২০ আগস্ট ২০১৭
সন্ধ্যা ৭:৪১, রবিবার

রায়ে দ্বিমত থাকলেও আদালতের প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল: আইনমন্ত্রী

রায়ে দ্বিমত থাকলেও আদালতের প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল: আইনমন্ত্রী 

3699

ঢাকা: সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর রায়ের প্রতি দ্বিমত থাকলেও আদালতের প্রতি আমরা শ্রদ্ধাশীল বলে মন্তব্য করেছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১২টায় সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আইনমন্ত্রী এ কথা বলেন।

আনিসুল হক বলেন, ‘রায়ে সংবিধানের ১১৬ অনুচ্ছেদ নিয়ে মাননীয় প্রধান বিচারপতি যে পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন, তাতে আমরা বিস্মিত হয়েছি। আমরা ধন্যবাদ জানাই চার বিচারপতিকে। তারা এ পর্যবেক্ষণে একমত হতে পারেননি।’

তিনি আরো বলেন, ‘ফ্যাক্ট ইন ইস্যুর বাইরে গিয়ে ১১৬ অনুচ্ছেদ সংবিধান পরিপন্থী আখ্যায়িত করে প্রধান বিচারপতি যে রায় দিয়েছেন, তা যুক্তি নির্ভর নয়। বরং আবেগ ও বিদ্বেষ তাড়িত।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, প্রধান বিচারপতির রায়ে যেসব আপত্তি ও অসংগতি রয়েছে সেগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এক্সপাঞ্জ করার উদ্যোগ নিব।’

তিনি আরও বলেন, ‘রাজনৈতিকভাবে নয়, আমরা আইনগতভাবে মোকাবিলা করবো। রায়ে আমরা সংক্ষুব্ধ। তবে রিভিউয়ের বিষয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘বিচার বিভাগের সাথে নির্বাহী বিভাগের দ্বন্দ্ব নেই। বরং বিচার বিভাগের স্বাধীনতা সুদৃঢ় করার জন্য সংবিধান সংশোধন করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

এদিকে বুধবার আইন কমিশন কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আইন কমিশনের চেয়ারম্যান সাবেক প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে আপিল বিভাগের দেওয়া রায়কে ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, অপরিপক্ক ও পূর্বপরিকল্পিত’ বলে মন্তব্য করেন।

তিনি বলেছেন, ‘মামলার মূল ইস্যুর বাইরে গিয়ে রায় এবং পর্যবেক্ষণে অনেক অযাচিত মন্তব্য করা হয়েছে, যা বাঞ্ছনীয় নয়।’

সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হক বলেন, ‘মূল সংবিধানে যেহেতু সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল ছিল না, সেহেতু এটা রাখা সংবিধান পরিপন্থী।’

প্রসঙ্গত, উচ্চ আদালতের বিচারকদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে নিতে ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর সংবিধানের ৯৬ অনুচ্ছেদ সংশোধনের প্রস্তাব জাতীয় সংসদে পাস হয়, যা ষোড়শ সংশোধনী হিসেবে পরিচিত। এরপর সুপ্রিমকোর্টে এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট ২০১৬ সালে সংবিধানের ওই সংশোধনী ‘অবৈধ’ ঘোষণা করেন। গত ৩ জুন আপিল বিভাগে হাইকোর্টের ওই রায় বহাল রাখেন, যার পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি  ১ আগস্ট ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

Share This:

পাঠকের মতামতঃ

comments

এই পেইজের আরও খবর