ্লোরিডা যাচ্ছিলেন। পথে দুর্ঘটনা ঘটে।

ইকরাম-প্রাচিতার বন্ধু ফাইরুজ সাকিব তানজিম জানান, দুই সপ্তাহ আগে ফারজানা যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা শারলট বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি করতে আসেন। দুই দিন আগে বাংলাদেশে তার বাবা মারা যান। এই খবর পেয়ে ফারজানা নর্থ ক্যারোলাইনা থেকে ফ্লোরিডায় তাঁর বোনের বাসার উদ্দেশে রওনা দেন। শোকার্ত ফারজানার সঙ্গে দুই বন্ধু ইমতিয়াজ ও প্রাচিতা ছিলেন। পথে দুর্ঘটনা ঘটে।

ফাইরুজ জানান, ২০১১ সালে তারা চার বন্ধু ঢাকায় মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজিতে (এমআইএসটি) অ্যারোনটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে পড়াশোনা শুরু করেন। পিএইচডি করতে তাঁরা ২০১৬ সালের আগস্টে একসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি জমান। -প্রথম আলো।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

নিউইয়র্কে বাংলাদেশি পুলিশ কর্মকর্তার আত্মহত্যা 

7811

নিউইয়র্ক, ১৪ আগস্ট : যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টে (এনওয়াইপিডি) কর্মরত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কর্মকর্তা নিজের পিস্তলের গুলিতে আত্মহত্যা করেছেন। স্থানীয় সময় রবিবার বিকালে ৩টায় কুইন্সে সেন্ট আলবেন্স এলাকার ১১৩ এভিনিউ ও ২০৫ স্ট্রিটের নিজ বাসার বেসমেন্টে আত্মহত্যা করেন তিনি।

নিহত হেমায়েত হোসেন সরকার (৩৭) নামে ওই পুলিশ কর্মকর্তা স্ত্রী ও সাড়ে তিন বছরের এক ছেলেসহ নিউইয়র্কের কুইন্স ভিলেজে বসবাস করতেন।

লাশ উদ্ধারের পর নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমকে আত্মহত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে কেন তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা জানানো হয়নি। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিটি মেডিকেল এক্সামিনারের অফিসে নেয়া হয়েছে।

খবর পেয়ে বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন এবং সহ-সভাপতি আব্দুল খালেক খায়েরসহ কমিউনিটি লিডার বাকির আজাদ ওই বাসায় যান এবং পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান।

জানা যায়, সিরাজগঞ্জ জেলার বাসিন্দা হেমায়েত সরকার যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন ২০০০ সালে। পুলিশ অফিসার পদে যোগ দেন ২০০৫ সালে। বাসায় তার বাবা এবং অপর ভাইয়েরাও সেখানে থাকেন। কেউই তার আত্মহত্যার কারণ খোঁজে পাচ্ছেন না।

পুলিশ ডিপার্টমেন্টের পক্ষ থেকে জানানো হয়, এ নিয়ে চলতি বছর মোট পাঁচ পুলিশ অফিসার আত্মহত্যা করলেন। গত বছর আত্মহত্যা করেছিলেন চার অফিসার এবং একজন স্কুল-সেইফটি অফিসার।

উল্লেখ্য, নিউইয়র্ক সিটিতে ৪৯ হাজার পুলিশ অফিসারের মধ্যে হাজারখানেক বাংলাদেশি রয়েছেন। এই প্রথম কোন বাংলাদেশি অফিসারের আত্মহত্যার ঘটনা ঘটলো।

উল্লেখ্য, গত রবিবার নিউইয়র্ক সিটির কুইন্স এলাকায় নাদিয়া আফরোজ সুমী (৩২) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

সৌদিতে আরও ৫ বাংলাদেশি হাজির মৃত্যু 

haji

ঢাকা, ১২ আগস্ট : চলতি বছর পবিত্র হজ পালন করতে সৌদি আরব যাওয়া আরও ৫ বাংলাদেশি মারা গেছেন। এনিয়ে শুক্রবার পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ১২ জনে।
এর মধ্যে একজন নারী ছাড়া বাকিরা সবাই পুরুষ।

বাধর্ক্যজনিত এবং হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ওই ৫ বাংলাদেশি হাজির মৃত্যু হয় বলে জানিয়েছে মক্কা বাংলাদেশ হজ অফিস।

তারা হলেন চাঁদপুর সদর উপজেলার মোঃ জাফর আহমেদ (৬২), তাঁর পাসপোর্ট নং BL0930817। ঢাকা জেলার দক্ষিণখানের শরিফা বেগম (৫২), তাঁর পাসপোর্ট নং BM0686571, বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার আবুল কাশেম মো. শাহজাহান (৬১), তাঁর পাসপোর্ট নং BM0668949। বগুড়া সদর উপজেলার আব্দুল গফুর শাহ (৬৭) তাঁর পাসপোর্ট নং BN0122204 এবং মুন্সিগঞ্জ উপজেলার লৌহজং উপজেলার বিল্লাল হোসেন (৫৭), তাঁর পাসপোর্ট নং AG4167554।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, চলতি বছর ৬৩৫টি এজেন্সির মাধ্যমে এক লক্ষ ২৭ হাজার ১৯৮ জন বাংলাদেশির হজ পালনের কথা রয়েছে।

শুক্রবার পর্যন্ত সৌদিয়া এবং বিমানের ১৭৬টি ফ্লাইটের মাধ্যমে ২৬ হাজার ২৫৩ জন বাংলাদেশি হজযাত্রী সৌদি আরবে পৌঁছেছেন। তারা বর্তমানে মক্কা এবং মদীনায় অবস্থান করছেন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৩০ আগস্ট সন্ধ্যায় মিনার উদ্দেশ্যে রওনা হওয়ার মাধ্যমে শুরু হবে এবছর হজের মূল আনুষ্ঠানিকতা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

বিএনপির প্রবাসী মনোনয়ন প্রত্যাশী যারা 

157

ঢাকা, ১০ আগস্ট : যাদের মেধা, শ্রমের বিনিময়ে আজ দেশের অর্থনীতির চাকা সচল, তারা জাতীয় রাজনীতিতে প্রতিনিধিত্ব করতে চাইবে এটাই স্বাভাবিক, এটাই যৌক্তিক। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের অনেক সাবেক তুখড় ছাত্রনেতা পেশার প্রয়োজনে প্রবাসে অবস্থান করলেও প্রত্যাকেই স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে রেখে যাচ্ছেন নিরবিচ্ছিন্ন রাজনৈতিক অবদান। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী বেশকিছু নাম সামনে আসছে। প্রায় ৫০ অধিক আসনে প্রবাসীরা মনোনয়ন যুদ্ধে অবতীর্ণ হবার সম্ভাবনা রয়েছে।

আসন্ন একাদশ জাতীয় নির্বাচনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীর তালিকায় উল্লেখযোগ্য প্রবাসীও রয়েছেন। এর অংশ হিসেবে তারা অনেকেই নিজ নিজ এলাকায় যোগাযোগ রক্ষাসহ বিভিন্ন দলীয় কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছেন। একদিকে প্রবাসের রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা পালনের পাশাপাশি এলাকার জনগণের কাছে নিজের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি করতে নানা কর্মকান্ড পরিচালনা করেছেন। একইসঙ্গে চলছে লবিং-তদবিরও। বিএনপির সংশ্লিষ্ট নেতাকর্মীরা জানান, দেশের ৩০০টি আসনের মধ্যে অন্তত ৫০টির অধিক আসনে প্রবাসী নেতৃবৃন্দ মনোনয়ন চাইবে।

সিলেট-৩ দক্ষিণ সুরমা-ফেঞ্জুগঞ্জ আসনে যুক্তরাজ্য বিএনপি সভাপতি ও লন্ডন সিটিজেন মুভমেন্ট এর আহ্বায়ক এম এ মালেক মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি বলেন, নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরী হলে বিএনপি একাদশ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে। আর এ ক্ষেত্রে আমি এই আসন থেকে মনোনয়ন চাইবো। নির্বাচনী প্রচারনার অংশ হিসেবে আমি দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে এলাকায় কাজ করছি।

রাজশাহী-৪ (বাগমারা) থেকে নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটির সিনিয়র সাইন্টিষ্ট, রাজশাহী মেডিকেলের সাবেক ভিপি এবং জিয়া পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. জাহিদ দেওয়ান শামীম মনোনয়ন প্রত্যাশী। জানতে চাইলে সাবেক ভিপি ড. শামীম বলেন, ছাত্রদলের রাজনীতির মাধ্যমে বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত। প্রবাসে রাজনীতি করার পাশাপশি নিজ নির্বাচনী এলাকায় দীর্ঘ দিন ধরে কাজ করছি। দলীয় চেয়ারপারসন মনোনয়ন দিলে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সব প্রস্তুতি আমার আছে।

বিএনপির নেতাকর্মীরা জানান, হবিগঞ্জ-২ (বানিয়াচং-আজমিরীগঞ্জ) আসনের আলোচনায় রয়েছেন কেন্দ্রীয় দলের নির্বাহী সদস্য ও সৌদি আরব বিএনপির সভাপতি আহমদ আলী মুকিব। জিয়া পরিবারের ঘনিষ্ট এই নেতা মনোনয়ন দৌড়ে বেশ এগিয়ে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

নোয়াখালী-৩ বেগমগঞ্জ আসনে বেলজিয়াম বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন বাবু মনোনয়ন চাইবেন। বিগত দিনে ইউরোপীয় ইউনিয়নে জনমত গঠনে কাজ করা তরুণ এ সংগঠক এলাকার উন্নয়নে কাজ করছেন বলে নেতাকর্মীরা জানান।

হবিগঞ্জ-৪ (চুনারিঘাট-মাধবপুর) আসন থেকে মনোনয়ন চাইবেন আয়ারল্যান্ড বিএনপি সভাপতি হামিদুল নাসির।

বগুড়া-৭ আসনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া নির্বাচন করেন। তবে আসন্ন নির্বাচনে জিয়া পরিবারের কেউ প্রার্থী না হলে বিকল্প প্রার্থী হিসাবে কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক জাপান প্রবাসী তরুণ কূটনৈতিক শাকিরুল ইসলাম শাকিল রয়েছেন আলোচনায়।

মৌলভীবাজার ১ (জুড়ী-বড়লেখা) আসনে কাতার বিএনপির সদস্য সচিব ও যুবদলের সাবেক সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শরিফুল হক সাজু মনোনয়ন চাইবেন।

রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ক্যালিফোর্নিয়া বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক অধ্যাপক শাহাদাৎ হোসেন শাহিন মনোনয়ন চাইবেন।এই সাবেক তরুন ছাত্রদল নেতা প্রবাসের রাজনীতির পাশাপাশি নিজ এলাকায় নির্বাচনী মাঠ গোছানোর জন্য কয়েক বছর ধরে এলাকায় কাজ করছেন। দলের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করছেন বলে তিনি জানান

খুলনা-৫ আসনে কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী সদস্য ও লন্ডন প্রবাসী ড. মামুন রহমান মনোনয়ন চাইবেন। লন্ডন থেকে তিনি জানান, আগামী নির্বাচনের জন্য পূর্ন প্রস্ততি তিনি নিয়েছেন।

বরগুনা-২ (বামনা-বেতাগী-পাথরঘাটা) আসনে রয়েছেন লন্ডন প্রবাসী নেতা ও কেন্দ্রীয় জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা শামীম আহমেদ। ন্যাশনালিস্ট অনলাইন ফোরামসংগঠনের সভাপতি এই।

সুনামগঞ্জ-২ দিরাই-শাল্লা আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী জার্মান বিএনপি সভাপতি আকুল মিয়া জানান, ওয়ান ইলেভেন পর থেকে ভঙ্গুর জার্মান বিএনপিকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী ও ঐক্যবদ্ধ রাখার জন্য কাজ করছি। বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে আমি মনোনয়ন চাইবো।

মৌলভীবাজার-৪ শ্রীমঙ্গল-কমলগঞ্জ আসনে লন্ডন প্রবাসী কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক মাহিদুর রহমান মনোনয়ন চাইবেন।

সুনামগঞ্জ-৩ জগন্নাথপুর দক্ষিণ সুনামগঞ্জ আসনে যুক্তরাজ্য বিএনপি সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদ।

সিলেট-৬ বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী লন্ডন বিএনপি সাবেক সভাপতি শাইস্তা চৌধুরী কুদ্দুস বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই দলটির সাথে সম্পৃক্ত রয়েছি। রাজনীতি করছি। দল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে আমি হাইকমান্ডের কাছে মনোনয়ন চাইবো।

কিশোরগঞ্জ-২ কটিয়াদি-পটিয়া আসনে সুইডেন প্রবাসী কেন্দ্রীয় সেচ্ছাসেবক দলের সাবেক আন্তর্জাতিক সম্পাদক শহিদুজ্জামান কাকন।

শরিয়তপুর-২ নরিয়া-শখিপুর আসনে সুইডেন বিএনপির প্রধান উপদেষ্টা মহিউদ্দিন জিন্টো।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়া-৪ (কসবা আখাউড়া) আসনে কানাডা প্রবাসী বিএনপি নেতা, বিশিষ্ট সাংবাদিক ক্যাপ্টেন (অবঃ) মারুফুর রহমান রাজুর নাম আলোচনায় আসছে।

লক্ষ্মীপুর-২ রায়পুর আসনে কুয়েত বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী মনজুরুল আলম।

টাঙ্গাইল-৪ কালিহাতী আসনে মালয়েশিয়া বিএনপির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার বাদলুর রহমান খান।

চাঁদপুর-২ আসনে যুক্তরাজ্য আইনজীবী ফোরামের নেতা ওবাইদুর রহমান টিপু মনোনয়ন চাইবেন।

কক্সবাজার মহেশখালী কুতুবদিয়া আসন থেকে অষ্ট্রেলিয়া বিএনপি আহবায়ক ব্যারিস্টার নাছির উল্যা মনোনয়ন চাইবেন।

মুন্সীগঞ্জ-১ শ্রীনগর সিরাজদিখান আসনে ডেনমার্ক বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক ও জার্মান বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক মুস্তাক খান মনোনয়ন চাইবেন।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মিশরে ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড, বাংলাদেশিসহ নিহত ৩ 

33

কায়রো, ১৪ জুলাই : মিশরের রাজধানী কায়রোর মার্গের খানকা এলাকায় বাংলাদেশি মালিকালাধীন এক সোয়েটার কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার ভোরে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এক বাংলাদেশিসহ তিনজন নিহত হয়েছেন।

বাংলাদেশি নিহত হাফেজ মাওলানা নুর মোহাম্মদ মানিকগঞ্জ জেলার বাসিন্দা। তিনি রাজধানীর মিরপুরস্থ এক মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ছিলেন।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার ভোর ৫টায় এই অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। খবর পেয়ে দ্রুত দমকল কর্মীরা কারখানার দেয়াল ভেঙে ভিতরে প্রবেশ করে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার আগেই এক বাংলাদেশিসহ তিনজনের মৃত্যু হয়।

মেইন গেট বাইরে থেকে বন্ধ করে মালিক বাচ্চু চাবি বাসায় নিয়ে গিয়েছিল বলে অনেকের অভিযোগ। তবে অগ্নিকাণ্ডের কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কারখানার মালিক বাচ্চুকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় মিশরীয় পুলিশ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

‘সমকামী মুসলিম’ হিসেবে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুবকের বিয়ে! 

36554

যুক্তরাজ্য, ১২ জুলাই : যুক্তরাজ্যের ‘প্রথম মুসলিম’ হিসেবে সমকামী বিয়ে করেছেনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুবক জাহেদ চৌধুরী। যুক্তরাজ্যের পশ্চিম মিডল্যান্ডের ওয়ালসাল শহরে জাহেদ চৌধুরী ও সিন রোগান বিয়ে করেন। মুসলিম সঙ্গীর অংশগ্রহণে এটিই যুক্তরাজ্যের প্রথম সমাকামী বিবাহ বলে দাবি করা হচ্ছে। খবর টেলিগ্রাফের।

খবরে বলা হয়, ওয়ালসাল শহরের বিবাহ রেজিস্ট্রি অফিসে পাঞ্জাবী-পাজামা পরে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন জাহেদ ও রোগান। তাদের বিয়ের ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে অনলাইনে। ওয়েস্ট মিডল্যান্ডসে বিয়ের পরে জাহেদ বলেছেন, ‘গোটা বিশ্বকে দেখাও যে তুমি চাইলে মুসলিম হয়েও সমকামী  হতে পারো। ‘

বিয়ের পর ২৪ বছর বয়সী জাহেদ মিডিয়াকে বলেন, পরিবারের কাছ থেকে সহায়তা পেতেন না তিনি। তা ছাড়া স্কুলে লাঞ্ছনার শিকার হতেন জাহেদ। এমনকি স্থানীয় মসজিদে তার প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ করা হয় বলেও জানান তিনি। পরবর্তীতে জাহেদ নিজের লিঙ্গ পরিবর্তনের চেষ্টা করেন। তার যৌণগত আচরণ পরিবর্তনের জন্য গার্লফ্রেন্ডের ব্যবস্থা করা হয়, পরিবার তাকে হজ্ব পালনে সৌদি আরবে নিয়ে যান। বাংলাদেশে এনেও ধর্মীয় নিয়ম-কানুন পালনে সচেষ্ট করা হয় তাকে। এক পর্যায়ে তিনি আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেন।

সে সময় রোগানের সাথে দেখা হয় তার। রোগানকে দেখে জীবনের মানে খুঁজে পান তিনি। তারা ২০১৫ সাল থেকে একসাথে থাকা শুরু করেন। পরবর্তীতে জাহেদ গত বছর স্বামী রোগানের জন্মদিনে তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন।

জাহেদের স্বামী ১৯ বছর বয়সী রোগান বলেন, প্রত্যেকটা পদক্ষেপে সঙ্গীর পাশে দাঁড়াবেন তিনি। তিনি বলেন, সমকামী হওয়া ভুল কিছু নয়। এটা কোন ধাপ নয়। মানুষের শুধু কিছুটা সমর্থণ দরকার।

এদিকে এ ঘটনার পর থেকে বৃটেনের মুসলিম কমিউনিটিতে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। অনেক মুসলিম পরিবার চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। এছাড়া বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, বৃটেনের মুসলিম কাউন্সিল, যা ৫শ’ টিরও বেশি সংগঠন ও মসজিদের প্রতিনিধিত্ব করে, ২০১৩ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েলসে চার্চ অফ ইংল্যান্ডের যৌন বিবাহের বৈধতার বিরোধীতা করে। এদিকে স্কটল্যান্ডে একই বিবাহের বৈধতা পায় কিন্তু উত্তর আয়ারল্যান্ডে বেআইনী হয়, যেখানে সরকার ও ডেমোক্রেটিক ইউনিয়ন বিরোধী দলের মধ্যে জোটের ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশের প্রেক্ষিতে প্রচারাভিযানীরা পরিবর্তনের দাবি জানাচ্ছে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মালয়েশিয়া প্রবাসীদের ভাগ্য নির্ধারণে বৈঠক আজ 

45588

ঢাকা, ১০ জুলাই : মালয়েশিয়া সরকার একাধিকবার দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাসরত শ্রমিকদের বৈধ হওয়ার সুযোগ দিলেও এখনো লাখ লাখ শ্রমিক বৈধ হতে পারেননি। এসব অবৈধ শ্রমিকদের বিরুদ্ধে এখন সাঁড়াশি অভিযান চালচ্ছে মালয়েশিয়া সরকার। তবে আটক অবৈধ শ্রমিকদের ভাগ্য নির্ধারণ হচ্ছে আজ সোমবার।

মালয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশের হাইকমিশন সূত্রে জানা গেছে, দেশটিতে আজ সোমবার বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের আটক বিদেশি শ্রমিকদের বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট দেশের প্রতিনিধিরা বৈঠকে বসছেন। ফলে দেশটিতে কর্মরত বিভিন্ন দেশের শ্রমিকদের ভাগ্যে আসলে কি ঘটতে পারে তা নির্ধারণ হতে পারে।

এদিকে, মালয়েশিয়ায় ধরপাকড় অভিযানে অসহায় হাজারো বাংলাদেশিদের নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কমিউনিটি নেতারা। তারা বলছেন, বিপদগ্রস্ত বাংলাদেশিদের পাশে সবার আগে বাংলাদেশ সরকারকেই এগিয়ে আসতে হবে। দেশটিতে চলমান সংকটে সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে কারো বসে থাকার সুযোগ নেই।

দেশটিতে গত এক সপ্তাহের সহস্রাধিক বাংলাদেশি গ্রেপ্তার হয়েছেন এবং হাজার হাজার বাংলাদেশি যেকোনো মুহূর্তে গ্রেপ্তার আতঙ্কে রয়েছেন। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে যত দ্রুত সম্ভব সক্রিয় ভূমিকা রেখে বিপদগ্রস্ত বাংলাদেশিদের দুর্দশা লাঘব এখনো সম্ভব বলে মনে তারা। এ ছাড়া গ্রেপ্তার হওয়া বাংলাদেশিদের মুক্তি এবং কাগজপত্রহীন সকল বাংলাদেশিদের সহজ শর্তে বৈধ করে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন কমিউনিটি নেতারা।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

ফিরতে হবে ১০ লাখ প্রবাসীকে 

75

ঢাকা : হঠাৎ করেই বিশ্বের কয়েকটি দেশে থাকা প্রায় ১০ লাখ বাংলাদেশি কর্মী সংকটে পড়েছেন। এর বেশির ভাগেরই অবশ্য ভিসার মেয়াদ উত্তীর্ণ বা ভিন্ন পদ্ধতিতে ওসব দেশে গিয়ে অবৈধভাবে অবস্থান করছেন। এর মধ্যে মালয়েশিয়ায় প্রায় ৩ লাখ বাংলাদেশি যে কোনো মুহূর্তে গ্রেফতারের আতঙ্কে ভুগছেন। সৌদি আরবে কাজ হারানো ও গ্রেফতার হয়ে দেশে ফেরার শঙ্কা তৈরি হয়েছে ২ লক্ষাধিক বাংলাদেশির। বিশ্ব রাজনীতির মারপ্যাঁচে বিপাকে পড়েছেন কাতারে থাকা ৩ লাখ বাংলাদেশি। ভিসার সমস্যায় চরম সংকটে আছেন আরব আমিরাতে থাকা ৫ লক্ষাধিক বাংলাদেশি।

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে অবৈধভাবে বসবাস করছেন বলে ৯৩ হাজার বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে দেওয়ার চাপ কঠোর থেকে কঠোরতর করার চেষ্টা করছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন। ইউরোপে যাওয়ার লোভে তুরস্ক গিয়ে পৌঁছানো ২ হাজার বাংলাদেশি সেখানে আছেন বন্দীদশায়। বিপত্সংকুল জেনেও ইউরোপে যাওয়ার আরেক পথ হিসেবে লিবিয়াকে বেছে নেওয়া কয়েক হাজার ভাগ্যান্বেষী রয়েছেন চতুর্মুখী শঙ্কায়। এমন পরিস্থিতিতে আগামী কয়েক বছরে সব মিলিয়ে প্রায় ১০ লাখ বাংলাদেশিকে দেশে ফিরতে হবে বলে মনে করছেন জনশক্তি রপ্তানিসংশ্লিষ্টরা।

অভিবাসনসংশ্লিষ্টরা বলছেন, অবৈধ পথে অদক্ষ কর্মীদের প্রতারণার মাধ্যমে বিদেশে পাঠানোর পথ ধীরে ধীরে রুদ্ধ হয়ে আসছে। এদের ফিরিয়ে এনে বৈধ পথে নতুন কর্মী পাঠানোর সুপারিশও করছেন কেউ কেউ। জানা যায়, মালয়েশিয়ায় অবৈধ বিদেশি কর্মী ধরতে সরকারি অভিযান জোরদার। তাই সেখানে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে ৩ লাখ বাংলাদেশিকে। তারা কাজেও যেতে পারছেন না, বাসায়ও থাকতে পারছেন না। ৩০ জুন মধ্যরাত থেকে শুরু হওয়া এ সাঁড়াশি অভিযানে ইতিমধ্যেই ২ হাজার অবৈধ কর্মী গ্রেফতার হয়ে কারাগারে গেছেন। এখনো মালয়েশিয়ার অলিগলি, প্রতিটি শহর ও গ্রামে একযোগে অভিযান চালাচ্ছে সরকার। এতে বৈধ কাগজপত্র না থাকা বিদেশিরা আতঙ্কে রয়েছেন। এ অবৈধ বিদেশির তালিকার একটি বড় অংশ বাংলাদেশি। এখন মালয়েশিয়ার দেওয়া সুযোগ গ্রহণ করে জেল ছাড়াই দেশে ফিরে আসতে পারবেন বাংলাদেশিরা। জরিমানা দিয়ে এ সুযোগ গ্রহণ না করলে কারাগারে যেতে হতে পারে অবৈধভাবে অবস্থান করা কর্মীদের।

সূত্রমতে, বর্তমানে ১৩ লাখ বাংলাদেশি সৌদি আরবে বিভিন্ন পেশায় কাজ করছেন। রয়েছেন ৬০ হাজার নারী গৃহকর্মী। এ হিসেবে সৌদি আরবই বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় শ্রমবাজার। কিন্তু এখানেও কমপক্ষে ২ লাখ বাংলাদেশি রয়েছেন কাগজপত্রবিহীন বা অবৈধ। অবৈধদের বহিষ্কারে তৎপর সৌদি পুলিশ। পালিয়ে বেড়াতে হয় তাদের। সর্বশেষ ২৯ মার্চ থেকে তিন ধরনের অবৈধদের জন্য জেল-জরিমানা ছাড়া দেশে ফেরার সুযোগ দিয়েছে সৌদি সরকার। চলতি মাসেই শেষ হচ্ছে এ সুযোগ। এরপর সেখানেও চলবে সাঁড়াশি অভিযান। নদীর স্রোতের মতো সৌদি আরব যাওয়া বাংলাদেশির অনেকেই কোনো নির্দিষ্ট কাজ ছাড়াই ফ্রি ভিসার নামে ওমরাহ বা ট্যুরিস্ট ভিসায় থাকছেন দেশটিতে। তাদের অনেকেই ঘুরছেন রাস্তায় রাস্তায়। এখন নতুন করে অনেক প্রতারক এজেন্সি ভুয়া কোম্পানির নামে ভিসা ইস্যু করে নিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশিদের। আগামী মাসে অভিযান শুরু হলে এদের প্রত্যেকেই পড়বেন বিপাকে। দেশের তৃতীয় বৃহত্তম শ্রমবাজার কাতারে নতুন শ্রম আইন সংকটে ফেলেছে প্রায় ৩ লাখ বাংলাদেশিকে।

এ আইনে বলা হয়েছে, অনুমতি ছাড়া কোনো শ্রমিককে নিয়োগদাতা অন্য কাজে লাগাতে পারবেন না। এ আইন অমান্য করলে ৫০ হাজার কাতার রিয়াল জরিমানা ও তিন বছর কারাদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। এতে দেশটিতে অভিবাসী তার সুবিধামতো মালিক পরিবর্তন করতে পারছেন না। এদিকে কাতারের সঙ্গে সৌদি জোটের বেশ কয়েকটি দেশের সম্পর্ক ছিন্নের কারণে অনেক বাংলাদেশির মধ্যেই আতঙ্ক কাজ করছে। তারা মনে করছেন এতে তাদের ওপর প্রভাব পড়বে। তাদের চাকরিচ্যুত করা হতে পারে। অন্যদিকে, নতুন ভিসা ইস্যু না করা এবং ‘আকামা’ পরিবর্তনের সুযোগ না থাকায় চরম সংকটে আছেন আরব আমিরাতের বাংলাদেশিরা। তারা না পারছেন ফিরতে, না পারছেন নতুন কাজে যোগ দিতে। এক ধরনের মানবেতর জীবনযাপন করছেন আমিরাত প্রবাসীরা। অন্যদিকে, বিশ্বের পরিবর্তিত পরিস্থিতি বিপাকে ফেলেছে ইউরোপ ও আমেরিকার মতো উন্নত দেশগুলোয় এত দিন নির্বিঘ্নে থাকা কাগজপত্রবিহীন বাংলাদেশিদের। অবৈধ অবস্থানকারী প্রত্যেক ব্যক্তিকে নিজ দেশে পাঠানোর নতুন অভিবাসন নীতি নিয়েছে ইউরোপ।

ইইউ কর্মকর্তা বলছেন, ইউরোপের দেশগুলোয় কমপক্ষে ৯৩ হাজার অবৈধ বাংলাদেশি আছেন এবং বাংলাদেশকেই তাদের ফেরত আনতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নতুন সরকার শুরু করেছে ধরপাকড়। ফলে যুক্তরাষ্ট্রে কাগজপত্রবিহীন অবস্থান করা কমপক্ষে ২০ হাজার বাংলাদেশি সর্বদাই থাকছেন গ্রেফতার আতঙ্কে। প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) জাবেদ আহমেদ এ প্রতিবেদককে বলেছেন, ‘নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিত করার অংশ হিসেবে বৈধ পথে অভিবাসনে বিশ্বাস করে বাংলাদেশ। এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক সনদে স্বাক্ষরকারী বাংলাদেশ অঙ্গীকারবদ্ধ। এর পরও কিছু প্রতারণার কারণে বাংলাদেশিরা অবৈধ হয়ে যাচ্ছেন। তাদের হয়তো ফিরতে হবে। তবে তারা যেন ফিরে আবার যেতে পারেন সে বিষয়ে ওই দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা আছে। এর ইতিবাচক সমাধানের বিষয়ে আমরা আশাবাদী। ’ তিনি জানান, বৈদেশিক কর্মসংস্থান বৃদ্ধি, নিরাপদ অভিবাসন নিশ্চিতকরণ ও অভিবাসন ব্যবস্থাপনা খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে বেশকিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, যার অন্যতম হলো ডাটাবেজে অন্তর্ভুক্ত কর্মীদের মধ্য থেকে শ্রমিক প্রেরণ। কোনো শ্রমিক নিবন্ধন না করে বিদেশ গেলে সরকার তার দায়দায়িত্ব নেবে না।

মালয়েশিয়ায় ৮০০ বাংলাদেশিসহ আটক ২ সহস্রাধিক : মালয়েশিয়ায় অব্যাহত সাঁড়াশি অভিযানে গত দুই দিনে বাংলাদেশিসহ ২ শতাধিক অবৈধ শ্রমিক আটক করেছে ইমিগ্রেশন পুলিশ। কুয়ালালামপুর ও এর আশপাশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। ৩০ জুন মধ্যরাতে শুরু হওয়া এ অভিযানে গতকাল পর্যন্ত প্রায় ২ হাজার ৭০০ অবৈধ শ্রমিক আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে ৮০০-এরও অধিক বাংলাদেশি শ্রমিক রয়েছেন। তবে ১ থেকে ৫ জুলাই পর্যন্ত ৭০৩ জন বাংলাদেশি শ্রমিক আটক হয়েছেন বলে হাইকমিশনসূত্রে জানা গেছে।

দেশটির অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার আলী বলেন, ১৫ ফেব্রুয়ারি অবৈধ শ্রমিকদের নিবন্ধন শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত তারা ৪০টি ভুয়া ই-কার্ডের সন্ধান পেয়েছেন। তথাকথিত যেসব এজেন্ট ভুয়া ই-কার্ড ইস্যুর উদ্যোগ নিচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে একজন বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে। তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ৮টি ভুয়া ই-কার্ড।

মুস্তাফার আলী আরও বলেন, ভুয়া ই-কার্ড দেখতে হয়তো একই রকম। কিন্তু এতে যে কুইক রেসপন্স কোড (কিউআর) আছে তা নকল করা সম্ভব নয়। এ ছাড়া আঙুলের ছাপ, আসল-নকল পদ্ধতি ইমিগ্রেশনে রয়েছে। দেশটির জাতীয় সার্বভৌমত্ব রক্ষায় অভিবাসন কর্তৃপক্ষ কঠোর অবস্থানে রয়েছে বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ঘোষণা করার পর সর্বশেষ ২৬ হাজার ৯৫৭ নিয়োগকর্তার মাধ্যমে প্রায় আড়াই লাখ অবৈধ কর্মী ই-কার্ডের আবেদন করেন। ১ লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জনের ই-কার্ড করা হয়েছে, যা লক্ষ্যমাত্রার ২৩ শতাংশ। ইমিগ্রেশন বিভাগ ৬ লাখ ই-কার্ড করার আশা করেছিল। লক্ষ্য পূরণে ১ জুলাই থেকে নিয়োগকর্তা ও অবৈধ কর্মীদের গ্রেফতার এবং শাস্তির জন্য কাজ শুরু করেছে ইমিগ্রেশন বিভাগ।

তিনি আরও বলেন, অবৈধ কর্মীদের জন্য নতুন করে ‘থ্রি প্লাস ওয়ান’ পদ্ধতিতে দেশে ফেরার সুযোগ করে দিয়েছে মালয়েশিয়া সরকার। এ পদ্ধতিতে যে কোনো অবৈধ বিদেশি শ্রমিক ৪০০ রিঙ্গিত জরিমানা এবং কুয়ালালামপুর-ঢাকা বিমানের টিকিট নিয়ে পুত্রাজায়ার ইমিগ্রেশনে গেলেই দেশে ফেরার জন্য সুযোগ দেওয়া হবে। তবে ফ্রি প্লাস ওয়ান পদ্ধতি কত দিন থাকবে তা জানা যায়নি। এ অবস্থায় আতঙ্কিত না হয়ে বৈধ হওয়ার সুযোগ নিতে হাইকমিশনে যোগাযোগের পরামর্শ দিয়েছে প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয়। এ অভিযানে শ্রমবাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিকভাবে ইমেজ সংকটেও পড়ছেন প্রবাসীরা। -বাংলাদেশ প্রতিদিন

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

তুরস্কে আটকা পড়েছে ২০০০ বাংলাদেশি 

89

ঢাকা, ৫ জুলাই : অবৈধভাবে ইউরোপে যাওয়ার চেষ্টায় প্রায় ২০০০ বাংলাদেশি তুরস্কে আটকা পড়েছেন। তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আল্লামা সিদ্দিকীকে উদ্ধৃত করে সরকারি তথ্য অধিদপ্তর এ তথ্য জানিয়েছে।

তথ্যবিবরণীতে বলা হয়, তুরস্ক হয়ে যেসব বাংলাদেশি অবৈধভাবে ইউরোপে ঢোকার চেষ্টা করছেন তাদের রাষ্ট্রদূত এবং দূতাবাসের তরফে এরইমধ্যে সতর্ক করা হয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ, বিশেষ করে ইরান, লেবানন ও জর্ডানে বৈধভাবে কমর্রত বাংলাদেশিদের অনেকের মধ্যে ইউরোপে অনুপ্রবেশের আশায় তুরস্কে যাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। অবৈধ অনুপ্রবেশের চেষ্টা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।

আঙ্কারা দূতাবাস ও ইস্তাম্বুল কনস্যুলেটের হিসাব মতে, দেশটিতে এ মুহূর্তে ২০০০ বাংলাদেশি আটকা রয়েছেন। এদের অনেকে সমুদ্র পাড়ি দিয়ে ইউরোপে যাওয়ার চেষ্টার সময় মারা যাচ্ছেন। অনেকে তুরস্কে মানব পাচারকারী দলের হাতে পড়ে সর্বস্ব খুইয়েছেন। সম্প্রতি ইস্তাম্বুলে একজন মারাও গেছেন। তুরস্কের সঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বিদ্যমান অভিবাসন চুক্তির আওতায় ইউরোপে পাড়ি জমানো অসম্ভব, তাই এ ধরনের অপচেষ্টা অর্থহীন।

বাংলাদেশি নাগরিকরা তুরস্কে বিভিন্ন সংঘবদ্ধ দলের খপ্পরে পড়ে অর্থের লোভে বিভিন্ন সন্ত্রাসমূলক কাজে জড়িত হচ্ছেন। ইউরোপে যেতে ইচ্ছুক বাংলাদেশিদের এ ধরনের অবৈধ অভিবাসনের ঝুঁকির বিষয়ে আরো সচেতন ও সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দেন রাষ্ট্রদূত।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মালয়েশিয়ায় ৫১৫ বাংলাদেশি আটক 

96

কুয়ালালামপুর, ২ জুলাই : মালয়েশিয়ায় অবৈধ বিদেশি শ্রমিকদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযানের প্রথম দিন এক হাজার ৩৫ জনকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে ৫১৫ জন বাংলাদেশি শ্রমিক রয়েছেন।

রবিবার মালয়েশিয়ার দ্য স্টার অনলাইন এ খবর দিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, আটকদের মধ্যে ১০১ জন নারী, তিনজন শিশু ও ১৬ জন স্থানীয় নিয়োগকারী রয়েছেন। মালয়েশিয়ার অভিবাসন কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুস্তাফার আলী বলেন, ‘দেশজুড়ে ১৫৫টি স্থানে অভিযান চালানো হয়। তিন হাজার ৩৯৩ জন সন্দেহভাজন বিদেশির কাগজপত্র পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষা শেষে এক হাজার ৩৫ জন অবৈধ বিদেশি শ্রমিককে আটক করা হয়।’

তিনি বলেন, ‘আটক হওয়া অবৈধ বিদেশি শ্রমিকের মধ্যে বাংলাদেশিরাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। এই সংখ্যা ৫১৫ জন। এছাড়া ইন্দোনেশিয়ার ১৩৫ জন, মিয়ানমারের ১০২ জন, ফিলিপাইনের ৫০ জন, থাইল্যান্ডের ৫ জন, ভিয়েতনামের দু’জন ও বাকিরা অন্যান্য দেশের নাগরিক।’

মালয়েশিয়ার অভিবাসন কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক জানান, ই-কার্ডের জন্য আবেদন করার সময়সীমা না বাড়ানোর সিদ্ধান্তের বিষয়ে তার বিভাগ অনড় অবস্থান নিয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আবেদনের জন্য পর্যাপ্ত সময় দেওয়া হয়েছে। ফলে সময়সীমা নতুন করে বাড়ানোর কোনো কারণ নেই। এই বিষয়ে চাকরিদাতা ও অবৈধ শ্রমিকদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। এখন থেকে প্রতিদিনই অভিযান চালানো হবে।’

শুক্রবার মধ্যরাতে সাময়িক বৈধতার জন্য মালয়েশিয়া সরকার ঘোষিত এনফোর্সমেন্ট কার্ডের (ই-কার্ড) জন্য আবেদন করার সময়সীমা শেষ হয়। এরপরই বড় ধরনের অভিযানে নামে দেশটির অভিবাসন কর্তৃপক্ষ।

এর আগে চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি ই-কার্ডের জন্য আবেদন শুরু হয়েছিল।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন মন্ত্রণালয়ের তথ্যানুযায়ী, দেশটিতে প্রায় ৬ লাখ অবৈধ বিদেশি শ্রমিক অবস্থান করছেন। এ পর্যন্ত আবেদন করেছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ৫৬ জন, অর্থাৎ মাত্র ২৩ শতাংশ।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মালয়েশিয়ায় ৩ লাখ অবৈধ বাংলাদেশীর ঘুম হারাম 

03

কুয়ালালামপুর : মালয়েশিয়া সরকার দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাসকারী বিদেশী শ্রমিকদের ই-কার্ডের (অস্থায়ী পারমিট) মাধ্যমে বৈধ হওয়ার সুযোগ দিলেও সেটি নিতে ব্যর্থ হয়েছেন বহু বিদেশী শ্রমিক। এর মধ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের হিসাবে আড়াই থেকে তিন লাখ শ্রমিক রয়েছে বাংলাদেশী। গত ৩০ জুন ই-কার্ড নিবন্ধনের মেয়াদ শেষ হয়েছে। এরপরই শুক্রবার মধ্যরাত থেকে পুলিশ ও ইমিগ্রেশনের সমন্বয়ে যৌথভাবে অবৈধ শ্রমিক ধরপাকড় অভিযান শুরু হয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাজধানী কুয়ালালামপুর, জহুরবারুসহ বিভিন্ন এলাকার ফ্যাক্টরি ও রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে, বাসাবাড়িসহ বিভিন্ন স্থানে ঝটিকা অভিযান চালিয়ে কাগজপত্রবিহীন শত শত অবৈধ কর্মীকে আটক করার সংবাদ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে কুয়ালালামপুরের পেটালিং জায়ার ডরমিটরিতে চালানো অভিযানের নেতৃত্ব দিয়েছেন দেশটির ইমিগ্রেশন পুলিশের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মুস্তাফার আলী। ওই অভিযানে আটক ২৩৯ জনের মধ্যে কাগজপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ৫১ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়। তার মধ্যে ৩৯ জনই বাংলাদেশী নাগরিক বলে হাইকমিশন সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

ইমিগ্রেশন মহাপরিচালক মুস্তাফার আলী অভিযানের ব্যাপারে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, বেশির ভাগ শ্রমিক আসবাবপত্র-প্লাস্টিক উৎপাদন কারখানাগুলোতে কাজ করছিলেন। আমরা দেশের স্বার্থ ও সার্বভৌমত্ব রা করতে এই অভিযান পরিচালনা করেছি।

মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশনের উদ্ধৃতি দিয়ে কুয়ালালামপুর থেকে আতঙ্কিত বাংলাদেশীরা শনিবার এ প্রতিবেদককে টেলিফোনে জানান, তারা ই-কার্ড করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। কিন্তু ইমিগ্রেশন অফিসে যাওয়ার সময় পুলিশের হাতে যদি গ্রেফতার হয়ে যান, এমন আতঙ্কের কারণেই তারা আবেদন করতে পারেননি। অনেকে আবার গাফেলতিও করেছেন। এখন দেখছি পরিস্থিতি খুবই জটিল। শুনছি পুলিশ ইমিগ্রেশন এখন পুরো মালয়েশিয়ার ঘরে ঘরে ঢুকে অভিযান চালানোর ঘোষণা দিয়েছে। সময়ও নাকি আর বাড়াবে না। তাই এখন নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে কুয়ালালামপুর ছাড়ার চিন্তা করছি।

গতকাল দুপুরে কুয়ালালামপুর কিলাং এলাকায় স্টুডেন্ট ভিসায় পাড়ি জমানো এস এম আকাশ এ প্রতিবেদককে বলেন, মালয়েশিয়ায় এর আগেও অবৈধদের বৈধ হওয়ার সুযোগ দিয়েছিল সরকার। তখন হাজার হাজার অবৈধ শ্রমিক বৈধ হওয়ার জন্য দালালদের হাতে লাখ লাখ রিংগিট দিয়েছিলেন। কিন্তু ওইবার অনেকেই বৈধ হওয়ার বদলে প্রতারিত হয়েছিলেন। তাই এবার সরকার এক বছরের জন্য অস্থায়ী কার্ড (ই-কার্ড) করার সুযোগ দিলেও সেটিকে অনেকেই পাত্তা দেয়নি। তারপরও এক থেকে দেড় লাখ অবৈধ শ্রমিক ই-কার্ডের আওতায় এসেছে। এখনো পুরো মালয়েশিয়ায় আড়াই থেকে তিন লাখ বাংলাদেশী অবৈধ শ্রমিক ই-কার্ডের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। এখন তাদের সবার ঘুম হারাম। তিনি বলেন, আমারও এবার ই-কার্ড করার ইচ্ছা ছিল না। কারণ এর আগে আমিসহ অনেকেই দালালদের কাছে ৫-৭ হাজার রিংগিট পর্যন্ত তুলে দিয়েছিলাম। অপেক্ষায় ছিলাম এবার বৈধ হচ্ছি। কিন্তু পরে দেখছি দালালরা আর তাদের ফোনই ধরছে না। যাক কপাল ভালো এবার শেষ সময়ে কিভাবে আমি ই-কার্ডের আবেদন করে ফেলেছি। এরপর বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে পাসপোর্টও হাতে পেয়েছি। তাই এখন বুক ফুলিয়ে মালয়েশিয়ায় চলাফেরা করতে পারব বলে মনকে সান্ত্বনা দিতে পারছি।

গত রাতে মালয়েশিয়ার কোতারায়া থেকে ব্যবসায়ী জামিল হোসেন এ প্রতিবেদককে বলেন, মালয়েশিয়া সরকার এবার খুবই কঠোর অবৈধ শ্রমিকদের ব্যাপারে। ই-কার্ড করতে নিবন্ধনের মেয়াদ শুক্রবার শেষ হওয়ার পর থেকেই ধরপাকড় শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, এবার অবৈধ শ্রমিক ধরতে তারা (পুলিশ ইমিগ্রেশন) ডোর টু ডোর অভিযান চালাবে বলে শুনছি।

মালয়েশিয়া সরকারের ‘প্রোগ্রাম ই-কার্ডে’ উল্লেখ রয়েছে, কোনো অবৈধ শ্রমিক যদি কোম্পানি থেকে গ্রেফতার হয় তাহলে মালিকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা ছাড়াও জরিমানা করা হবে। ৫ হাজার থেকে ১০ হাজার রিংগিট জরিমানা করা হবে। প্রয়োজন অনুযায়ী সেটি ৫০ হাজার রিংগিটও হতে পারে। অপর দিকে আদালতের নির্দেশে জেল জরিমানার পর অবৈধ শ্রমিককে ১ থেকে সর্বোচ্চ ৬টি (রোতান) বেত্রাঘাত দেয়া হবে।

এ দিকে দ্য মাস্টার বিল্ডার্স অ্যাসোসিয়েশন মালয়েশিয়া (এমবিএএম) সরকারের কাছে ই-কার্ডের মেয়াদ ২০১৮ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানোর জন্য আবেদন করেছে। অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, বিদ্যমান সমস্যার সমাধান এবং ধীরগতি প্রক্রিয়া থেকে বের হয়ে সহজ ও দ্রুত ই-কার্ড করতে ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্টকে তারা সহযোগিতা করবে। তারা আশা করে ই-কার্ড করার প্রক্রিয়া সহজ করা হলে নিয়োগকর্তারা অবৈধ কর্মীদের ই-কার্ড করাতে উদ্বুদ্ধ করবেন। উল্লেখ্য, ই-কার্ড করার েেত্র নিয়োগকর্তাকে কর্মীদের নিয়ে ইমিগ্রেশনে যেতে হয়, তখন কোম্পানির আয়-ব্যয়সহ যাবতীয় তথ্য দিতে হয়। এ ছাড়া ইমিগ্রেশনের ধীরগতির কারণে নিয়োগকর্তারা ই-কার্ড করতে উৎসাহিত হন না। অভিযোগ রয়েছে শ্রমিকেরা ই-কার্ড করার জন্য ৫০০ থেকে ১ হাজার রিংগিট পর্যন্ত খরচ করছেন। অথচ মালয়েশিয়া সরকার ই-কার্ড ফ্রি করার ঘোষণা দিয়েছে।

এর আগে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের হাইকমিশনার এ কে এম শহীদুল ইসলাম এ প্রতিবেদককে বলেছিলেন, মালয়েশিয়ায় বর্তমানে ৪ লক্ষাধিক অবৈধ শ্রমিক থাকতে পারে। এর মধ্যে দেড় থেকে পৌনে দুই লাখ শ্রমিক ই-কার্ডের জন্য আবেদন করেছেন। বাকিরাও যাতে দ্রুত আবেদন করেন সেজন্য তিনি অবৈধ শ্রমিকদের আহ্বান জানান। তিনি তাদের উদ্দেশ্য বলেছিলেন, শ্রমিকেরা যেন এবারের সুযোগ কোনোভাবেই হাতছাড়া না করেন। যদি কোনো কারণে সুযোগ না নেন তাহলে তাদের সমস্যা হতে পারে।

এক প্রশ্নের উত্তরে হাইকমিশনার এ প্রতিবেদককে বলেছিলেন, আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি, যাতে অবৈধ শ্রমিকেরা বৈধতা লাভ করে সুন্দরভাবে এ দেশে কাজ করতে পারেন। তবে সবকিছু গুছিয়ে আনতে একটু সময় লাগছে। আশা করছি কিছুদিনের মধ্যে সবকিছু স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

অবৈধ অভিবাসীদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান শুরু
মালয়েশিয়া থেকে শামছুজ্জামান নাঈম জানান, মালয়েশিয়ায় বসবাসরত কাগজপত্রহীন অবৈধ অভিবাসীদের ধরতে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন কর্তৃপ। শুক্রবার মাঝ রাত থেকে শুরু হয় এই অভিযান। গতকাল ইনফোর্স কার্ডের (ই-কার্ড) মাধ্যমে নিবন্ধনের সময়সীমা শেষ হতেই এ সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপ।

চলতি বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে অবৈধ শ্রমিকদের ই-কার্ড নিবন্ধনের প্রক্রিয়া শুরু হয়। সময়সীমা শেষে বৃহস্পতিবার (২৯ জুন) দেখা যায় ১৪ হাজার ৫৪১ জন নিয়োগকারীর মাধ্যমে দুই লাখ ৬০ হাজার ৯৮১ জন নিবন্ধন করেছেন। এর মধ্যে ই-কার্ড ইস্যু করা হয়েছে এক লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জনের, যা মোট অবৈধ লোকের মাত্র ২৩ শতাংশ। দেশটির ইমিগ্রেশন বিভাগের ল্য ছিল প্রায় ছয় লাখ অবৈধ অভিবাসীকে ই-কার্ডের আওতায় নিবন্ধন করানো।

অবৈধ অভিবাসীদের নিবন্ধনের চিত্রে হতাশ ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার আলী শুক্রবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘ই-কার্ড নিবন্ধনের সময়সীমার ওপর আমি বহুবার জোর দিয়েছিলাম। এখন অবৈধ অভিবাসীদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু হবে এবং তাদের নিয়োগদাতাদেরও আইনের আওতায় আনা হবে। এমনকি যারা স্টুডেন্ট ভিসা নিয়ে আসা লোকদের চাকরি দিয়েছে তারাও রেহাই পাবে না।’

তিনি আরো জানান, মালয়েশিয়ায় সবচেয়ে বেশি অবৈধ শ্রমিক বসবাস করছে বাংলাদেশের। এরপর ইন্দোনেশিয়া, মিয়ানমার ও নেপালের নাগরিক রয়েছেন। তবে নিবন্ধনের আওতায় কতজন অবৈধ বাংলাদেশী শ্রমিক নিবন্ধিত হয়েছেন তার হিসাব এখনো পাওয়া যায়নি।
এদিকে শুক্রবার মধ্য রাতে কুয়ালালামপুরের পেটালিং জায়া ডরমিটরিতে অভিযান চালিয়ে ৫১ অবৈধ শ্রমিককে আটক করেছে দেশটির ইমিগ্রেশন পুলিশ। যার নেতৃত্ব দেন ইমিগ্রেশন পুলিশের মহাপরিচালক দাতুকে সেরি মুস্তাফার আলী।

অভিযানে ২৩৯ জনের কাগজপত্র যাচাই-বাছাইয়ের পর ৫১ জনকে আটক করা হয়। যার মধ্যে বেশির ভাগই বাংলাদেশী। অভিযানের পর মুস্তাফার আলী সাংবাদিকদের বলেন, বেশির ভাগ শ্রমিক আসবাবপত্র-প্লাস্টিক উৎপাদন কারখানাগুলোতে কাজ করছিলেন। আমরা দেশের স্বার্থ এবং সার্বভৌমত্ব রা করতে এ অভিযান চালিয়েছি।-নয়া দিগন্ত

Share This:

এই পেইজের আরও খবর

মালয়েশিয়ায় ৩২৯ বাংলাদেশি আটক 

588

ঢাকা, ২ জুলাই : মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসীবিরোধী অভিযানে ৩২৯ বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছে। বাংলাদেশি ছাড়াও দেশটিতে অভিযান চালিয়ে মোট ৭৫২ অভিবাসীকে আটক করা হয়েছে। অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক মুস্তাফার আলী স্থানীয় গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অবৈধ শ্রমিকের নিবন্ধনের জন্য ই-কার্ড (এনফোর্সমেন্ট কার্ড) গ্রহণে বেঁধে দেওয়া মেয়াদ শেষ হওয়ার পর শুক্রবার মধ্যরাত থেকে শনিবার বিকেল পর্যন্ত অভিযানে এই অভিবাসীদের আটক করা হয়। আটককৃতদের মধ্যে রয়েছেন মায়ানমার, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন ও ভারতেরও নাগরিক।

মালয় উপদ্বীপের বৃহত্তম রাজ্য জোহরের রাজধানী জোহর বাহরু, মালাক্কা প্রণালী পাড়ের শহর ক্লাং, কেদাহ রাজ্যের রাজধানী আলোর সেতার, কোটা বাহরু, প্রথম শহর মালাক্কা, পেরাক রাজ্যের রাজধানী ইপোহ, কুয়ালা তেরেঙ্গনু, পাহাংয়ের রাজধানী কুয়ানটান, সেরেমবান ও পেনাং রাজ্যের শহর জর্জটাউন এবং বোর্নিও দ্বীপের সারাবাক রাজ্যের রাজধানী কুচিং ও পূর্বাঞ্চলের সাবাহ রাজ্যের রাজধানী কোটা কিনাবালুসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

বাংলাদেশি আটক হয়েছেন জোহর বাহরু থেকে ১৭৫, আলোর সেতার থেকে ৫, কোটা বাহরু ১৩২, মালাক্কা থেকে ১১, ইপোহ থেকে ১, কুয়ান্টান থেকে ৪, সেম্বারান থেকে ১ জন।

অভিবাসন মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, দেশটিতে প্রায় ৬ লাখ অবৈধ শ্রমিক অবস্থান করছেন। এদের বৈধভাবে অবস্থানে ৩০ জুন রাত ৮টা পর্যন্ত ই-কার্ড সংগ্রহের নির্দেশনা দেওয়া হলেও সর্বমোট ১ লাখ ৫৫ হাজার ৬৮০ জন শ্রমিক ই-কার্ডের জন্য আবেদন করেন, যার হার ২৩ শতাংশ। এর মধ্যে সরবরাহ করা হয় ১ লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬টি কার্ড। হিসাব অনুযায়ী, প্রায় সাড়ে ৪ লাখ শ্রমিকই অবৈধভাবে অবস্থান করছেন এশিয়ার উন্নত দেশটিতে।

Share This:

এই পেইজের আরও খবর